Connect with us

আওয়ামী লীগ

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আ.লীগের দপ্তর সম্পাদক বহিষ্কার

Avatar of author

Published

on

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রিয়াজউদ্দিনকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আবু আহমেদ মন্নাফী বলেন, সংগঠনের শৃঙ্খলাবিরোধী কাজের জন্য রিয়াজকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

Advertisement

আওয়ামী লীগ

অপরাধী হলে শাস্তি, প্রটেকশন নয় : কাদের

Published

on

কেউ অপরাধী হলে, সরকার সেখানে শাস্তি দিবে। প্রটেকশন দিতে যাবে কেন? সেটা তিনি আইজিপি কিংবা সাবেক সেনাপ্রধান হোন। বললেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার (২৪ মে) সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসব কথা বলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক।

সাবেক সেনাপ্রধান ও আইজিপিকে নিয়ে করা এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন,  ব্যক্তি যত প্রভাবশালী হোক অপরাধ করতে পারে, প্রশ্ন থেকে যায় সরকার অপরাধের শাস্তির ব্যাপারে সৎ সাহস দেখিয়েছে কি না। শেখ হাসিনা সরকারের সেই সৎ সাহস আছে। কেউ পার পাবে না। বিচার বিভাগ, দুদক স্বাধীন। সেখানে কেউ দোষী সাব্যস্ত হলে সরকার তাকে প্রটেক্ট করতে যাবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বুয়েট  ছাত্র আবরার হত্যাকাণ্ডে যাদের দণ্ড হয়েছে, তারা সবাই ছাত্রলীগের। কিন্তু সরকার তাদের প্রটেকশন দিতে যায়নি। বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের মামলায়ও কাউকে প্রটেকশন দেয়নি সরকার।

বিএনপি মহাসচিব সম্পর্কে তিনি বলেন,তার মানসিক ট্রমা ভয়ংকর পর্যায়ে। তারা নির্বাচন ঠেকাতে গিয়ে ব্যর্থ। এখন এদিকও নেই, ওদিকও নেই। এখন তো বন্ধুরা এসেও তাদের উৎসাহিত করে না। আগে তো সকালে ঘুম থেকে উঠেই মার্কিন দূতাবাসে গিয়ে নাস্তা করতো। বিদেশি বন্ধুরা ক্ষমতায় বসাবেন, সে স্বপ্নও এখন শেষ।

Advertisement

তিনি বলেন, খুনীদের পক্ষে বিএনপি। সে প্র্যাক্টিস তারা এখনও করে যাচ্ছে। এখানে কোনো ছাড় নেই। তাদের সব নেতাই তো বাইরে। তাদের কে নির্যাতন করেছে? বিএনপির কোনো নেতা এ সরকারের আমলে কিবরিয়া-আহসানউল্লাহ মাস্টার-মমতাজউদ্দিনের মতো নৃশংস ঘটনার শিকার হননি?

প্রসঙ্গত, এর আগে দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য ও নেত্রকোনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সদ্য প্রয়াত মানু মজুমদারের মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি।

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আওয়ামী লীগ

এমপি আজিম অপরাধী হলে কেনো সংবাদ প্রচার হলো না: কাদের

Published

on

ওবায়দুল-কাদের

ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি আনোয়ারুল আজিম আনার যদি অপরাধী হয়ে থাকেন তাহলে সাংবাদিকরা কেনো তাকে নিয়ে সংবাদ প্রচার করল না। বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নবগঠিত যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির সদস্যদের পরিচিতি সভা ও ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ঝিনাইদহের সংসদ সদস্য মারা গিয়েছেন। তিনি কী ছিলেন, সেটা বড় কথা না। তিনি তার এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। মোটরসাইকেলে করে সারা এলাকা ঘুরে বেড়াতেন। তার জনপ্রিয়তার জন্য তাকে তিনবার মনোনয়ন দেয়া হয়েছে এবং সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তার ভেতরে কোনো সমস্যা আছে কিনা সেটা তো আমরা জানতাম না। ভারতীয় সাংবাদিকরা কোন তথ্য আনলো সেটা আপনারা কেন উদ্বৃতি দিচ্ছেন? আজিম যদি অপরাধী হন তাহলে সাংবাদিকরা কেনো তাকে নিয়ে সংবাদ প্রচার করল না।’

এমপি আনার কোনো অপকর্মে জড়িত থাকলে তা তদন্তে বের হয়ে আসবে। ভারতের গণমাধ্যমে এসেছে চোরাচালানের কথা। তার মৃত্যুর আগে দেশের কোনো সাংবাদিক কি তাকে নিয়ে এসব রিপোর্ট করেছিলেন, প্রশ্ন করেন কাদের।

দেশের ক্রিড়াঙ্গন নিয়ে তিনি বলেন, আমার সময়েই প্রথম ফুটবলে সাব গেমসে গোল্ড পেয়েছিল বাংলাদেশ। নেপালকে ১-০ তে পরাজিত করে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। ক্রিকেটেও আমি যখন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী তখন বাংলাদেশ বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পেয়েছিল। দুইটা বিজয় এসেছিল, স্কটল্যান্ডের সঙ্গে, আরেকটি পাকিস্তানের সঙ্গে। বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটের মর্যাদা পেয়েছিল। সেসময় প্রতিবন্ধীরাও ২০টি পদক জিতেছিল। মালদ্বীপের কাছে যখন বাংলাদেশ হারে তখন খুব লজ্জা করে। এর মধ্যে আমাদের মেয়েরা যে সাফল্য নিয়ে এসেছে সেটা আমাদের জন্য গর্বের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত ক্রীড়াবান্ধব। মেয়েরা ভালো করলে তার মধ্যে যে উচ্ছ্বাস সেটা আমরা খেয়াল করি।

Advertisement

শেখ হাসিনাকে নিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সি ইজ সো ট্যালেন্টেড, সি ইজ সো ব্রিলিয়ান্ট। তার শাসনামলে যদি আমরা ক্রীড়াঙ্গনে সফল হতে না পারি তাহলে কীভাবে হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী আমাদের সকলের চেয়ে ডায়নামিক।

যানজট নিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, এয়ারপোর্ট গিয়ে অনেকে ফ্লাইট মিস করতো যানজটের কারণে। এখন ফার্মগেট থেকে এয়ারপোর্ট ১০ মিনিট সময় লাগে। সময়মতো এখন এয়ারপোর্ট পৌঁছানো যায়। আমার মাথার ওপর প্রধানমন্ত্রীর হাত এবং ছায়া না থাকলে কখনোই আমি এসব করতে পারতাম না।

মাশরাফীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, মাশরাফী খুব যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখে এসেছেন। সুদক্ষ ও লম্বা, চড়া তিনি। মাশরাফীকে এই কমিটির সদস্য বানানোর মূল লক্ষ্য ছিল ক্রীড়াঙ্গনকে উৎসাহ দেয়া। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের জন্য আমার যে কমিটমেন্ট সেটা এখনো আছে।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান বাকশালের ৭১তম সদস্য উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৫ আগস্টে যদি জিয়াউর রহমান জড়িত না থাকতো তাহলে কিলারদের নিরাপদে কে পাঠালো, তাদের চাকরি কারা দিয়েছে? খুনিদের বাঁচাতে পঞ্চম সংশোধনী কেনো এনেছিলেন জিয়া?

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, অর্থপাচারের জন্য আপনারা প্রতিষ্ঠিত আসামি। অর্থপাচার সিঙ্গাপুর, আমেরিকায় কে করেছে? তারেক-কোকোর পাচার করা একটি অংশ সিঙ্গাপুর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিজেরা যেই অপরাধের অপরাধী তা ছাত্রলীগ, যুবলীগের ওপর চাপায়।

Advertisement

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আওয়ামী লীগ

পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে আনারকে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

Published

on

পররাষ্ট্রমন্ত্রী-ড.-হাছান-মাহমুদ

ভারতে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে, যা অত্যন্ত দুঃখজনক। বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার (২২ মে) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত এ হত্যাকাণ্ডের কারণ জানতে তদন্ত চলছে। ইতোমধ্যে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ছাড়াও কলকাতা পুলিশ এ নিয়ে তদন্ত করছে। এ হত্যাকাণ্ডে দুদেশের সরকারের সংশ্লিষ্টতা নেই।

তিনি বলেন, আমরা কূটনীতিক মিশনের মাধ্যমে এই বিষয়ে সার্বক্ষণিক খোঁজখবর রাখছি। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত মূল হোতাকে আমাদের ডিবি পুলিশ আটক করেছে।

তিনি আরও বলেন, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিমকে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা বাংলাদেশ ও ভারতের দ্বিপক্ষীয় কোনো বিষয় নয়। মূল হোতাকে ডিবি পুলিশ আটক করেছে। আর কলকাতা পুলিশ দুজনকে আটক করেছে। এটা দুই রাষ্ট্রের কোনো বিষয় না।

Advertisement

এর আগে বুধবার সকালে ভারতের কলকাতার নিউটাউন থেকে আনোয়ারুল আজিম আনারের মরদেহ উদ্ধার করে দেশটির পুলিশ। গত ১১ মে চিকিৎসার জন্য ভারতে যান তিনি।

সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) আব্দুর রউফ বলেন, গেলো ১১ মে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার চিকিৎসার জন্য ভারতে যান। কিন্তু এরপর তিন দিন পার হলেও পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করতে পারেননি। ভারত থেকে স্যার আমাকে সর্বশেষ ফোন করেন ১৬ মে সকাল ৭টা ৪৬ মিনিটে। কিন্তু আমি ধরতে পারিনি। এক মিনিট পরই কল ব্যাক করি। কিন্তু তিনি আর ধরেননি।

এমপি আনারের বিষয়ে তিনি আরও বলেন, ১৫ বছর ধরে আমি স্যারের পিএস হিসাবে আছি। এর আগেও স্যার একাধিকবার ভারতে গেছেন। কিন্তু কখনোই আমাকে নিয়ে যাননি।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত