Connect with us

অন্যান্য

গ্যাং লিডারের সাক্ষাৎকার নিতে গিয়ে অপহৃত ইউটিউবার

Avatar of author

Published

on

গ্যাং লিডারের সাক্ষাৎকার নিতে গিয়ে অপহরণের শিকার হয়েছেন এক ইউটিউবার। অ্যাডিসন পিয়েরে মালৌফ নামে ওই ইউটিউবার যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করেন। মার্কিন গণমাধ্যম নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদন এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদন অনুসারে, এই ইউটিউবার গিয়েছিলেন হাইতিতে। তার উদ্দেশ্য ছিল, সেখানকার একটি অপরাধী গোষ্ঠীর নেতার (গ্যাং লিডার) সাক্ষাৎকার নেবেন। তবে দেশটিতে যাওয়ার একদিন পর নিজেই অপহরণের শিকার হন তিনি।

গণমাধ্যমটি বলছে, অ্যাডিসন জর্জিয়াভিত্তিক ইউটিউবার। অ্যাডিসন পিয়েরে মালৌফ ইওরফেলোআরব বা আরব নামে বেশ পরিচিত। আর এ নামেই রয়েছে তার একটি ইউটিউব চ্যানেল। প্রায় ১৪ লাখ ফলোয়ার আছে এই চ্যানেলে।

হাইতির সবচেয়ে দুর্ধর্ষ গ্যাং লিডার জিমি ‘বারবিকিউয়ি’ চেরিজিয়েরের সাক্ষাৎকার নিতে চেয়েছিলেন তিনি। গত ১৩ মার্চ আরব হাইতিতে যান। সঙ্গে ছিলেন হাইতির একজন ইউটিউবার। কিন্তু ১৪ মার্চ তাদের দু’জনকেই অপহরণ করেন হাইতির ‘৪০০ মাওজো গ্যাং’ নামের স্থানীয় একটি অপরাধী গোষ্ঠীর সদস্যরা।

মুক্তিপণ হিসেবে ৬ লাখ ডলার চেয়েছে অপহরণকারীরা। ইতোমধ্যে ৪০ হাজার ডলার দেয়াও হয়েছে। তবে অপহরণকারীরা তাকে মুক্তি দিতে রাজি হয়নি। মুক্তিপণের পুরো অর্থ দেয়ার দাবি করে আসছেন অপহরণকারীরা।

Advertisement

সাধারণত ভ্রমণ বিষয়ক ভ্লগ বানান এই ইউটিউবার। তবে প্রচলিত পর্যটন স্পটগুলো নয়, বিপজ্জনক জায়গায় ভ্রমণ ও সেসব জায়গার খুঁটিনাটি বিষয়ে এই ইউটিউবারের আগ্রহ প্রবল। সেই আগ্রহ থেকেই তিনি হাইতিতে গিয়েছিলেন।

Advertisement

অন্যান্য

বাংলাদেশের আকাশে দেখা মিললো ‘পিঙ্ক মুন’

Published

on

রাতের আকাশে এক অদ্ভুত সুন্দর ঘটনা ঘটল। দেখা মিললো হালকা গোলাপি রঙের চাঁদ। প্রায় প্রতি বছর এপ্রিল মাসেই এই দুর্দান্ত মহাজাগতিক ঘটনা ঘটে। একে ‌‘পিঙ্ক মুন’ বলা হয়। প্রায় সারাদেশে মেঘ মুক্ত আকাশে অদ্ভত সুন্দর এই চাঁদের দেখা মিলেছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) সূর্যাস্তের পর ধীরে ধীরে পূর্বাকাশে পিঙ্ক মুনের দেখা মিলে।

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর থেকে পিঙ্ক মুনের বিষয়টি গতকালই নিশ্চিত করেছে। গেলো মঙ্গলবার বিজ্ঞান জাদুঘর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। যেখানে বলা হয়, বুধবার (২৪ এপ্রিল) সূর্যাস্তের পর থেকে পরবর্তী দুই ঘণ্টা পর্যন্ত (আকাশ মেঘমুক্ত থাকা সাপেক্ষে) এ চাঁদ দেখা যাবে।

এতে বলা হয়, বুধবার রাতে পিঙ্ক মুন দেখা যাবে। এ জন্য আগারগাঁওয়ে বিজ্ঞান জাদুঘরের প্রশাসনিক ভবনের ছাদে স্থাপন করা হবে শক্তিশালী টেলিস্কোপ। এ টেলিস্কোপ পর্যবেক্ষণ ক্যাম্পে শিক্ষার্থী ও জনসাধারণকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে বিজ্ঞান জাদুঘর কর্তৃপক্ষ।

এদিকে নাসার সায়েন্স মিশন ডিরেক্টরেটের প্রোগ্রাম এক্সিকিউটিভ গর্ডন জনসন গণমাধ্যমে জানায়, মাসে একবার পূর্ণিমা আসে। ২৪ এপ্রিল ভোর ৫:১৫ মিনিটে এই চাঁদটি তার পূর্ণিমার পূর্ণ পর্যায়ে ছিল। সেই কারণে অনেকটাই বড় এবং উজ্জ্বল যায়।

উল্লেখ্য, আকাশে ঝলমলে চাঁদ সাদা রঙের মতোই মনে হয়। কিন্তু মাঝে মাঝে, বিশেষ করে পূর্ণিমার সময় এতে গোলাপি, লালচে বা তামাটে রঙের দেখা যায়। এই অস্বাভাবিক রঙের পেছনে আসলে কোনও রহস্য নেই, বরং এটি একটি বৈজ্ঞানিক ঘটনা যা ‌‘রেলেই প্রক্রিয়া’ (Rayleigh scattering) নামে পরিচিত।

Advertisement

এএম/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

অন্যান্য

বয়ফ্রেন্ডকে দিনে ১০০ বার কল, সাড়া না পেয়ে যা ঘটালেন তরুণী

Published

on

সংগৃহীত প্রতীকী ছবি

নতুন প্রেমিকের সঙ্গে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখতে চাইতেন ১৮ বছরের এক তরুণী। ফোনকলে প্রেমিক সঙ্গে সঙ্গে কথা না বললে উচ্ছৃংখল আচরণ করতেন। হয়ে পড়তেন বিষণ্ন। বাসার আসবাবপত্র ভাঙচুর করতেন।বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রথম বর্ষ থেকেই তার মধ্যে এ ধরনের আচরণ ছিল। সম্প্রতি এই আচরণ আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে। তবুও প্রেমিক সহ্য করে যাচ্ছিলেন প্রেমিকার এমন আচরণ। সর্বশেষ ঘটনার দিন ওই তরুণী মোবাইলে  ১০০ বার কল করেন। কোনো কারণে প্রেমিক তা রিসিভ না করায় অবসাদগ্রস্ত হয়ে বাসায় আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন। শুধু তাই নয় ফোন না ধরার কারণে চিৎকার করে কান্নাকাটি শুরু করেন।  এতে ভীত হয়ে পড়েন ওই প্রেমিক। কোনো উপায় না পেয়ে পুলিশকে খবর দেন।

এরপর ঘটে আরেক বিপত্তি। পুলিশ দেখতে পেয়ে ওই তরুণী বাসার বেলকনি দিয়ে লাফ দিয়ে আত্মহত্যার হুমকি দেন। পরে পুলিশ তাকে বুঝিয়ে শান্ত করেন এবং তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, ওেই তরুণী ‘প্রেম রোগে’ ভুগছেন। তারা এই রোগের নাম দিয়েছেন ‘লাভ ব্রেন’।

চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিচুয়ান প্রদেশে জিয়াওয়ু নামে ১৮ বছরের এক তরুণী এসব কাণ্ড ঘটান। সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জিয়াওয়ু অতিমাত্রায় প্রেমিকের ওপর নির্ভরশীল। নতুন প্রেমিকের সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ রাখতে চাইতেন। তার ইচ্ছেমতো যোগাযোগ করা সম্ভব না হলেই উচ্ছৃংখল আচরণ করতেন। হয়ে পড়তেন বিষণ্ন। আত্মহত্যা করতে চাইতেন। ভাঙচুর করতেন আসবাব। সবশেষ তাঁর আচরণে ভীত হয়ে পুলিশকে খবর দিলে তারা ওই তরুণীকে নানাভাবে শান্ত করেন এবং স্থানীয় দ্য ফোর্থ পিপল’স হাসপাতাল অব চেঙ্দুতে  নিয়ে ভর্তি করান।

হাসপাতালের চিকিৎসক ডু না জানান, ‘ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রথম বর্ষ থেকেই ওই তরুণীর মধ্যে এই ধরণের লক্ষণ দেখা দেয়। ওই তরুণী প্রেমিকের সঙ্গ না পেলে বা কথা বলতে না পারলে মানসিক চাপ সহ্য করতে পারতেন না। ঘরের জিনিসপত্র ছুঁড়ে ফেলে দিতেন। আত্মহত্যার হুমকি দিতেন। তরুণী চাইতেন তার মেসেজের রিপ্লাই সঙ্গে সঙ্গে দেওয়া হোক।

Advertisement

ফোর্থ পিপল’স হাসপাতাল অব চেঙ্দু’র ওই চিকিৎসক আরও বলেন, ‘ জিয়াওয়ু এক ধরনের বর্ডারলাইন পার্সোনালিটি ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত। এটি তার মানসিক স্বাস্থ্যে গভীর ক্ষত সৃষ্টি করতে পারে। এই ধরনের মানসিক অবস্থা তখনই তৈরি হয়, যদি শিশু বয়স থেকে কেউ ট্রমায় ভোগে। এতে মানসিক ভারসাম্যহীনতা বাড়তে পারে, যার জন্য বাড়তে পারে উদ্বেগ ও বিষণ্নতা ও বাইপোলার ডিসঅর্ডার।’

এ অবস্থার কারণ বিস্তারিত না জানিয়ে ওই চিকিৎসক বলেছেন, শিশু বয়সে মা-বাবার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক না থাকা এ রোগের অন্যতম কারণ। সাধারণ অবস্থায় মানসিক ব্যবস্থাপনা কৌশল ব্যবহার করে রোগীকে সুস্থ করা সম্ভব।’ তবে জিয়াওয়ুর মতো রোগীর ক্ষেত্রে উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

অন্যান্য

ভেঙে পড়লো ১২০ ফুটের রথ

Published

on

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের একটি মেলায় ১২০ ফুট উচ্চতার একটি রথ ভেঙে পড়েছে। শনিবার (৬ এপ্রিল) বেঙ্গালুরুর আনেকালের হুসকুর মাদ্দুরাম্মা মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। খবর- এনডিটিভি

প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার বেঙ্গালুরুর আনেকালের হুসকুর মাদ্দুরাম্মা মন্দিরে মেলার আয়োজন করা হয়। আশপাশের ১০টিরও বেশি গ্রাম এই মেলায় অংশ নেয়। মেলা উপলক্ষে বানানো হয় বিশাল রথ ।

রথটি মন্দির চত্বরে নিয়ে আসার সময়েই সেটি ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে মাটিতে আছড়ে পড়ে। এতে মেলায় হুলস্থুল পড়ে যায়। তবে সেসময় ঘটনাস্থলে বেশি মানুষ না থাকায় কোনে হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। যদিও পরে আবার রথটিকে ট্র্যাক্টর এবং গরুর গাড়ির সাহায্যে আবার দাঁড় করানো হয়েছে।

হুস্কুর মাদ্দুরাম্মা বেঙ্গালুরুর জনপ্রিয় রথ উৎসব। এই মেলার মূল আকর্ষণ ১২০ ফুটের এই রথ। প্রতিবছরই এসময়ে মেলার আয়োজন করা হয়।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত