Connect with us

বিনোদন

পরিচালক দীপংকর দীপনকে পরীমণির কড়া জবাব

Avatar of author

Published

on

পরীমণি, দীপঙ্কর দীপন

বেশ কিছু দিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ার আলোচনায় আছে রাজ-পরীর দাম্পত্য সম্পর্ক। এর নেপথ্যের কারণ চিত্রনায়িকা পরীমণির স্বামী চিত্রনায়ক শরিফুল রাজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ছবি ও ভিডিও ফাঁসের ঘটনায় নাম উল্লেখ না করে পরীমণিকে দোষারোপ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস ও সংবাদমাধ্যমেও কথা বলেছেন অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল। পাল্টা অভিযোগে পরীমণি জানান, সুনেরাহর কারণের ১০ দিন ধরে বাসায় নেই রাজ।

এরই মাঝে কারো নাম উল্লেখ না করলেও এই ঘটনাগুলোকে ইঙ্গিত করে সোমবার সকাল ১১টার দিকে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক থেকে দীর্ঘ একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন পরিচালক দীপংকর দীপন।

দীর্ঘ সেই স্ট্যাটাসের দীপংকর দীপন লেখেন, ‘ভাই ও বোন প্লিজ থামেন। প্লিজ আমাদের ক্ষমা করে দেন। একবার না বারবার এসব হচ্ছে। নিজেদের টাকা ও ব্যক্তিগত জীবন নষ্ট করে, দিনরাত অপরিসীম কষ্ট করে একটা একটা কনটেন্ট বানিয়ে নিয়ে আসি, দর্শককে সামনে উপস্থাপন করি, তখনই আপনাদের ব্যক্তিগত জীবনের নানা কাহিনী সামনে চলে আসে ।

‘সিনেমার কনটেন্ট এর থেকে দর্শকদের আগ্রহ চলে যায় আপনাদের প্রেম, বিয়ে, বিচ্ছেদ, সন্তান এসব দিকে, যা সামনে আসারই কথা না। একবার না বারবার হচ্ছে এসব- সত্যি আমি টায়ার্ড, আপসেট। প্রত্যেকের জীবনেই এসব আছে- কিন্তু এসব আমরা সামনে নিয়ে আসি না। এসব নিয়ে কথা বলি না পাবলিকলি। আপনারা তো পাশের মানুষটাকেও কিছু বলেন ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে। নিজেদের পাবলিক করলে পাবলিক তো মজা নেবেই। আপনারা শুরুটা করেন, বাকীরা আপনাদের খোঁচাতে থাকে।’

সংবাদমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি লেখেন, ‘সাংবাদিক ভাই বোন, পত্রিকার মালিক পক্ষ, আপনাদের অনুরোধ করি, প্লিজ ইগনোর করেন এসব। এসব ছাড়া আপনাদের পত্রিকা চলবে না, আমি বিশ্বাস করি না। অনেক শক্ত আপনাদের ভিত্তি। শস্তা ইউটিউবার আর ল্যাপটপ বেসড অনলাইন পত্রিকা করুক, আপনারা কেন? আপনারা স্টাবলিশ স্বনামধন্য সাংবাদিকরা একবার ইগনোর করে দেখুন, সব থেমে যাবে।’

Advertisement

তিনি আরও লেখেন, ‘দর্শকদের অনুরোধ করি, যখন দেশের বাইরে কেউ আপনাকে জিজ্ঞাসা করবে, আপনাদের দেশের সিনেমার স্ট্যান্ডার্ড কেমন? তখন সামনে আসবে কিন্তু তারকাদের বিয়ে, প্রেম , বিচ্ছেদের গল্প দিয়ে নিজের দেশের ব্র্যান্ডিং হবে না, ওসব কেউ মাথায়ই আনবে না- আসবে কনটেন্ট, নিজের দেশের সিমেনার পর্দা কি চলছে সেটা- তারকাদের ঘরে কি চলছে সেটা না। ওটা তারা আলোচনা তারা করুক, যারা চায় এই দেশে সিনেমা বন্ধ হয়ে যাক- তারার তিলকে তাল করবে- আপনারা জাস্ট ইগনোর করুন।

‘কথা বলা, শেয়ার করা বন্ধ করে দিন- আপনাদের আগ্রহ কমলে সব বন্ধ হয়ে যাবে। সবার ঘরেই নানা প্রবলেম থাকে, ওগুলো নিয়ে কথা বলার কি আছে। কনটেন্ট নিয়ে কথা বলুন -আলোচনা করুন, সমালোচনা করুন, ভাল কাজকে অনুপ্রেরণা দিন। সত্যি বলছি – ভাল কাজ আপনারা যা দেখেন এই দেশে তা খুব কষ্ট করে হয়- চোখে পানি চলে আসার মত কষ্ট করে। আমার একার না সবার। সবাই কষ্ট করে। এই কষ্টকে মূল্যায়ন করুন- ব্যক্তিগত জীবনে কারো ভুল বা খামখেয়ালীকে নয়। আপনারা এসবন নিয়ে আগ্রহ কমালে সব কমে আসবে ক্রমান্বয়ে।’

এই পরিচালক আরও বলেন, ‘আজীবনই পৃথিবীতে কেচ্ছা কাহিনীর জনপ্রিয়তা বেশি। কিন্তু এটা বাংলাদেশের সিনেমা মূলত মেইনসি্ট্রম সিনেমা- বিনির্মানের সময়- আমরা অনেক পরিচালক, রাইটার, শিল্পী- কলা- কুশলীরা প্রাণপণে চেষ্টা করছি। এ বিনির্মানে সবার দ্বায়িত্বশীল আচরণ প্রয়োজন। কষ্ট করতে আমরা রাজি আছি, আরো করবো, নিজেদের উন্নত করবো- আমাদের মোটিভেশন দরকার। অল্প অল্প করে জমা হতাশা একসঙ্গে হয়ে আমাকে/আমাদের মেরে ফেলতে পারে। বাংলাদেশের সিনেমার ভীষণ সম্ভাবনা- তুচ্ছ কারণে সেটা নষ্ট না করি।’

এই স্ট্যাটাসটি নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করে কড়া জবাব দিয়েছেন পরীমণি। তিনি লিখেছেন, ‘জী, ১০ দিন যে জামাই বাসা ছেড়ে গেছে এটা তো আপনার সিনেমার নায়িকার কারণেই জানাজানি হইলো ভাইয়া! সিনেমা ফ্যাক্ট আবার কারোর ঘারে চেপে লাইম লাইটে আসাটাও ফ্যাক্ট। যেটা আপনার সিনেমার এই মেয়েটা করলো। সবখানে লাফাতে লাফাতে গিয়ে ইন্টারভিউ দিচ্ছে।

Advertisement

‘এতো ডাক তো তার কোনো কালে আর আসে নাই। এখন বইলেন খালি আমার থু থু না চাইটা যেন সিনেমার কথাটাও ঠিকমতো বলে। আপনার কিন্তু আরও বড় শিল্পীরা আছেন এই সিনেমায় তাদেরকে এখনো ওনার মতো প্রমোশনে যেতে দেখেনি। নাকি সব দ্বায়িত্ব এবার এই একজনেরই!’

পরীমণি আরও লেখেন, ‘আর ভাইয়া, আপনার সঙ্গে তো আমার পার্সোনালি অনেক ভালো সম্পর্ক! এতো বড় স্ট্যাটাস লিখতে পারলেন অথচ আমাকে একটা কল করে কিছু বলতে পারলেন না! আফসোস!’

উল্লেখ্য পরিচালক দীপংকর দীপনের আসন্ন সিনেমা ‘অন্তর্জাল’-এ অভিনয় করেছেন সুনেরাহ।

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

বিনোদন

মাইলসের শাফিন আহমেদ আর নেই

Published

on

সংগৃহীত ছবি

মাইলস ব্যান্ডের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী শাফিন আহমেদ  আর নেই। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর।

স্থানীয় সময় বুধবার (২৪ জুলাই) সকাল ৬ টায় এ শিল্পীর লাইফ সাপোর্ট খুলে নেয়া হয় বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন শাফিন আহমেদের বড় ভাই হামিন আহমেদ।

তিনি জানান, শাফিন আহমেদের ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল। গেলো ২০ জুলাই  ভার্জিনিয়াতে একটি শোয়ের আগে অসুস্থ হয়ে পড়েন শাফিন।পরে শো’টা ক্যানসেল করেন। সেদিনই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তার নানা অঙ্গ অকার্যকর হতে থাকলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আজ সকালে শাফিনের লাইফ সাপোর্ট খুলে ফেলেন চিকিৎসক।

শাফিন আহমেদ মাইলস ব্যান্ডের বেজ গিটারিস্ট এবং প্রধান গায়ক। ব্যান্ডের বাইরে তিনি সলো ক্যারিয়ারে বেশ সুনাম অর্জন করেছেন। নীলা তুমি কি চাও না… কিংবা, আজ জন্মদিন তোমার… এর মত বেশকিছু জনপ্রিয় গান এ শিল্পী শ্রোতাদের উপহার দিয়েছেন। শাফিনের মা সঙ্গীত শিল্পী ফিরোজা বেগম এবং বাবা সুরকার কমল দাশগুপ্ত।

বাবা মা উভয়ই নিজ অঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় ছোট বেলা থেকেই শাফিন গানের ভেতরেই বড় হয়েছেন। বাবার কাছে মাঝে মাঝে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত শিখেছেন আর মার কাছে শিখেছেন নজরুলগীতি।

Advertisement

এরপর বড়ভাই হামিন আহমেদ-সহ ইংল্যান্ডে পড়াশোনার সুবাদে পাশ্চাত্য সংগীতের সংস্পর্শে এসে ব্যান্ড সংগীত শুরু করেন এবং মাইলস ব্যান্ড গড়ে তোলেন যা পরবর্তিতে বাংলাদেশের অগ্রগামী ব্যান্ডদলসমুহের মধ্যে অন্যতম হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে।

সদ্য প্রয়াত এ সংগীতশিল্পী ১৯৬১ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন।

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

‘সিচুয়েশনশিপ’ নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য জাহ্নবীর

Published

on

প্রয়াত ভারতীয় অভিনেত্রী শ্রীদেবীর তনয়া জাহ্নবী কাপুরের সম্পর্ক নিয়ে বহু দিন ধরেই জল্পনা চলছিল। অবশেষে অনন্ত আম্বানি ও রাধিকা মার্চেন্টের বিয়েতে শিখর পাহাড়িয়ার সঙ্গে অভিনেত্রীর সম্পর্কে সিলমোহর পড়েছে। বিয়ের আসরে একসঙ্গে প্রবেশ করতে দেখা গিয়েছে তাঁদের। অন্দরমহলে হাতে হাত রেখে ঘুরে বেড়াতেও দেখা গেছে। এবার সম্পর্ক নিয়ে জোরালো মত প্রকাশ করলেন শ্রীদেবীর তনয়া। নতুন প্রজন্মের সম্পর্ক-সমীকরণ নিয়ে মুখ খুললেন জাহ্নবী।

সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন প্রজন্ম বা ‘জেন জি’ ‘সিচুয়েশনশিপ’ নামে এক ধরনের সমীকরণে বিশ্বাস করেন বলে শোনা যায়। এর অর্থ পরস্পর সম্পর্কে থাকলেও তার মধ্যে কোনও প্রতিশ্রুতি নেই। সে সম্পর্ক কতদিন টিকবে তার কোনও নিশ্চয়তা নেই। এক পক্ষ হয়তো মন দিয়ে বসেছেন। ভবিষ্যতের স্বপ্নও দেখে ফেলেছেন। কিন্তু উল্টো দিকের মানুষটি শুধুই মুহূর্তের সুখ উপভোগ করতে চান। ভবিষ্যতের প্রতিশ্রুতি নিয়ে তিনি ভাবিত নন। এই বিষয়টিতে একেবারেই বিশ্বাসী নন জাহ্নবী। তার মতে, প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সম্পর্ক থাকবে, অথবা থাকবে না। এর বাইরে কিছু চলতে পারে না।

জাহ্নবী বলেন, ‘কাউকে পছন্দ হলে, ভালোবাসলে তার সঙ্গে থাকার প্রতিশ্রুতি দিন। তার প্রতি বিশ্বস্ত থাকুন। না হলে বলে দিন, এই সম্পর্কে আপনার আগ্রহ নেই।’ ভালোবাসা থাকলেও সম্পর্কে প্রতিশ্রুতি নেই, এমন ধারণা একেবারে পছন্দ নয় অভিনেত্রীর। তার কথায়, ‘সম্পর্কের মাঝামাঝি থাকার এই বিষয়টা আমি বুঝতে পারি না। যেসব ছেলেরা সম্পর্ক নিয়ে ভাবিত নয়। প্রেমিকাকে দোলাচলে রাখতে ভালবাসে, তাদের জীবন থেকে লাথি মেরে বের করুন।’

জাহ্নবী বর্তমানে তার পরবর্তী ছবি ‘উলঝ’ নিয়ে ব্যস্ত। এই ছবিতে তার সঙ্গে দেখা যাবে আদিল হুসেন ও গুলশন দেবাইয়াকে। এর আগে অভিনেত্রীকে শেষ দেখা গেছে রাজকুমার রাওয়ের বিপরীতে ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহি’ ছবিতে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন তানজিন তিশার সহকারী

Published

on

কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি সহিংসতায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন অভিনেত্রী তানজিন তিশার ব্যক্তিগত সহকারী আলামিন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রী।

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) এক ফেসবুক পোস্টে আলামিনকে নিয়ে তিশা লেখেন, ‘কিভাবে শুরু করব জানি না। আপনারা হয়তো সবাই ওকে আমার অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে চিনেন। কিন্তু ও কিন্তু আমার অ্যাসিস্ট্যান্ট না, আমার ছোট ভাই। গত চার বছর ধরে ও আমার সাথেই থাকে আমার ফ্যামিলিতেই থাকে। আপু কি লাগবে, আপু কি খাবে, আপু কখন ঘুমাবে, আবার কখন মনটা খারাপ, মনটা ভালো সব কিছু এই ছেলেটাই জানতো আর দেখত।’

তিশা আরও লিখেছেন, ‘আলামিন, সারাটা দিন আমার বড় একটা ছায়ার মতো আমার পাশে বসে থাকত। আমার কত প্ল্যান ওকে নিয়ে। ওকে ড্রাইভিং শেখাব, জোর করে বলতাম পড়াশোনাটা কন্টিনিউ করতে, পরীক্ষাটা দিতে। অনেকে অনেক কিছু বলতো কিন্তু দুনিয়ার সাথে যুদ্ধ করে ও আপুর কাছে এসে বসে থাকতো। ঈদের দিনগুলোও আগে আমার সাথে থাকত, তারপর ওর ফ্যামিলির সাথে। কত বকা দিয়েছি, মন খারাপও করে থাকতো আবার একটু পর ঠিকই বুঝাতাম। একটা না দুই দুইটা গুলি কি করে নিয়েছে এই বাচ্চা ছেলেটা?’

সবশেষে তিশা লিখেছেন, ‘আলামিন কোনো দল অথবা কো্নোকিছুর সাথে জড়িত ছিল না। ওর বিগত ৪ বছর জীবনটা আমার সাথে, আমার কাজের এবং আমার পরিবারের সাথেই কেটেছে। ওর জীবনে কোন পাপ নাই, খুব ছোট একটা মানুষ এই চার বছর আমার কাছে বড় হতে দেখলাম। দোয়া করবেন সবাই আল্লাহর কাছে যেন সুন্দর জীবনে থাকে।’

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত