Bayanno Tv
সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
×

চীনে করোনা পরবর্তী অর্থনীতিতে রেকর্ড ১৮.৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি

  বায়ান্ন অনলাইন ডেস্ক ১৬ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৫০

চীনে করোনা পরবর্তী অর্থনীতিতে রেকর্ড ১৮.৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যেও ২০২১ সালের প্রথম তিন মাসে প্রায় তিন দশকের সর্বোচ্চ ১৮ দশমিক ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে চীন। শুক্রবার দেশটির সরকারের চলতি বছরের প্রথম ত্রৈমাসিক অর্থনৈতিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন ও ব্রিটেনের বিবিসি জানিয়েছে, ১৯৯২ সালে জিডিপি’র হিসেব রাখা শুরুর পর এ পর্যন্ত সময়ে প্রথম ত্রৈমাসিকে এটাই সবচেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধির রেকর্ড বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশটির। রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি সত্ত্বেও এটি প্রত্যাশার চেয়েও কম। জিডিপি ১৯ শতাংশ বৃদ্ধির আশা করছিল চীনা অর্থনীতিবিদেরা।

গেল বছর করোনাভাইরাসের প্রকোপে চীনজুড়ে লকডাউন আরোপের পর প্রথম ত্রৈমাসিকে অর্থনীতির সিংহভাগ কার্যক্রম বন্ধ ছিল। জানুয়ারি থেকে মার্চে প্রবৃদ্ধি নেমে যায় শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ। আর একেই ভিত্তি ধরে চলতি বছরের জিডিপি হিসেব করেছে অর্থনীতিবিদেরা। চতুর্থ ত্রৈমাসিকে প্রবৃদ্ধি ঠেকে ৬ দশমিক ৫ শতাংশে।

চীনের পরিসংখ্যান বিভাগের প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, অর্থনীতির গুরুত্বপূর্ণ সূচকগুলো অস্বাভাবিক শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। কারণ সেগুলো গেল বছরের চরম দুর্বল সংখ্যার সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে।

এখন পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে, ভালোভাবেই ঘুরে দাঁড়াচ্ছে চীনের অর্থনীতি। মহামারির মধ্যে পুরো ২০২০ সালে বিশ্বের যে কোন দেশের চেয়ে ভালো অর্থনৈতিক অগ্রগতি আনে চীন। সারা বছরের হিসেবে গেল বছর করোনাভাইরাসের উৎস দেশটি প্রবৃদ্ধি অর্জন করে ২ দশমিক ৩ শতাংশ। গত বছরের অর্থনৈতিক গতিকে যতটা আশা করা হয়েছিল তার চেয়ে ভালো বলে আখ্যা দেয় চীনা কর্তৃপক্ষ।

চীনে শিল্প উৎপাদন এক বছর আগের তুলনায় মার্চে বেড়েছে ১৪.১ শতাংশ। খুচরা বিক্রি বেড়েছে ৩৪.২ শতাংশ। দেশটির শিল্প উৎপাদন মূলত রপ্তানি শক্তির ওপর নির্ভরশীল। কারখানাগুলো বিদেশি অর্ডার পূরণে ব্যস্ত রয়েছে।

চীনে আগের বছরের একই মাসের তুলনায় গেল মাসে আমদানি বেড়েছে ৩৮ শতাংশের বেশি। এর মানে, চীনের অভ্যন্তরে মানুষের চাহিদা বাড়ছে। একইভাবে দেশটির রপ্তানি বেড়েছে ৩১ শতাংশ।

কয়েকজন বিশ্লেষকের মতে, চীনে অভ্যন্তরীণ ক্রয়ের পরিমাণও বেড়েছে। বাণিজ্যিক প্লাটফর্ম এক্সএম.কমের কর্মকর্তা পিটার ম্যাকগাইরে বলেন, সরকার ব্যক্তিগত ব্যবহারের পরিমাণ বাড়াতে হিমশিম খাচ্ছে। আর এই মুহূর্তে চ্যালেঞ্জ আরও বেড়েছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকানোর কঠোর পদক্ষেপ এবং অর্থনৈতিক প্রণোদনা তহবিলের সহায়তায় ধীরে ধীরে আগের অবস্থায় ফিরতে শুরু করেছে চীনের অর্থনীতি। ২০২০ সালে বিপর্যয়ের বছর শুরু করেও দেশটির অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পায় শেষ তিন মাসে।

 

এসএন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র

প্রধান সম্পাদকঃ সৈয়দ আশিক রহমান
বেঙ্গল টেলিভিশন লিমিটেড

৪৩৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।