ঢাকা , ১৪ ২০১৯ ,

শিরোপার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন স্টোকস ও বাটলার

বায়ান্ন স্পোর্টস ডেস্ক | ১৪ জুলাই, ২০১৯ ১০:৫৪ অপরাহ্ন | আপডেট : ১৪ জুলাই, ২০১৯ ১০:৫৮ অপরাহ্ন
feature-top

কিউই বোলারদের দাপটের পর স্টোকস ও বাটলারের ব্যাটে প্রথমবারের মতো শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে ইংলিশরা। অবশ্য তার আগে ইংলিশদের উপর ছড়ি ঘুরাচ্ছিল ব্ল্যাক ক্যাপস বোলাররা। 

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৩৯ ওভারে শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ইংলিশদের সংগ্রহ ১৬২ রান। উইকেটে আছেন বেন স্টোকস ৪১ রানে ও জস বাটলার ৩৬ রানে।

রবিবার বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় লর্ডসে ম্যাচটি শুরু হয়। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করছে বিটিভি, গাজী টেলিভিশন, মাছরাঙা টেলিভিশন, স্টার স্পোর্টস ওয়ান ও টু।

ব্ল্যাক ক্যাপসদের দেয়া ২৪২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে একশ রানের মধ্যেই টপ অর্ডারদের হারিয়ে ফেলে ইংলিশরা। দলীয় ২৮ রানে ম্যাট হেনরির বলে উইকেটের পেছনে ল্যাথামের তালুবন্দী হন জেসন রয়। তার আগে অবশ্য ২০ বলে ১৭ রান করেন তিনি।

এরপর দলীয় ৫৯ রানে গ্র্যান্ডহোমের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন জো রুট। ৩০ বলে তিনি করেন মাত্র ৭ রান। দলের রান যখন ৭১ তখন লকি ফার্গুসনের বলে বোল্ড হন বেয়ারস্টো। ৫৫ বল খেলে বেয়ারস্টোর সংগ্রহ ৩৬ রান।

বেয়ারস্টো ফেরার পর জুটি বাঁধেন মরগ্যান ও স্টোকস। দুজন ভালোই খেলছিলেন। কিন্তু ২৪তম ওভারে নিশামের বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে পয়েন্টে লকি ফার্গুসনের দুর্দান্ত একটি লো ডা ডাউন ক্যাচে ধরা পড়েন মরগ্যান। এ সময় ইংলিশ অধিনায়ক ২২ বলে ৯ রান করেন।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের তৃতীয় বলেই ক্রিস ওকস হেনরি নিকোলসের বিপক্ষে এলবির আবেদন করলে আম্পায়ার ধর্মসেনা সাড়া দেন। কিন্তু রিভিউ নিয়ে সে যাত্রায় বেঁচে যান নিকোলস। এরপর ইংলিশ বোলারদের তোপে পড়ে ব্ল্যাক ক্যাপস ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ৭ ওভারে ক্রিস ওকস ও জোফরা আর্চারের বোলিং তোপে পড়ে কিউইরা। তাদের পেস খেলতে বেশ বেগ পেতে হয় ব্ল্যাক ক্যাপসদের। এরই মধ্যে দলীয় ২৯ রানে ক্রিস ওকসের বলে এলবি হয়ে ফেরত যান মার্টিন গাপটিল। এবারের বিশ্বকাপে তিনি পুরোপুরি নিজেকে মেলে ধরতে ব্যর্থ হলেন। 

দ্বিতীয় উইকেটে ক্রিজে এসে অধিনায়ক উইলিয়ামসন হেনরি নিকোলসের সঙ্গে জুটি বাঁধেন। ফর্মে থাকা উইলিয়ামসন মাঠে নেমে প্রথম রানের জন্য ১২ বল মোকাবেলা করেন। এই এক রান নেয়ার মধ্য দিয়ে উইলিয়ামসন বিশ্বকাপের এক আসের অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ রানের মালিক হন। এর আগে এ রেকর্ডের মালিক ছিলেন লঙ্কান সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনে। তিনি ২০০৭ বিশ্বকাপে এ রেকর্ড গড়েন। এরপর আস্তে আস্তে নিকোলসকে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি। 

দলীয় ১০৩ রানে দ্বিতীয় উইকেট হিসেবে প্ল্যানকেটের বলে উইকেটের পেছনে বাটলারের শিকার হন। উইলিয়ামসনের বিদায়ের পর অর্ধশত রান করে দ্রুতই বিদায় নেন হেনরি নিকোলস। প্ল্যাঙ্কেটের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে ৭৭ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। 

১৪১ রানে অভিজ্ঞ রস টেইলর আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে মার্ক উডের বলে এলবির ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন। জিমি নিশাম পঞ্চম উইকেটে গ্র্যান্ডহোমকে নিয়ে উইকেট মেরামতের চেষ্টা করতে থাকলেও ব্যক্তিগত ৪৭ রান ও দলীয় ১৭৩ রানে ওকসের বলে জিমি ভিনসের হাতে ক্যাচ হয়ে ফেরেন। এরপর ইংলিশ বোলাররা কিউই ব্যাটসম্যানদের ‍উপর আধিপত্য বিস্তার শুরু করলে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৪১ রান করতে সক্ষম হয় কিউইরা। 

ইংল্যান্ডের হয়ে ক্রিস ওকস ও লিয়াম প্ল্যাঙ্কেট ৩টি, জোফরা আর্চার ও মার্ক উড একটি করে উইকেট লাভ করেন।

এএ

feature-top
feature-top

আরও খবর »

feature-top