Connect with us

ঢালিউড

শাকিব খান কী খেতে ভালোবাসেন- জানালেন অপু-বুবলী

Avatar of author

Published

on

অপু বিশ্বাস ও বুবলীর সঙ্গে শাকিব খানের সম্পর্ক নাকি টালমাটাল! শোনা যাচ্ছে, প্রথম পক্ষের স্ত্রী অপু বিশ্বাসের দিকেই সম্প্রতি ঝুঁকেছেন অভিনেতা শাকিব খান। অনেকে বলছেন, সেই কারণে এবার ময়দানে নেমেছেন অভিনেতার দ্বিতীয়া স্ত্রী বুবলী। অন্তত তিনি নিজেকেই অভিনেতার স্ত্রী বলেই দাবি করেন।

অবশ্য শাকিব এই মুহূর্তে অপু না কি বুবলী, কার সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্কে রয়েছেন, তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। যদিও অভিনেতার দুই স্ত্রী এবং দুই সন্তানের যাতায়াত রয়েছে তার বাড়িতে। দুই ছেলের কারণেই নাকি স্ত্রীদের শাকিবের সঙ্গে যোগাযোগ হচ্ছে। কোন স্ত্রী শাকিবের বেশি কাছের, তা নিয়ে দু’পক্ষের নিজস্ব বক্তব্য রয়েছে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শাকিবের সঙ্গে তার সমীকরণ ও তাদের দাম্পত্য জীবনের অনেক খুঁটিনাটি ফাঁস করেছেন বুবলী। এবার শাকিব খান তার হাতে কী খেতে ভালোবাসেন, সেটাই জানালেন অভিনেত্রী।

সম্প্রতি অপু বিশ্বাস জানান, শাকিব খান তার হাতের মোরগ পোলাও খেতে পছন্দ করেন।

এবার বুবলীও জানিয়েছেন, তার হাতের কোন খাবারটি শাকিবের পছন্দের। অভিনেত্রী বলেন, ‘আমার রান্না করা হাঁসের মাংস খেতে শাকিব পছন্দ করেন। এ ছাড়া একটা ছোট চিংড়ির ফ্রাই করি, ওটাও খুব পছন্দ করেন। তিনি যখন খান, প্রচুর কিছু খেতে পছন্দ করেন।’

Advertisement

তবে নায়ক বলে কথা! এমন রসেবসে থাকলে স্বাস্থ্যের কি হবে? ক্যামেরার সামনে ফিট দেখাতে কিংবা ওজন কমাতে কী করেন?

বুবলীর জানান, যখন ওজন কমাতে হয়, তখন ডায়েট করেন। একদমই ক্র্যাশ ডায়েটে চলে যান। দেখা যায়, এক সপ্তাহের মধ্যেই ওজন কমিয়ে ফেলতে পারছেন।

Advertisement

ঢালিউড

প্রতারণার দায়ে ‘তুফান’র প্রযোজকের বিরুদ্ধে মামলার ঘোষণা

Published

on

শুটিংয়ের নামে বিদেশে অর্থ পাচার, দৃশ্যপট ও গান নকল ও অতিরিক্ত অগ্রীম টাকা দাবিসহ নানা অভিযোগ আছে শাকিব খান অভিনীত সিনেমা তুফানের প্রযোজক শাহরিয়ার শাকিলের বিরুদ্ধে। এবার সিনেমা হল মালিকের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে উঠেছে তার বিরুদ্ধে। আসন্ন ঈদে মুক্তি পাচ্ছে তুফান। এই চলচ্চিত্র প্রদর্শনের জন্য হল মালিকদের এক ধরনের জিম্মি করেই অতিরিক্ত আগাম টাকা দাবি করছে তুফানের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।

এ ধরনের অভিযোগ বেশ কয়েক দিন ধরেই শোনা যাচ্ছে। সম্প্রতি বগুড়ার ধুনটে অবস্থিত ‘ঝংকার’ সিনেমা হলের মালিক ঈশা খান এমন অভিযোগ করলেন। তার অভিযোগ, সিনেমা নিতে ঢাকায় এসে লাঞ্ছিত হন হল মালিক ঈশা খান ও তার মেয়ে ঈশিতা ইমু।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা আলফা আই অফিসে যাই তুফান সিনেমাটি নিতে। আমরা তিন লাখ টাকা দিতে চাইলে তারা আমাদের জানায় অপজিশন পার্টি পাঁচ লাখ টাকা দিতে চেয়েছে। আমরাও তখন নিরুপায় হয়ে পাঁচ লাখ টাকা দিতে চেয়েছি। তিন লাখ ক্যাশে ও দুই লাখ টাকার চেক। এরপর তারা আমাদের সিনেমাটি দেবেন বলে কথা দেন এবং পরের দিন আসতে বলেন। আমরা যথারীতি পরের দিন অফিসে গেলে জানতে পারি, সিনেমাটি নাকি ৬ লাখ টাকায় অপজিশনকে দিয়ে দিয়েছেন। আমাদের আসতে বলে, আমাদের না জানিয়ে কেন অপজিশনকে দিয়ে দিলেন এটা জিজ্ঞেস করতেই আমাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করে সৌখিন নামে একটি ছেলে। তারপর আমরা প্রতিবাদ করায় ভেতর থেকে প্রযোজক শাহরিয়ার শাকিল এসে আমাদের এক ধরনের ধাক্কা দিয়েই বের করে দেওয়ার মতো আচরণ করেন।’

বিষয়টি নিয়ে প্রযোজক শাহরিয়ার শাকিলের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেস্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। তবে বিভিন্ন গণমাধ্যমের কাছে তিনি জানিয়েছেন, ছবির প্রচারণায় ব্যাস্ত আছেন।  এদিকে, বুধবার (১২ জুন) তুফানের সংবাদ সম্মেলনে সংবাদিকরাও লাঞ্ছিত করা হয়েছে। প্রতিবাদে সাংবাদিকরা সংবাদ সম্মেলন বর্জন করা সিদ্ধান্ত নেয়। পরে দু:খ প্রকাশ করেন পরিচালক রায়হান রাফি।

এসআই/

Advertisement

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

সিনেমা নির্মাণের জন্য সরকারি অনুদান পেলেন যারা

Published

on

বুধবার (১২ জুন) প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সিনেমায় অনুদানের পরিমাণ ও অনুদান প্রাপ্তদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে তথ্য মন্ত্রনালয়। ১৯৭৬-৭৭ অর্থবছর থেকে দেশীয় চলচ্চিত্রে সরকারি এ অনুদান চালু করা হয়। এবার সেই তালিকায় ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ৬টি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় ২টি, শিশুতোষ শাখায় ২টি ও সাধারণ শাখায় ১৬টি সিনেমাকে অনুদান দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্বল্পদৈর্ঘ্য বিভাগে অনুদান দেয়া হয়েছে ৬টি চলচ্চিত্রকে।

এই ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে ১৬টি সিনেমার প্রতিটি অনুদান হিসেবে পাচ্ছে ৭৫ লাখ টাকা করে, আর বাকি ৪টি চলচ্চিত্রকে দেয়া হয়েছে ৫০ লাখ টাকা করে। এই চারটির মধ্যে দুটি শিশুতোষ এবং দুটি প্রামাণ্যচিত্র শাখায়।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘পাকিস্তানে বন্দিজীবন’ ও ‘ছোঁয়া। পাকিস্তানে বন্দিজীবন সিনেমার পরিচালক ও প্রযোজক সাজেদুল ইসলাম। ছোঁয়ার পরিচালক ও প্রযোজক রাকিবুল হাসান।

শিশুতোষ শাখায় ‘অদ–ভুত’ সিনেমার জন্য রাইদ মোরশেদ ও ‘চলনবিলের মানিক’ সিনেমার জন্য অনুদান পেয়েছেন নিয়ামুল মুক্তা। অদ-ভুত পরিচালনা করবেন তাওকীর ইসলাম। অন্যদিকে প্রযোজনার পাশাপাশি ‘চলনবিলের মানিক’ সিনেমাটি পরিচালনা করবেন নিয়ামুল মুক্তা। প্রামাণ্যচিত্র শাখায়  অনুদান পেয়েছে ‘নো ম্যাডস অব দ্য নর্থ’, পরিচালক ও প্রযোজক পিপলু আর খান। অন্যটি ‘কালের যাত্রা’,  প্রযোজক ও পরিচালক হিসেবে রয়েছেন রাসেল রানা দোজা।

Advertisement

সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘মিহিন গাথা’: প্রযোজক ও পরিচালক মির্জা শবনম ফেরদৌসী; ‘ঠিকানা’: প্রযোজক ও পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন বাবর; ‘সুরাইয়া’: প্রযোজক ফজলে হাসান শিশির, পরিচালক রবিউল আলম রবি; ‘জয়া’: প্রযোজক ও পরিচালক গোলাম মোস্তফা; ‘লোভ’: প্রযোজক পিংকি আক্তার, পরিচালক সঞ্জয় সমাদ্দার; ‘সখী রঙ্গমালা’: প্রযোজক ও পরিচালক এন রাশেদ চৌধুরী; ‘জাত’: প্রযোজক শেলী কাদের, পরিচালক নারগিস আক্তার; ‘ময়নার চার’: প্রযাজক সুমন পারভেজ, পরিচালক জেড এম মোস্তাফিজুর রহমান বাবু; ‘কালবেলা’: প্রযোজক ও পরিচালক ইব্রাহীম খলিল মিশুক (মিশুক মনি); ‘সেয়ানা’: প্রযোজক মনোজ প্রামাণিক, পরিচালক ইকবাল হাসান খান; ‘আজিরন’: প্রযোজক ও পরিচালক গীতালি হাসান; ‘পোস্টমর্টেম’: প্রযোজক মো. নিজাম উদ্দিন, পরিচালক, আরিফ সিদ্দিকী; ‘হা ঘরে’: প্রযোজক নূর মনির, পরিচালক নাসরুল্লাহ মানসুর; ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা’: প্রযোজক ও পরিচালক দেওয়ান নজরুল।

৬টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় অনুদান পেয়েছে দুটি সিনেমা। এগুলো হলো ‘অপরাজিত ৭১’; প্রযোজক ও পরিচালক মঈন উদ্দিন পাঠান। অন্যটি ‘জলদাসী’। এটির প্রযোজক ও পরিচালক মো. আবদুল খালেক (খালেক সাদমান)। শিশুতোষ শাখায় অনুদান পাচ্ছে ‘ডালিমকুমার ও তালপুকুরের কিচ্ছা’। এটি প্রযোজক ও পরিচালক সামির আহমেদ। সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে তিনটি সিনেমা। এগুলো হলো জুয়েইরাযাহ মউয়ের ‘মৌতালি পিঠার ঘ্রাণ’, এস এম কামরুল আহসানের ‘ফিনিক্স পাখি’ ও মোহাম্মদ মামুন ছোবহানীর ‘আবু ইব্রাহিমের মৃত্যু’। প্রতিটি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমাই ২০ লাখ করে টাকা অনুদান পাচ্ছে।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, মানবীয় মূল্যবোধসম্পন্ন জীবনমুখী, রুচিশীল ও শিল্পমানসমৃদ্ধ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা ও সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র অনুদান কমিটি’র সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে অনুদান প্রাপ্তদের নামের তালিকা দেয়া হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

এইডস রোগের গুজবে বিব্রত ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ!

Published

on

ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম এইডসে আক্রান্ত হয়েছেন! সম্প্রতি এমনই একটি গুজব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে চরম বিব্রত তিনি।

নিজের সম্পর্কে এমন গুজবের বিষয়ে মমতাজ বেগম বলেন, ‘শুনলাম, আমার নাকি এইডস হয়েছে! বিষয়টি বিব্রতকর। আল্লাহর রহমতে আমি সুস্থ ও খুব ভালো আছি। আর সে কারণেই স্টেজ শো নিয়ে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াতে পারছি।’

মমতাজ আরও বলেন, ‘ঈদের পরও দেশের বাইরে যাচ্ছি। যারা এসব মিথ্যা কিংবা গুজব ছড়াচ্ছে তাদের সুবুদ্ধির উদয় হোক। যারা এসব বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে তাদের বলব, এগুলো ভালো না, ভালো পথে থাকেন। আর আমার ভক্তদের বলব, এসব গুজবে কান দেবেন না। সবার দোয়ায় আপনাদের মমতাজ অনেক অনেক ভালো আছে।’

কোরবানির ঈদের পর দিনই স্টেজ শোতে অংশ নিতে দুবাই যাচ্ছেন মমতাজ। গান গাওয়ার পাশাপাশি সেখানের একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানেও অংশ নেবেন। সবশেষ করে চলতি মাসের ২৩-২৪ তারিখে দেশে ফিরবেন তিনি। এছাড়া আসন্ন কোরবানির ঈদে একগুচ্ছ গান নিয়ে আসছেন ভক্ত-শ্রোতাদের সামনে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত