Connect with us

অপরাধ

প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে নানাকে হত্যা

Published

on

বেড়াতে যাওয়ার টাকার জন্য পরিকল্পনা করে মাদকাসক্ত প্রেমিক রাজুকে সাথে নিয়ে নানাকে হত্যা করেছে নাতনি আনিকা। এ ঘটনায় জড়িত ছিল তার ছোট ভাই আলভিও।  গত ১৭ নভেম্বর ঢাকার চকবাজার এলাকায় হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে।

বুধবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদার।

তিনি বলেন, আনিকাদের পরিকল্পনা ছিল নানাকে চেতনানাশক ইনজেকশন দিয়ে অচেতন করে লুট করা হবে নগদ টাকা। তবে ঘটনাক্রমে ডাকাতির সময় মারধরে মারা যান নানা হাজী মনসুর আহম্মেদ (৮০)।

এই ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্তে একপর্যায়ে পুলিশ জানতে পারে, ডাকাতি ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত পরিবারের সদস্যরাই।

মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) রাতে রাজধানীর বকশিবাজার, চাঁদপুর ও মুন্সিগঞ্জ থেকে মনসুর আহম্মেদের দুই নাতি-নাতনিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে চকবাজার থানা পুলিশ।

Advertisement

গ্রেপ্তাররা হলেন- মনসুর আহম্মেদের মেয়ের দুই ছেলে-মেয়ে শাহাদাত মুবিন আলভী-আনিকা তাবাসসুম, তাবাসসুমের ছেলেবন্ধু রাজু, রাজুর ভাই রায়হান ও তাদের পরিচিত সাঈদ।

পুলিশ জানায়, গত ১৭ নভেম্বর একমাত্র নানা ছাড়া পরিবারের অন্য সদস্যরা ছিলেন একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে। এই সুযোগে বিকল্প চাবি দিয়ে দরজা খুলে চকবাজার খাজে দেওয়ান রোডের ফার্স্ট লেনের ছয়তলা ভবনের দোতলায় ডাকাতির জন্য প্রবেশ করে একদল তরুণ।

সত্তরোর্ধ্ব হাজী মনসুর আহম্মেদকে অচেতন করার জন্য ইনজেকশন দিতে গেলে তিনি বাধা দেন। আর তখনই মারধর করলে তিনি মারা যান। আর ডাকাতি করতে আসা তরুণরা তার বাসা থেকে নিয়ে যান ৯২ হাজার টাকা।

ঘটনার পর ১৯ নভেম্বর নিহতের ছেলে আসগার আহম্মেদ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় দস্যুতাসহ হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই মামলার তদন্ত করতে গিয়ে বেরিয়ে আসে যে, মনসুর আহম্মেদ হত্যায় তার পরিবারের সদস্যরাই জড়িত।

ডিএমপির যুগ্ম-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) বিপ্লব বিজয় তালুকদার বলেন, ঘটনাস্থলে একটি সিরিঞ্জ পাওয়া যায়। এই সিরিঞ্জকে কেন্দ্র করেই তদন্ত মোড় নেয়। শুরুতে আমরা দস্যুতাসহ খুনের মামলা নিলেও পরে পরিবারের সদস্যদের পরিকল্পনায় খুনের প্রমাণ পাই।

Advertisement

তিনি বলেন, নাতনি আনিকা ন্যাশনাল ডেন্টালে পড়েন। তিনি মূল পরিকল্পনাকারী, তার ভাই, তার ছেলেবন্ধু ও অন্যান্যরা পরিকল্পনা অনুযায়ী ডাকাতি করতে গিয়েছিলেন। ঘুরতে যাওয়ার জন্য টাকার প্রয়োজন ছিল। সেই টাকা জোগাড় করতেই ডাকাতির পরিকল্পনা করা হয়।

এক মাস আগে এই ডাকাতির পরিকল্পনা হয় উল্লেখ করে ডিএমপির এই কর্মকর্তা বলেন, তারা বাসা ফাঁকা থাকার সুযোগ খুঁজছিলেন। সুযোগটি আসে ১৭ নভেম্বর রাতে। পরিবারের সদস্যরা চাঁন কমিউনিটি সেন্টারে বিয়েতে অংশ নিতে যান। আনিকাও সেখানে যান। সেখান থেকেই ঘটনার তদারকি করেন তিনি।

আর বাড়ির আশেপাশে থেকে আনিকার ছেলেবন্ধু রাজু ওয়াচার হিসেবে কাজ করেন। ডাকাতি করতে বাসায় প্রবেশ করেন আনিকার ভাই আলভী, রাজুর ভাই রায়হান ও সাঈদ।

এই তিনজন ভুক্তভোগীকে ইনজেকশন দেয়ার চেষ্টা করেন। এতে বাধা দেন ভুক্তভোগী। আর তখনই রায়হান ও সাঈদ মনসুর আহম্মেদকে মারধর করে ঘরে থাকা টাকা লুট করে নিয়ে যান। টাকাগুলো খুঁজে বের করে দেন আলভী।

বিপ্লব বিজয় তালুকদার জানান, ৯২ হাজার টাকা লুট হয়। এখান থেকে ৬২ হাজার টাকা আনিকার বাসা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

Advertisement

পারিবারিক মূল্যবোধ ও সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, তাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল ডাকাতি করা। আনিকা ও আলভী পরিবার থেকে হাতখরচ হিসেবে খুবই সামান্য টাকা পেতেন। ঘুরতে যাওয়ার জন্য অতিরিক্ত টাকা প্রয়োজন থেকে ডাকাতির পরিকল্পনা করেন তারা। ঘটনাক্রমে হত্যার শিকার হন মনসুর আহম্মেদ।

ভুক্তভোগী মনসুর আহম্মেদের স্ত্রী, তিন ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। মেয়ের দুই সন্তান ডাকাতির পরিকল্পনায় জড়িত।

তদন্ত কর্মকর্তারা জানান, এই ঘটনায় আনিকা ও আলভী জড়িত থাকার বিষয়টি পরিবারের সদস্যরা বুঝতে পারলেও তা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন, জড়িতদের ডিজিটাল ফরেনসিক, সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে জড়িতদের শনাক্ত ও গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার দায় স্বীকারও করেছেন গ্রেপ্তার পাঁচজন।

অপরাধ

ফুটবল দ্বন্দ্বে নয়, কোমরের বেল্ট নিয়ে বন্ধুকে হত্যা

Published

on

হত্যা

ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে নয় বরং কোমরের বেল্ট নিয়ে চাঁদপুরে দশম শ্রেণির ছাত্র মো. বরকত ছুরিকাঘাতে তার বন্ধু মো. মেহেদীকে হত্যা করে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের নানুপুর আমিন ব্যাপারীর বাড়ির সামনে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন চাঁদপুর মডেল থানার ওসি আব্দুর রশিদ।

নিহত মেহেদীর বাবার উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, মেহেদী-বরকত পরস্পর বন্ধু। কয়েক দিন আগে আমার ছেলে বরকতের বেল্ট নেয় এবং এর পরিবর্তে তাকে দুটি বেল্ট দিতে চায়। কিন্তু বরকত তা মেনে নেয়নি। সে তার আগের বেল্ট ফেরত চায়। বেল্ট না দেয়ায় বরকত আমার ছেলেকে গতকাল বিকেলে নদীর পাড়ে নিয়ে বেদম মারধর করে।

সন্ধ্যার দিকে আমার ছেলে বাড়ির কাছের দোকানে নাস্তা করার সময় বরকত তাকে ডেকে নিয়ে যায় ছুরিকাঘাত করে। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি আব্দুর রশিদ বলেন, রোববার রাতে মেহেদী ও বরকত তাদের গ্রামে ডাব চুরি করতে যায়। এ সময় বরকত প্যান্টের বেল্ট খুলে নিচে রেখে গাছে উঠে। মেহেদী তা লুকিয়ে রাখে। গাছ থেকে নেমে বেল্ট না পেয়ে বরকত মেহেদীকে অনেকবার তা ফেরত দিতে অনুরোধ জানান। বেল্ট না দেওয়ায় সোমবার সন্ধ্যায় মেহেদীকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে।

Advertisement

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায় বলেন, ডাব চুরির ঘটনায় বাগবিতণ্ডার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত বরকত রোবরাব রাতে ডাব চুরি করার সময় তার বেল্ট মেহেদী লুকিয়ে রাখে। সোমবার সন্ধ্যায় এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাকে ছুরিকাঘাত করে বরকত। বরকতকে ছুরিসহ আটক করা হয়েছে।

পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

অপরাধ

আয়াত হত্যা: ৩ দিনের রিমান্ডে আবীরের মা-বাবা-বোন

Published

on

হত্যা

চট্টগ্রাম শহরের ইপিজেডে ৫ বছরের শিশু আলীনা ইসলাম আয়াতকে অপহরণের পর হত্যায় অভিযুক্ত আবীরের মা-বাবা ও বোন ৩ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে এ তথ্য জানা যায়।

এর আগে শিশু আয়াতকে অপহরণের পর হত্যা করে ৬ খণ্ড করায় অভিযুক্ত আবের আলীর প্রথমে দুই দিন এবং পরে আবার ৭ দিনের রিমান্ড দেন আদালত।

গেলো ১৫ নভেম্বর শিশু আয়াত নিখোঁজ হওয়ার পর ইপিজেড থানায় জিডি করে তার পরিবার। তার দাদা পিবিআই’র কাছে নাতনির সন্ধান চেয়ে আবেদন করেন। পরে পিবিআই তদন্তে নেমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবীরকে আটক করে।

গেলো বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে আবীর। সে জানিয়েছে, মুক্তিপণের আদায়ের জন্য আয়াতকে অপহরণ করেছিল সে। পরে তাকে হত্যা করে মরদেহ গুম করতে খণ্ডবিখণ্ড করে বিভিন্ন স্থানে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় আয়াতের বাবা সোহেল রানা বাদী হয়ে ইপিজেড থানায় মামলা করেছেন।

Advertisement

আবীর নগরের ইপিজেড থানার দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ডের নয়ারহাট এলাকার ভাড়াটিয়া আজহারুল ইসলামের ছেলে। তাদের বাড়ি রংপুর।

আয়াতের মরদেহ উদ্ধারে আবীরকে নিয়ে অভিযান চালাচ্ছে পিবিআই। গেলো ২৫ নভেম্বর তকে নিয়ে পুলিশ নগরের আকমল আলী সড়কের স্লুইস গেট সংলগ্ন নালায় এবং পরবর্তীতে আউটার রিং রোড সংলগ্ন বে-টার্মিনাল এলাকার সমুদ্র পাড়ে যায়।

গত রোববারও অভিযানে যায় পিবিআই। সাগরের পানিতে ভেসে যাওয়ায় শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা যায়নি। তবে হত্যায় ব্যবহৃত বটি ও আয়াতের জুতা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 

 

Advertisement
পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

অপরাধ

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৪০

Published

on

হত্যা

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ। অভিযানে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৪০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমাবার (২৮ নভেম্বর) সকালে ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

ডিএমপি পক্ষ থেকে বলা হয়, ডিএমপির নিয়মিত মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে রোবাবার (২৭ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে আজ সকাল ৬টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ২৯৯১ পিস ইয়াবা, ১২২ গ্রাম ২০ পুরিয়া হেরোইন, ৩১ কেজি ৩৬৫ গ্রাম গাঁজা ও ৮০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে ডিএমপির সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩৮টি মামলা রুজু হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে।

Advertisement
পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

হত্যা হত্যা
অপরাধ1 hour ago

ফুটবল দ্বন্দ্বে নয়, কোমরের বেল্ট নিয়ে বন্ধুকে হত্যা

ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে নয় বরং কোমরের বেল্ট নিয়ে চাঁদপুরে দশম শ্রেণির ছাত্র মো. বরকত ছুরিকাঘাতে তার বন্ধু মো. মেহেদীকে...

হত্যা হত্যা
বাংলাদেশ2 hours ago

ভারতে আরো একটি ব্যবসা বন্ধ করছে অ্যামাজন

ভারতে পাইকারি বিতরণ ব্যবসাও বন্ধ করে দিচ্ছে অ্যামাজন। বার্ষিক পরিচালন কার্যক্রম পর্যালোচনা এবং খরচ কমানোর অংশ হিসেবে এ পদক্ষেপ নিচ্ছে...

হত্যা হত্যা
বাংলাদেশ2 hours ago

বিশ্বকাপসহ টিভিতে যা দেখবেন আজ

ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপে আজ (২৯ নভেম্বর) ‘এ’ গ্রুপে রাত ৯টায় নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে কাতার এবং ইকুয়েডরের প্রতিপক্ষ সেনেগাল। অন্যদিকে ‘বি’...

হত্যা হত্যা
জাতীয়3 hours ago

জঙ্গি তৎপরতা আর বিএনপির কার্যক্রম এক সূত্রে গাঁথা: তথ্যমন্ত্রী

জঙ্গি তৎপরতা আর বিএনপির কার্যক্রম এক সূত্রে গাঁথা। বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। আজ মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সচিবালয়ে...

বেসিক ব্যাংক বেসিক ব্যাংক
আইন-বিচার3 hours ago

বেসিক ব্যাংক: ৩ মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ না হলে ব্যবস্থা নিবে হাইকোর্ট

আগামী তিন মাসের মধ্যে বেসিক ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারির মামলাগুলোর তদন্ত কাজ শেষ করতে হবে দুদককে। অন্যথায় দুদকের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী...

হত্যা হত্যা
আইন-বিচার3 hours ago

চিত্রনায়িকা শিমু হত্যা: স্বামীসহ দুজনের বিচার শুরু

চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যা মামলায় স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও তার বন্ধু এস এম ফরহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন...

সতর্ক সতর্ক
জাতীয়4 hours ago

‘জঙ্গি ও শীর্ষ সন্ত্রাসীদের স্থানান্তরকালে অধিকতর সতর্ক হতে হবে’

কারা অভ্যন্তরে  জঙ্গি, শীর্ষ সন্ত্রাসীরা কোনো ধরনের সমাজ ও রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতা চালাতে না পারে সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এমনকি...

হত্যা হত্যা
জাতীয়4 hours ago

টিকিট কেটে চোখের পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী

চোখের চিকিৎসা করাতে সাধারণ রোগীদের মতো ১০ টাকায় টিকিট কাটলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারপর করালেন চোখ পরীক্ষা। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর)...

হত্যা হত্যা
অপরাধ4 hours ago

আয়াত হত্যা: ৩ দিনের রিমান্ডে আবীরের মা-বাবা-বোন

চট্টগ্রাম শহরের ইপিজেডে ৫ বছরের শিশু আলীনা ইসলাম আয়াতকে অপহরণের পর হত্যায় অভিযুক্ত আবীরের মা-বাবা ও বোন ৩ দিনের রিমান্ডে...

জিএম কাদের জিএম কাদের
আইন-বিচার5 hours ago

জিএম কাদেরের দায়িত্ব পালনে নেই বাধা: হাইকোর্ট

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদেরকে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যে দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা ছিল সেটি স্থগিত...

Advertisement

আর্কাইভ

হত্যা
জাতীয়19 hours ago

সরকারকে জ্বালানির মূল্য নির্ধারণে সংশোধনী অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা

হত্যা
রংপুর1 day ago

পা দিয়ে লিখে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে সেই মানিক

সতর্ক
আওয়ামী লীগ3 days ago

বিএনপির সম্মেলন নিয়ে অফিসিয়ালি কিছু আসেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

হত্যা
জাতীয়3 days ago

খেতে খেতে চীনের প্রধানমন্ত্রীকে টানেলের প্রস্তাবটা দেই: প্রধানমন্ত্রী

হত্যা
জাতীয়4 days ago

ময়দার বস্তায় আটা বিক্রি

হত্যা
বলিউড5 days ago

উরফি এবার মদের গ্লাস দিয়ে শরীর ঢাকলেন

হত্যা
জাতীয়5 days ago

‘রাজনীতি করতে চাই না, রাজনীতিবীদদের সহযোগিতা চাই’

হত্যা
জাতীয়6 days ago

বিশ্বকাপে আমাদের টিম নেই এটা আসলে কষ্ট দেয় : প্রধানমন্ত্রী

হত্যা
অপরাধ6 days ago

প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে নানাকে হত্যা

হত্যা
বিএনপি6 days ago

‘আদালত থেকে জঙ্গি ছিনতাই সরকারের নতুন নাটক’

সর্বাধিক পঠিত