Connect with us

ঢাকা

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ট্রান্সজেন্ডার নারীর আত্মহত্যা

Avatar of author

Published

on

ছাত্রী হোস্টেলের ছাদ থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যা করেছেন রাদিয়া তেহরিন উৎস (১৯) নামে এক শিক্ষার্থী। তিনি মিরপুর বাংলা কলেজের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি একজন ট্রান্সজেন্ডার নারী ছিলেন।

সোমবার (২২ এপ্রিল) রাতে রাজধানীর মিরপুরে একটি ছাত্রী হোস্টেলের ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়লে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে তাকে উদ্ধার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে মৃত ঘোষণা করা হয়।

রাজধানীতে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ট্রান্সজেন্ডার নারীর আত্মহত্যা

তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি বিউটিশিয়ান (রূপসজ্জাকারী) হিসেবে কাজ করতেন। তার গ্রামের বাড়ি জামালপুরে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

মিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুন্সি সাব্বির আহম্মেদ গণমাধ্যমকে জানান, ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি মৃত্যুর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি পোস্টে দিয়েছিলেন। সেখানে তিনি আত্মহত্যা করছেন বলে জানান। তবে কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন, সেটার তদন্ত চলছে।

 

Advertisement
Advertisement

ঢাকা

আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে স্কুলশিক্ষককে ৩ দিনের জেল

Published

on

আচরণবিধি

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে এক স্কুলশিক্ষককে তিন দিনের জেল দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। দণ্ডিত কামরুল হাসান খান (৪৪) উপজেলার রাজেন্দ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।

মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার গোসিংগা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক শেখ।

জানা যায়, “ভোটারদের জোরপূর্বক ভোট দেয়ানোর চেষ্টা এবং প্রকাশ্যে প্রচারণার অভিযোগে কামরুলকে এই সাজা দেয়া হয়েছে।”

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা শোভন রাংসা জানান, শ্রীপুর উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ৯৬ হাজার ৮৯৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার এক লাখ ৯৭ হাজার ৭১৬ জন, নারী ভোটার এক লাখ ৯৯ হাজার ১৭৪ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গ (হিজড়া) ভোটার ৬ জন। মোট ভোটকেন্দ্র ১৪৮টি এবং ভোটকক্ষের সংখ্যা ৯৮৪টি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম ইমাম রাজি টুলু বলেন, “সকালে ওই কেন্দ্রে ভোটারদের জোরপূর্বক ভোট দেয়ানোর চেষ্টা এবং প্রকাশ্যে প্রচারণার অভিযোগে কামরুলকে তিন দিনের জেল দেয়া হয়েছে।”

Advertisement

প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মোজাম্মেল বলেন, “বারবার ঘোরাফেরা করা এবং আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে তাকে এ দণ্ড দেন দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট।”

তিনি বলেন, এ কেন্দ্রে মোট ভোটার তিন হাজার ৩৬৫ জন। মোট বুথ ৮টি। এ কেন্দ্রে সকাল ১০টা পর্যন্ত ১২০ ভোট কাস্ট হয়।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

আড়াইহাজারে একাধিক কেন্দ্রে প্রকাশ্যে জাল ভোটদান

Published

on

জাল

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্যের ‘ঘোষিত’ প্রার্থীকে প্রকাশ্যে ভোট দেয়া, গোপন বুথে এজেন্টদের নজরদারি, মুঠোফোন নিয়ে এজেন্টদের বুথে প্রবেশ ও জাল ভোট দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) আড়াইহাজার উপজেলায় এই ঘটনা ঘটে।

উপজেলার অধিকাংশ কেন্দ্র থেকে নিজের এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ করেছেন দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহজালাল মিয়া। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান।

শাহজালাল মিয়ার বিপরীতে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি কাজী সুজন ইকবাল (আনারস প্রতীক) ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম (ঘোড়া প্রতীক)।

তাদের মধ্যে সাইফুল ইসলামকে নিজের প্রার্থী ঘোষণা করেছেন বলে আড়াইহাজারের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ নজরুল ইসলাম বাবুর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন প্রার্থী শাহজালাল মিয়া।

Advertisement

এই প্রার্থী ও তার সমর্থকরা অভিযোগ করেন, ভোট শুরু হওয়ার পর সকাল নয়টায় উপজেলার দুপ্তারা ইউনিয়নের ৯৮ নম্বর দড়ি সভ্যবান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভেতরে ১ নম্বর বুথে কয়েকজন ভোটারকে প্রকাশ্যে ঘোড়া প্রতীকে ভোট দিতে দেখা যায়। ভোট দেয়ার পর ওই ভোটার ফের লাইনে দাঁড়ান এবং আবারও ভোট দিতে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার কাছে যান। এ সময় তার হাতের আঙ্গুলে লাগানো অমোছনীয় কালি দেখিয়ে ফের ভোট দিতে আসার কারণ জানতে চাইলে ওই ভোটার কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি।

এ সময় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মুরাদ হোসেন এসে ওই ভোটারকে বুথের বাইরে নিয়ে যান এবং তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে কেন্দ্র থেকে চলে যেতে সহায়তা করেন বলে অভিযোগ করেন প্রার্থী শাহজালাল মিয়া।

এ বিষয়ে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মুরাদ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘দোয়াত কলমের একজন এজেন্টও আসেননি। আমি সুষ্ঠু ভোটের চেষ্টা করছি। কিন্তু আমি একদিকে গেলে ওরা আরেকদিক থেকে প্রবেশ করে। যা ঘটেছে তার জন্য আমি আন্তরিক দুঃখিত।’

এ বিষয়ে সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু বলেন, ‘আমি এলাকায় নাই। কেউ আমার নাম বললেই সেটা সত্য হবে এমন নয়। আমি খোঁজ নিয়ে যতোটুকু জেনেছি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে এবং ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি রয়েছে। আর যে প্রার্থী অত্যধিক জনপ্রিয় তার পক্ষে ব্যাপক ভোট পড়বে এটাই স্বাভাবিক। ভোট নিয়ে আমার কোনও নির্দেশনা থাকার প্রশ্নই উঠে না।’

এদিকে সকাল থেকে আড়াইহাজারের কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের খালিয়ারচর কেন্দ্রে ঘোড়া প্রতীকে প্রকাশ্যে ভোট দিতে দেখা গেছে। শনিবার ওই কেন্দ্রে গোপন বুথে ভোট না দিয়ে প্রকাশ্যে ভোট দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক লিটন সিকদার।

Advertisement

এসব ঘটনার ব্যাপারে বেলা ১১টায় সরকারি সফর আলী কলেজ কেন্দ্রে শাহজালাল মিয়া সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, ‘নির্বাচনের পরিবেশ গতকাল রাত থেকে নষ্ট করা হয়েছে। কোথাও আমার এজেন্টরা কেন্দ্রে ঢুকতে পারেনি। ফতেহপুর, কালাপাহাড়িয়া ও দুপ্তারায় প্রকাশ্যে সিল মারা হচ্ছে। আনারস ও ঘোড়া মার্কার প্রার্থীদের এজেন্টরা এক হয়ে এই কাজগুলো করছেন। সংসদ সদস্য নিজে এবং তার লোক দিয়ে এসব কাজ করাচ্ছেন।’

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সাকিব আল রাব্বি বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে। কোথাও কোথাও কিছু অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। আমরা সেগুলোর প্রতিকার করছি।’

কেএস/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

বায়ুদূষণে আজ ঢাকা দ্বিতীয়

Published

on

বায়ুদূষণে

বায়ুদূষণের কারণে বিশ্বে দূষিত শহরের তালিকায় আজ দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ঢাকা।

মঙ্গলবার (২১ মে) সকালে বায়ু মানের সূচক (একিউআই) অনুযায়ী ঢাকায় বাতাসের মান ছিল ১৭৩। বায়ুর মান বিচারে এ মাত্রাকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়।

ভারতের দিল্লি, ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা এবং ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোর কিনশাসা যথাক্রমে ২৫৫, ১৬৭ ও ১৬৩ একিউআই স্কোর নিয়ে তালিকার প্রথম, তৃতীয় ও চতুর্থ স্থান দখল করেছে।

ঢাকায় বায়ু দূষণের জন্য ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলোকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। বায়ুদূষণের ফলে বাড়ছে শ্বাসকষ্ট, কাশি, নিম্ন শ্বাসনালির সংক্রমণ এবং বিষণ্ণতার ঝুঁকি।

বায়ু বিশেষজ্ঞরা বলেন, শূন্য থেকে ৫০ পর্যন্ত ‘ভালো’। ৫১ থেকে ১০০ ‘মোটামুটি’, ১০১ থেকে ১৫০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে ‘সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’ বলে ধরা হয়। ১৫১ থেকে ২০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে মনে করা হয়। ২০১ থেকে ৩০০ একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ এবং ৩০১ থেকে ৪০০ একিউআই স্কোরকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে থাকে।

Advertisement

কেএস/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত