ঢাকা , ১৬ ২০১৯ ,

ট্রাক থেকে কম দামে পেঁয়াজ কিনতে মানুষের লম্বা লাইন

বায়ান্ন অনলাইন রিপোর্ট | ১ অক্টোবর, ২০১৯ ১২:২৬ অপরাহ্ন | আপডেট : ১ অক্টোবর, ২০১৯ ১২:২৬ অপরাহ্ন
feature-top

দেশের খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম ১শ টাকা ছাড়িয়েছে। এ অবস্থায় দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে ট্রাকে করে ৪৫ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। এ পেয়াজ কিনতে ট্রাকগুলো মধ্যবৃত্তদের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়। একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ দুই কেজি পেঁয়াজ কিনতে পারছেন। 

মঙ্গলবার সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা যায় টিসিবির ট্রাক থেকে সাধারণ মানুষ শুধু পেঁয়াজই কিনছেন। এদিকে বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায় অনেক দোকানেই পেঁয়াজ নেই। 

সোমবার থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। যা আগামী ৬ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। 

ঢাকা মহানগরীর ৩৫টি স্থানে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। এছাড়া চট্টগ্রামসহ অন্যান্য বিভাগীয় শহরগুলোতেও পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পণ্য বিক্রি চলবে। তবে শুক্রবার বন্ধ থাকবে।

তবে টিসিবি কম দামে পেঁয়াজ দিলেও এর মান নিয়ে অসন্তুষ প্রকাশ করছেন ক্রেতারা। 

এদিকে পেঁয়াজের পাশাপাশি চিনি (ফ্রেশ) ৫০ টাকা, মশুর ডাল ৫০ টাকা ও সয়াবিন তেল (লিটারপ্রতি) ৮৫ টাকায় কিনতে পারছেন গ্রাহকরা।

ঢাকায় যেসব স্থানে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পণ্য: ১. সচিবালয়ের গেইট, ২. প্রেস ক্লাব, ৩. কাপ্তান বাজার, ৪. ভিক্টোরিয়া পার্ক, ৫. সায়েন্সল্যাব মোড়, ৬. নিউ মার্কেট/নীলক্ষেত মোড়, ৭. শ্যামলী/কল্যাণপুর, ৮. ঝিগাতলা মোড়, ৯. খামারবাড়ি, ফার্মগেট; ১০. কলমীলতা মোড়, ১১. রজনীগন্ধা সুপার মার্কেট, কচুক্ষেত; ১২. আগারগাঁও তালতলা ও নির্বাচন কমিশন অফিস, ১৩. রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্স, উত্তরা; ১৪. মিরপুর-১ নং মাজার রোড, ১৫. শান্তিনগর বাজার, ১৬. মালিবাগ বাজার, ১৭. বাসাবো বাজার, ১৮. আইডিয়াল স্কুল, বনশ্রী; ১৯. বাংলাদেশ ব্যাংক চত্বর, ২০. মহাখালী কাঁচাবাজার, ২১. শেওড়াপাড়া বাজার, ২২. দৈনিক বাংলা মোড়, ২৩. শাহজাহানপুর বাজার, ২৪. ফকিরাপুল বাজার ও আইডিয়াল জোন, ২৫. মতিঝিল বক চত্বর, ২৬. খিলগাঁও তালতলা বাজার, ২৭. রামপুরা বাজার, ২৮. মিরপুর-১০ নম্বর গোল চত্বর, ২৯. আশকোনা হাজি ক্যাম্প, ৩০. মোহাম্মদপুর টাউনহল কাঁচাবাজার, ৩১. দিলকুশা, ৩২. মাদারটেক নন্দীপাড়া কৃষি ব্যাংকের সামনে ও পলাশী মোড়ে।

এদিকে পেঁয়াজেরর দাম নিয়ন্ত্রণ আনতে সোমবার বিকেলে কক্সবাজারের টেকনাফ স্থলবন্দর দিয়ে সেপ্টেম্বর মাসে মিয়ানমার থেকে ৩ হাজার ৫৭৩ দশমিক ১৪১ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে।

দেশে পেঁয়াজের উৎপাদন বছরে ১৭ থেকে ১৯ লাখ টনের মত। চাহিদা পূরণ না হওয়ায় আমদানি করতে হয় ৭ থেকে ১১ লাখ মেট্রিক টন। স্বল্প দূরত্ব ও সহজলভ্যতার কারণে বেশিরভাগটা ভারত থেকে আসে।

কিন্তু ভারতেও পেঁয়াজের দাম বাড়ায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর দেশটি প্রতি টন পেঁয়াজের ন্যূনতম রপ্তানি মূল্য ৮৫০ ডলারে বেঁধে দেয়। ওই খবরে বাংলাদেশে পেঁয়াজের দাম এক লাফে বেড়ে যায় ২০ থেকে ২৫ টাকা।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ব্যবসায়ীদের নিয়ে কয়েক দফা বৈঠক কর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। টিসিবি খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করে। এর মধ্যে শুক্রবার পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত।

মিথুন 

feature-top
feature-top

আরও খবর »

feature-top