Connect with us

টলিউড

ডিবি অফিস থেকে বেরিয়ে যা বললেন অভিনেত্রী তিশা

Avatar of author

Published

on

‘লাস্ট কয়েক দিন ধরে সাইবার বুলিংয়ের শিকার হচ্ছি।এজন্য ডিবি কার্যালয়ে এসেছি। আমার মনে হয় ডিবি অফিস একটা আস্থার জায়গা। আমরা শোবিজ ইন্ডাস্ট্রিসহ সব প্লাটফর্মের যারা বিপদে পড়ি,বিশেষ করে যারা সাইবার বুলিং বা হেরাজমেন্টের শিকার হই,তারা এখানে আসেন, হারুন স্যারের হেল্প নেন। আমিও তার ব্যতিক্রম নই।’

সোমবার (২০ নভেম্বর) বিকালে রাজধানীর মিন্টো রোডে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ কার্যালয় থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী তানজিন তিশা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বুলিংয়ের শিকার হচ্ছেন জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি যদি স্ট্যাটাস দিয়ে কোনো বিষয় স্পষ্ট করতে চাই, তাহলেও আমি বুলিং হচ্ছি। এ জন্য আমার কাছে মনে হয়েছে হারুন স্যারের কাছে আসলে, স্পেশালি ডিবি অফিসে আসলে আমি তাদের সহযোগিতা পাবো। তাদের সহযোগিতায় আপনাদেরকে বিষয়টি কিছুটা স্পষ্ট করতে পারব। এ কারণেই আজকে আমার ডিবি কার্যালয়ে আসা।’

বেসরকারি এক টিভি চ্যানেলের সাংবাদিকের বিরুদ্ধে তিশা বলেন, ‘আমি অসুস্থ থাকা অবস্থায় তিনি আমাকে যে টেক্সট পাঠিয়ে প্রশ্ন করেছেন সেই বিষয়ে পাবলিকলি কিছু জানাতে চাই না। তার টেক্সট পেয়ে তাকে কল করে কথা বলি। সেই কথাগুলো তিনি অনলাইনে ছেড়েছেন। একজন নারী হিসেবে এমন বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হবে এটা মোটেও কাম্য ছিল না। শুধু তার বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েছি। আশা করছি সুষ্ঠু সমাধান হবে।’

এ ব্যাপারে ডিবি প্রধান হারুন অর রশিদ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘তানজিন তিশা সাইবার বুলিংয়ের সমস্যায় পড়ে ডিবি কার্যালয়ে এসেছিলেন। তার অভিযোগটি পেয়েছি। সাইবার নর্থ ডিভিশনকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছি। তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষ হলে বিস্তারিত জানাতে পারবো তার সঙ্গে আসলে কী হয়েছে।’

Advertisement

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে হারুন অর রশিদ বলেন,“তিশা কোনো সাংবাদিকের কথা বলেননি, বলেছেন একজন ব্যক্তি তাকে টেক্সট দিয়েছে। সবকিছু যাচাই বাছাই করে তদন্তের পর জানাতে পারবো।”

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি তানজিন তিশার আত্মহত্যার চেষ্টা শিরোনামে বিভিন্ন গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করে। ওইসময় গুঞ্জন ওঠে-ছোট পর্দার দুই অভিনেতার সঙ্গে  প্রেমের সম্পর্কে জটিলতা থেকে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন অভিনেত্রী তিশা।এবিষয়টি সম্পর্কে গণমাধ্যমকর্মীরা জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। পাশাপাশি নিজের সবোর্চ্চ ক্ষমতা ব্যবহার করে ‘দেখে নেবেন’ বলেও তিশা জানান। পরবর্তীতে বিনোদন সাংবাদিকসহ বিভিন্ন সচেতন মহলের তোপের মুখে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক পোস্টের মাধ্যমে ক্ষমা চানে। সেই পোস্ট অবশ্য মুছে ফেলেন অভিনেত্রী তিশা।

এসব ঘটনা নিয়ে সমালোচনার মাঝেই রোববার (১৯ নভেম্বর) রাতে হঠাৎই করেই তিশার একটি পুরোনো ফোনালাপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস হয়। এর আগে সংগীতশিল্পী হাবিব ওয়াহিদের সঙ্গে তিশা প্রেমের সম্পর্কে জড়ালেও ওই সম্পর্ক বেশি দিন টিকেনি। তখন হাবিবের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে গায়কের সাবেক স্ত্রী রেহান চৌধুরীর সঙ্গে কথা বলেছিলেন অভিনেত্রী তিশা। তাদের ওই ফোনালাপটি নতুন করে ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Advertisement
Advertisement

টলিউড

নীল বাতি বিতর্কে টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান

Published

on

সাংসদ পদ নেই, তবুও নীল বাতির গাড়ি ব্যবহার করছেন টালিউডের আলোচিত অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। শনিবার (১৩ জুলাই) কলকাতা শহরে এক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হন অভিনেত্রী। ঐ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে নীল বাতির গাড়ি এবং সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষী নিয়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তবে সেদিনের ঘটনার পর থেকেই বিতর্কে জড়াননি নুসরাত।

বিতর্ক তৈরি হয় গেল রোববার (১৪ জুলাই) আম্বানিদের বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার দিন। বিমানবন্দরে স্বামী যশ দাশগুপ্তের সঙ্গে নুসরাতকে দেখা যায় নীল বাতি গাড়িতে। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরই বিতর্কে জড়ান অভিনেত্রী। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল হতে শুরু করেন। যদিও এসব ট্রলকে কখনও পাত্তা দেননি নুসরাত।

২০১৯ থেকে ২০২৪ সাল পর্যন্ত ভোটে জিতে পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট কেন্দ্রের সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। সরকারি নিয়ম মেনে পাঁচ বছর ব্যবহার করেন নীল বাতির গাড়ি। কিন্তু ২০২৪ এর লোকসভা ভোটে টিকিট পাননি অভিনেত্রী। তারপরও আইনের বাইরে গিয়ে যাতায়াতে নীল বাতি গাড়ি ব্যবহার করছেন। যা নিন্দার ঝড় তুলেছে নেটিজেনদের মধ্যে।

তবে নুসরাত ভক্তরা বলছেন, নায়িকার গাড়িতে নীল বাতি জ্বলতে দেখা যায়নি। এদিকে নুসরাতেরও একই দাবি। যাতায়াতে নীল গাড়ি ব্যবহার প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমকে নুসরাত বলেন, গাড়িতে নীল বাতি থাকলেও তা জ্বালানো হয়নি। আবার এ বাতি খোলার চেষ্টাও করা হয়নি। কারণ জানিয়ে নুসরাত বলেন, যদি গাড়ির নীল বাতি খোলার চেষ্টা করা হয় তবে সে বাতির জায়গা দিয়ে পানি পড়ার সমস্যা দেখা দেয়। তাই গাড়ির নীল বাতি আর খোলা হয়নি। সার্ভিস সেন্টারে নিয়ে গেলে সমস্যার সমাধান হবে, তবে সময়ের অভাবে নেওয়া হয়নি।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

টলিউড

এক বর্ষায় প্রেমের শুরু, আরেক বর্ষায় সোহিনী-শোভনের বিয়ে

Published

on

অবশেষে বিয়ে করলেন টালিউডের জনপ্রিয় তারকা জুটি সোহিনী সরকার ও শোভন গঙ্গোপাধ্যায়। অনেকদিনের দেয়া কথা মতোই ১৫ জুলাই আইনি মতে বিয়ে সেরে অভিনেত্রীকে সিঁদুরে রাঙালেন শোভন। সোমবার রাতে বিয়ের মুহূর্তের একাধিক ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন সোহিনী।

দেখা হওয়ার এক বছরের মধ্যেই যে তারা গাঁটছড়া বাঁধলেন সেই কথাই পোস্টের মাধ্যমে সুস্পষ্ট করে দিলেন অভিনেত্রী। সোহিনী তার পোস্টে লেখেন, ‘দেখা হওয়ার এক বছরে/একই সাথে একই ঘরে।’

বিয়েতে সোহিনী পরেছিলেন পেয়াঁজ রঙের বেনারসি এবং সাদা ব্লাউজ। সঙ্গে গয়না হিসেবে গলায় ছিলো সোনার চোকার ও হার এবং কানে ঝুমকো। এছাড়া বাদ যায়নি তার পছন্দের নোলক ও টিকলি। এদিন অভিনেত্রী খোঁপা সাজিয়েছিলেন জুঁই ফুলের মালায়।

অন্যদিকে শোভন সাদা পাঞ্জাবিতে বর সেজেছিলেন। একটি ফার্ম হাউজে এদিন তাদের বিয়ের আসর বসেছিল। সেখানেই তাদের কখনও পুকুর পাড়ে কখনও সিঁদুরদানের পর নানা পোজে ছবি তুলতে দেখা গিয়েছে। একটি ছবিতে সোহিনীকে সিঁদুর পরিয়ে তার গালে চুমু খেতে দেখা যাচ্ছে শোভনকে।

গেল বছর থেকে রণজয় বিষ্ণুর সঙ্গে সোহিনী সরকারের বিচ্ছেদের খবর রটে যাওয়ার পর থেকেই কানাঘুষোয় শোনা যায়,  দুজনে সম্পর্কে আছেন। তাদের একাধিক ঘরোয়া পার্টিতেও একসঙ্গে দেখা যেতে থাকে। এমনকি একই সঙ্গে একই জায়গায় ঘুরতে গিয়ে আলাদা আলাদা ছবি পোস্ট করেন তারা, যা দেখে সহজেই দুইয়ে দুইয়ে চার করেন ভক্ত-অনুরাগীরা। চলতি বছরের শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছিল জুলাই মাসে সাতপাকে বাঁধা পড়বেন তারা। অবশেষে সেই গুঞ্জনই সত্যি হল।

Advertisement

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

টলিউড

রাফির বক্তব্য মিথ্যা দাবি করলেন টলিউড সুপারস্টার দেব

Published

on

ঢাকাই সিনেমার তরুণ নির্মাতা রায়হান রাফি কলকাতার দেব ও জিৎকে নিয়ে কাজ করতে যাচ্ছেন, প্রস্তাবটা নাকি টলিউডের দুই সুপারস্টারের কাছ থেকেই পেয়েছেন রাফি- এমন একটি সংবাদের অংশ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে দেব জানিয়েছেন, সত্য নয় অর্থাৎ মিথ্যা। মানে রাফির সেই বক্তব্য মিথ্যা।

ওই অংশে লেখা ছিল তুফান রিলিজের পর তার সাফল্য দেখে দেব ও জিৎ দুজনই আমাকে তার সাথে কাজের প্রস্তাব দিয়েছেন। আমি এখনো কাউকে কনফার্ম করিনি। এক সাক্ষাৎকারে এমনটা দাবি করেছেন রায়হান রাফি।

তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সম্প্রতি এক পডকাস্ট সাক্ষাৎকারে হুবহু রাফি এমনটা বলেননি- তবে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন । ঐ পডকাস্টে রাফি বলেন, দুই বাংলায় এখন এত বড় ব্যবসা কেউ দিতে পারছে না। স্বভাবতই ওপার বাংলার দেব এবং জিতের প্রসঙ্গ বারবার আসে।

সেখানে কলকাতার ছবি নির্মাণের প্রস্তাব আসে কি না, তানভীর তারেকের এমন প্রশ্নে রায়হান রাফি তার উত্তরে বলেন, আসলো তো অনেকগুলা। এবার আসতেছে অনেকগুলা, তুফানের পর। বড় দুইজন স্টারের কাছ থেকে অফার এসেছে এই তুফানের পরে। নাম না বলি। এখনও হ্যাঁ, না কিছুই বলা হয়নি। আমার গল্পের জন্য যাকে লাগবে তাকে নিব।

এই মুহূর্তে ওপার বাংলায় দুই বড় স্টার দেব ও জিৎ। আর স্পষ্টতই রাফি সেদিকেই ইঙ্গিত করেছেন বলে মনে করছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা। তবে দেব সরাসরি বলে দিলেন এমন কোনো ইচ্ছে তার নেই।

Advertisement

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত