Connect with us

বাংলাদেশ

কৃষি মার্কেটে আগুন: যোগ দিয়েছে নৌ-বিমানবাহিনী

Avatar of author

Published

on

রাজধানীর মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসকে সহায়তায় এবার যোগ দিয়েছে নৌ ও বিমানবাহিনীর অগ্নি নির্বাপনী সাহায্যকারী দল।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) এ তথ্য জানিয়েছে আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)।

এর আগে আগুন নিয়ন্ত্রণে যোগ দেয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। এছাড়া বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদস্যরাও রয়েছেন।

এদিকে ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, এখনো কৃষি মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে ১৭টি ইউনিট কাজ করছে। আগুনের মাত্রা কিছুটা কমলেও তা এখনো সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আসেনি। মার্কেটের ভেতরে প্রচণ্ড ধোঁয়ার কুণ্ডলী রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ভোর পৌনে ৪টার দিকে কৃষি মার্কেটে আগুন লাগে, যা সাড়ে ৮ ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আসেনি বলে গণমাধ্যমকে জানান, ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম দোলন।

Advertisement

তিনি বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে রাত ৩টা ৫২ মিনিটে প্রথম ইউনিট পৌঁছায়। এরপর মোহাম্মদপুর, হাজারীবাগ, কল্যাণপুর ও হেডঅফিস থেকে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি গিয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। বর্তমানে আগুন নিয়ন্ত্রণে ১৭টি ইউনিট কাজ করছে। এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার রাশেদ বিন খালেদ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আগুনের তীব্রতাও বাড়তে দেখা গেছে। আগুনের প্রকৃত কারণ এখনও জানা যায়নি এবং হতাহতের খবরও পাওয়া যায়নি।

Advertisement

বাংলাদেশ

রেল চালুর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলো কর্তৃপক্ষ

Published

on

কারফিউ শিথিল অবস্থায় সীমিত পরিসরে রেল চালুর কথা থাকলেও। নিরাপত্তা বিবেচনায় সে সিদ্ধান্ত বদল করে রেল চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার আনোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আজ স্বল্প দূরত্বের কয়েকটি ট্রেন চলাচলের কথা ছিল।কিন্তু কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছে। সকাল থেকে কমলাপুর স্টেশন থেকে একটি ট্রেনও  ছেড়ে যায়নি।

এর আগে রেল সচিব জানিয়েছিলেন, শুরুতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা-টাঙ্গাইলসহ দেশের আরও বেশ কিছু রুটে ট্রেন চলবে।

আই/এ

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংসকারীদের বিচার হবে : প্রধানমন্ত্রী

Published

on

প্রধানমন্ত্রী,-মেট্রোরেল-১০-সেটশন

সরকারের উন্নয়ন যারা ধ্বংস করেছে তাদের বিরুদ্ধে দেশবাসীকেই রুখে দাঁড়াতে হবে। এ তাণ্ডব যারা করেছে, তাদের বিচার দেশবাসীকে করতে হবে।  একই সঙ্গে ধ্বংসযজ্ঞকারীদের রুখে দিতে জনসাধারণকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় মিরপুরে ১০ এ  কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় দুর্বৃত্তদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত মেট্রোরেল স্টেশন পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় প্রধানমন্ত্রী গণমাধ্যমকে বলেন, সাধারণ মানুষ যেন নির্বিঘ্নে কর্মক্ষেত্রে পৌঁছাতে পারে সেটা সুনিশ্চিত করা হবে। দেশটা যাতে আর্থিকভাবে সচ্ছল হতে পারে সেই চেষ্টাই করবো। এ দেশের মানুষ রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছে। সেই দেশটা ব্যর্থ হতে পারে না।

তিনি বলেন, যে স্থাপনাগুলো মানুষের জীবনকে সহজ করে সেগুলো ধ্বংস করা আসলে কোনো ধরনের মানসিকতা। ঢাকা শহর যানজটে নাকাল থাকলেও মেট্রো স্বস্তি দিয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তির এ পরিবহন এভাবে ধ্বংস করেছে, বিষয়টা মানতে পারছি না।

উল্লেখ্য, গেলো শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর মিরপুর-১০ ও কাজীপাড়া স্টেশনে হামলা হয়। ভাঙচুর করা হয় সিসি (ক্লোজড সার্কিট) ক্যামেরা, এলইডি মনিটর, টিকিট কাটার মেশিনসহ বিভিন্ন জায়গা। লুট করা হয় মূল্যবান অনেক জিনিস। পরে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা নির্ণয়ে কমিটি করেছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

Advertisement

ক্ষতিগ্রস্ত মিরপুর-১০ ও কাজীপাড়া স্টেশন চালু হতে কমপক্ষে এক বছর লাগতে পারে বলে জানায় মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বাংলাদেশ

আজ থেকে চালু হচ্ছে স্বল্প দূরত্বের ট্রেন

Published

on

ট্রেন

কারফিউ শিথিল হওয়ায় আজ থেকে চালু হচ্ছে স্বল্প দূরত্বের ট্রেন। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত  স্বল্প দূরত্বের কিছু সংখ্যক লোকাল ও কমিউটার ট্রেন চলবে।

গেলো বুধবার (২৪ জুলাই) দুপুরে যাত্রীবাহী ট্রেন চালুর বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হুমায়ুন কবীর।

রেল সচিব জানান, শুরুতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা-টাঙ্গাইলসহ দেশের আরও বেশ কিছু রুটে ট্রেন চলবে। এরপর সরকার কারফিউ নিয়ে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত নিলে সে অনুযায়ী ট্রেন চালানোর বিষয়ে আবার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

রেলওয়ে কতৃপক্ষ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা-গাজীপুর এবং ঢাকা-টাঙ্গাইল পথের কমিউটার ট্রেনগুলো চলাচল করবে। তবে সময় পাঁচ ঘণ্টা। এ সময়ের মধ্যে দুই থেকে তিনবার যাতায়াত (ট্রিপ) করতে পারবে। দূরবর্তী যাত্রার মধ্যে ঢাকা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মধ্যে চলাচল করবে তিতাস কমিউটার ট্রেন। স্বাভাবিক সময়ে তিতাস ট্রেন দিনে চারবার আসা-যাওয়া করে। বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টায় যাবে। দুপুর ১ টা ৫ মিনিটে ফিরতি যাত্রা শুরু করবে।

এছাড়া, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পথে স্বাভাবিক সময়ে ২০ বারের বেশি কমিউটার ট্রেন যাতায়াত করে। তবে বর্তমানে এটি তিন-চারবার আসা-যাওয়া করতে পারে বলে রেল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

Advertisement

উল্লেখ্য, রেলের পশ্চিমাঞ্চলে (রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগ) দুটি পথে ট্রেন চলাচল করতে পারে। এর মধ্যে রাজশাহী থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ এবং লালমনিরহাট থেকে বুড়িমারী পর্যন্ত চলাচল করবে কমিউটার ট্রেন।

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত