Connect with us

এশিয়া

জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে বাবা-মাকে মারধর, আটক ছেলে

Avatar of author

Published

on

ভাইকে দেয়া জমি নিয়ে সৃষ্ট বিবাদে নির্দয়ভাবে নিজের বাবা-মাকে মারধর করেন এক ব্যক্তি। এসময় বাবাকে চড় মারার পাশাপাশি মাকে চুল ধরে টেনে চড় ও লাথি মারতেও দেখা যায় অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ। ভুক্তভোগী ওই মা ও বাবার নাম লক্ষ্মমা এবং ভেঙ্কটরামনা। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য অন্ধ্রপ্রদেশে।

গেলো রোববার (৩ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। এই ঘটনায় ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে কয়েকজন মানুষকেও আশপাশে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে, যাদের কেউই ছেলের মারধর থেকে রক্ষা করতে ও দম্পতিকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেনি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, অন্ধ্রপ্রদেশের এক বিরক্তিকর ফুটেজে সম্পত্তির বিবাদে এক ব্যক্তিকে নির্দয়ভাবে তার বাবা-মাকে মারতে দেখা গেছে। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি তার মাকে চুল ধরে টেনে নিয়ে যায় এবং বারবার তাকে চড় মারতে থাকে।

যদিও তার মা সেসময় কাঁদছিল এবং তাকে থামানোর জন্য অনুরোধ করে। একপর্যায়ে ছেলেকে তাকে এতো জোরে লাথি মারতে দেখা যায় যে, তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন, তবুও অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি মারধর করা অব্যাহত রাখে।

এনডিটিভি বলছে, মারধরের একপর্যায়ে ভুক্তভোগী মা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং শুয়ে কাঁদতে থাকেন। তখন ওই ব্যক্তি তার বাবার দিকে এগিয়ে যায় এবং তাকে চড় মারেন। এসময় একটি ছোট্ট মেয়েকে লোকটির পাশে দাঁড়িয়ে এই দৃশ্য প্রত্যক্ষ করতে দেখা গেছে।

Advertisement

এই ঘটনায় থানায় একটি মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে এবং অভিযুক্ত লোকটিকে শ্রীনিবাসুলু রেড্ডি হিসাবে শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। গেলো শনিবার অন্ধ্রপ্রদেশের আন্নামায়া জেলায় এই ঘটনা ঘটে এবং পরে পুলিশ তাকে আটক করে।

এনডিটিভি বলছে, শ্রীনিবাসুলু তার বড় ভাই মনোহর রেড্ডিকে দেয়া তিন একর জমি নিয়ে অসন্তুষ্ট ছিলেন এবং তার বাবা-মাকে ওই জমি দেয়ার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে বলেন।

ভুক্তভোগী এই দম্পতি পুলিশকে জানান, ঘটনার সময় যেখানে যেখানে তাদের স্বাক্ষর করতে বলেছে, সেখানে তা করতে রাজি হওয়ার পরেও তাদের ছেলে তাদেরকে মারধর করেই যাচ্ছিলেন।

স্থানীয় পুলিশ পরিদর্শক যুবরাজু বলেন, ‘কেউ তাদের পিতামাতার সাথে খারাপ ব্যবহার করলে শাস্তি পেতে হবে। বাবা-মা এবং প্রবীণদের সঙ্গে এই ধরনের ঘটনা ঘটলে তা অবশ্যই তাদের জানাতে হবে।’

Advertisement
Advertisement

আন্তর্জাতিক

মুক্তিপণ আদায়ের পর আট সোমালিয়ান জলদস্যু আটক

Avatar of author

Published

on

ফাইল ছবি

বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ থেকে মুক্তপণ আদায়ের পর আট জলদস্যুকে গ্রেপ্তার করেছে সোমালিয় পুলিশ। তবে এসময় তাঁদের থেকে মুক্তিপণ এর টাকা উদ্ধার করা গিয়েছে কিনা সেটি নিশ্চিত করতে পারেনি প্রশাসন।

রোববার (১৪ এপ্রিল) দেশটির দেশটির পূর্ব উপকূল পান্টল্যান্ড থেকে এসব জলদস্যুদের আটক করা হয় বলে জানিয়েছে সোমালিয় সংবাদ মাধ্যম গারুই অনলাইন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জিম্মি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে ছেড়ে দেয়ার পরেই তাঁদের আটক করা হয়। বিগত তিনমাস ধরে সোমালিয় সরকার জলদস্যুদের নিয়ে বেশ বিপাকে রয়েছে। জলদস্যুরা আল-শাবাব জঙ্গি সংগঠনের সাথে যোগ দেয়ায় পর আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

পান্টল্যান্ড পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, তাঁরা এমভি আবদুল্লাহ হাইজ্যাকের সাথে জড়িত ৮ জলদস্যুকে আটক করেছেন। তবে তাঁদের কাছ থেকে মুক্তিপণের টাকা উদ্ধার হয়েছে কি না সেটি তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আর এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, টাকার বিনিময়ে জিম্মি মুক্তি দেয়ার চর্চা চালু হলে এটি  জলদস্যুতাকে আরও উৎসাহিত করবে। পান্টল্যান্ড উপকূল বেশ কিছুদিন ধরেই জলদস্যুদের বিচরণ ক্ষেত্র হয়ে উঠছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, পান্টল্যান্ড মেরিন পুলিশ সোমালিয়ার বিদেশী মিত্রদের সহায়তায় সোমালিয় উপকূলে জলদস্যুতা নির্মূল করতে তাঁদের নজরাদারি জোরদার করেছে। মূলত এ অঞ্চলে  কতৃত্ব জোরদায় করতেই মিত্রদের সঙ্গে নিয়ে নিরাপত্তা জোরদার করছে সোমালিয় সরকার।

Advertisement

প্রসঙ্গত, এর আগে সোমালিয়ার গণমাধ্যম ৫ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে জাহাজসহ ২৩ বাংলাদেশি নাবিককে মুক্তির কথা জানায়। যদিও মুক্তিপণের বিষয়ে চুক্তি অনুযায়ী কিছুই জানায় নি এমভি আব্দুল্লাহর  মালিক এসআর শিপিং।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

ইরানকে বাইডেনের সতর্কবার্তা, ইসরায়েলকে সহায়তায় ২ রণতরী

Avatar of author

Published

on

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সংগৃহীত ছবি

সিরিয়ায় ইরানের কনস্যুলেট ভবনে বিমান হামলার জেরে ইসরাইলের ওপর যেকোনো প্রকার হামলা হলে যুক্তরাষ্ট্র একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্রটির পাশে থাকবে। ইসরায়েলকে রক্ষায় সব ধরণের সহযোগিতা করা হবে। ইরানকে এমনই সতর্কবার্তা দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

গোয়েন্দাদের বরাত দিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় রোববার(১৪ এপ্রিল) ড্রোন ও মিসাইল দিয়ে ইসরাইলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে পারে ইরান। এ প্রতিবেদন প্রকাশের পরই শুক্রবার (১২ এপ্রিল)  জো বাইডেন বলেন, ইসরায়েলে শিগগিরই হামলা চালাবে ইরান।

এ সময় ইসরাইলে হামলা না চালাতে ইরানকে সতর্ক করে  মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এই রাষ্ট্রটির প্রতি সবসময় আমাদের সমর্থন থাকবে এবং দেশটিকে রক্ষায় আমরা অবশ্যই সহযোগিতা করব। ইসরায়েলে হামলা চালিয়ে ইরান কখনও সফল হতে পারবে না। ইসরাইলে কোনো হামলা নয়- ইরানের উদ্দেশে আমার বার্তা এটুকুই।’

এদিকে, ইসরাইলকে সহায়তার জন্য দুটি মার্কিন রণতরী ইসরাইলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী।

তারা বোলছে, ভূমধ্যসাগরে পূর্ব দিকে তাদের দুটি যুদ্ধজাহাজ স্থান পরিবর্তন করছে। এর একটি হলো ইউএসএস কার্নি। এই জাহাজটি লোহিত সাগরে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের ড্রোন ও অ্যান্টি-শিপ মিসাইলের বিরুদ্ধে বিমান প্রতিরক্ষা কাজে নিয়োজিত ছিল।

Advertisement

ইসরাইল-ইরান সম্ভাব্য যুদ্ধ থামাতে কূটনৈতিক তৎপরতাও শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র।  ইসরাইল, সৌদি আরব, কাতার এবং অন্যান্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে একটি প্রতিষ্ঠিত সুইস চ্যানেলের মাধ্যমে ইরানকে বার্তা পাঠাতে কাজ করছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। এই প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে  মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডের প্রধান জেনারেল মাইকেল কুরিলাকে ইসরাইলে পাঠিয়েছেন জো বাইডেন।

অপরদিকে, ইরান-ইসরায়েলের চলমান উত্তেজনার জেরে নিজ দেশের নাগরিকদের ওপর ইরান, ইসরাইল, লেবানন ও ফিলিস্তিনে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করেছে ভারত, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স ও পোল্যান্ড।

প্রসঙ্গত,  গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে  ইরানি কনস্যুলেটে চালানো বিমান হামলায় ইরানের শীর্ষস্থানীয় সামরিক কর্মকর্তাসহ ১৩ জন নিহত হন।  বিভিন্ন সাক্ষ্য ও আলামতে তেহরানের দাবি, বিমান হামলাটি ইসরাইলের প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) চালিয়েছিল। তেলআবিব ওই হামলার দায় স্বীকার না করলেও প্রতিশোধ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তেহরান।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

‘তিন ছেলে-নাতি-নাতনিদের হত্যায় যুদ্ধের গতিপথ বদলাবে না’

Avatar of author

Published

on

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাসের প্রধান নেতা ইসমাইল হানিয়া। সংগৃহীত ছবি

‘ইসরায়েলি বাহিনী যদি মনে করে আমার সন্তানদের লক্ষ্য করার মাধ্যমে এই মুহূর্তে হামাসের অবস্থান পরিবর্তন করা যাবে, তাহলে তারা ভ্রান্তিতে আছে। ফিলিস্তিনের সন্তানদের চেয়ে আমার সন্তানদের রক্তের মূল্য বেশি নয়। ফিলিস্তিনের সকল শহীদ আমার সন্তান।’

পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন ইসরায়েলি বাহিনীর বোমা হামলায় তিন ছেলে ও নাতি-নাতনি নিহত হওয়ার পর এসব কথা বলেন ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাসের প্রধান নেতা ইসমাইল হানিয়া।

হামাসের বর্ষিয়ান এই রাজনীতিক মানসিকভাবে ভেঙে না পড়ে যে হৃদয়গ্রাহী বক্তব্য দিয়েছেন তাতে গোটা বিশ্ব অভিভূত হয়েছে। তার এই বক্তব্যের সঙ্গে মুসলিম উম্মাহর অন্তরে হচ্ছে রক্তক্ষরণ।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, হামাসপ্রধান হানিয়ার ছেলেদের লক্ষ্য করে গাজার উত্তরপূর্বাঞ্চলের শাতি শরণার্থী ক্যাম্পে হামলা চালানো হলে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে।

ছেলে ও নাতি-নাতনিদের মৃত্যুর বিষয়টি আল জাজিরাকে নিশ্চিত করে  হানিয়া জানান, ইসরাইলি হামলায় কয়েকজন নাতি-নাতনিসহ তার তিন ছেলে হাজেম, আমির এবং মোহাম্মদ প্রাণ হারিয়েছেন। তবে সন্তানদের মৃত্যুতেও বিচলিত নন হামাসপ্রধান।

Advertisement

আল জাজিরাকে ইসমাইল হানিয়া জানান, শহীদদের রক্ত এবং আহতদের যন্ত্রণার মাধ্যমে ফিলিস্তিনিরা আশা তৈরি করে, ভবিষ্যৎ তৈরি করে, মানুষ ও জাতির জন্য স্বাধীনতা ও মুক্তি তৈরি করে।

তিনি আরও বলেন, ঈদ উপলক্ষে আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে শাতি শরণার্থী ক্যাম্পে গিয়েছিলেন তার ছেলেরা। ওই সময় হামলা চালানো হয়। নেতাদের বাড়িঘর ও পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়ে হামাসকে থামানো যাবে না বরেও ইসরায়েলি বাহিনীর প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

হামাসপ্রধান বলেন, কোনো সন্দেহ নেই এই শত্রুরা প্রতিশোধ, হত্যা এবং রক্তপাতে উদ্বুদ্ধ হয়েছে এবং তারা কোনো আইন মানে না। চলমান যুদ্ধে এখন পর্যন্ত তার পরিবারের ৬০ সদস্য নিহত হয়েছেন। ছেলেদের হত্যার মাধ্যমে যুদ্ধের গতিপথ বদলাবে না এবং হামাস যুদ্ধবিরতির দাবি থেকে একটুও সরে আসবে না বলেও তিনি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

প্রসঙ্গত, আল শাতি শরণার্থী ক্যাম্পে বেসামরিকদের বহনকারী একটি গাড়িতে ইসরায়েলি সেনারা বিমান থেকে হামলা চালায়। হানিয়ার পরিবার-পরিজন গাজাতে থাকলেও নিরাপত্তার কারণে তিনি কাতারে বসবাস করেন। সেখান থেকেই দলটির সব কার্যক্রম পরিচালনা করেন গাজার এই নেতা।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

জাতীয়55 mins ago

‘জাহাজে আর্মড গার্ড থাকলে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটত না’

আর্মড গার্ড ভাড়া করে নিয়ে গেলে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটত না। যারা জলদস্যু তারাও খবর রাখে কোন জাহাজের মধ্যে আর্মড গার্ড...

বাংলাদেশ5 hours ago

মুক্তিপণ নিয়ে যা জানালো এমভি আব্দুল্লাহর মালিকপক্ষ

ছিনতাইয়ের ৩১ দিন পরে মুক্তিপণের বিনিময়ে মুক্ত হয়েছে বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহ। তবে মুক্তিপণ নিয়ে নানা গুঞ্জন উঠলেও মালিকপক্ষ...

জাতীয়6 hours ago

আবারও মিয়ানমারের ৯ বিজিপি সদস্য আশ্রয় নিলো বাংলাদেশে

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সশস্ত্র গোষ্ঠী আরাকান আর্মি ও দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) সঙ্গে চলমান সংঘাতের কারণে  কক্সবাজারের...

এমভি আবদুল্লাহ জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ জাহাজ
জাতীয়7 hours ago

দেশের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে দস্যুমুক্ত এমভি আবদুল্লাহ

অপহরণের ৩১ দিন পর মুক্ত হয়েছেন এমভি আবদুল্লাহ’র ২৩ নাবিক। সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবল থেকে মুক্তির পর আগামী ১৯ এপ্রিলের দিকে...

নববর্ষে-ঢাবিতে-শ্লীলতাহানি,-বিচার-অসমাপ্ত নববর্ষে-ঢাবিতে-শ্লীলতাহানি,-বিচার-অসমাপ্ত
আইন-বিচার8 hours ago

নববর্ষে ঢাবিতে শ্লীলতাহানি, ৯ বছর ধরে ঝুলে আছে বিচার

গেলো ৯ বছরে শেষ হয়নি নববর্ষের উৎসবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় বেশ কয়েকজন নারীকে শ্লীলতাহানি করায় মামলার বিচার। ২০১৫ সালের...

বর্ষবরণ বর্ষবরণ
জাতীয়9 hours ago

সুরের মুর্ছনায় বর্ষবরণ

ভোরের আলো ফুটতেই রমনার বটমূলে শুরু হয় বাঙালির চিরায়ত বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। নতুন ১৪৩১ এর প্রথম সকালটিকে এক কণ্ঠে বরণ করে...

এমভি-আব্দুল্লাহর-২৩-নাবিক এমভি-আব্দুল্লাহর-২৩-নাবিক
জাতীয়10 hours ago

কত ডলার মুক্তিপণে ছাড়া পেলেন ২৩ নাবিক?

অবশেষে সোমালিয়ান জলদস্যুদের হাত থেকে মুক্তি পেয়েছেন এমভি আব্দুল্লাহর ২৩ নাবিক। ৩১ দিন জিম্মি থাকার পর সোমালিয়ার উপকূল থেকে মুক্ত...

মঙ্গল-শোভাযাত্রা মঙ্গল-শোভাযাত্রা
জাতীয়10 hours ago

শুরু হয়েছে মঙ্গল শোভাযাত্রা

বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিতে মানুষের ঢল নেমেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদে। ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে মঙ্গল শোভাযাত্রা। রোববার (১৪...

জাতীয়21 hours ago

পহেলা বৈশাখ আজ, উদযাপনে মেতে উঠবে গোটা দেশ

আজ রোববার, ১৪ এপ্রিল- পহেলা বৈশাখ। শুভ বাংলা নববর্ষ। ষড়ঋতুর বাংলাদেশে বছর ঘুরে আসলো বাংলা নববর্ষ। পুরনোকে বিদায় করে এলো...

জাতীয়22 hours ago

জিম্মি নাবিকদের নিয়ে শীঘ্রই সুখবর : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সোমালিয়ার জলদস্যুদের হাতে ছিনতাই হওয়া জাহাজ ও নাবিকদের উদ্ধারে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি আছে। খুব সহসাই আপনারা সুখবর পাবেন। বললেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী...

Advertisement
প্রবাস5 mins ago

নিউইয়র্ক টাইমস স্কয়ারে হাজারো কণ্ঠে বাংলা বর্ষবরণ

আন্তর্জাতিক53 mins ago

ইরানি হামলা ঠেকাতে ইসরাইলকে সাহায্য করেছে যেসব দেশ

জাতীয়55 mins ago

‘জাহাজে আর্মড গার্ড থাকলে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটত না’

আন্তর্জাতিক2 hours ago

মুক্তিপণ আদায়ের পর আট সোমালিয়ান জলদস্যু আটক

আন্তর্জাতিক2 hours ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: প্রতিক্রিয়া জানালো ভারত ও চীন

ঢাকা3 hours ago

আলপনায় রঙিন হাওরের ১৪ কিলোমিটার সড়ক

বিএনপি3 hours ago

সরকারের লোকজন বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে : রিজভী

মৃত্যু
চট্টগ্রাম3 hours ago

পালিয়েছেন দুই স্ত্রী, পুড়িয়ে মারলেন তৃতীয় স্ত্রীকে

আখাউড়া
চট্টগ্রাম4 hours ago

মাদকাসক্ত ছেলেকে পুলিশে দিলেন বাবা

দেশজুড়ে4 hours ago

বর্ণাঢ্য আয়োজনে পাবনায় বর্ষবরণ উদযাপিত

সৌদি আরব
আন্তর্জাতিক6 days ago

সৌদিতে ঈদ বুধবার

আন্তর্জাতিক4 days ago

বিড়াল বাঁচাতে গিয়ে একই পরিবারের ৫ জন নিহত

আন্তর্জাতিক6 days ago

ঈদের তারিখ জানালো অস্ট্রেলিয়া

বিএনপি6 days ago

ব্যারিস্টার খোকনকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত পাঠানো হয়েছে লন্ডনে

আন্তর্জাতিক7 days ago

৬ মাসে হামাসকে কতটুকু ধ্বংস করতে পেরেছে ইসরায়েল

বাংলাদেশ4 days ago

যাত্রীদের মারধরে নয়, চালক-কন্ডাক্টরের মৃত্যু হয় যেভাবে

আন্তর্জাতিক6 days ago

এবার পাকিস্তান জানালো কবে হতে পারে ঈদ

বাংলাদেশ1 day ago

ইসরাইল থেকে সরাসরি ঢাকায় বিমানের অবতরণ- যা জানা গেলো

আন্তর্জাতিক5 days ago

রাতে নয়, দেশটিতে দিনে দেখা গেলো ঈদের চাঁদ!

জয়পুরহাটে-প্রেমিক-প্রেমিকার-বিষপান
রাজশাহী5 days ago

একসঙ্গে বিষপান, ২২ ঘন্টার ব্যবধানে প্রেমিক প্রেমিকার মৃত্যু

প্রধানমন্ত্রী-শেখ-হাসিনা
জাতীয়3 weeks ago

গায়ের চাদর না পুড়িয়ে বউদের ভারতীয় শাড়ি পোড়ান: প্রধানমন্ত্রী

ফুটবল3 weeks ago

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোচ জানালেন এটা মাত্র শুরু

টুকিটাকি3 weeks ago

জিলাপির প্যাঁচে লুকিয়ে আছে যে রহস্য!

অর্থনীতি1 month ago

বাজারে লেবুর সরবরাহ বেশি, তবুও দাম চড়া

রেশমা
বাংলাদেশ1 month ago

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর ঠিকানা খুঁজছে পুলিশ

হলিউড1 month ago

নীল দুনিয়ায় অভিনেত্রী সোফিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু

ফুটবল1 month ago

জামালকে ঠিকঠাক বেতন দেয়নি আর্জেন্টাইন ক্লাব

টুকিটাকি1 month ago

রণবীরের ‘অ্যানিম্যাল’ দেখে শখ, মাইনাস ২৫ ডিগ্রিতে বসলো বিয়ের আসর

অর্থনীতি2 months ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 months ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

সর্বাধিক পঠিত