Connect with us

ঢাকা

দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি না দেয়ায় স্ত্রীকে পেটানোর অভিযোগ

Avatar of author

Published

on

মানিকগঞ্জ প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের (পিটিআই) ইনস্ট্রাক্টর রবিউল আওয়ালের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি না দেয়ায়  শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ করেছেন তাঁর স্ত্রী পাপিয়া আক্তার।

বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুরে মানিকগঞ্জ প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে পরকীয়ার কারণে সংসার ভাঙার অভিযোগ এনে এসব কথা বলেন পাপিয়া আক্তার।

লিখিত বক্তব্যে পাপিয়া জানান, স্বামী ও কন্যা নিয়ে বেশ ভালোই চলছিল তার সংসার। তাঁর স্বামী ফেনী থাকাকালীন, ফুলগাজী পশ্চিম বসন্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা আসলিমা আক্তার এর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়ায়। ২০২০ সালে ওই শিক্ষিকার সঙ্গে কেলেঙ্কারির ঘটনায় ফেনী থেকে চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায় রবিউল আউয়ালকে বদলিও করা হয়। পটিয়াতে যাওয়ার পরও ওই নারীর সঙ্গে তিনি সম্পর্ক চালিয়ে যায়। স্বামীকে সংশোধনের চেষ্টা করেন স্ত্রী। স্বামীকে পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় শুরু হয় তার ওপর নির্যাতন।

তিনি বলেন, স্বামীর অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর বিষয়টি তদন্ত করে ওই নারীর কাছ থেকে একটি মুচলেকা নেওয়া হয়, যাতে তারা আর কোনো সম্পর্কে না জড়ান। এরপর ২০২৩ সালের জুলাই মাসে তার স্বামীকে মানিকগঞ্জ পিটিআইতে বদলি করা হয়। মানিকগঞ্জ আসার পর থেকে স্বামী তার ওপর নির্যাতনের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দেন। এর মধ্যে তার স্বামী তাকে ২০২৩ সালে নভেম্বর মাসে তালাক দেন। এ ঘটনায় তিনি মানিকগঞ্জ সদর থানায় নারী নির্যাতনের অভিযোগ দেন। পরে পুলিশের মধ্যস্থতায় তাদের পুনরায় বিয়ে হয়।

পাপিয়া আরও জানান, এখন দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি না দিলে তার চাকরি চলে যাবে। এর জন্য তিনি আগের তারিখ দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি চাচ্ছেন। দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি না দেওয়াতে তার এবং একমাত্র মেয়ের ভরণপোষণও দিচ্ছেন না।

Advertisement

অভিযোগের বিষয়ে রবিউল বলেন, পাপিয়া আক্তার এখন তাঁর স্ত্রী নয়। সে অবাধ্য হওয়ার কারণে গত মাসে তাকে তালাক দেয়া হয়েছে।

তাই এখন আর দ্বিতীয় বিয়ের প্রয়োজন নেই। পাপিয়া একজন সন্দেহপ্রবণ নারী। তিনি অফিসে এসে রবিউলের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন। এ ধরনের মানুষের সঙ্গে আর যাই হোক সংসার করা যায় না।

আই/এ

Advertisement

ঢাকা

ফের মেট্রোরেলের পিলারে ট্রাকের ধাক্কা

Published

on

মেট্রোরেল

রাজধানী ঢাকার আগারগাঁওয়ে একটি ড্রাম্প ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মেট্রোরেলের পি-৩৬৪ নম্বর পিলারে আঘাত করেছে। বাস ও মাটি ভর্তি ড্রাম্প ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (২৫ মে) দিবাগত রাত সাড়ে ৩টায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাফরুল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনির হোসেন।

তিনি বলেন, গতকাল দিবাগত রাতে আগারগাঁওয়ে বাস ও একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পরে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মেট্রোরেলের একটি পিলারে ধাক্কা দেয়। ঘটনার পর পরই ট্রাকচালক ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় বাস চালক ও হেল্পার আহত হয়েছেন। তারা বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গেলো ৯ এপ্রিল দুপুর ২টার দিকে আগারগাঁও বিমান যাদুঘরের সামনে দুই বাসের রেষারেষিতে সেফটি পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মেট্রোরেলের ৭৪ নং পিলারে সজোরে ধাক্কা দেয়। এ দুর্ঘটনায় বাসের ১০ জন যাত্রী আহত হন। ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই বাস থেকে নেমে পালিয়ে যান চালক ও হেলপার।

কেএস/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজনের মৃত্যু

Published

on

দুর্ঘটনা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পৌলী এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় একটি কাভার্ডভ্যানের চালক ও হেলপারের মৃত্যু হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

শনিবার (২৫ মে) সকালে কালিহাতী উপজেলার পৌলী এলাকায় ব্রিজের দক্ষিণ পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ওসি মীর মোহাম্মদ সাজেদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকা-উত্তরবঙ্গ মহাসড়কের পৌলী ব্রিজের দক্ষিণ পাশে ঢাকাগামী একটি কাভার্ডভ্যান একটি লরির পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে কাভার্ডভানের সামনের অংশটি দুমড়ে মুচড়ে যায় এবং ঘটনাস্থলেই কাভার্ডভ্যানের চালক ও হেলপার নিহত হন। দুর্ঘটনার ফলে ঢাকাগামী লেনে কিছুটা যানজট হলে তাৎক্ষণিক সেটি স্বাভাবিক করেন পুলিশ।

কেএস/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

কনে দেখা নিয়ে মারামারি, একাই বাড়ি ফিরলেন বর

Published

on

কনে,-বৌ

বিয়ে বাড়িতে বউ দেখা নিয়ে বর ও কনেপক্ষের লোকজনের মধ্যে বিরোধের জেরে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুই পক্ষের অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। এরপর বউ রেখে একাই বাড়ি ফিরলেন বর।

শুক্রবার (২৪ মে) ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের মধ্য কাইচাইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, উপজেলার চর যশোরদী ইউনিয়নের নাগারদিয়া গ্রামের মিরান তালুকদারের ছেলে শাহ আলমের সঙ্গে গত দুই মাস আগে একই উপজেলার মধ্য কাইচাইল গ্রামের পান্নু মিয়ার মেয়ে বৃষ্টি আক্তারের বিয়ে সম্পন্ন হয়। শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ের আয়োজন করা হয়। বর পক্ষের আত্নীয়স্বজন কনে দেখা নিয়ে কনে পক্ষের সঙ্গে কথা-কাটাকাটিতে জড়িয়ে পরে। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৫ জনের মতো আহত হয়েছে। পরে কনে বৃষ্টি আক্তারকে রেখেই বরযাত্রীসহ ফিরে যান বর শাহ আলম।

নগরকান্দা থানার ওসি মোহাম্মদ আমিনুর রহমান বলেন, বিয়ে বাড়িতে কনে দেখা নিয়ে দুই পক্ষের আত্মীয়স্বজনের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ করেননি, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত