ঢাকা , ১৬ ২০১৯ ,

মানবিক বিবেচনায় ভারতকে সামান্য পানি দেয়া হচ্ছে : শেখ হাসিনা

বায়ান্ন অনলাইন রিপোর্ট | ৯ অক্টোবর, ২০১৯ ৪:৩৫ অপরাহ্ন | আপডেট : ৯ অক্টোবর, ২০১৯ ৫:২৭ অপরাহ্ন
feature-top

সীমান্তবর্তী নদীতে অধিকার থাকে দুদেশেরই। ফেনী নদী থেকে যে পরিমাণ পানি দেয়া হচ্ছে সেটা সামান্য। মানবিক বিবেচনায় ভারতকে সামান্য পানি দেয়া হচ্ছে। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

আজ বুধবার গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

বেলা সাড়ে ৩টায় সংবাদ সম্মেলন শুরু হয়। তার এ সংবাদ সম্মেলন সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ত্রিপুরায় যে গ্যাস দিচ্ছি, সেটা এলপিজি, বোতল গ্যাস। এটা বিদেশ থেকে আমদানি করে নিজেদের দেশে সরবরাহ করছি। আর কিছুটা ত্রিপুরায় দিচ্ছি।
শেখ হাসিনা বলেন, যারা এর বিরোধিতায় সোচ্চার মানে, বিএনপি, ২০০১ সালের কথা মনে করিয়ে দিতে চাই। আমেরিকা গ্যাস বিক্রির জন্য বলেছিল, আমি বলেছিলাম দেশের চাহিদা মিটিয়ে আমরা তারপর বিক্রি করব। যে কারণে ২০০১ সালে আমরা ক্ষমতায় আসতে পারিনি। আর যারা গ্যাস বিক্রি করে দিচ্ছে বলছে, তারাই গ্যাস দেবে বলে মুচলেকা দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল।

তিনি বলেন, হত্যার আলামত সংগ্রহ করতে গেলে পুলিশকে আটকে রাখা হয়। আবরার হত্যার নেপথ্যে কারা, এ নিয়ে প্রশ্ন থেকে যায়। আন্দোলন কিসের জন্য, বিচার হবেই। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আবরার হত্যাকারীদের তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয়া হয়। রাজনৈতিক পরিচয় যাই হোক, জড়িত কেউ ছাড় পাবে না। 

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের কোন সম্পদ শেখ হাসিনার হাত দিয়ে বিক্রি সম্ভব না। দেশের স্বার্থ্যবিরোধী কাজ করে না শেখ হাসিনা। 

শেখ হাসিনা বলেন, প্রাকৃতিক গ্যাস নয়, আমদানি করা বোতলজাত গ্যাস রপ্তানি করা হবে ভারতে। 

বিদেশ সফর থেকে ফিরে প্রতিবারই সংবাদ সম্মেলন করেন সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা। প্রতিবারই সমসাময়িক রাজনীতির বিভিন্ন বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি।

এর আগে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে যোগ দিতে গত ২২ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নিউইয়র্ক সফর করেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে তিনি জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণের পাশাপাশি বেশ কয়েক দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রধানের সঙ্গে বৈঠক করেন।

অন্যদিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক এবং বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের ‘ইন্ডিয়া ইকোনমিক সামিটে’ অংশ নিতে ৩ থেকে ৬ অক্টোবর নয়াদিল্লী সফর করেন। 

এসময় দুই দেশের মধ্যে সাতটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয় এবং তিনটি যৌথ প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়।

মিথুন 

feature-top
feature-top

আরও খবর »

feature-top