Connect with us

বাংলাদেশ

গাড়িচাপায় মহাসড়কে প্রাণ গেলো এসআইয়ের

Published

on

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গাড়িচাপায় মো. জাহাঙ্গীর নামে হাইওয়ে পুলিশের এসআই (পরিদর্শক)  নিহত হয়েছৈন। 

গেলো শুক্রবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১টার দিকে ডিউটিরত অবস্থায় মহাসড়কের ঢাকামুখী লেনের দাউদকান্দি টোলপ্লাজা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে নিশ্চিত করেন কুমিল্লা রিজিয়নের পুলিশ সুপার (এসপি) মুহাম্মদ রহমত উল্লাহ।

তিনি জানান, এসআই জাহাঙ্গীর দাউদকান্দি টোলপ্লাজা এলাকায় রাতে মহাসড়কের ঢাকামুখী লেনে যানজট নিরসন ও নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ডিউটিরত অবস্থায় সড়ক পারাপারের সময় রাত ১টার দিকে অজ্ঞাত একটি গাড়ির ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এসপি আরো খবর পেয়ে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেলের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নিহত জাহাঙ্গীর দাউদকান্দি হাইওয়ে থানায় উপরিদর্শক (এসআই) হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি শেরপুর সদর উপজেলার এদাদিয়া গ্রামের মৃত কাজিম উদ্দিনের ছেলে। ১৯৯৬ সালে তিনি বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন।

Advertisement

তাসনিয়া রহমান

 

Advertisement

বাংলাদেশ

ভোরে নামাজ পড়ার পর ফুটবল খেলা দেখি: প্রধানমন্ত্রী

Published

on

খেলাধুলার প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুরাগের কথা মাঝেমধ্যেই জানা যায়। খেলাধুলার মাধ্যমে প্রতিযোগিতার চর্চা গড়ে ওঠে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়াও তিনি বলেন, খেলাধুলার মাধ্যমে বাংলাদেশের অনেকে নিজেদের বিশ্ব দরবারে তুলে ধরেন।

শনিবার (১৩ জুলাই) বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে শেখ হাসিনা আন্তঃব্যাংক ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সময়ও কিন্তু ফুটবল খেলা হয়েছে। এছাড়া আমার দাদা ফুটবল খেলতেন, বাবাও খেলতেন, ছোট ভাইয়েরা খেলতো, এখন নাতিরাও দেখছি ফুটবলই খেলে। ভোরে নামাজ পড়ার পর সময় পেলে নিজেও ফুটবল খেলা দেখি।’

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) এর আয়োজনে এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসি স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক পিএলসিকে হারিয়ে শিরোপা নিশ্চিত করে ইসলামী ব্যাংক। দেশের ৩১ টি বেসরকারি ব্যাংক এবারের টুর্নামেন্টে অংশ নেয়।

 

Advertisement

এম/এইচ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আইন-বিচার

সীমান্ত থেকে ১০ মাইল বিজিবির সম্পত্তি ঘোষণাসহ ৪ পরামর্শ হাইকোর্টের

Published

on

হাইকোর্ট

সীমান্ত রেখা থেকে দেশের অভ্যান্তরে ১০ মাইল বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সম্পত্তি ঘোষণা করা, ৮ কিলোমিটার জমি সম্পূর্ণ ফাঁকা ও সমান রাখাসহ সংসদকে ৪ পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট। দেশের সীমান্ত নিরাপত্তা কার্যকরভাবে রক্ষায়, আন্তঃরাষ্ট্র সীমান্ত অপরাধ শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা এবং জাতীয় রাজস্ব আয় ফাঁকি প্রতিরোধ করতে এ সুপারিশ করা হয়।

শনিবার (১৩ জুলাই) ১৯৮৭ সালের ভারতীয় শাড়ি জব্দের এক মামলার রায়ে এ পরামর্শ দিয়েছেন উচ্চ আদালত।

আদালত রায়ে বলেছেন,  মহান জাতীয় সংসদকে নিম্ন বর্ণিত পরামর্শসমূহকে গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করতে হবে।

১. সীমান্ত রেখা থেকে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ১০ মাইল পর্যন্ত সীমান্ত এলাকা বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সম্পত্তি ঘোষণা করা।

২. উক্ত ঘোষণার ফলে ক্ষতিগ্রন্থ সব ব্যক্তিগত সম্পত্তির মালিকদের ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করতঃ সমমূল্যের সরকারি খাস সম্পত্তি হতে তাদের বরাদ্দ প্রদান।

Advertisement

৩. সীমান্ত লাইন থেকে ৮ কিলোমিটার ভূমি সম্পূর্ণ ফাঁকা এবং সমান থাকবে। যেন এই ৮ কিলোমিটার প্রতিটি ইঞ্চি ৮ কিলোমিটার দূর থেকে পরিস্কার দেখা যায়।

৪. সীমান্ত রেখা থেকে ৮-১০ কিলোমিটার মধ্যবর্তী স্থান বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের যাবতীয় স্থাপনা, প্রশিক্ষণসহ যাবতীয় কর্মকাণ্ডের জন্য সংরক্ষিত রাখা।

এই রায় ও আদেশের অনুলিপি অধস্তন আদালতের সকল বিচারককে ই-মেইলের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য রেজিষ্ট্রার জেনারেলকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

একই সঙ্গে রায় ও আদেশের অনুলিপি মহা-পরিচালক, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে ই-মেইলের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য রেজিস্ট্রার জেনারেলকে নির্দেশ প্রদান করেছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি রায় ও আদেশের অনুলিপি সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ই-মেইলের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য রেজিষ্ট্রার জেনারেলকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৭ সালে চোরাচালানবিরোধী অভিযানে যশোর সীমান্তে ভারতীয় শাড়ি উদ্ধারের ঘটনায় বিজিবির দায়ের করা মামলায় আসামি জাকির হোসেনকে তিন বছরের সাজা থেকে খালাসের রায়ে এ পরামর্শ দেয় হাইকোর্ট।

Advertisement

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

মিঠামইন হাওরে নিখোঁজ পর্যটক, মরদেহ উদ্ধার

Published

on

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে বন্ধুদের সঙ্গে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হওয়া আবির হোসেন (২০) নামে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গেলো শুক্রবার (১২ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম সড়কের মিঠামইন জিরো পয়েন্টে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে যায় ওই যুবক।

শনিবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায় উপজেলার জিরো পয়েন্ট এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

নিহত পর্যটক আবির হোসেন ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার উত্তর মুগদা পাড়ার বাসিন্দা আবদুল আলিমের ছেলে।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, গাজীপুর থেকে পরিবার-পরিজনের সঙ্গে আবির মিঠামইন হাওরে ঘুরতে এসেছিলেন। মিঠামইন জিরো পয়েন্টের পাশে ঘোড়াউত্রা নদীতে তিনজন মিলে গোসল করতে নামলে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষনিক স্থানীয়দের সহযোগিতায় দুজনকে উদ্ধার করতে পারলেও আবিরকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। পরে খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল বিকেল ৬টায় উদ্ধার অভিযান শুরু করে। আলো স্বল্পতার কারণে রাতে বিরতি শেষে শনিবার দিনব্যাপী উদ্ধার অভিযান চালানো হয়। সন্ধ্যায় মরদেহ উদ্ধার করে।

মিঠামইন ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ইনচার্জ মো. সাইফুল ইসলাম গণমাধ্যমে বলেন, শনিবার দিনব্যাপী উদ্ধার অভিযান চালানো হয়। সন্ধ্যায় মরদেহ উদ্ধার করে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Advertisement

এএম/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত