Connect with us

পরামর্শ

ঠাণ্ডায় নাক বন্ধ-সর্দি-কাশি, যা করবেন

Published

on

নৌযান

ঋতু বদলাচ্ছে। শীত দরজায় কড়া নাড়ছে। এই সময়ে এসে হাজির হয়েছে নানা ভাইরাস। এবার সেই কারণে অনেকের ঠাণ্ডা লাগছে। এমনকী নাক দিয়ে গড়াচ্ছে পানি। এই পরিস্থিতিতে সতর্ক থেকে ডায়েটে এমন কিছু খাবার রাখুন যা আপনাকে কাশি, সর্দি থেকে বাঁচাবে।

আসলে শীত পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই আশপাশের বিভিন্ন ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া সজাগ হয়ে ওঠে। এক্ষেত্রে মাথায় রাখতে হবে যে কমন কোল্ড বা ঠাণ্ডা লাগার সমস্যা এই সময় বাড়বে। সাধারণ ঠাণ্ডা লাগার সমস্যার পেছনে থাকে ইনফ্লুয়েঞ্জা থেকে প্যারা ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস।

তবে সকলে এই জীবাণু দ্বারা আক্রান্ত হন না। যাদের শরীরে ইমিউনিটি কম রয়েছে তাদের ঠাণ্ডা লাগে, জ্বর হয়, নাক দিয়ে পানি গড়ায়, মাথা ব্যথা করে, নাক বন্ধ হয়ে যায়, কাশি হয়। এবার এই সকল লক্ষণ দেখা দিলেই প্রতিটি মানুষকে সতর্ক হতে হবে।

আসুন জানা যাক সেই প্রসঙ্গে-

​১. গরম চা খান

Advertisement

চা খেতে প্রতিটি মানুষ ভালোবাসেন। আসলে চা হল গরম পানীয়। এই পানীয় মুখে তুললে শরীর সুস্থ থাকতে পারে। এমনকী বুকের চাপ ভাব কমে। শ্বাস নিতে সুবিধে হয়। এবার চায়ের মধ্যে আপনি আদা মেশাতে পারেন। সেক্ষেত্রে আদায় রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টিইনফ্লমেটরি গুণ। এই কারণে ঠাণ্ডা লাগার সমস্যা, গলা ব্যথা, কাশি, সাইনাস কমাতে পারে এই পানীয়।

​২. গরম পানি পান করতে পারেন

গরম পানির অনেক গুণ রয়েছে। এই পানি আপনি পান করতে পারেন। সেক্ষেত্রে কাশির সমস্যা কমে। এছাড়া এই পানিতে লবণ দিয়ে গার্গল করুন। দেখবেন কমেছে গলা ব্যথা। এছাড়া গরম পানিতে লেবু ফেলে দিন। দেখবেন সেই জল হয়েছে আরও উপকারী। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই ঠান্ডা লাগলে বা কাশি হলে খেতে হবে এই পানীয়।

​৩. লেবু খান

এখনকার মানুষ অনেকেই লেবুর গুণ জেনে গেছেন।  লেবুর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি। এই ভিটামিন দ্রুত ইমিউনিটি বাড়ায়। এমনকী মানুষকে রোগের সঙ্গে লড়ার সুবিধা দেয়। এবার ঠাণ্ডা লাগার পেছনে থাকা ভাইরাসকে হারাতে হলে আপনাকে খেতে হবে লেবু। তবেই শরীর সুস্থ থাকতে পারে। তাই শীতে প্রতিদিন লেবু খাওয়ার চেষ্টা করুন। যে কোনও লেবু খান।

Advertisement

৪. সবজি খান

শীতকালে দেশে সবজি পাওয়া যায়। এই সময়টায় বাজার নানা সবজিতে ভরে যাবে। সেক্ষেত্রে যে কোনও সবজি খেতে পারেন। সবথেকে ভালো হয়, শাক পাতা খেতে পারলে। আপনি যদি শাক বা অন্যান্য সবজি খান তবে শরীরে প্রবেশ করবে নানা ধরনের ভিটামিন, মিনারেল, মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এই সকল জিনিসগুলি রোগ মুক্তিতে সাহায্য করবে।

​৫. প্রোটিন জরুরি

প্রতিটি মানুষের শরীরে প্রোটিন যথেষ্ঠ পরিমাণে দরকার। ইমিউনিটি গঠনে শুধু ভিটামিন সি নয়, পাশাপাশি প্রোটিন প্রয়োজন। এবার প্রোটিন নিয়মিত তাই খেতে হবে। এক্ষেত্রে পেশিও সুস্থ থাকবে। এবার মাথায় রাখতে হবে যে প্রোটিন ঠাণ্ডা লাগা, কাশির সময় একটু খাওয়া বাড়ানো উচিত। এর মাধ্যমে সমস্যা কমবে। সেক্ষেত্রে চিকেন, ডিমের সাদা, মাছ খান। আশা করছি ভালো থাকবেন।

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক করুন

রিপ্লাই দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

পরামর্শ

চায়ে চুমুক দিতেই পুড়ে গেছে জিভ!

Published

on

চা

প্রচন্ড মাথা যন্ত্রণা হচ্ছে! এক পেয়ালা গরম চা বানিয়ে ভাবলেন, যন্ত্রণা কমবে। চুমুক দিতেই জিভ গেল পুড়ে। জিভ পুড়ে গেলে বেশ সমস্যা হয়, জ্বালার পাশাপাশই কোনও খাবারেরই তেমন স্বাদ পাওয়া যায় না। অনেক সময় মুখের ভিতরটা এই কারণে শুকিয়ে যেতেও থাকে। তবে চটজলদি কয়েকটা ঘরোয়া উপায়েই মিলতে পারে সমাধান। জিভ পোড়ার জ্বালা ভাব কমাতে জেনে নিন, কিছু ঘরোয়া সমাধান।

গুঁড়ো দুধ ও চিনি

কমবেশি সবার বাসাতেই গুঁড়ো দুধ থাকে। জিভ পুড়ে গেলে জ্বালা ভাব কমাতে একটু গুঁড়ো দুধ আর চিনি জিভের পোড়া অংশে লাগিয়ে রেখে দিন কিছু ক্ষণ। জ্বালা ভাব কমবে দ্রুত।

মধু

যে কোনও পোড়া জায়গায় প্রদাহ কমাতে মধু ব্যবহার করা হয়। জিভ পুড়ে গেলেও এই উপাদানটি ভীষণ কাজে লাগে। মধুতে রয়েছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান, যা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচায়। মধু যেহেতু একটু ঠান্ডা, তাই তা লাগালে জিভের জ্বালা ভাব কমে।

বরফকুচি

ফ্রিজ থেকে বরফের টুকরো একটু ভেঙে নিয়ে ছোট ছোট বরফকুচি জিভের পোড়া অংশে আলতো করে ছড়িয়ে দিন। কোনও কারণে বরফ না পেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে কুলকুচি করলেও সমান উপকার পাবেন।

লবণ পানিত কুলকুচি

জিভ পুড়ে গেলে ঈষদুষ্ণ পানিতে সামান্য লবণ মিশিয়ে কুলকুচি করলে জ্বালা ভাব কমবে। আরামও মিলবে দ্রুত।

Advertisement

দই

ঘরে অনেকেই টক দই পাতেন। টক দই দিয়েই জিভের জ্বালা ভাব কমাতে পারেন। জিভের পোড়া জায়গায় আলতো করে টক দই লাগিয়ে দিন। জিভ জ্বালা কমে, মিলবে আরাম।

পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

পরামর্শ

নবজাতকটি সুস্থ আছে কি না তা জানতে যে টেস্ট করা জরুরি

Published

on

নৌযান

সদ্যোজাতর সূক্ষ্ম সূক্ষ্ম ত্রুটি এড়িয়ে গেলে বয়স বাড়লে অনেক সমস্যা হয়। নবজাতকটি সুস্থ আছে কি না তা জানতে কিছু জরুরি টেস্ট রয়েছে। সেগুলি শিশু জন্মের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই করে ফেলতে হয়।

টেস্টের রিপোর্ট আর প্রথম পাঁচটা বছর বেড়ে ওঠার প্রতিটি পর্যায়ে শিশুর ভাব প্রকাশ ঠিক হচ্ছে কিনা সেটা দেখে নেওয়া খুব জরুরি।

জন্মের পর যে টেস্ট করতেই হবে-

শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর করতে হবে ‘টিপ টু টো এক্সামিনেশন’। এর দ্বারা চিকিৎসকের নির্দেশ মেনে মাথার তালু থেকে পায়ের পাতা পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়। কী কী টেস্ট রয়েছে?

প্রথমেই আসে মাথার আকার ও ওজনের সঠিক পরিমাপ করা। মাথার তালু খোলা না থাকলে মস্তিষ্কের বিকাশ বাধাপ্রাপ্ত হয়।

Advertisement

চোখে যে পথে আলো প্রবেশ করে তার দ্বারা দৃষ্টিশক্তি পরীক্ষা করা হয়, যাকে ‘রেড রিফ্লেক্স’ বলা হয়।

জন্মের পরই শ্রবণশক্তি পরীক্ষা হয়, যাকে ‘ইউনিভার্সাল নিউবর্ন হিয়ারিং স্ক্রিনিং’ বলা হয়। যে কোনও বয়সেই এই পরীক্ষা করা যেতে পারে।

নবজাতক শিশুর তালু কাটা আছে কি না তা পরীক্ষা করা হয়। অনেকেরই জন্মগত তালু কাটা থাকে। তাই পর্যবেক্ষণ জরুরি।

পরবর্তী ধাপে হার্ট ও ফুসফুসের যথাযথ পরীক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। ফুসফুসের কোনও সমস্যা থাকলে পালস অক্সিমিটার অক্সিজেনের মাত্রা কম থাকে এবং শ্বাস-প্রশ্বাসের গতি তীব্র হয়। বড় কোনও ত্রুটি জন্মের সময় জানা যায় এবং ছোট ত্রুটি জন্মের পর ২-৩ মাসের মধ্যে প্রকাশ পায়।

পেটের পর্যবেক্ষণে হাত দিয়ে ডাক্তার লিভার ও কিডনির স্বাভাবিক কার্যক্রমের আন্দাজ করতে পারেন। কোনও শিশুর প্রস্রাব কম হলে ও অস্বাভাবিক ফুলে গেলে কিডনির সমস্যা আছে ধরে নেওয়া যায়।

Advertisement

জিনগত সমস্যা নির্ধারণে জন্মের তিন দিনের মাথায় থাইরয়েড টেস্ট করার নির্দেশ দেয়া হয়। থাইরয়েড পরীক্ষা একটি শিশুর জন্য অপরিহার্য হিসেবে গণ্য করা হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত অনেক শিশুর সঠিক সময়ে থাইরয়েড পরীক্ষা না হওয়ায় কারণে তাদের মস্তিষ্কের বিকাশ সম্পূর্ণরূপে নষ্ট হয়।

অটিজম এড়াতে খেয়াল রাখুন-

এক্ষেত্রে প্রথম পর্যায়ে রোগনির্ণয় জরুরি। সর্বদা লক্ষণের ওপর নজর দিতে হবে যা তিন বছর বয়সের আগেই প্রকাশ পায়। কী কী খেয়াল রাখবেন? সাধারণ শিশু স্তনদুগ্ধ পানের সময় মায়ের মুখের দিকে তাকিয়ে খায় কিন্তু অটিজমের শিশুরা নিজের জগতে ব্যস্ত থাকে, মায়ের সঙ্গে মুখোমুখি সংযোগ স্থাপন করে না, সামাজিকীকরণে ব্যর্থ হয়, কারও সঙ্গে স্বাভাবিক বাক্যবিনিময়ে বিরত থাকতে পছন্দ করে। যাদের খুব সামান্য অটিজম থাকে ‌তারা জীবনের সমস্ত পর্যায় পেরিয়ে এলেও নিজের সঙ্গকে বেশি প্রাধান্য দেয়। বন্ধুদের থেকে আলাদা থাকে, একাকীত্ব পছন্দ করে। বাহ্যিক লক্ষণগুলো সম্পর্কে সর্বদা বাবা-মাকে সজাগ থাকতে হবে। তবেই অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ডাক্তাররা পর্যবেক্ষণ ও চিকিৎসা করতে পারেন।

জন্মের প্রথম পর্যায়ে শিশুর কোনও অঙ্গের দুর্বলতা বা অসুস্থতা ধরা পড়লে তা চিকিৎসা করা সম্ভব ও সমস্যার সমাধানও তাড়াতাড়ি হয়।

যে বিষয়গুলি নজরে রাখবেন –

Advertisement

জন্মের ১-৩ মাসের মধ্যে কারও কথা শুনে বা কারও দিকে তাকিয়ে হাসছে কি না।

১.৫-৩.৫ মাসের মধ্যে যেকোনও বস্তুর প্রতি আকর্ষণ রয়েছে কি না।

ছ’মাস বয়সে শিশু পিছন থেকে পেট ও বুকে ভর দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যায় এবং ঘণ্টা জাতীয় শব্দে ঘাড় ঘুরিয়ে দেখে, এটা না করলে সজাগ হোন।

৫ মাসে হাত থেকে হাতে জিনিস দেওয়া-নেওয়া করবে।

৭ মাসে নিজে বসার এবং ফার্নিচারকে অবলম্বন করে দাঁড়াতে চেষ্টা করবে।

Advertisement

১০-১২ মাস বয়সে অন্যের সাহায্যে হাঁটতে শুরু করা এবং ১৫ মাস থেকে সাধারণত পিছনদিকে হাঁটা ও অন্যের সাহায্যে সিঁড়ি দিয়ে ওঠা শুরু করবে।

উপরোক্ত লক্ষণ সমূহ শিশু বিশেষে একটু-আধটু এদিক-ওদিক হতে পারে। যে কোনও একটির বিলম্বে সত্বর ডাক্তারের পরামর্শ নিন কারণ শিশুর অনেক ত্রুটিই তাড়াতাড়ি চিকিৎসা শুরু করলে সেরে যায়।

পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

পরামর্শ

রাতে ঘুম হয় না? যা করবেন

Avatar of জাকির হোসাইন

Published

on

নৌযান

অনিদ্রার সমস্যা ইদানিং কমবেশি অনেকেরই রয়েছে। অনিয়ন্ত্রিত জীবনধারার প্রভাবেই এই সমস্যা দেখা দেয়। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের কারণেও অনিদ্রার সমস্যা দেখা দিতে পারে। এই কারণে রাতে হালকা এবং গরম খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। যাতে খাবার খুব দ্রুত হজম হয়। পেট হালকা থাকে। এর ফলে মাঝরাতে ঘুম ভেঙে যাওয়া, বা সহজে ঘুম না আসার দেখা দেয় না।

অনেকেই অনিদ্রার সমস্যার জন্য ওষুধের উপর ভরসা করেন। ঘরোয়া উপায়েও এই সমস্যার সমাধান করা যায়। বাঙালির হেঁশেলে এমন কিছু উপাদান থাকে, যার পুষ্টিগুণ বহু জটিল রোগের সমাধান করতে পারে। এমন একটি উপাদান হল পোস্ত।

গরম ভাতে পোস্ত বাটা, সঙ্গে কাঁচা লঙ্কা আর সরষের তেল, বহু পুরনো এই পদ যেকোনও বাঙালির ভীষণ প্রিয়। শুধু যে সুস্বাদু, তাইই নয়, এর গুণে অনিদ্রার সমস্যাও দূর হবে।

পুষ্টিবিদরা জানাচ্ছেন, পোস্তর মধ্যে রয়েছে ম্যাঙ্গানিজ, ফাইবার, ক্যালশিয়াম, জিঙ্ক, আয়রন। তাছাড়াও এর আঠায় এমন কিছু যৌগ থাকে, যা অনিদ্রার সমস্যা দূর করে। হজমশক্তি বাড়াতে, মাথা যন্ত্রণা কমাতে, হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্যেও ভীষণ উপকারী পোস্ত।

পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

নৌযান নৌযান
জাতীয়2 hours ago

নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ানের সঙ্গে বৈঠক শেষে নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করা হয়েছে। আজ সোমবার (২৮ নভেম্বর) বিকেলে...

নৌযান নৌযান
আইন-বিচার3 hours ago

স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করলেন সারিকা

যৌতুকের দাবিতে মারধরের অভিযোগে স্বামী জি এস বদরুদ্দিন আহমেদ রাহীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মডেল, অভিনেত্রী ও উপস্থাপিকা সারিকা সাবরিন। আজ...

নৌযান নৌযান
বাংলাদেশ5 hours ago

ফের পেছালো শিক্ষক নিয়োগের ফল

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল আজ সোমবার (২৮ নভেম্বর) প্রকাশ করার কথা থাকলেও তা পেছানো হয়েছে। আগামী...

নৌযান নৌযান
আইন-বিচার5 hours ago

প্রেমের ফাঁদে নগ্ন ভিডিও করে প্রেমিকের চাঁদা দাবি

নোয়াখালী সদরে প্রেমের ফাঁদে কলেজছাত্রীর (১৮) নগ্ন ভিডিও করে চাঁদা দাবির ঘটনায় প্রেমিকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ রোববার (২৭...

নৌযান নৌযান
শিক্ষা7 hours ago

৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেনি

চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষায় সারা দেশের ২ হাজার ৯৭৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাসের হার শতভাগ। আর ৫০টি...

নৌযান নৌযান
অপরাধ10 hours ago

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৪০

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ। অভিযানে মাদক বিক্রি ও...

নৌযান নৌযান
জাতীয়11 hours ago

‘শান্তিরক্ষা মিশনে নারীরা দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে’

আমাদের দেশের মেয়েরা শান্তিরক্ষা মিশনে বিশাল ভূমিকা পালন করছে। জাতিসংঘ কর্তৃক পরিচালিত বিশ্বব্যাপি শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের সেনা, নৌ, বিমান এবং...

নৌযান নৌযান
জাতীয়1 day ago

তৃতীয়বারের মতো সরকারকে ইসির চিঠি

জাতীয় নির্বাচন সংক্রান্ত আইন গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে (আরপিও) সংশোধনী বিলের অগ্রগতি জানতে আবারও সরকারকে চিঠি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ নিয়ে...

নৌযান নৌযান
আইন-বিচার1 day ago

জঙ্গি ছিনতাইয়ে আত্মসমর্পণের পর রিমান্ডে ঈদী আমিন

ঢাকার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণ থেকে পুলিশের চোখে স্প্রে করে প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি ছিনিয়ে নেয়ার...

নৌযান নৌযান
আইন-বিচার1 day ago

স্ত্রী হত্যায় ১৭ বছর পর স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধূ বিবি ফাতেমা আক্তার পলিকে (২২) হত্যার দীর্ঘ ১৭ বছর পর তার স্বামী মঈন উদ্দিনের (৪২) মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন...

Advertisement

আর্কাইভ

নৌযান
আওয়ামী লীগ2 days ago

বিএনপির সম্মেলন নিয়ে অফিসিয়ালি কিছু আসেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নৌযান
জাতীয়2 days ago

খেতে খেতে চীনের প্রধানমন্ত্রীকে টানেলের প্রস্তাবটা দেই: প্রধানমন্ত্রী

নৌযান
জাতীয়3 days ago

ময়দার বস্তায় আটা বিক্রি

নৌযান
বলিউড4 days ago

উরফি এবার মদের গ্লাস দিয়ে শরীর ঢাকলেন

নৌযান
জাতীয়4 days ago

‘রাজনীতি করতে চাই না, রাজনীতিবীদদের সহযোগিতা চাই’

নৌযান
জাতীয়5 days ago

বিশ্বকাপে আমাদের টিম নেই এটা আসলে কষ্ট দেয় : প্রধানমন্ত্রী

হত্যা
অপরাধ5 days ago

প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে নানাকে হত্যা

নৌযান
বিএনপি5 days ago

‘আদালত থেকে জঙ্গি ছিনতাই সরকারের নতুন নাটক’

নৌযান
শিক্ষা6 days ago

অভিন্ন গ্রেডিং পদ্ধতি মানছে না বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

নৌযান
ফুটবল1 week ago

‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ টি-শার্ট কাতার মাঠে

সর্বাধিক পঠিত