Connect with us

রংপুর

বাপ-দাদার ঐতিহ্য ধরে রাখতে মহিষের গাড়ীতে বিয়ে

Avatar of উম্মে রুম্মান ক্রান্তি

Published

on

বিশ্বকাপ

বাপ-দাদার ঐতিহ্য ধরে রাখতে মহিষের গাড়ীতে চরে বিয়ে করে নববধূকে ঘরে তুললেন উপসহকারী মেডিকেল অফিসার উমর ফারুক। বর উমর ফারুকের বাড়ি কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা মুসুল্লি পাড়া এলাকায়। তিনি ওই এলাকার ফজলুল হকের ছেলে।

শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) বিকালে মহিষের গাড়ীতে করে বিয়ে করতে যান পাশ্ববর্তী জেলা লালমনিরহাট সদর উপজজেলা কুলাহাট এলাকায়।

বর উমর ফারুক জানান, আমার বাপ-দাদারা বিয়ে করেছেন কেউ হাতির পিঠে চরে, কেউ মহিষের গাড়ীতে চরে।

বংশের সেই পুরাতন ঐতিহ্য ধরে রাখতে তিনিও মহিষের গাড়ীতে চরে বিয়ে করবেন বলে স্বপ্ন দেখেন। তিনি সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন ও বংশের ঐতিহ্য ধরে রাখতে দুইটি মহিষের গাড়ীতে করে প্রায় ১০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে কুলাহাট ইউনিয়নের ডেবডেমি এলাকার বেলাল হোসেনের মেয়ে বিলকিস আক্তারের সঙ্গে শুক্রবার সন্ধ্যায় বিয়ে সম্পন্ন করেন। দুইটি মহিষের গাড়ী ছাড়াও পাঁচটি মোটরসাইকেল, দুইটি মাইক্রো বাস যোগে বরযাত্রী যান।

নববধূ বিলকিস আক্তার জানান, আমি বাপ-দাদার কাছে শুনেছি, যে আজ থেকে প্রায় ৩০-৪০ বছর আগে শুধু মহিষের গাড়ীতে চরে বিয়ে নয়, সেসময় মানুষের একমাত্র চলাচলের বাহন ছিল মহিষের গাড়ী।

Advertisement

তিনি জানান, আমার স্বামী তার বংশের ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য ডিজিটাল যুগে এসেও মহিষের গাড়ীতে চরে আমাকে বিয়ে করে নিয়ে যান। আমি এটা কখনও ভাবিনি মহিষের গাড়ীতে চরে নববধূ হয়ে স্বামীর ঘরে যাবো। সত্যি আমার কাছে খবুই ভাল লেগেছে।

ঘটক রাজু সরকার জানান, ছেলে ও তার পরিবারের ইচ্ছা ও তাদের বংশের ঐতিহ্য ফিরে আনতে ছেলেকে মহিষের গাড়ীতে চরে বিয়ে করতে যান। ২৫ থেকে ৩০ বছর পর মহিষের গাড়ীতে চরে বিয়ে করতে যাওয়ার সময় বর ও কনের বাড়িতে শতশত মানুষের ঢল নামে। এমন কি যখন পাত্র মহিষের গাড়ীতে বিয়ে করতে কনের বাড়ির উদেশ্যে রওনা হন। তখন ফুল দিয়ে সাজানো মহিষের গাড়ীতে বরকে এক নজর দেখেন। পাশাপাশি বরসহ মহিষের গাড়ীর অনেকেই ছবি তুলেন এবং সঙ্গে সঙ্গে ফেসবুকে ছাড়েন। সব মিলে মহিষের গাড়ীতে চরে বর বিয়ে করতে যাওয়ায় সেই হারানো দিনগুলি কথা অনেকের মনে পড়ে যায়। সেই সঙ্গে পুরাতন ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য সকালকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক করুন

রিপ্লাই দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

রংপুর

পা দিয়ে লিখে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে সেই মানিক

Published

on

বিশ্বকাপ

মানিক রহমান। জন্ম থেকেই দুই হাত নাই। দুই পা থাকলেও একটি লম্বা ও অন্যটি খাটো। অদম্য ইচ্ছা শক্তি থাকায় সে সুস্থ ও স্বাভাবিক অন্যান্য শিক্ষার্থীদের মতোই পা দিয়ে লিখে এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে বাবা-মা ও শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ উপজেলা বাসীর মুখ উজ্জল করেছে শারীরিক প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থী মানিক রহমান। অদম্য মেধাবী মানিক রহমান এ বছর ফুলবাড়ী জছিমিঞা মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। পাঁ দিয়ে লিখেও অন্যান্য শিক্ষার্থীদের তুলনায় তার হাতের লেখা মাধুর্য্যপূণ।

আজ সোমবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে নিজের ল্যাপটপ পা দিয়ে চালিয়ে পরীক্ষার ফল বের করে মানিক। পরীক্ষার ফল প্রকাশ হওয়ার পর মানিকের গোল্ডেন জিপিএ-৫ পাওয়ার খবর শুনে সবাই মুগ্ধ। বিষয়টি বায়ান্ন টিভিকে  নিশ্চিত করেন।

নিজের ল্যাপটপ পা দিয়ে চালিয়ে পরীক্ষার ফল গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে।  পরীক্ষার ফল  প্রকাশিত হওয়ার পর মানিকের গোল্ডেন জিপিএ-৫ পাওয়ার খবর শুনে  সকলেই মুগ্ধ।

এই শারীরিক প্রতিবন্ধী মানিক রহমানের বাড়ী কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা গ্রামে ওষধ ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান ও মা প্রভাষক মরিয়ম বেগমের ছেলে। বাবা-মায়ের অক্লান্ত পরিশ্রমে মানিক রহমানের দুটো হাত নাই, একটি পা অন্যটির চেয়ে অনেকাংশে খাটো। কিন্তু কখনও পড়াশোনা থেকে পিছিয়ে পড়েনি। বাবা-মা ও শিক্ষকদের অনুপ্রেরণায় নিজের আত্মবিশ্বাস ও মনোবলকে পূজি সে পিইসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ সহ ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি ও জেএসসিতে ও গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছেন মানিক রহমান। পা দিয়ে লেখাই ভাল রেজাল নয়, সে পা দিয়ে মোবাইল চালানো এবং কম্পিউটার টাইপিং ও ইন্টারনেট ব্যবহারেও পারদর্শী মানিক রহমান। তাই মানিক রহমান ভবিষ্যতে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হয়ে বাবা-মায়ের স্বপ্ন পূরণ করতে সকালের দোয়া কামনা করেন। বাবা-মায়ের বড় ছেলে মানিক রহমান। তার দুটো হাত না থাকলেও পড়ালেখা থেকে কখনও পিছিয়ে পড়েনি এই লড়াকু সৈনিক মানিক। তাকে কঠোর পরিশ্রম করা শিখিয়েছেন তার পরিবার। লড়াকু সৈনিক মানিক রহমান ২০১৬ সালে জছিমিঞা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পিএসসিতে গোল্ডেন এ-প্লাস পায় এবং ২০১৯ সালে ফুলবাড়ী জছি মিঞা মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে।

ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও প্রতিবন্ধী মানিকের বাবা মিজানুর রহমান ও মা মরিয়ম বেগম জানান, আমার দুই ছেলে । মানিক বড়। ছোট ছেলে মাহীম ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ে। বড় ছেলে মানিক প্রতিবন্ধী এটা আমরা মনে করি না। জন্ম থেকেই তার দুটো হাত না থাকলেও ছোট থেকে আমরা তাকে পাঁ দিয়ে লেখার অভ্যাস করিয়েছি। সমাজে অনেক সুস্থ ও স্বাভাবিক ছেলে-মেয়েদের চেয়েও মানিক পিএসসি ও জেএসসিতে ভাল রেজাল্ট করেছে। এটা আমাদের গর্ব। সবাই আমার ছেলেটার জন্য দোয়া করবেন সে যেন সুস্থ সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকতে পারে। সে এইচএসসি পরীক্ষায় ভাল রেজাল্ট করে তার স্বপ্নগুলো বাস্তবায়ন করতে পারে।

Advertisement

মানিক রহমান বলেন, আমার দুটো হাত না থাকলেও আল্লাহ রহমতে এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছি। আমি এর আগে জেএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন এ-প্লাস পাই। সে আরও বলেন, আমি এইচএসসি পরীক্ষায় ভাল রেজাল্ট করে প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারি এবং ভবিষ্যতে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হয়ে বাবা-মায়ের স্বপ্ন পূরণ করতে পারি।

ফুলবাড়ী জছিমিঞা মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবেদ আলী খন্দকার জানান, শারীরিক প্রতিবন্ধি হওয়ার পরেও মানিক রহমান অন্যান্য শিক্ষার্থীদের চেয়ে ভাল ফলাফল করায় আমরা মুগ্ধ। সে জীবনে অনেক বড় হোক এ দোয়াই করি।

পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

রংপুর

সাদুল্লাপুরে তিন ইউপিতে চলছে ভোট

বিশ্বকাপ

গাইবান্ধর সাদুল্লাপুরে তিন ইউনিয়ন পরিষদের ইভিএমে ভোট গ্রহন চলছে।

আজ সোমবার (২৮ নভেম্বর) সকাল ৮ টা থেকে ভোট গ্রহন শুরু হয়েছে আর শেষ হবে বিকেল ৪ টায়।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, তিন ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ১৩ জন, সাধারণ সদস্য পদে ১২৭ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৪৪ জন। ওই তিন ইউনিয়নের ৬৮ হাজার ২৪৮ জন ভোটার রয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ৩৩ হাজার ২৫৮ ও নারী ভোটার রয়েছে ৩৪ হাজার ৯৯০ জন। ২৯ কেন্দ্রের ২২৯ কক্ষে (বুথ) ইভিএমের মাধ্যমে ভোটাররা তাদের ভোটধিকার প্রয়োগ করবেন।

সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং অফিসার লুৎফর রহমান বলেন, অবাধ সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ভোটের মাঠে অবস্থান করছেন।

সারাদেশে ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচনের ষষ্ঠধাপে গত ৩১ জানুয়ারি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ১১ ইউপির মধ্যে ৮টি ইউপির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সাদুল্লাপুর পৌরসভা (প্রস্তাবিত) গঠনের জটিলতায় পিছিয়ে ছিল জামালপুর, বনগ্রাম ও কামারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ। এরই মধ্যে এই তিন ইউনিয়নের ভোটের দাবিতে আন্দোলন, সংগ্রাম ও আইনি লড়াইয়ের পর্ব পার হয়ে অবশেষে দীর্ঘ ১০ মাস প্রতীক্ষার পর আজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে ওই ৩ ইউপির বহুল কাঙ্খিত ভোট।

Advertisement
পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

রংপুর

দিনাজপুরে ১০ বছর পর আ.লীগের সম্মেলন আজ

Published

on

বিশ্বকাপ

দীর্ঘ ১০ বছর পর আজ সোমবার (২৮ নভেম্বর) দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলন ঘিরে শহর সেজেছে নতুন সাজে।

সম্মেলনস্থলে দেখা যায়, জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ মিছিল নিয়ে গোর এ শহীদ বড় ময়দানে আসছেন। তাদের পদচারণায় মুখর সম্মেলনস্থল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদপ্রত্যাশী তিনজন। তাদের মধ্যে বর্তমান সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ও দিনাজপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য আবুল হাসান মাহমুদ আলী রয়েছেন। সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য লড়ছেন ১১ জন। তাদের মধ্যে সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল ও শিবলী সাদিক রয়েছেন।

জেলা আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, জেলায় সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল ২০১২ সালের ২৩ ডিসেম্বর। দীর্ঘ দিন পর আবার সম্মেলন হওয়ায় নেতা-কর্মীরা বেশ উচ্ছ্বসিত।

পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ
বাংলাদেশ32 mins ago

বিশ্বকাপসহ টিভিতে যা দেখবেন আজ

ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপে আজ (২৯ নভেম্বর) ‘এ’ গ্রুপে রাত ৯টায় নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে কাতার এবং ইকুয়েডরের প্রতিপক্ষ সেনেগাল। অন্যদিকে ‘বি’...

বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ
জাতীয়48 mins ago

জঙ্গি তৎপরতা আর বিএনপির কার্যক্রম এক সূত্রে গাঁথা: তথ্যমন্ত্রী

জঙ্গি তৎপরতা আর বিএনপির কার্যক্রম এক সূত্রে গাঁথা। বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। আজ মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সচিবালয়ে...

বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ
অপরাধ53 mins ago

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা দ্বন্দ্বে বন্ধুকে হত্যা

ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরে দশম শ্রেণির ছাত্র মো. বরকত ছুরিকাঘাতে তার বন্ধু মো. মেহেদীকে হত্যা করে। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার...

বেসিক ব্যাংক বেসিক ব্যাংক
আইন-বিচার58 mins ago

বেসিক ব্যাংক: ৩ মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ না হলে ব্যবস্থা নিবে হাইকোর্ট

আগামী তিন মাসের মধ্যে বেসিক ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারির মামলাগুলোর তদন্ত কাজ শেষ করতে হবে দুদককে। অন্যথায় দুদকের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী...

বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ
আইন-বিচার1 hour ago

চিত্রনায়িকা শিমু হত্যা: স্বামীসহ দুজনের বিচার শুরু

চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যা মামলায় স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও তার বন্ধু এস এম ফরহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন...

সতর্ক সতর্ক
জাতীয়2 hours ago

‘জঙ্গি ও শীর্ষ সন্ত্রাসীদের স্থানান্তরকালে অধিকতর সতর্ক হতে হবে’

কারা অভ্যন্তরে  জঙ্গি, শীর্ষ সন্ত্রাসীরা কোনো ধরনের সমাজ ও রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতা চালাতে না পারে সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এমনকি...

বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ
জাতীয়3 hours ago

টিকিট কেটে চোখের পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী

চোখের চিকিৎসা করাতে সাধারণ রোগীদের মতো ১০ টাকায় টিকিট কাটলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারপর করালেন চোখ পরীক্ষা। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর)...

বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ
অপরাধ3 hours ago

আয়াত হত্যা: ৩ দিনের রিমান্ডে আবীরের মা-বাবা-বোন

চট্টগ্রাম শহরের ইপিজেডে ৫ বছরের শিশু আলীনা ইসলাম আয়াতকে অপহরণের পর হত্যায় অভিযুক্ত আবীরের মা-বাবা ও বোন ৩ দিনের রিমান্ডে...

জিএম কাদের জিএম কাদের
আইন-বিচার3 hours ago

জিএম কাদেরের দায়িত্ব পালনে নেই বাধা: হাইকোর্ট

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদেরকে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যে দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা ছিল সেটি স্থগিত...

হাইকোর্ট হাইকোর্ট
আইন-বিচার3 hours ago

আমাদের লড়াইটা দুর্নীতির বিরুদ্ধে : হাইকোর্ট

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা থেকে দুর্নীতি নির্মূল করাই আমাদের লক্ষ্য। আমাদের লড়াইটা দুর্নীতির বিরুদ্ধে। বলেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুর্নীতি দমন...

Advertisement

আর্কাইভ

বিশ্বকাপ
জাতীয়18 hours ago

সরকারকে জ্বালানির মূল্য নির্ধারণে সংশোধনী অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা

বিশ্বকাপ
রংপুর1 day ago

পা দিয়ে লিখে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে সেই মানিক

সতর্ক
আওয়ামী লীগ3 days ago

বিএনপির সম্মেলন নিয়ে অফিসিয়ালি কিছু আসেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশ্বকাপ
জাতীয়3 days ago

খেতে খেতে চীনের প্রধানমন্ত্রীকে টানেলের প্রস্তাবটা দেই: প্রধানমন্ত্রী

বিশ্বকাপ
জাতীয়4 days ago

ময়দার বস্তায় আটা বিক্রি

বিশ্বকাপ
বলিউড5 days ago

উরফি এবার মদের গ্লাস দিয়ে শরীর ঢাকলেন

বিশ্বকাপ
জাতীয়5 days ago

‘রাজনীতি করতে চাই না, রাজনীতিবীদদের সহযোগিতা চাই’

বিশ্বকাপ
জাতীয়6 days ago

বিশ্বকাপে আমাদের টিম নেই এটা আসলে কষ্ট দেয় : প্রধানমন্ত্রী

হত্যা
অপরাধ6 days ago

প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে নানাকে হত্যা

বিশ্বকাপ
বিএনপি6 days ago

‘আদালত থেকে জঙ্গি ছিনতাই সরকারের নতুন নাটক’

সর্বাধিক পঠিত