Connect with us

ঢালিউড

মা দিবসে মেয়ে সন্তানের ভিডিও প্রকাশ করলেন পরীমণি

Avatar of author

Published

on

পরী-মনি

চলতি মাসেই দ্বিতীয়বারের মতো মা হয়েছেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমণি। ছেলে শাহীম মুহাম্মদ পুণ্য’র পরে পরীর সংসার আলো করে এসেছে একটি কন্যা সন্তান। যার নাম রাখা হয়েছে সাফিরা সুলতানা প্রিয়ম।

তবে ব্যক্তিজীবনে বর্তমানে সিঙ্গেল মাদার হিসেবে পরিচিত পরীমণি তার দ্বিতীয় সন্তান দত্তক নিয়েছেন। পরী জানিয়েছেন, তার কন্যার পৃথিবীতে আগমনের ৬ দিন বয়স হয়েছে।

গেল ৯ মেয়ে দ্বিতীয় সন্তান আগমনের খবর জানিয়েছিলেন পরী। রোববার (১২ মে) বিশ্ব মা দিবসে প্রথমবারের মতো মেয়েকে প্রকাশ্যে আনলেন তিনি। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ছেলে পূণ্যর সঙ্গে মেয়ে প্রিয়মের ১১ সেকেন্ডের একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন তিনি। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, বোন প্রিয়মের গালে চুমু দিচ্ছেন পরীর ছেলে পূণ্য।

ভিডিওটি প্রকাশ করে পরীমণি লিখেছেন, হ্যাপি মাদার্স ডে টু মি! আমার জীবনের একান্ত নিজের দুজন মানুষ। আমার বাচ্চারা তোমরা আমার চোখ জুড়ে থাকো। আমার বুক জুড়ে থাকো। আমি তোমাদের অনেক ভালোবাসি।

এর আগে নিজের মা হওয়ার খবর জানিয়ে পরীমণি বলেন, ‘এক অন্যরকম অনুভূতি। ছেলের পরে মেয়ে! কী যে আনন্দ! আগামী ১২ মে হবে সাফিরা সুলতানা প্রিয়মের আকিকা। মা হিসেবে যতটুকু সুন্দর করা যায়, সেভাবেই এটা আমি করব।’

Advertisement

নায়িকার ভাষায়, ‘আমার মেয়ে এলো ঘরে। যার নাম রাখা হয়েছে সাফিরা সুলতানা প্রিয়ম। এই নামেই বিশ্ব চিনবে ওকে। ছেলের পরে মেয়ে! কী যে আনন্দ! পৃথিবীতে আসার ৬ দিন হলো ওর। আমার ঘরে ছেলের পাশে আলো হয়ে আছে। আমি ওকে দত্তক নিয়েছি। নিয়ম মেনে সই করার সময় মনে হলো আল্লাহ আবার আমার জন্য কিছু করলেন।’

পরী বলেন, ‘জীবনে কোনোদিন কিছু নিয়ম অনুযায়ী বা পরিকল্পনা করে করিনি আমি। তাই আল্লাহ আমার জন্য যা যা চেয়েছেন, তাই মাথা পেতে নিয়েছি। ও পরীর মতোই আমার কোলে চলে এলো। কোলে যখন নিই, মনে হয় আমার নাভি কেটেই ও এসেছে।’

 

 

Advertisement
Advertisement

ঢালিউড

সঙ্কটজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রাখি সাওয়ান্ত

Published

on

হৃদরোগ সংক্রান্ত জটিল সমস্যার  কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলিউডের আলোচিত মডেল ও অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্ত। বর্তমানে ভারতের মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে  রাখি সাওয়ান্ত বলেন, ‘আমার হার্টে সমস্যা দেখা দিয়েছে। আমি এখন কথা বলার অবস্থায় নেই। আগামী ৫-৬ দিন আমাকে বিশ্রামে থাকতে হবে।’

তবে রাখি কোন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন কিংবা তাঁর শারীরিক অবস্থা কি তা নিয়ে কোনো তথ্য দেননি। গেল বছর রাখির মা ব্রেন টিউমার ও ক্যানসারে ভুগে মারা যান। এরপর থেকে মানসিকভাবে প্রচণ্ড ভেঙ্গে পড়েন রাখি।

হাতে উল্লেখযোগ্য কোন কাজ না থাকলেও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সব সময় আলোচনায় থাকেন রাখি সাওয়ান্ত।  সম্প্রতি তার প্রাক্তন স্বামীর দায়ের করা মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরওয়ানা জারি করেন আদালত।  ওই সময়ে রাখি দুবাই ছিলেন। সেখান  থেকে মুম্বাই  ফিরতে না ফিরতেই অসুস্থ হয়ে পড়লেন এই বলিউডের এই আইটেম গার্ল।

এমআর//

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

মিশা-ডিপজলের বিরুদ্ধে আদালতে নিপুণ, যা বললেন রিটে

Published

on

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২৪-২৬ মেয়াদের নির্বাচনের ফলাফল বাতিল চেয়ে রিট করেছেন ওই নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে হেরে যাওয়া প্রার্থী চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার। একই সঙ্গে ওই রিটে মিশা-ডিপজলের নেতৃত্বাধীন কমিটির দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৫ মে) বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চে নিপুণের পক্ষে তাঁর আইনজীবী অ্যাডভোকেট পলাশ চন্দ্র রায় এ রিট আবেদন করেন।

নির্বাচনে ভোট কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশনাসহ নতুন করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

আবেদনে সমাজ কল্যাণ সচিব, তথ্য ও সম্প্রচার  সচিব, সংস্কৃতি সচিব, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে বিবাদী করা হয়েছে। বিবাদীর তালিকায় আরো রযেছেন,  ভলান্টারী সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার এজেন্সি,ঢাকার কর্তৃপক্ষ, শিল্পী সমিতি নির্বাচনের আপিল বোর্ড, শিল্পী সমিতির নির্বাচন কমিশন, খল অভিনেতা মিশা সওদাগর ও মনোয়ার হোসেন ডিপজল।

নিপুণের আইনজীবী পলাশ চন্দ্র রায় গণমাধ্যমকে জানান, কিছু অনিয়ম  ও জালিয়াতির অভিযোগ এনে নির্বাচনী আপিল বোর্ডের কাছে আবেদন করেছিলেন নিপুণ আক্তার। কিন্তু তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। তাই তিনি ১৪ মে হাইকোর্টে রিট করেছেন। আবেদনে নির্বাচনের ফলাফল বাতিল, নতুন নির্বাচন, অনিয়মের অনুসন্ধান এবং নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে।

Advertisement

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২৪-২৬ মেয়াদি নির্বাচনে জয়ী হয় মিশা-ডিপজল প্যানেল। চলতি বছরের ২০ এপ্রিল শিল্পী সমিতি নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার খোরশেদ আলম খসরু।

এমআর//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

ঋণ শোধ না করে আউডি গাড়ি কেনা প্রসঙ্গে যা বললেন রাফসান

Published

on

রাফসান

বিলাসবহুল গাড়ি কিনে বাবা-মাকে চমকে দিয়ে সম্প্রতি আলোচনায় এসেছেন দেশের জনপ্রিয় ফুড ব্লগার ও ইউটিউবার ইফতেখার রাফসান ওরফে রাফসান দ্যা ছোটভাই। প্রায় ৪ বছর আগের পরিকল্পনাকে বাস্তবে পরিণত করতে পেরে নিজের ফ্যানবেজকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি। তবে এরপরই শুরু হয় নানা সমালোচনা ও বির্তক। যার প্রতিক্রিয়ায় রাফসান তার অনুসারী ও ভক্তদের পরামর্শ দিলেন বাবা-মায়ের জন্য কিছু করে ফেসবুকে পোস্ট না করতে।

বাবা-মায়ের জন্য আউডি গাড়ি কেনার পর সামনে আসে তার বাবা-মায়ের কোম্পানির নামে নেওয়া ঋণের তথ্য। বাবা-মায়ের সে ঋণ শোধ না দিয়ে বিলাসবহুল গাড়ি কেনায় তাকে নিয়ে শুরু হয় তীব্র সমালোচনা। অবশেষে ঋণের টাকা ফেরত না দেয়া নিয়ে মুখ খুললেন এ ইউটিউবার, দিলেন সমালোচনার জবাব।

রাফসানের দাবি, ঋণের টাকা ও বন্ধকী জমি নিয়ে ব্যাংকের সঙ্গে ঝামেলা চলায় বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। আদালতের সিদ্ধান্ত না পাওয়ায় সেই ঋণ এখনো শোধ করা হয়নি।

রাফসান

সেই সঙ্গে সমালোচকদের গল্পের একপাশ শুনে তাকে মূল্যায়ন করার অধিকার নেই বলেও মন্তব্য করেন। দিয়েছেন আইনি ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেন রাফসান দাবি করেন, উপহার দেয়া গাড়িটি দাম ২ কোটির আশপাশেও না। তবে তিনি বাবা-মায়ের লোন নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেননি ।

রাফসান জানান, ঋণের বিপরীতে বন্ধক দেয়া জমি নিয়ে ব্যাংকের সঙ্গে কিছু ঝামেলা চলছে। তাই তার পরিবার আদালতের দারস্ত হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে আদালত বিষয়টি স্থগিত রেখেছে বলে দাবি এ ইউটিউবারের। আদালতের সিদ্ধান্ত না পাওয়ায় ঋণ শোধ দেয়া যায়নি বলেও দাবি করেন তিনি।

Advertisement

রাফসান আরও দাবি করেন, টাকা মেরে দেয়ার জন্য ঋণ নেয়া হয়নি, ব্যবসা খারাপ চলায় ঋণ শোধ দেয়া যায়নি। তবে আদালত সিদ্ধান্ত দিলে ঋণের টাকা শোধ করে দেয়া হবে বলেও জানান। শেষ পরামর্শ হিসেবে এই ইনফ্‌লুয়েন্সার বলেন, ‘এই দেশে আপনি যদি আপনার বাবা-মায়ের জন্য কিছু করতে চান সেটা পোস্ট দিয়েন না।’

 

এসআই//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত