Connect with us

ফুটবল

গোল বাতিল নিয়ে ক্ষোভ ঝাড়লেন মুলার

Avatar of author

Published

on

মাদ্রিদে এটা প্রায়ই হয়। মন্তব্য করেছেন টমাস মুলার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে মুখোমুখি হয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ ও বায়ার্ন মিউনিখ। এক বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল বুধবার রাতের ম্যাচে। যা নিয়ে ক্ষোভ ঝেড়েছেন মিউনিখ তারকা।

এমন টানটান উত্তেজনার ম্যাচে কোনো সিদ্ধান্ত দলের অনুকূলে না হলে, তা হজম করা শক্ত। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এক দারুণ ম্যাচ হয়ে গেল।  যেখানে ২-১ গোলে হেরে যায় বায়ার্ন। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ গোলের ব্যবধান তৈরি হয়।

ম্যাচের যোগ করা সময়ের ১৩ মিনিটের এক ঘটনা। যেখানে মুলারের হেড থেকে করা এক পাসে ম্যাথিয়াস ডি লিট গোল করে বসেন। মূলত জশুয়া কিমিখের এক বাড়ানো শটে মুলার ও ডি লিট দুজনেই দৌড়ে যান। এক মুহূর্তে লাইন্সম্যান পতাকা তোলেন, রেফারি বাজান তার বাঁশি। রিয়ালের খেলোয়াড়েরা থেমে যায়, সিদ্ধান্ত হয় অফসাইডের।

ভিআর এর মাধ্যমে দেখার কোনো ব্যবস্থা ছিল না, রেফারি বাঁশি দেওয়ায়। তবে পরে দেখা যায় সিদ্ধান্তটি বেশ আলোচনা করার মতো ছিল। যেখানে অফসাইড হতে পারে বলেও মনে হয়েছে। গোলটি হলে ২-২ সমতায় খেলা অতিরিক্ত মিনিটে গড়াতে পারত। এমন সুযোগ হারাতে কে চায়? তাই মুলার নিজের হতাশা প্রকাশ করেছেন, “রেফারি ভিএআর এর সাহায্য নেয়নি। তিনি এটা দেখার সুযোগও পাননি। এমন পরিস্থিতি খুব অদ্ভুত, এত দ্রুত বাঁশি বাজালেন! অবিশ্বাস্য সিদ্ধান্ত। সাধারণত বাঁশি বাজানোর আগে তিন মিটার দৌড়ানোর সুযোগ দেওয়া হয়। জানি না আসলে কী ঘটেছে।” মুলার আরও বলেছেন, “দুঃখজনকভাবে মাদ্রিদে এটা প্রায়ই হয়। ২০১৭ সালেও আমাদের সঙ্গে এটা ঘটেছে, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো দুই গোল করেছিল…তবে সেটা ভিএআরের আগে।”

 

এম/এইচ

Advertisement
Advertisement

ফুটবল

কোস্টারিকার হয়ে শেষ বললেন কেইলর নাভাস

Published

on

কোপা আমেরিকার আগেই আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে সরে দাঁড়ালেন কোস্টারিকা গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। এখনো দল ঘোষণা করেনি তারা। তবে নাভাসের এই সিদ্ধান্ত কিছুটা হতাশ করতে পারে কোস্টারিকাকে। আগামী ২০ জুন থেকে শুরু হচ্ছে কোপা আমেরিকা।

কোস্টারিকার হয়ে ১১৪ ম্যাচে অংশ নিয়েছেন নাভাস। তার অভিষেক হয় ২০০৮ সালে। বিশ্বকাপ খেলেছেন ৩ টি। নাভাস ও কোস্টারিকার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময় এসেছিল ২০১৪ বিশ্বকাপে। সেবার কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল দলটি।

আর্জেন্টিনার বিপক্ষে একতি ফ্রেন্ডলি ম্যাচে সর্বশেষ কোস্টারিকার হয়ে মাঠে নেমেছিলেন নাভাস। এই ফুটবলার বলেন, “জীবনের এই অধ্যায়ের শেষ দিকে এসেছি, আমি কৃতজ্ঞতা ভরা হৃদয় নিয়ে ছেড়ে যাচ্ছি। আমার চোখ এখন সামনের দিকে, আমার প্রিয় কোস্টারিকার নাম আমি সবসময় বহন করে যাব।“

প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) এর হয়ে ২০১৯ সাল থেকে খেলছেন নাভাস। গত বছর লোনে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব নটিংহ্যাম ফরেস্টের হয়ে খেলেছেন। এই গোলরক্ষক পিএসজির হয়ে ৩ টি লিগ-ওয়ান জিতেছেন। এর আগে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলেছেন নাভাস, যেখানে ৩ টি চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছেন তিনি।

 

Advertisement

এম/এইচ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ফুটবল

জাভিকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা

Published

on

অবশেষে জাভি হার্নান্দেজ বরখাস্ত হলেন। নানা গুঞ্জন ছিল তাকে নিয়ে। বার্সেলোনায় টিকে থাকবেন কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে নানাভাবে। একবার চাকরি ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। এরপর বার্সা সভাপতি হুয়ান লাপোর্তার অনুরোধে আবার ফিরেও আসেন। তবে এবার জাভিকে বরখাস্ত করলো বার্সা কর্তৃপক্ষ। শোনা যাচ্ছে নতুন দায়িত্বে জার্মান কোচ হ্যান্সি ফ্লিককে দায়িত্ব দিতে পারে স্প্যানিশ ক্লাবটি।

নাটকীয়তা চলছিল বেশ। সরিয়ে দেওয়া হবে জাভিকে এমন আলোচনা ও খবর ভেসে বেড়াচ্ছে বেশ কয়েকদিন থেকেই। শেষমেশ আজ (শুক্রবার) বার্সা থেকে এক বিবৃতি দেওয়া হয়। যেখানে একটি সভা ও আলোচনা শেষে বার্সেলোনা ও জাভির মধ্যে নেওয়া সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

আগামী রবিবার সেভিয়ার বিপক্ষে লিগের শেষ ম্যাচ খেলবে বার্সেলোনা। সেখানে ডাগ-আউটে সাবেক ক্লাবের হয়ে শেষবারের মতো দেখা যাবে জাভিকে। এই ফুটবলার দীর্ঘ ১৭ বছর খেলেছেন বার্সার হয়ে। তিনি স্প্যানিশ এই ক্লাবের দায়িত্ব গ্রহণ করেন ২০২১ সালে। চলতি মৌসুমে বার্সা বেশ হতাশ করেছে জাভির অধীনে।

Advertisement

ডাগআউটে জাভি ছিলেন, এমন ১৪১ টি ম্যাচ খেলেছে বার্সেলোনা। যার মধ্যে জয় এসেছে ৮৯ টি ম্যাচে।

 

এম/এইচ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ফুটবল

ফিফার শাস্তি নিয়ে বিবৃতি দিলেন সালাম মুর্শেদী

Published

on

দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সিনিয়র সহ সভাপতি ও ফাইনান্স কমিটির চেয়ারম্যান সালাম মুর্শেদী সহ ৫ জনকে শাস্তির আওতায় এনেছে আন্তর্জাতিক ফুটবল ফেডারেশন (ফিফা)। এই প্রেক্ষিতে আজ (শুক্রবার) এক বিবৃতি দিয়েছেন সালাম। যেখানে বাফুফের প্যাডে তার স্বাক্ষর করা ছিল।

বুধবার (২৩ মে) এক বিবৃতি প্রকাশ করে ফিফা। যেখানে সালামের বিষয়ে শাস্তির বিষয়টি নিশ্চিত হয়, যেখানে তাকে ১০ হাজার সুইস ফ্রাঁ জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও বাফুফের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ ২ বছর নিষিদ্ধ ছিলেন, যা বাড়িয়ে ৩ বছর করা হয়েছে। তাকে ২০ হাজার ফ্রা জরিমানাও করা হয়েছে। এছাড়াও আরো ৩ কর্মকর্তার জন্য শাস্তি আরোপ করা হয়েছে।

সালাম আজ তার বিবৃতিতে জানিয়েছেন, “ক্রয় প্রক্রিয়ায় ৪ জন স্বাক্ষরকারীর মধ্যে দুইজনকে ইতোমধ্যেই নিষিদ্ধ করেছে ফিফা। সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিনের সরাসরি জড়িত না থাকায় তাকে খারিজ করা হয়েছে। তবে আমি যেহেতু ফাইনান্স কমিটির চেয়ারম্যান সে কারণেই আমাকে গুনতে হচ্ছে (নূন্যতম সুইস ফ্রাঁ ১০,০০০) আর্থিক জরিমানা।“

বাফুফের অনিয়ম নিয়ে ফিফা বেশ অবগত ছিল। তার নিশ্চিত হয়ে অবশেষে রিপোর্ট প্রকাশ করে এবং শাস্তি আরোপ করে। যা ফুটবলের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির বিবৃতিতে জানা যায়।

সালাম আরও জানিয়েছেন, “২০২৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি এথিক্স কমিটির অ্যাডজুডিকেটরি চেম্বার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একটি শুনানির আয়োজন করে। যেখানে আমার বিরুদ্ধে ফিফার অনুচ্ছেদ ১৪, ১৬ ও ২৫ লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়। উক্ত শুনানিতে আমি নিজেই আমার আইনজীবীদের সঙ্গে উল্লিখিত অভিযোগ প্রত্যাহার করার পক্ষে অত্যন্ত বিশ্বাসযোগ্য যুক্তি স্থাপন করি। ফলস্বরূপ ৭ মার্চ ২০২৪ তারিখে ফিফা এথিক্স কমিটির অ্যাডজুডিকেটরি চেম্বার কর্তৃক গৃহীত পরবর্তী সিদ্ধান্তে আমার বিরুদ্ধে আনা তিনটি অভিযোগের মধ্যে দুটি যথাক্রমে খারিজ করে দেয়।“

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত