Connect with us

আইন-বিচার

আজ মির্জা আব্বাসের মামলার রায়

Avatar of author

Published

on

আদালতে-মির্জা-আব্বাস

জ্ঞাত আয়-বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে ১৬ বছর আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলার রায় বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) ঘোষণা করা হবে। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক মঞ্জুরুল ইমাম দুপুর ২টার দিকে এ মামলার রায় ঘোষণা করবেন।

এর আগে ২২ নভেম্বর কারাগার থেকে মির্জা আব্বাসকে আদালতে হাজির করা হয়। ওইদিন রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য ৩০ নভেম্বর দিন ধার্য করেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক মঞ্জুরুল ইমাম।

এ মামলায় মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে বলে দাবি দুদকের। ফলে সংস্থাটি বিএনপির এ নেতার সবোর্চ্চ শাস্তি ১৩ বছরের কারাদণ্ড প্রত্যাশা করছে। একই সঙ্গে তার সম্পদ বাজেয়াপ্তের প্রত্যাশাও দুদকের।

তবে মির্জা আব্বাসের আইনজীবী মহিউদ্দিন চৌধুরীর দাবি, দুদকের আনা অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। দুদক অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছে। রায়ে মির্জা আব্বাস খালাস পাবেন বলে প্রত্যাশা রয়েছে।

২০০৭ সালের ১৬ আগস্ট রাজধানীর রমনা থানায় চারদলীয় জোট সরকারের সাবেক গণপূর্তমন্ত্রী মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন দুদক উপ-পরিচালক মো. শফিউল আলম। মামলায় মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সাত কোটি ৫৪ লাখ ৩২ হাজার ২৯০ টাকার সম্পদ অর্জন এবং ৫৭ লাখ ২৬ হাজার ৫৭১ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ আনা হয়। তদন্ত শেষে ২০০৮ সালের ২৪ মে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক মো. খায়রুল হুদা আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

Advertisement

তদন্তে মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে চার কোটি ২৩ লাখ টাকার সম্পদ অর্জন ও ২২ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ আনা হয়। ২০০৮ সালের ১৬ জুন আদালত এ মামলার দুদক আইনের ২৬(২) ও ২৭(১) ধারায় অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন। বিচার চলাকালীন আদালত ২৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন।

এ মামলায় মির্জা আব্বাসসহ পাঁচজন সাফাই সাক্ষ্য দেন। তাদের মধ্যে অন্য চারজন হলেন-অ্যাডভোকেট এ কে এম শাহজাহান ও এনআরবি ব্যাংকের চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট নুরুল হোসেন খান, শাহজাহান মিয়া ও কাজী শিফাউর রহমান হিমেল।

সহায় সম্পত্তির ঘোষণা সংক্রান্ত দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ এর ২৬ (১) ধারায় বলা হয়েছে, কমিশন কোনো তথ্যের ভিত্তিতে এবং তার বিবেচনায় প্রয়োজনীয় অনুসন্ধান পরিচালনার পর যদি এ মর্মে সন্তুষ্ট হয় যে, কোনো ব্যক্তি, বা তার পক্ষে অন্য কোনো ব্যক্তি, বৈধ উৎসের সহিত অসঙ্গতিপূর্ণ সম্পত্তির দখলে রয়েছেন বা মালিকানা অর্জন করেছেন, তাইলে কমিশন লিখিত আদেশ দ্বারা উক্ত ব্যক্তিকে কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত পদ্ধতিতে দায়-দায়িত্বের বিবরণ দাখিলসহ উক্ত আদেশে নির্ধারিত অন্য যে কোনো তথ্য দাখিলের নির্দেশ দিতে পারবে।

দুদক আইন-২০০৪ এর ২৬ (২) এর দুটি ধারার মধ্যে (ক) উপ-ধারা (১) এ বলা হয়েছে, যদি কোনো ব্যক্তি উল্লিখিত আদেশ প্রাপ্তির পর সে অনুযায়ী লিখিত বিবৃতি বা তথ্য প্রদানে ব্যর্থ হন বা এমন কোনো লিখিত বিবৃতি বা তথ্য প্রদান করেন যা ভিত্তিহীন বা মিথ্যা বলে মনে করবার যথার্থ কারণ থাকে, তাইলে ওই ব্যক্তি তিন বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড বা উভয়বিধ দণ্ডে দণ্ডনীয় হবেন।

একই ধারার (খ) উপ-ধারায় বলা হয়েছে, যদি কোনো ব্যক্তি কোনো বই, হিসাব, রেকর্ড, ঘোষণা পত্র, রিটার্ন বা উপ-ধারা (১) এর অধীন কোনো দলিলপত্র দাখিল করেন বা এমন কোনো বিবৃতি প্রদান করেন যা ভিত্তিহীন বা মিথ্যা বলে মনে করার যথার্থ কারণ থাকে, তাহলে উক্ত ব্যক্তি তিন বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড বা উভয়বিধ দণ্ডে দণ্ডনীয় হবেন।

Advertisement

দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ এর ২৭ (১) ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি তার নিজ নামে বা তাহার পক্ষে অন্য কোনো ব্যক্তির নামে, এমন কোনো স্থাবর বা অস্থাবর সম্পত্তির দখলে রয়েছেন বা মালিকানা অর্জন করেছেন, যা অসাধু উপায়ে অর্জিত হয়েছে এবং তার জ্ঞাত আয়ের উৎসের সহিত অসঙ্গতিপূর্ণ বলে মনে করার যথেষ্ট কারণ রয়েছে এবং তিনি উক্তরূপ সম্পত্তি দখল সম্পর্কে আদালতের কাছে বিচারে সন্তোষজনক ব্যাখ্যা প্রদান করতে ব্যর্থ হলে উক্ত ব্যক্তি অনূর্ধ্ব ১০ বৎসর এবং ৩ বৎসর পর্যন্ত যে কোনো মেয়াদে কারাদণ্ডে দণ্ডনীয় হবেন এবং তদুপরি অর্থ দণ্ডেও দণ্ডনীয় হবেন; এবং উক্তরূপ সম্পত্তিসমূহ বাজেয়াপ্ত যোগ্য হবে।

এ বিষয়ে দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর বলেন, এ মামলায় মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়-বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। তার বিরুদ্ধে দুদক আইনের ২৬(২) ধারায় ও ২৭(১) ধারায় অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। দুদক আইনের ২৬(২) ধারায় তিন বছর ও ২৭(১) ধারায় ১০ বছরের কারাদণ্ড রয়েছে। রায়ে তার সবোর্চ্চ শাস্তি প্রত্যাশা করছি। এছাড়া অবৈধভাবে অর্জিত তার সব সম্পদ বাজেয়াপ্তের প্রত্যাশা করছি।

দুদক আইন-২০০৪ এর ২৬ (২) ধারায় সম্পদের বিষয়ে ভিত্তিহীন ও মিথ্যা তথ্য দেয়ার কারণে তিন বছর করাদণ্ড, অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের কথা বলা আছে। ২৭(১) ধারায় জ্ঞাত আয়-বহির্ভূত সম্পদ অর্জন বিষয়ে বলা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০ বছর এবং সর্বনিম্ন তিন বছর পর্যন্ত যে কোনো মেয়াদে কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড ও সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের বিধান রয়েছে।

মির্জা আব্বাসের আইনজীবী মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, মির্জা আব্বাস ঢাকার মেয়র ও মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার বিরুদ্ধে দুদকের আনা অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। সাক্ষ্য-প্রমাণেও তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি দুদক। রায়ে তিনি খালাস পাবেন, এ প্রত্যাশা করছি।

এদিকে রাজধানীর শাহজাহানপুর থানায় নাশকতা ও বিস্ফোরক আইনের মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। বুধবার (২৯ নভেম্বর) ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ বিলকিস আক্তারের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

Advertisement

গেলো ২৯ অক্টোবর রাজধানীর শাহজাহানপুর থানার উপ-পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে মির্জা আব্বাসকে প্রধান আসামি করে মামলা করেন। মামলায় ৪৯ জনের নামোল্লেখসহ ৭০০/৮০০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। পরে এ মামলায় মির্জা আব্বাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ মামলায় গত ১ নভেম্বর ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিন পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আব্বাসের।

Advertisement

আর্কাইভ

জাতীয়

অপরাধ13 mins ago

শিক্ষক মুরাদের বিরুদ্ধে ছাত্রী হয়রানির প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর শাখার জ্যেষ্ঠ শিক্ষক মোহাম্মদ মুরাদ হোসেন সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্রী নিপীড়নের প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ। একজন...

অপরাধ28 mins ago

নবজাতকটি না পেলো বাবা-মায়ের আদর, না তাদের হাতে দাফন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাংলোর পাশ থেকে নবজাতকের লাল কাপড়ে মোড়ানো মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সোয়া ১২টায়...

অপরাধ1 hour ago

জজ কোর্ট চত্বরে একাধিক ককটেল বিস্ফোরণ

ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনায় জজকোর্ট চত্বরে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এদিন সকাল ৯টায় দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা...

জাতীয়2 hours ago

মার্চ নয়, বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর হবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকেই

মার্চ নয়, বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর ১ ফেব্রুয়ারি থেকেই প্রতি ইউনিটে ক্ষুদ্রগ্রাহক পর্যায়ে ৩৪ পয়সা আর বৃহৎগ্রাহক পর্যায়ে ৭০ পয়সা...

বিএনপি-নেতা-ইশরাক বিএনপি-নেতা-ইশরাক
আইন-বিচার3 hours ago

বিএনপি নেতা ইশরাকের আগাম জামিন

রাজধানীর বিভিন্ন থানায় দায়ের করা নাশকতার ১২ মামলায় হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন পেয়েছেন বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেন। গেলো ২৮ অক্টোবর...

জরিমানা জরিমানা
বাংলাদেশ3 hours ago

ভূয়া ডাক্তার ও কয়েল কারখানায় অভিযানে জরিমানা আদায়

পাবনায় ভূয়া ডাক্তার ও কয়েল কারখানায় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে এক লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। পাবনা জেলা  কার্যালয়ের...

জাতীয়3 hours ago

‘পুলিশকে যখনই যেটার দরকার সেই ভূমিকা পালন করতে হবে’

আগামীতে কেউ যেন আর এভাবে পুলিশের ওপর আক্রমণ করতে না পারে, সেটা ওই রাজনীতির নামে হোক, সন্ত্রাসের নামেই হোক। কেউ...

আইন-বিচার4 hours ago

জবি ছাত্রী খাদিজা দুই মামলাতেই অব্যাহতি পেলেন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় অব্যাহতি পেয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ছাত্রী খাদিজাতুল কুবরাকে । এর আগে গত ২৮ জানুয়ারি কলাবাগায় থানায়...

একে আবদুল মোমেন একে আবদুল মোমেন
জাতীয়4 hours ago

 ইউরোপীয় ৫০ চিকিৎসককে জরিমানা, ক্ষুব্ধ মোমেন

বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিতে ইউরোপ থেকে বাংলাদেশে এসে জরিমানার শিকার হয়েছেন ৫০ জন চিকিৎসক। এ ঘটনায় বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল...

হাইকোর্ট হাইকোর্ট
আইন-বিচার5 hours ago

সাজার মেয়াদ শেষ হওয়া বিদেশি কারাবন্দিদের ফেরত পাঠাতে হাইকোর্টের নির্দেশ

দেশের কারাগারগুলোতে বিভিন্ন অপরাধের সাজা খাটা শেষে প্রত্যাবাসনের অপেক্ষায় থাকা ১৫৭ জন বিদেশি কারাবন্দিকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে নির্দেশ...

Advertisement
অপরাধ13 mins ago

শিক্ষক মুরাদের বিরুদ্ধে ছাত্রী হয়রানির প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ

অপরাধ28 mins ago

নবজাতকটি না পেলো বাবা-মায়ের আদর, না তাদের হাতে দাফন

অর্থনীতি40 mins ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

আন্তর্জাতিক41 mins ago

রোজার আগে ৪০ শতাংশ কমল খেজুরের দাম

প্রবাস1 hour ago

যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি নিহত

আন্তর্জাতিক1 hour ago

৪ বছরে একবার প্রকাশিত হয় যে পত্রিকা

অপরাধ1 hour ago

জজ কোর্ট চত্বরে একাধিক ককটেল বিস্ফোরণ

জাতীয়2 hours ago

মার্চ নয়, বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর হবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকেই

পরামর্শ2 hours ago

রোগ প্রতিরোধ করে সজনে ডাঁটা, আর কী কী গুণ রয়েছে এই সবজিতে?

স্বাস্থ্য2 hours ago

ওষুধের দাম কমানোর বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রবাস6 days ago

দেশে ফিরলেন আটক হওয়া ১৪৪ বাংলাদেশি

ঢালিউড2 days ago

মাহি ইস্যুতে ইমনকে হুঁশিয়ারি ডি এ তায়েবের

ঢালিউড2 days ago

‘মাহি আস্থার আস্তানা’য়’ স্বামী রাকিব করলেন বিস্ফোরক মন্তব্য

বাংলাদেশ21 hours ago

আইসিইউতে গেলো রোগী, ফিরে এলো ধর্ষিত হয়ে

টুকিটাকি2 days ago

গর্ভনিরোধক বড়ি যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে

টুকিটাকি1 day ago

আম্বানির ছেলের বিয়েতে ২৫০০ পদ রাধঁবেন ২১ বাবুর্চি, মেনুতে যা থাকছে

নিপুণ
ঢালিউড1 day ago

শিল্পী সমিতির নির্বাচনে যে পদে লড়বেন নিপুণ

সালমান-খান
বলিউড2 days ago

৫৮ বছরে বিয়ের প্রস্তাব পেলেন সালমান, কে এই অপূর্ব সুন্দরী?

ধর্ম3 days ago

বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ উদ্বোধন

বাংলাদেশ7 days ago

আগাম জামিন পেলেন বিএনপি নেতা বুলু

অর্থনীতি40 mins ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 weeks ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

ব্যারিস্টার-সৈয়দ-সায়েদুল-হক-সুমন
আওয়ামী লীগ3 weeks ago

‘আমি ফেসবুকের এমপি ঠিকই, ফসল হিসেবে তুলেছেন প্রধানমন্ত্রী’

ওবায়দুল-কাদের
জাতীয়3 weeks ago

বাংলাদেশ কারো সঙ্গেই যুদ্ধে জড়াতে চায় না : কাদের

এশিয়া1 month ago

হামাসের ৮০ ভাগ টানেল অক্ষত, ঘুম হারাম ইসরায়েলের!

মঈন-খান
বিএনপি1 month ago

প্রতিহিংসার রাজনীতির শিকার হয়েছিলেন কোকো: মঈন খান

ফিচার2 months ago

শেখ হাসিনা-খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করেও ঠেকানো যায়নি যে নির্বাচন (ভিডিও)

প্রধানমন্ত্রী.-সাকিব-আল-হাসান
আওয়ামী লীগ2 months ago

এইবারও ইলেকশনে ছক্কা মেরে দিও: সাকিবকে প্রধানমন্ত্রী

৭ম-জাতীয়-নির্বাচন
জাতীয়2 months ago

‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে প্রথম নির্বাচন’

জাতীয়2 months ago

৫ম জাতীয় নির্বাচন: প্রথমবারের মতো নারী প্রধানমন্ত্রী পায় বাংলাদেশ

সর্বাধিক পঠিত