Connect with us

বিনোদন

পরীমণিকে গ্রেপ্তারের পরোয়ানা জারির আবেদন

Avatar of author

Published

on

পরীমণি

জনপ্রিয় নায়িকা পরীমণির বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছেন বাদীপক্ষ। এ বিষয়ে আদেশ পরে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক এ আদেশ দেন। এদিন এ মামলার প্রতিবেদন গ্রহণ বিষয়ে শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই ঢাকা জেলার পরিদর্শক মো. মনির হোসেন সম্প্রতি ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে আসামি পরীমণি ও তার কস্টিউম ডিজাইনার জুনায়েদ বোগদাদী জিমি ওরফে জিমের বিরুদ্ধে বাদীকে মারধর ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে আরেক আসামি ফাতেমা তুজ জান্নাত বনির বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

বোটক্লাবের সভাপতি ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ বাদী হয়ে ২০২১ সালের ৬ জুলাই ঢাকার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব হাসানের আদালতে পরীমণিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন। এ মামলার অন্য দুই আসামি হলেন- পরীমণির সহযোগী ফাতেমা তুজ জান্নাত বনি ও জুনায়েদ বোগদাদী জিমি ওরফে জিম।

মামলায় নাসির উদ্দিন উল্লেখ করেন, পরীমণি ও তার সহযোগীরা অ্যালকোহল সেবনে অভ্যস্ত। তারা সুযোগ বুঝে বিভিন্ন নামীদামি ক্লাবে ঢুকে অ্যালকোহল পান করেন এবং পার্সেল নিয়ে মূল্য পরিশোধ করেন না। পরীমণি তার পরিচিত পুলিশ কর্মকর্তাদের দিয়ে মিথ্যা মামলা করিয়ে হয়রানির ভয় দেখান। ২০২১ সালের ৯ জুন রাত ১২টার পর আসামিরা সাভারের বোটক্লাবে ঢোকেন এবং দ্বিতীয় তলার ওয়াশরুম ব্যবহার করেন। পরে তারা ক্লাবের ভেতরে বসে অ্যালকোহল পান করেন।

Advertisement

এতে আরও বলা হয়, বাদী (নাসির উদ্দিন মাহমুদ) ও তার সহযোগী শাহ শহিদুল আলম রাত ১টা ১৫ মিনিটে যখন ক্লাব ত্যাগ করছিলেন, তখন পরীমণি উদ্দেশ্যমূলকভাবে নাসিরকে ডাক দেন। তাদের সঙ্গে কিছু সময় বসারও অনুরোধ করেন। এক পর্যায়ে পরীমণি অশ্লীল অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে নাসিরকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করেন এবং একটি ব্লু লেবেল অ্যালকোহলের বোতল বিনামূল্যে পার্সেল দেয়ার জন্য চাপ দেন। নাসির উদ্দিন এতে রাজি না হওয়ায় পরীমণি তাকে গালমন্দ করেন। নাসির এবং আসামিদের মধ্যে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে পরীমণি বাদীর দিকে একটি সারভিং গ্লাস ছুড়ে মারেন এবং হাতে থাকা মোবাইল ফোনও ছুড়ে মারেন। এতে নাসির মাথায় এবং বুকে আঘাতপ্রাপ্ত হন।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, পরীমণি ও তার সহযোগীরা তাকে (নাসির উদ্দিনকে) মারধর ও হত্যার হুমকি দিয়েছেন ও বোটক্লাবে ভাঙচুর করেছেন। এ ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার জন্য পরীমণি সাভার থানায় বাদী নাসির উদ্দিনসহ দুজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ তুলে মামলা করেন।

এর আগে ২০২১ সালের ১৪ জুন ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন পরীমণি। এদের মধ্যে ছিলেন বোট ক্লাবের তৎকালীন সভাপতি নাসির ইউ মাহমুদ, তুহিন সিদ্দিকী অমি ও অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও ৪ জন।

তদন্তের পর ধর্ষণ বা হত্যাচেষ্টার কোনো প্রমাণ পায়নি পুলিশ।

Advertisement
Advertisement

বিনোদন

শাহরুখের থেকে আমার পারিশ্রমিক অনেক বেশি : ফারহা খান

Published

on

পারিশ্রমিক

সারা বিশ্বে ছড়িয়ে রয়েছেন বলিউডের ‘কিং খান’-এর অনুরাগী। এই সফরের শুরুটা মোটেই খুব সহজ ছিল না। ১৯৯২ সালে শাহরুখ খানের প্রথম ছবি ‘দিওয়ানা’ মুক্তি পায়। মুখ্য নায়কের চরিত্রে ছিলেন ঋষি কাপুর। কিন্তু প্রথম ছবিতেই নজর কেড়েছিলেন শাহরুখ।

‘দিওয়ানা’ ছবিটি প্রথমে মুক্তি পেলেও তার আগেই অন্য একটি ছবির কাজ হাতে নিয়েছিলেন শাহরুখ। সেই ছবির নাম ‘কভি হাঁ কভি না’। এই ছবির চুক্তিতেই প্রথম সই করেছিলেন বলি তারকা। পরিচালক ছিলেন কুন্দন শাহ।

‘কভি হাঁ কভি না’ ছবির গানগুলির কোরিয়োগ্রাফি করেছিলেন ফারহা খান। শাহরুখ নাকি ফারহার থেকে বেশ অনেকটাই কম পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন সেই ছবিতে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন পরিচালক তথা কোরিয়োগ্রাফার ফারহা। সেখানেই গর্বের সঙ্গে তিনি বলেন যে, শাহরুখের থেকেও অনেক বেশি টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন তিনি।

সেই সাক্ষাৎকারে ফারহা বলেছিলেন, ‘‘ওই ছবির বাজেট খুব কম ছিল। মাত্র ২৫ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন শাহরুখ। কিন্তু ওই ছবিতে সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পেয়েছিলাম আমি। প্রতিটি গানের জন্য আমি পাঁচ হাজার টাকা করে পেয়েছিলাম। ছ’টি গানের কোরিয়োগ্রাফি করেছিলাম আমি। মোট ৩০ হাজার টাকা পেয়েছিলাম। আমাদের এক জন সহকারী রাখারও ক্ষমতা ছিল না।’’

এই ছবির সময় থেকে শাহরুখ ও ফারহার বন্ধুত্ব। এর পরে একসঙ্গে বেশ কিছু কাজ করেছেন দু’জনে। ফারহার প্রথম পরিচালিত ছবি ‘ম্যায় হুঁ না’। সেই ছবিতেও নায়কের চরিত্রে ছিলেন শাহরুখই। এর পরে ‘ওম শান্তি ওম’, ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’-এর মতো ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছেন শাহরুখ-ফারহা।

Advertisement

কেএস/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

প্রাক্তনকে ভুলতে ওরি-উরফির সঙ্গে পার্টিতে অনন্যা

Published

on

বলিউডের হার্টথ্রব অভিনেতা আদিত্য রয়ের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর থেকেই বিষন্নতায় ভুগছেন জেন-জি অভিনেত্রী অনন্যা পাণ্ডের। তবে সম্প্রতি বিটাউনের পরিচিত মুখ ওরি এবং উরফি জাবেদকে নিয়ে পার্টিতে মজতে দেখা গেলো অনন্যাকে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পার্টিতে তাদের ঘনিষ্ট ছবি দেখে অবাক নেটিজেনরা।

ভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আদিত্যের সঙ্গে বিচ্ছেদের দুঃখ ভুলতেই ওরি ও উরফির সঙ্গে পার্টিতে মজেছেন অনন্যা। সেই একই পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা অর্জুন কাপুর, মালাইকা আরোরার ছেলে আরহান খানসহ আরও অনেকে।

কিছু দিন আগে একটি সাক্ষাৎকারে অনন্যাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছে, সপ্তাহান্তে জীবন থেকে কী হারিয়েছেন। জবাবে অভিনেত্রী বলেন, তিনি মন হারিয়েছেন। বিচ্ছেদের পর থেকে নাকি নিজের পোষ্যের সঙ্গেই বেশি সময় কাটাচ্ছেন তিনি। যদিও, বিচ্ছেদ নিয়ে সরাসরি কিছু বলেননি অনন্যা।

অন্যদিকে, অনন্যার সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখে কুলুপ এটেছেন আদিত্যও। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বরাবরই চুপ থেকেছি। আর এটাই আমি পছন্দ করি। আমার ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে মানুষের জানা দরকার, এমনটা আমার কখনও মনে হয়নি। সব প্রকাশ না করে, ব্যক্তিগত জীবন নিজের মধ্যেই রাখতে পছন্দ করি ‘

টানা দুই বছর সম্পর্কে ছিলেন আদিত্য ও অনন্যা। বিভিন্ন জায়গায় একসঙ্গে ক্যামেরায় ধরা পড়েছেন তারা। একসঙ্গে বিজ্ঞাপনের কাজও করেছেন। কিন্তু সম্পর্ক স্থায়ী হয়নি। গেল মার্চে সম্পর্কের ইতি টেনেছেন এই তারকা জুটি।

Advertisement

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

এইডস রোগের গুজবে বিব্রত ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ!

Published

on

ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম এইডসে আক্রান্ত হয়েছেন! সম্প্রতি এমনই একটি গুজব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে চরম বিব্রত তিনি।

নিজের সম্পর্কে এমন গুজবের বিষয়ে মমতাজ বেগম বলেন, ‘শুনলাম, আমার নাকি এইডস হয়েছে! বিষয়টি বিব্রতকর। আল্লাহর রহমতে আমি সুস্থ ও খুব ভালো আছি। আর সে কারণেই স্টেজ শো নিয়ে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াতে পারছি।’

মমতাজ আরও বলেন, ‘ঈদের পরও দেশের বাইরে যাচ্ছি। যারা এসব মিথ্যা কিংবা গুজব ছড়াচ্ছে তাদের সুবুদ্ধির উদয় হোক। যারা এসব বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে তাদের বলব, এগুলো ভালো না, ভালো পথে থাকেন। আর আমার ভক্তদের বলব, এসব গুজবে কান দেবেন না। সবার দোয়ায় আপনাদের মমতাজ অনেক অনেক ভালো আছে।’

কোরবানির ঈদের পর দিনই স্টেজ শোতে অংশ নিতে দুবাই যাচ্ছেন মমতাজ। গান গাওয়ার পাশাপাশি সেখানের একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানেও অংশ নেবেন। সবশেষ করে চলতি মাসের ২৩-২৪ তারিখে দেশে ফিরবেন তিনি। এছাড়া আসন্ন কোরবানির ঈদে একগুচ্ছ গান নিয়ে আসছেন ভক্ত-শ্রোতাদের সামনে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত