Connect with us

ঢালিউড

সিনেমা নির্মাণের জন্য সরকারি অনুদান পেলেন যারা

Avatar of author

Published

on

বুধবার (১২ জুন) প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সিনেমায় অনুদানের পরিমাণ ও অনুদান প্রাপ্তদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে তথ্য মন্ত্রনালয়। ১৯৭৬-৭৭ অর্থবছর থেকে দেশীয় চলচ্চিত্রে সরকারি এ অনুদান চালু করা হয়। এবার সেই তালিকায় ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ৬টি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় ২টি, শিশুতোষ শাখায় ২টি ও সাধারণ শাখায় ১৬টি সিনেমাকে অনুদান দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্বল্পদৈর্ঘ্য বিভাগে অনুদান দেয়া হয়েছে ৬টি চলচ্চিত্রকে।

এই ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে ১৬টি সিনেমার প্রতিটি অনুদান হিসেবে পাচ্ছে ৭৫ লাখ টাকা করে, আর বাকি ৪টি চলচ্চিত্রকে দেয়া হয়েছে ৫০ লাখ টাকা করে। এই চারটির মধ্যে দুটি শিশুতোষ এবং দুটি প্রামাণ্যচিত্র শাখায়।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘পাকিস্তানে বন্দিজীবন’ ও ‘ছোঁয়া। পাকিস্তানে বন্দিজীবন সিনেমার পরিচালক ও প্রযোজক সাজেদুল ইসলাম। ছোঁয়ার পরিচালক ও প্রযোজক রাকিবুল হাসান।

শিশুতোষ শাখায় ‘অদ–ভুত’ সিনেমার জন্য রাইদ মোরশেদ ও ‘চলনবিলের মানিক’ সিনেমার জন্য অনুদান পেয়েছেন নিয়ামুল মুক্তা। অদ-ভুত পরিচালনা করবেন তাওকীর ইসলাম। অন্যদিকে প্রযোজনার পাশাপাশি ‘চলনবিলের মানিক’ সিনেমাটি পরিচালনা করবেন নিয়ামুল মুক্তা। প্রামাণ্যচিত্র শাখায়  অনুদান পেয়েছে ‘নো ম্যাডস অব দ্য নর্থ’, পরিচালক ও প্রযোজক পিপলু আর খান। অন্যটি ‘কালের যাত্রা’,  প্রযোজক ও পরিচালক হিসেবে রয়েছেন রাসেল রানা দোজা।

Advertisement

সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘মিহিন গাথা’: প্রযোজক ও পরিচালক মির্জা শবনম ফেরদৌসী; ‘ঠিকানা’: প্রযোজক ও পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন বাবর; ‘সুরাইয়া’: প্রযোজক ফজলে হাসান শিশির, পরিচালক রবিউল আলম রবি; ‘জয়া’: প্রযোজক ও পরিচালক গোলাম মোস্তফা; ‘লোভ’: প্রযোজক পিংকি আক্তার, পরিচালক সঞ্জয় সমাদ্দার; ‘সখী রঙ্গমালা’: প্রযোজক ও পরিচালক এন রাশেদ চৌধুরী; ‘জাত’: প্রযোজক শেলী কাদের, পরিচালক নারগিস আক্তার; ‘ময়নার চার’: প্রযাজক সুমন পারভেজ, পরিচালক জেড এম মোস্তাফিজুর রহমান বাবু; ‘কালবেলা’: প্রযোজক ও পরিচালক ইব্রাহীম খলিল মিশুক (মিশুক মনি); ‘সেয়ানা’: প্রযোজক মনোজ প্রামাণিক, পরিচালক ইকবাল হাসান খান; ‘আজিরন’: প্রযোজক ও পরিচালক গীতালি হাসান; ‘পোস্টমর্টেম’: প্রযোজক মো. নিজাম উদ্দিন, পরিচালক, আরিফ সিদ্দিকী; ‘হা ঘরে’: প্রযোজক নূর মনির, পরিচালক নাসরুল্লাহ মানসুর; ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা’: প্রযোজক ও পরিচালক দেওয়ান নজরুল।

৬টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় অনুদান পেয়েছে দুটি সিনেমা। এগুলো হলো ‘অপরাজিত ৭১’; প্রযোজক ও পরিচালক মঈন উদ্দিন পাঠান। অন্যটি ‘জলদাসী’। এটির প্রযোজক ও পরিচালক মো. আবদুল খালেক (খালেক সাদমান)। শিশুতোষ শাখায় অনুদান পাচ্ছে ‘ডালিমকুমার ও তালপুকুরের কিচ্ছা’। এটি প্রযোজক ও পরিচালক সামির আহমেদ। সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে তিনটি সিনেমা। এগুলো হলো জুয়েইরাযাহ মউয়ের ‘মৌতালি পিঠার ঘ্রাণ’, এস এম কামরুল আহসানের ‘ফিনিক্স পাখি’ ও মোহাম্মদ মামুন ছোবহানীর ‘আবু ইব্রাহিমের মৃত্যু’। প্রতিটি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমাই ২০ লাখ করে টাকা অনুদান পাচ্ছে।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, মানবীয় মূল্যবোধসম্পন্ন জীবনমুখী, রুচিশীল ও শিল্পমানসমৃদ্ধ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা ও সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র অনুদান কমিটি’র সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে অনুদান প্রাপ্তদের নামের তালিকা দেয়া হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে।

এসআই/

Advertisement
Advertisement

ঢালিউড

বিয়ের গুঞ্জন নিয়ে যা বললেন রায়হান রাফি

Published

on

বর্তমান সময়ে ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় ও আলোচিত নির্মাতা রায়হান রাফি। এখন পর্যন্ত তার নির্মিত সব সিনেমাই জনপ্রিয়তার শীর্ষে। সম্প্রতি মুক্তিপ্রাপ্ত বক্স অফিস হিট করা সিনেমা ‘তুফান’।

ব্যক্তিগত জীবনে চিত্রনায়িকা তমা মির্জার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে গণমাধ্যমে নানা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। প্রায় সময়েই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের ছবি দেখে অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগে তাদের সম্পর্ক নিয়ে। গুঞ্জন উঠেছে তারা নাকি বিয়েও করেছেন। যদিও এই এ সম্পর্কের কথা কখনো স্বীকার করেননি তমা-রাফি জুটি। নেটিজনের অনেকেই বলছে, চলতি বছর বিয়ে করবেন তারা। আসলে কি তাই ?

‘তুফান’ সিনেমার আলোচনা-সমালোচনা নিয়ে ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে কথা বলেছেন রায়হান রাফি। এ আলাপচারিতার এক পর্যায়ে উঠে আসে তমা-রাফির প্রেম-বিয়ের প্রসঙ্গ। জানতে চাওয়া হয়, আপনি নাকি অভিনেত্রী তমা মির্জাকে চলতি বছরে বিয়ে করছেন? এ প্রশ্নের উত্তরে রায়হান রাফি বলেন, এখনো এরকম কোনো পরিকল্পনা নেই। আরও কয়েকটা হিট সিনেমা পরিচালনা করি। তারপর বিয়ে নিয়ে ভাবা যাবে।

বেশ কয়েক বছর ধরেই পরিচালক রায়হান রাফি ও চিত্রনায়িকা তমা মির্জার প্রেমের গুঞ্জন চলছে । তবে এই ব্যাপারে কেউই সরাসরি মুখ না খুললেও কেউ বলছেন ‘উই আর জাস্ট ফ্রেন্ড’—এর চেয়ে একটু বেশি, অন্যজন বলছেন, একই বয়সের হওয়ায় বন্ধুত্ব জমে উঠেছে।

জেড/এস

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

কখনো বিসিএস পরীক্ষা দেইনি: তাহসান

Published

on

সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) অধীন বিসিএসের ক্যাডার এবং নন–ক্যাডার নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান ও সাবেক যে ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ, তাঁদের একজন পিএসসির চেয়ারম্যানের গাড়িচালক আবেদ আলী। এই আবেদ আলীর সূত্রেই সামনে আসে ড. জিনাতুন নেসা তাহমিদা বেগমের নাম। পিএসসির আরেক সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক গতকাল মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘ড. জিনাতুন নেসা তাহমিদা বেগম ও এটিএম আহমেদুল হক চৌধুরী যখন পিএসসির চেয়ারম্যান ছিলেন, তখন আবেদ পিএসসির চেয়ারম্যানের গাড়িচালক ছিলেন। ইকরাম আহমদ যখন চেয়ারম্যান ছিলেন, তখন তিনি বরখাস্ত হন। পরে তাঁকে চাকরিচ্যুতও করা হয়।’

ড. মোহাম্মদ সাদিকের এই সাক্ষাৎকারের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে থাকে যে, ড. জিনাতুন নেসা তাহমিদা বেগমের চেয়ারম্যান থাকাকালে অনুষ্ঠিত ২৪ তম বিসিএসে পররাষ্ট্র ক্যাডারে প্রথম হয়েছিলেন তাঁর ছেলে সংগীতশিল্পী তাহসান খান। পরে অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় আবারও বিসিএসের ভাইভা অনুষ্ঠিত হয়। ভাইভায় বাদ পড়ে যান তাহসান।

এ নিয়ে চুপ থাকলেও অবশেষে মুখ খুলেছেন তাহসান খান। গণমাধ্যমকে তাহসান জানান, ‘পুরো বিষয়টিই ভুয়া। আমি কখনোই বিসিএস পরীক্ষা দিইনি। সুতরাং ২৪ তম বিসিএসে পররাষ্ট্র ক্যাডারে প্রথম হওয়ার তো প্রশ্নই আসে না।’

পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক বলেছেন, ড. জিনাতুন নেসা ও এটিএম আহমেদুল হক চৌধুরী যখন চেয়ারম্যান থাকাকালীন গাড়িচালক ছিলেন আবেদ আলী। পরবর্তীতে তিনি বরখাস্ত হন।

এ বিষয়ে তাহসান বলেন, ‘এখানে একটা ভুল হচ্ছে। এই ড্রাইভার অফিসের অন্যান্য ড্রাইভারদের মতোই একজন। তিনি আমার মায়ের ড্রাইভার নন।’

Advertisement

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

ছেলে সন্তানের বাবা হলেন ‘হাবু ভাই’ খ্যাত চাষী আলম

Published

on

‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ খ্যাত ছোটপর্দার দর্শকপ্রিয় অভিনেতা চাষী আলম ছেলে সন্তানের বাবা হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সকালে নিজেই গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অভিনেতা। তিনি বলেন, মা এবং ছেলে দুইজনে খুব ভালো আছে। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

গেল বছরের ২৫ আগস্ট তুলতুল ইসলামকে বিয়ে করেন চাষী আলম। রাজধানীর গুলশানের একটি রেস্তোরাঁয় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। সে বছরই ২৪ আগস্ট তার গায়েহলুদের অনুষ্ঠান হয়েছে। চাষীর স্ত্রী ঢাকারই মেয়ে। স্নাতক সম্পন্ন করছেন।

তুলতুলের এক ভাগনে চাষী অভিনয়ের ভক্ত। একদিন উত্তরার এক দোকানে কয়েকজন বন্ধু মিলে চটপটি খাচ্ছিলেন চাষী। সেখানে তুলতুলও চটপটি খেতে এসেছিল। চাষীকে দেখে তুলতুল ও তার ভাগনে ছবি তোলেন। সেদিনই সেখানে তাদের প্রথম পরিচয়। এর কিছুদিন পর ফোনে তাদের দুজনের সম্পর্ক শুরু হয়।

চাষী আলম ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটক দিয়ে তুমুল দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন। তবে মারজুক রাসেলের সঙ্গে একাধিক নাটকে অভিনয় করে তিনি আলোচিত হয়েছেন। তার অভিনীত বেশ কয়েকটি নাটক ইউটিউব ট্রেন্ডিংয়ে শীর্ষে ছিল। চাষী অভিনীত কাজল আরেফিন অমি নির্মিত ‘কিডনি’ ও ‘ফিমেল’ নাটক ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত