Connect with us

প্রবাস

বাংলাদেশ-আরব আমিরাতের কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী

Avatar of author

Published

on

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫৪তম বার্ষিকী ও জাতীয় দিবস এবং বাংলাদেশ-সংযুক্ত আরব আমিরাতের কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুবাইয়ের পাঁচ তারকা হোটেল র‌্যাফেলস-এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) আমিরাতের বাণিজ্যিক রাজধানী দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আমিরাতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুবাই অফিসের উপ-পরিচালক রাশিদ আবদুল্লাহ আল কাসির।

আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রায় ২০টি দেশের কূটনীতিক, ব্যবসায়ী নেতা, উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ প্রায় ৩০০ অতিথি অংশগ্রহণ করেন।

উভয় দেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজানোর পর দুবাই ও উত্তর আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন সকল প্রবাসীকে অভিনন্দন জানান এবং আমিরাতের দুই ভ্রাতৃপ্রতিম দেশের জনগণের শান্তিপূর্ণ ও সৌহার্দ্যপূর্ণ সহাবস্থানে অব্যাহত সমর্থনের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতের নাগরিকদের ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে দুবাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন বলেন, ১৯৭৪ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আরব আমিরাতে সফর করেন এবং আমিরাতের জাতির পিতা শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের সঙ্গে ঐতিহাসিক সাক্ষাতের মধ্য দিয়ে বন্ধুত্বের বা সহযোগিতায় কুটনৈতিক সম্পর্কের যে সূত্রপাত হয় সেটি এখন অনন্য উচ্চতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে। বর্তমানে দেশটিতে প্রায় দশ লাখ বাংলাদেশি রয়েছেন। তারা দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিতে কাজ করে যাচ্ছেন।

Advertisement

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বাংলাদেশের ইতিহাসে মাইলস্টোন ঘটনা। এ দিনে আমরা স্বাধীনতা লাভ করি।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ-ইউএই’র ৫০ বছরের কূটনৈতিক সম্পর্কের ওপর একটি বিশেষ তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিষ্ঠাতা শেখ জায়েদ আল নাহিয়ানের সঙ্গে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাক্ষাতের বিষয়বস্তু এই ভিডিও ডকুমেন্টারিতে তুলে ধরা হয়েছে।

এরপর সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে একটি কেক কাটা হয়। নৈশভোজ শেষে বিদেশি অতিথিদের জাতীয় দিবসের টোকেন হিসেবে বাংলাদেশি ব্র্যান্ডের গিফট হ্যাম্পার প্রদান করা হয়।

এএম/

Advertisement
Advertisement

প্রবাস

সৌদিতে ‘আইডিয়াল স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন নোয়াখালীর আব্দুল মান্নান

Published

on

সৌদি আরবের অন্যতম প্রধান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থী হিসেবে ‘আইডিয়াল স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড-২০২৪’ পেয়েছেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মো. আব্দুল মান্নান।

রোববার (১৯ মে) কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সংবর্ধনা  অনুষ্ঠানে তাকে সম্মাননা ও ক্রেস্ট তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট ড.  আব্দুল্লাহ এস আল সালমান।

কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রতিবছরই ‘আইডিয়াল স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র- ছাত্রীদের মধ্য থেকে পরীক্ষায় সর্বোচ্চ রেজাল্ট, বিভিন্ন সেবামূলক কাজে নেতৃত্ব, ক্যাম্পাসে উত্তম আচরণ ও সৃজনশীল মেধা তালিকায় সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়াদের উৎসাহিত করতেই প্রতিটি ফ্যাকাল্টি থেকে একজন নির্বাচিত করে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে থাকে।

মেধাবী এবং আদর্শবান এই আব্দুল মান্নান কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সেরা শিক্ষার্থী ডিনসিফ অ্যাওয়ার্ড ২০২৩ নির্বাচিত হয়েছিলেন।  বিশ্বের শতাধিক দেশ থেকে স্কলারশিপ পাওয়া শিক্ষার্থী ও স্থানীয়  শিক্ষার্থীসহ বর্তমানে কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬০ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছেন।

প্রসঙ্গত, আব্দুল মান্নান নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী থানার ওয়াছেকপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রশীদের পুত্র।  তিনি প্রাথমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক জামিয়া রশীদিয়া মাদ্রাসা এবং দারুল উলুম মইনুল ইসলাম আরাবী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দাওরাহ হাদিস শেষ করে ২০১৯ সালে বাংলাদেশ থেকে স্কলারশিপ নিয়ে কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করছেন।  বর্তমানে আব্দুল মান্নান অনার্স ফাইনাল বর্ষের শিক্ষার্থী।

Advertisement

এমআর//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

প্রবাস

প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের সংবর্ধনা

Published

on

সৌদি আরব প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আবহা খামিজ মোশাইদ আগমন উপলক্ষে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছেন আবহা খামিজ মোশাইদ প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটি।

শুক্রবার (১০মে) স্থানীয় একটি হল রুমে সাংবাদিক রুস্তম খানের সঞ্চালনায় আবহা বাংলা টিভির প্রতিনিধি এম ইব্রাহীম খলীলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সৌদি আরব প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি, সৌদি আরব আর টিভি ব্যারো চীফ মোঃ আবুল বশির।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোহরাব হোসেন লিটন, সেলিম উদ্দিন ,আরিফ হোসেন, এ কে আজাদ, এস এইচ হেমায়েত, মিজানুর রহমান, শিহাব,বাহাদুর হোসাইন,এম এ নোমান,ফরিদ আহমেদ, আব্দুল মুকিম চৌধুরী, সাজ্জাদ হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন,শরিফ হোসেন, মোহাম্মদ ইউনুছ সহ আরো অনেকে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে দেশের অর্থনীতির চাকা সচল হয়। তাই প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা পদবীর পাশাপাশি দেশ স্বাধীনে আত্মনিয়োগ করা মুক্তিযোদ্ধাদের মতো সকল সুযোগ সুবিধা প্রদান সহ মৃত প্রবাসীদের লাশ সরকারি খরচে দেশে স্বজনদের কাছে প্রেরণের জন্য আহবান জানান। এরপরে অতিথিদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস তুলে দেয়া হয়।

এএম/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

প্রবাস

আমেরিকা যাওয়ার পথে মেক্সিকো সীমান্তে বাংলাদেশির মৃত্যু

Published

on

মেক্সিকো-সীমান্তে-প্রবাসীর-মৃত্যু

আমেরিকা যাওয়ার পথে মেক্সিকো সীমান্তে অসুস্থ হয়ে দুবাই প্রবাসী রুহুল আমিন (৩৫) নামে এক বাংলাদেশি মারা গেছেন।

রোববার (১২ মে) দুপুরে সোনাইমুড়ী পৌরসভার মেয়র নুরুল হক চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন।

রুহুল আমিনের বাবার নাম হেদায়েত উল্যাহ। তার বাড়িতে মা, এক ভাই, এক বোন, স্ত্রী ও তিন মেয়ে রয়েছে।

সোনাইমুড়ী পৌরসভার মেয়র নুরুল হক চৌধুরী বলেন, দুবাই থেকে আমেরিকা যাওয়ার পথে রুহুল আমিন মেক্সিকো ও আমেরিকার সীমান্তে অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন। সেখানে অবস্থানরত এক আত্মীয় বিষয়টি পরিবারকে জানিয়েছে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রুহুল আমিন দীর্ঘদিন ধরে দুবাইতে ছিলেন। পরে আমেরিকা যাওয়ার স্বপ্নে অনেক টাকা ঋণ করেন। কিন্তু আমেরিকায় প্রবেশের আগেই মেক্সিকো সীমান্তে অসুস্থ হয়ে মারা যান। এখন তার মরদেহ দেশে আনতে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছেন স্বজনরা।

Advertisement

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত