Connect with us

ফুটবল

ব্রাজিলিয়ান ‘বাঘ’কে নিয়ে জাভির অবহেলা

Avatar of author

Published

on

গেল বছর অনেক হাঁকডাক দিয়ে ৩০ মিলিয়ন ইউরোতে ব্রাজিলিয়ান বাঘ হিসেবে পরিচিত ফরোয়ার্ড, ভিটর রককে দলে ভেড়ায় বার্সেলোনা।  পরিকল্পনা ছিলো অ্যাথলেটিকো প্যারানেইন্স থেকে ২০২৪ এর জুলাইয়ে বার্সায় যোগ দেবেন তিনি।  কিন্তু গাভি চোটে থাকায় ছয় মাস আগেই বার্সা তাঁদের ডেরায় নিয়ে আসে ১৯ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকারকে।

কিন্তু স্প্যানিশ ক্লাবটিতে যোগ দিয়েই যেন মুদ্রার উলটো পিঠ দেখতে হচ্ছে এই তরুণ ব্রাজিলিয়ানকে।  এই ছয় মাসে মাত্র ১৩ ম্যাচে রককে মাঠে নামিয়েছেন বার্সা কোচ জাভি হারনান্দেজ।  এই ১৩ ম্যাচের মধ্যে মাত্র দুই ম্যাচে শুরু থেকে ছিলেন।  সব মিলিয়ে খেলতে পেরেছেন মাত্র ৩১০ মিনিট।  এই টুকু সময়ের মধ্যে দুই গোলও করেছেন রক।  রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে কিংবা চ্যাম্পিয়নস লিগের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তাঁকে খেলাননি জাভি।

এর মধ্যেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে রকের উপর আস্থা রাখতে পারছেন না জাভি। তাকে অন্য ক্লাবে লোনে পাঠাতে চাইছে বার্সেলোনা।

এদিকে ভিটর রককে খেলাতে না দেওয়া এবং অন্য ক্লাবে লোনে পাঠানো নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা করেছেন রকের এজেন্ট আন্দ্রে কিউরি।  কাতালান রেডিও RAC1 এর সাথে কথা বলার সময়, কিউরি জানিয়েছেন রকের সাথে বার্সা কোচ জাভি ঠিক মতো কথাও বলেন না।  বার্সেলোনার কিছু সংবাদপত্র রকের পারফর্ম নিয়ে সমালোচনা করেছে।  এ প্রসঙ্গে কিউরি ভিনিসিয়াসের উদাহরণ টেনেছেন।  রিয়াল মাদ্রিদে ভিনিসিয়াস প্রথম দুই মৌসুম ঠিক মতো পারফর্ম করতে না পারলেও ধীরে ধীরে হয়ে উঠেছেন রিয়ালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়।

কিউরি আরও জানিয়েছেন বার্সার থেকেও বেশি অর্থে রকের জায়গায় যাওয়ার সুযোগ ছিলো। তবে এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের স্বপ্ন ছিলো বার্সেলোনায় খেলা।  কিন্তু জাভি তার মন ভেঙ্গে দিয়েছে। এমন অবস্থায় রককে যদি বার্সেলোনা লোনে পাঠায় তাহলে সেটি তার ভবিষ্যতের জন্য আরও বিপজ্জনক হবে।  কারণ অন্য দল তাকে নিজেদের মনে করবে না এবং তার ঠিক মতো যত্নও হবে না।

Advertisement

এমন অবস্থায় রকের ভবিষ্যৎ নিয়ে  কিউরি বলেছেন সবচেয়ে ভালো হয় রক বার্সায় থাকুক এবং তাকে নিয়মিত খেলার সময় দেওয়া হোক।  আর বার্সা তা না করে যদি রককে লোনে অন্য ক্লাবে পাঠাতে চায় তাহলে স্থায়ী ভাবে রককে বার্সা থেকে সরিয়ে নেওয়া হবে।

 

 

Advertisement

ফুটবল

এসি মিলানের কোচ হলেন পাওলো ফনসেকা

Published

on

ইতালির সিরিআ ক্লাব এসি মিলান ৩ বছরের চুক্তিতে পাওলো ফনসেকাকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। ক্লাবের একটি অফিশিয়াল বিবৃতি থেকে এটি নিশ্চিত হওয়া গেছে। সাবেক ম্যানেজার স্টাফানো পিওল্লির স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন তিনি। সিরিআ’তে ২০২৩-২৪ মৌসুমে দ্বিতীয় অবস্থানে থেকে লিগ শেষ করে এসি মিলান।

ঘরোয়া লিগে বাজে পারফরম্যান্স, উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে আশানুরূপ ফলাফল না করা- যার কারণে নতুন কোনো পরিকল্পনা ভাবছিল এসি মিলান। ফলে ফনসেকাকে নিয়োগ দিয়েছে তারা। এই পর্তুগিজ কোচ ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে ওএসসি লিলের ম্যানেজার ছিলেন। ২০২৩-২৪ মৌসুমে এই ক্লাবকে চতুর্থ স্থানে রাখার সক্ষমতা দেখান তিনি।

এসি মিলান তাদের বিবৃতিতে লিখেছে, ‘এসি মিলান পাওলো ফনসেকাকে পুরুষদের প্রথম দলে প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ দিচ্ছে। এই পর্তুগিজ কোচ এখন ৩ বছরের চুক্তিতে এসি মিলানে যুক্ত হচ্ছেন। ক্লাব ও এর কর্মকর্তারা তাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা দিতে প্রস্তুত আছে।‘

এসি মিলানের হয়ে ফনসেকা কেমন করে, সেটাই এখন দেখার বিষয়। ক্লাবের সাথে নিজেকে মানিয়ে নেওয়া একটা বিষয় থাকবে এই পর্তুগিজ কোচের। ফ্রেঞ্চ লিগ থেকে এসে সিরিআতে আসছেন তিনি, তাই নিয়েই উঠছে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপার।

 

Advertisement

এম/এইচ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ফুটবল

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়েই থাকছেন টেন হাগ

Published

on

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ম্যানেজার হিসেবে এরিক টেন হাগ থাকছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। ক্লাবটি টেন হাগের সাথে চুক্তি বাড়ানোর জন্য আলাপ-আলোচনা শুরু করেছে। পরের মৌসুমে যে দলের সাথে থাকছেন তিনি, সেটা এখন পর্যন্ত ঠিকঠাক হয়েছে।

প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমে ৮ নম্বরে অবস্থান করে লিগ শেষ করেছে ইউনাইটেড। আশাব্যঞ্জক কিছুই হয়নি। ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে কেবল এফএ কাপের ফাইনাল ম্যাচটি জিতে সাফল্য দেখিয়েছে তারা। এর বাইরে আর কোনো তৃপ্তি নেই তাদের।

টেন হাগকে নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছিল। এমন মৌসুম কাটানোর পর সাধারণত যেকোনো কোচ নিয়েই কথা ওঠে। বিভিন্ন প্রতিবেদনের মাধ্যমে দেখা যাচ্ছিল, হাগের সাথে আর নতুন কোনো চুক্তিতে যাবে না ইউনাইটেড।

তবে সব আলোচনা উড়ে গেল মুহূর্তে। ৫৪ বছর বয়সী নেদারল্যান্ডস কোচ আরও এক মৌসুম থাকছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে। তার সাথে চুক্তি বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যাবে ক্লাবটি, এমনটিও জানা যায়।

 

Advertisement

এম/এইচ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

খেলাধুলা

সাব্কে ফুটবলার ডেভিড বেকহ্যাম এখন ‘বাগানের মালি’

Published

on

শেষ কবে ফুটবলে পা ঠেকিয়েছেন তা হয়তো অনেকের পক্ষেই বলা মুশকিল। তবে শিরোনামে থাকতে কষ্ট করতে হয় না ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ডেভিড বেকহ্যামকে।  কখনও ছেলে, কখনও বিখ্যাত ফ্যাশনডিজাইনার ও গায়িকা বউ বা নিজের চোখ ধাঁধানো ফ্যাশনের বদৌলতে সবসময় মিডিয়ায় আলোচনায় থাকেন মার্কিন ক্লাব ইন্টার মিয়ামির এই মালিক। এবার বেকহ্যাম শিরোনাম হলেন `গোলাপ বাগানের মালি’ হয়ে।

ফুটবল ভালোবাসে তবে ডেভিড বেকহ্যামকে চেনেন না এমন সমর্থক পাওয়া মুশকিল। ক্যারিয়ারের প্রথম থেকেই তার খেলায় মুগ্ধ সকলে। অবিশ্বাস্য সব ফ্রি-কিকে ফুটবল দুনিয়ায় মন মাতাতেন তিনি।এবারও দর্শকদের মন মাতালেন। তবে ফুটবল মাঠে নয়, গোলাপ বাগানে কাজ করে। গোলাপ বাগানে কাজ করার একটি ভিডিও চিত্র নিজের ইনষ্টাগ্র্যামে পোষ্ট করেই নেট দুনিয়ায় রীতিমতো  ভাইরাল তিনি।

অনেকের কাছে বেকহ্যাম সর্বকালের সবচেয়ে সুদর্শন ফুটবলার। আবার মেসি – রোনালদো কিংবা কাকাদের আগে সবচেয়ে বড় ব্র্যান্ডও ছিলেন তিনি। এখনো বেকহ্যাম নিজেই একটা ব্র্যান্ড । এবার ‘মালি দেব’ রূপে নতুন ব্রান্ড অ্যাম্বাডেসর হিসেবে আবির্ভুত হলেন ডেভিড বেকহ্যাম।

স্ত্রী ভিক্টোরিয়ার উৎসাহে ৪৯ বছর বয়সী সাবেক এই ফুটবলার গত শনিবার ‘কুইন অব সুইডেন’ নামক গোলাপের চারা রোপনের একটি ভিডিও চিত্র শেয়ার করেন। এসময় বেকহ্যাম যেখানে ভুল করছিলেন, স্টার স্পোর্টসম্যানের অনুরাগীরা তার ওই ভুল শুধরে দিচ্ছিলেন এবং পরের দিন আরেকটি গোলাপের চারা রোপনের ভিডিও শেয়ার করতে অনুরোধ করেন। ভক্ত অনুরাগীদের পরামর্শের জন্য বেকহ্যাম ধন্যবাদ জানান।

গোলাপের চারা রোপনের সময় স্ত্রী ভিক্টোরিয়াকে বলতে শোনা যায়, ‘বেকহ্যাম বাগান করার জায়গাটি পছন্দ করেছেন’। বেকহ্যাম এসময় ভিক্টোরিয়াকে প্রশ্ন করেন-‘তুমি কী মনে করো গর্তটি এটি যথেষ্ট গভীর হয়েছে। জবাবে ভিক্টোরিয়া বলেন-দেখ, আমি বলতে চাচ্ছি সত্যিকার অর্থে তোমার জিজ্ঞাসা করার মতো আমি কেউ নই। চেষ্টা করে দেখো।’

Advertisement

ডেভিড বেকহ্যামের এই ভিডিওগুলো নেট দুনিয়ায় দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে।  শুধু লাইকই পড়েছে এক মিলিয়নের বেশি।ভিক্কিকরণ নামে এক নেটিজেন লিখেছেন- সোশ্যাল মিডিয়াতে ‘ডেভিড বেকহ্যাম বাগান’ কন্টেন্টটি আমার কাছে খুবই প্রিয় হয়ে উঠেছে।  বিশ্বকে একটি ভাল জায়গা হিসেবে গড়ে তোলা এবং ইতিবাচক হয়ে এধরণের ভিডিও শেয়ার করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।’ জনি ফরেষ্ট নামে আরেকজন লিখেছেন, ডেভিড বেকহ্যাম গার্ডেনিং শো দুর্দান্ত হিট হবে।

শুধু তাই নয়, নেটিজনদের অনেকে বিবিসি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছেন তারা যেনো ডেভিড বেকহ্যামস গার্ডেনিং বা  ‘ডেভেড বেকহ্যামের বাগান পরিচর্যা’ নামে একটি টিভি শো চালু করে। নেটিজেনরা মনে করছেন, ডেভিড বেকহ্যামের ভিডিওটি একটি টিভি সিরিজের টিজারের মতো  যেখানে কেউ জানতো না এটি তাদের প্রয়োজন হতে পারে। এর মাধ্যমে ডেভিড বেকহ্যাম বাগানের প্রভাবক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। আমরা কখনও জানতাম না যে এতে আমাদের প্রয়োজন রয়েছে।’

এমআর//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত