Connect with us

রাজশাহী

অগ্রণী ব্যাংকের ভল্ট থেকে ১০ কোটি টাকা উধাও, গ্রেপ্তার ৩

Avatar of author

Published

on

পাবনার সাঁথিয়ায় অগ্রণী ব্যাংক কাশিনাথপুর শাখার ভল্ট থেকে ১০ কোটি ১৩ লাখ ৬২ হাজার ৩৭৮ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই ব্যাংকের প্রধান তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে অগ্রণী ব্যাংক কাশিনাথপুর শাখা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। দিনভর নানা তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতে তাদেরকে সাঁথিয়া থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সাঁথিয়া উপজেলার কাশিনাথপুর এলাকার মৃত জান বক্সের ছেলে ও অগ্রণী ব্যাংক কাশিনাথপুর শাখার প্রিন্সিপাল অফিসার আবু জাফর, সুজানগর দুর্গাপুর গ্রামের বাসিন্দা ও ব্যাংকের ব্যবস্থাপক হারুন বিন সালাম এবং বেড়া উপজেলার নতুন ভারেঙ্গা গ্রামের মৃত শুশীল চক্রবতীর্র ছেলে ব্যাংকের ক্যাশিয়ার সুব্রত চক্রবতী। ক্যাশিয়ার সুব্রত চক্রবর্তী টাকা আত্মসাতের কথা স্বীকার করেছেন।

সাঁথিয়া থানা ও অগ্রণী ব্যাংক সূত্রের বরাতে গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে অগ্রণী ব্যাংক রাজশাহী বিভাগীয় ও পাবনা আঞ্চলিক শাখা থেকে পাঁচজন কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে আকস্মিক অগ্রণী ব্যাংক কাশিনাথপুর শাখায় অডিটে আসেন। অডিট শেষে সেখানে ১০ কোটি ১৩ লাখ ৬২ হাজার ৩৭৮ টাকার আর্থিক অনিয়ম দেখতে পান। পরে ওই অডিট কর্মকর্তারা সাঁথিয়া থানায় অবহিত করলে পুলিশ অভিযুক্ত ওই তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় অগ্রণী ব্যাংক পাবনা আঞ্চলিক শাখার উপমহাব্যবস্থাপক রেজাউল শরীফ বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাঁথিয়া থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ব্যাংকের তিন কর্মকর্তাকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অর্থ আত্মসাৎ ও অন্যান্য বিষয়ে দুদক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

Advertisement

জিএমএম/

Advertisement

জাতীয়

‘ভোটাররা কেন্দ্রে কেন আসেন না, তা প্রার্থীদেরই দেখতে হবে’

Published

on

ভোটাররা কেন্দ্রে কেন আসেন না, সেটি প্রার্থীদেরই দেখতে হবে। ভোটাররা নির্বিঘ্নে যাতে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারেন, সেদিকে লক্ষ্য রাখেতে হবে। এ জন্য প্রার্থীদের নিজেদের মধ্যকার কোন্দল বাদ দিয়ে ভোটারদের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) রাশেদা সুলতানা।

শুক্রবার (২৪ মে) দুপুর ১২টার দিকে বগুড়া জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন রাশেদা সুলতানা।

এর আগে সভায় বগুড়ার তৃতীয় ও চতুর্থ দফা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেয়া প্রার্থীরা উপস্থিত হয়ে নিজেদের বিভিন্ন সমস্যার কথা জানান।

এ সময় ইসি রাশেদা বলেন, প্রার্থীরা বলেছেন, ভোটাররা আতঙ্কিত। তারা কেন্দ্রে আসেন না। এ জন্য প্রার্থীরা এমন কিছু করবেন না, যাতে ভোটাররা আতঙ্কিত হন।

প্রার্থীদের প্রতি রাশেদা সুলতানার পরামর্শ, ‘আপনারা নিজেদের মধ্যে কোন্দল আর কাদা ছোঁড়াছুড়ি না করে ভোটারদের কাছে যান, ভোট চান। কারণ আপনাদের মূল লক্ষ্য হবে প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করা।

Advertisement

মতবিনিময় সভায় আরও বলা হয়, নতুন নিয়ম অনুযায়ী প্রার্থীরা এখন ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচার করতে পারবেন। তবে কারও চরিত্র হনন হয়, এমন কথা প্রচার করা যাবে না। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে কোনো কথা বলা যাবে না। ডিজিটাল মাধ্যমে কী কী প্রচার করবেন, তা রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে আগে জানাতে হবে।

এএম/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

রাজশাহী

দুই বছর ধরে জমানো টাকা না পেয়ে আত্মহত্যাচেষ্টা পারুলের

Published

on

পোস্ট অফিসে অনেক কষ্ট করে দুই বছর ধরে জমানো টাকা না পেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন এক নারী। তানোর পোস্ট অফিসে প্রায় দেড় কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এরমধ্যে দুই লাখ টাকা ওই নারীর। ওই টাকা না পেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি। গেলো বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাজশাহীর তানোর পোস্ট অফিসে এ ঘটনা ঘটে।

ওই নারীর নাম পারুল বেগম। তিনি তানোর উপজেলার গোকুল গ্রামের মৃত এনামুল হাসান রনির স্ত্রী।

পারুল বেগম গণমাধ্যমে বলেন, প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর হলো অনেক কষ্টে দুই লাখ টাকা জমা করেছি। এখন টাকা পাচ্ছি না। আমার স্বামী ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এতিম বাচ্চা নিয়ে আমি অসহায়।

তিনি আরও বলেন, জমানো টাকা নভেম্বরে পাওয়ার কথা। অথচ ছয় মাস ধরে ঘুরছি। তারা আজ না কাল বলে ঘোরাচ্ছে। আমি এখন কী করবো? মরা ছাড়াতো আমার কোনো পথ নেই। এরাতো আমার টাকা দিচ্ছি না।’

তানোর পোস্ট অফিস সূত্রে জানা গেছে, তানোর পোস্ট অফিসে পারুল বেগমসহ আরও ৩০০ গ্রাহকের টাকা আত্মসাৎ করেছেন তৎকালীন পোস্টমাস্টার মকছেদ আলী। গত ১৭ মার্চ রাজশাহীর ডাক বিভাগের কর্মকর্তারা তদন্তে এসে টাকা গায়েবের প্রাথমিক সত্যতা পান। এ ঘটনায় পোস্টমাস্টার মকছেদ আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। রাজশাহীর ডাক বিভাগের পরিদর্শক মজিবুর রহমান বাদী হয়ে মকছেদ আলীকে অভিযুক্ত করে তানোর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। পরে দুদকে মামলা করা হয়।

Advertisement

এ বিষয়ে তানোর পোস্ট অফিসের পোস্টমাস্টার আবদুল মালেক গণমাধ্যমে বলেন, দেড় কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনা ঘটেছে। এ পোস্ট অফিসের গ্রাহক ৩০০ জন। তাদের মধ্যে কতজনের টাকা আত্মসাৎ হয়েছে, সেটি তদন্তের বিষয়।

তিনি আরও বলেন, পোস্ট অফিসে পারুল নামের এক নারী আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। তাকেসহ কয়েকজন ভুক্তভোগীকে রাজশাহী বিভাগীয় পোস্ট অফিসে নিয়ে আসা হয়েছিল। তাদের সঙ্গে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা কথা বলেছেন। তারা টাকা পাবেন তবে সময় লাগবে।

তিনি আরও বলেন, ভুক্তভোগীদের টাকার বিষয়ে তারা কাজ করছেন। বিষয়টি নিয়ে তারা দুদকে চিঠি দিয়েছেন। দুদক তদন্তে নামলে সব বেরিয়ে আসবে। সাময়িক বরখাস্তকৃত তানোর ডিজিটাল পোস্ট অফিসের পোস্টমাস্টার মকছেদ আলী পলাতক বলেও জানান ওসি।

এএম/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

রাজশাহী

রিকশা চালক বেশে মাদক অস্ত্রের ব্যবসা, অবশেষে গ্রেপ্তার

Published

on

রিকশা

রাজশাহীর চারঘাটে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও ফেন্সিডিলসহ এক মাদক কারবারীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৫ (র‌্যাব) এর একটি দল।

বুধবার (২২ মে) দিবাগত রাতে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার রাওথা (ঘোষপাড়া) এলাকায় এ অভিযান চালায় র‌্যাব। এসময় দুটি ওয়ান শুচারগান ও ১০২ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার হয়েছে।

গ্রেপ্তার মাদক কারবারীর নাম রফিকুল ইসলাম (৪২)। তিনি রাজশাহী নগরীর কাজলা এলাকার মৃত মজিবুর রহমানের ছেলে। মূলত রিকশা চালকের বেশে তিনি অস্ত্র ও মাদকের কারবার করতো বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) র‌্যাবের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, র‌্যাব গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে চারঘাট রাওথা (ঘোষপাড়া) গ্রামের এক আম বাগানে কিছু মাদক কারবারী ফেন্সিডিল ও অস্ত্র নিয়ে বিক্রির জন্য অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের দল বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে সেখানে অভিযানর চালিয়ে রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে। পরে তার কাছে তল্লাশী চালিয়ে দু’টি ওয়ান শুটারগান ও ১০২ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার হয়।

র‌্যাব জানায় গ্রেপ্তার রফিকুল ইসলাম একজন চিহ্নিত মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ী। তিনি পেশায় একজন রিকশা চালক। তিনি রিকশা চালানোর পাশা পাশি দীর্ঘদিন ধরে আগ্নেয়াস্ত্র, ফেন্সিডিল, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক আমদানি করে বিক্রি করতো। তিনি নিজেও হেরোইন ও ইয়াবা সেবন করত।

Advertisement

গ্রেপ্তার রফিকুল ইসলামেকে চারঘাট থানায় সোপর্দ করে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কেএস/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত