Connect with us

প্রবাস

প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের সংবর্ধনা

Avatar of author

Published

on

সৌদি আরব প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আবহা খামিজ মোশাইদ আগমন উপলক্ষে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছেন আবহা খামিজ মোশাইদ প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটি।

শুক্রবার (১০মে) স্থানীয় একটি হল রুমে সাংবাদিক রুস্তম খানের সঞ্চালনায় আবহা বাংলা টিভির প্রতিনিধি এম ইব্রাহীম খলীলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সৌদি আরব প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি, সৌদি আরব আর টিভি ব্যারো চীফ মোঃ আবুল বশির।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোহরাব হোসেন লিটন, সেলিম উদ্দিন ,আরিফ হোসেন, এ কে আজাদ, এস এইচ হেমায়েত, মিজানুর রহমান, শিহাব,বাহাদুর হোসাইন,এম এ নোমান,ফরিদ আহমেদ, আব্দুল মুকিম চৌধুরী, সাজ্জাদ হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন,শরিফ হোসেন, মোহাম্মদ ইউনুছ সহ আরো অনেকে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে দেশের অর্থনীতির চাকা সচল হয়। তাই প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা পদবীর পাশাপাশি দেশ স্বাধীনে আত্মনিয়োগ করা মুক্তিযোদ্ধাদের মতো সকল সুযোগ সুবিধা প্রদান সহ মৃত প্রবাসীদের লাশ সরকারি খরচে দেশে স্বজনদের কাছে প্রেরণের জন্য আহবান জানান। এরপরে অতিথিদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস তুলে দেয়া হয়।

এএম/

Advertisement
Advertisement

প্রবাস

আমেরিকা যাওয়ার পথে মেক্সিকো সীমান্তে বাংলাদেশির মৃত্যু

Published

on

মেক্সিকো-সীমান্তে-প্রবাসীর-মৃত্যু

আমেরিকা যাওয়ার পথে মেক্সিকো সীমান্তে অসুস্থ হয়ে দুবাই প্রবাসী রুহুল আমিন (৩৫) নামে এক বাংলাদেশি মারা গেছেন।

রোববার (১২ মে) দুপুরে সোনাইমুড়ী পৌরসভার মেয়র নুরুল হক চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন।

রুহুল আমিনের বাবার নাম হেদায়েত উল্যাহ। তার বাড়িতে মা, এক ভাই, এক বোন, স্ত্রী ও তিন মেয়ে রয়েছে।

সোনাইমুড়ী পৌরসভার মেয়র নুরুল হক চৌধুরী বলেন, দুবাই থেকে আমেরিকা যাওয়ার পথে রুহুল আমিন মেক্সিকো ও আমেরিকার সীমান্তে অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন। সেখানে অবস্থানরত এক আত্মীয় বিষয়টি পরিবারকে জানিয়েছে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রুহুল আমিন দীর্ঘদিন ধরে দুবাইতে ছিলেন। পরে আমেরিকা যাওয়ার স্বপ্নে অনেক টাকা ঋণ করেন। কিন্তু আমেরিকায় প্রবেশের আগেই মেক্সিকো সীমান্তে অসুস্থ হয়ে মারা যান। এখন তার মরদেহ দেশে আনতে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছেন স্বজনরা।

Advertisement

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

প্রবাস

মালয়ে‌শিয়া গমনেচ্ছুদের জন্য জরু‌রি বার্তা

Published

on

মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু কর্মীদের দেশ‌টি‌তে যাওয়ার প্রয়োজনীয় ডকু‌মেন্টসহ প্রস্তুতি গ্রহণের অনুরোধ করেছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হ‌য়ে‌ছে, এতদ্বারা মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু অভিবাসী কর্মীগণকে জানানো যাচ্ছে যে, বর্তমান কোটার আওতায় মালয়েশিয়ান সরকার বাংলাদেশসহ ১৪টি কর্মী প্রেরণকারী দেশ হতে আগামী ৩১ মে ২০২৪ এর মধ্যে মালয়েশিয়ায় প্রবেশের বাধ্যবাধকতা আরোপ করেছে। এমতাবস্থায়, মালয়েশিয়ায় গমনেচ্ছু অভিবাসী কর্মীদেরকে মালয়েশিয়া সরকার কর্তৃক প্রদত্ত E-VISA, জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি)-এর বহির্গমন ছাড়পত্র এবং এয়ারলাইন্সের ভ্রমণ টিকিটসহ যাবতীয় ডকুমেন্টের সঠিকতা যাচাই-বাছাইপূর্বক মালয়েশিয়ায় যাওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণের অনুরোধ করা যাচ্ছে।

জরু‌রি বিজ্ঞপ্তিতে উ‌ল্লেখ করা হয়, সরকার কর্তৃক মালয়েশিয়ার ক্ষেত্রে নির্ধারিত সর্বোচ্চ অভিবাসন ব্যয় ৭৮ হাজার ৯৯০ টাকা। এর অতিরিক্ত অর্থ লেনদেন না করার এবং কোনো উপযুক্ত ডকুমেন্ট/রশিদ বা ব্যাংক হিসাব ব্যতীত অন্য কোনোভাবে উক্ত লেনদেন না করার জন্যও অনুরোধ করা হলো।

পরবর্তীতে মালয়েশিয়ান সরকার কর্তৃক সময় বৃদ্ধি বা নতুন কোটা প্রদান করা হলে তা যথাযথভাবে অবহিত করা হবে।

এএম/

Advertisement

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

প্রবাস

তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবিতে নিহত ৮ জনের মরদেহ দেশে এলো

Published

on

তিউনিসিয়া উপকূলে নৌকাডুবিতে নিহত আট বাংলাদেশির মরদেহ ঢাকায় পৌঁছেছে।
আজ বৃহস্পতিবার (২ মে) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে মরদেহবাহী সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের এসভি৮০৮ ফ্লাইটটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।
এর আগে দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) মৃতদেহগুলো তিউনিস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
এরআগে, লিবিয়াস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের ফেসবুক পোস্টে জানানো হয়, আজ ২ মে দুপুর সোয়া ১২টায় লাশবাহী কফিনগুলো সৌদিয়া এয়ারলাইনসের ফ্লাইটযোগে রাজধানীর হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবে।
গেলো মঙ্গলবার লিবিয়ায় নিযুক্ত তিউনিসিয়ার অনাবাসিক দায়িত্বে থাকা বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবুল হাসনাত মুহাম্মাদ খায়রুল বাশারের উপস্থিতিতে মিশনের কর্মকর্তারা মরদেহগুলো তিউনিস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে হস্তান্তর করেন।
গেলো ১৪ ফেব্রুয়ারি শেষরাতের দিকে এই দুর্ঘটনার পরপরই ত্রিপোলিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা তিউনিসিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং স্থানীয় নগর কর্তৃপক্ষের সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করে মরদেহের সুরতহাল, শনাক্তকরণ, দেশি সংস্থার মাধ্যমে পরিচয় নিশ্চিত করা, মৃত্যু এবং মেডিকেল সনদ ইস্যু সম্পন্ন করেন।
পাশাপাশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আফ্রিকা উইং মরদেহ ফিরিয়ে আনতে আন্ত:মন্ত্রণালয় সমন্বয় করে। স্বরাষ্ট্র এবং আইন মন্ত্রণালয়ের সহায়তা এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যয়ভার মেটানো হচ্ছে।
৮ নিহতের মধ্যে সজল, নয়ন বিশ্বাস, মামুন শেখ, কাজী সজীব ও কায়সার খলিফা মাদারীপুর জেলার এবং রিফাত, রাসেল ও ইমরুল কায়েস আপন গোপালগঞ্জ জেলার অধিবাসী ছিলেন।
জুয়ারা উপকূল থেকে ইউরোপ যাত্রাপথে ৫২ জন যাত্রী এবং একজন চালকসহ নৌকাটি তিউনিসীয় উপকূলে ডুবে গেলে জীবিত উদ্ধার ৪৪ জনের মধ্যে ২৭ জন বাংলাদেশি ও পাকিস্তানের ৮, সিরিয়ার ৫, মিসরের ৪ জন। নিহত ৯ জনের মধ্যে ৮ জন বাংলাদেশি ও অপর জন পাকিস্তানের নাগরিক বলে শনাক্ত হয়েছেন।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত