ঢাকা , ১৮ ২০১৯ ,

খাল ভরাটে জলাবদ্ধতায় তিন হাজার পরিবার

| ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ৭:১২ পূর্বাহ্ণ | আপডেট : ৩ জানুয়ারী, ২০১৯ ১২:৩৫ অপরাহ্ন
feature-top

শরীয়তপুর শহরের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খালটি প্রভাবশালীরা অবৈধভাবে দখল করে ভরাট করেছে। ফলে প্রায় ১০ বছর যাবত পৌর এলাকার তিন নম্বর ওয়ার্ডের চর পালং এলাকার প্রায় চারশ বিঘা ফসলি জমি পানির নিচে ডুবে আছে। এতে কমপক্ষে তিন হাজার পরিবার জলাবদ্ধতার শিকার হয়েছে।

চরপালং এলাকার ইদ্রিস মাদবর ও মোসলেম মিয়া বলেন, শরীয়তপুর পৌরসভা প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত হলেও তৃতীয় শ্রেণির কোনও সুযোগ-সুবিধা পায়নি এই এলাকার মানুষ। বিশেষ করে শরীয়তপুর পৌর শহরের পানি নিষ্কাশনের জন্য ঢাকা-শরীয়তপুর মহাসড়কের পাশ দিয়ে প্রবাহিত একমাত্র শরীয়তপুর-কোটাপাড়া খালটি প্রভাবশালীরা অবৈধভাবে দখল করে বড় বড় ইমারত তৈরি করেছে। ফলে পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ড এলাকার পানি নামতে পারছে না। কোটাপাড়া থেকে রাজগঞ্জ পর্যন্ত চরপালং এলাকায় প্রায় চারশ’ বিঘা ফসলি জমি প্রায় ১০ বছর ধরে পানির নিচে ডুবে আছে। ১২ মাস পানির নিচে ডুবে থাকার কারণে কৃষকেরা চাষাবাদ করতে পারছেন না। ওই এলাকার প্রায় তিন হাজার পরিবার জলাবদ্ধতার শিকার হয়ে যেকোনো ধরনের নাগরিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। তারা মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। শুকনো মৌসুমেও তাদের নৌকা দিয়ে বাড়ি থেকে শহরে আসতে হচ্ছে। এলকাবাসীর অভিযোগ প্রতি বছর দফায় দফায় পৌরকর বাড়লেও পৌরসভার কোনও সুযোগ-সুবিধা বাড়ছে না। পৌর কর্তৃপক্ষকে বারবার তাগিদ দেয়ার পরেও তারা কার্যকরী কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তাদের দাবি এ এলাকার জলাবদ্ধতা দূর করতে দ্রুত পানি নিষ্কাশনের জন্য একটি ড্রেন নির্মাণের ব্যবস্থা করা হোক। অন্যতায় কৃষকের দুরবস্থা শেষ হবে না।

শরীয়তপুর পৌরসভার চরপালং এলাকার তিন নম্বর ওয়ার্ডের ভুক্তভোগী আমেনা বেগম বলেন, ১০-১২ বছর ধরে চর পালং এলাকায় জলাবদ্ধাতা সৃষ্টি হয়েছে। শুকনো মৌসুমেও আমাদের পানি দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। পৌরসভা নির্বাচনের আগে প্রার্থীরা বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিলেও নির্বাচনের পরে তা আর রাখে না। আমরা এখন অসহায়।

চরপালং এলাকার ইসহাক মাদবর বলেন, আমাদের এলাকায় জলাবদ্ধতা দীর্ঘদিনের। এ জলাবদ্ধতা দূর করতে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ফলে এ এলাকার বাসিন্দারা চরম কষ্টের মধ্যে বসবাস করছে। জরুরি ভিত্তিতে একটি ড্রেন নির্মাণ করার জন্য পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল আরটিভি অনলাইনকে বলেন, তিন নম্বর ওয়ার্ডে দীর্ঘদিনের সমস্যা জলাবদ্ধতা। এ কারণে কৃষকেরা জমিতে ফসল করতে পারে না। এ জলবদ্ধতা দূর করার জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে ছোট ড্রেন করে পালং খালে পানি নামানো ব্যবস্থা করব। এরপরে স্থায়ীভাবে জলাবদ্ধতা দূরীকরণের জন্য পদক্ষেপ নেব

feature-top
feature-top

আরও খবর »

feature-top