Connect with us

ঢালিউড

এবার তমার বিরুদ্ধে ২০ কোটি টাকার মামলা করবেন মিষ্টি

Avatar of author

Published

on

এবার চিত্রনায়িকা তমা মির্জার বিরুদ্ধে ২০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করার ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকাই সিনেমার নায়িকা ও দন্ত চিকিৎসক মিষ্টি জান্নাত। এর আগে তমা মির্জা ১০ কোটি টাকার মানহানির আইনি নোটিশে মিষ্টির বিরুদ্ধে। এরই প্রেক্ষিতে মিষ্টি জান্নাত এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

জানা গেছে, মানহানিকর মন্তব্যের অভিযোগ এনে জনসম্মুখে ক্ষমা চাওয়া এবং দশ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশটি মিষ্টির বিরুদ্ধে দিয়েছেন তমা। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রেজিস্ট্রি ডাকযোগে তমা মির্জার পক্ষে নোটিশ পাঠান তার আইনজীবী ব্যারিস্টার সজীব মাহমুদ আলম। আগামী সাত দিনের মধ্যে এ নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

মিষ্টি জান্নাত জানান, তিনি এখনও নোটিশ পাননি। সংবাদ মাধ্যমের বরাতে এই ব্যাপারে অবগত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন এই আলোচিত চিত্রনায়িকা।

এই প্রসঙ্গে মিষ্টি জান্নাত বলেন, ‘পরিষ্কার বলতে চাই, সাক্ষাৎকারে আমি তার নাম উল্লেখ করে কিছুই বলিনি। উনি কেন গায়ে মাখলেন জানি না। এখন আমি পাল্টা আইনি ব্যবস্থা নেব। এরকম মিথ্যা নোটিশ দিয়ে হয়রানি করার মানে কি? এখন আমাকেও আইনের দ্বারস্থ হতে হবে। এরই মধ্যে আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলেছি। ভিত্তিহীন অভিযোগ এনে আমার সম্মানহানি করায় উল্টো ২০ কোটি টাকার মানহানি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শেষ হলেই ব্যবস্থা নেব।’

মূলত উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয়কে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। মিষ্টি জান্নাতের একটি ভিডিও সাক্ষাৎকার মোটেও ভালোভাবে নেননি তমা মির্জা। সম্প্রতি তমা মির্জা নিজের ফেসবুকে এক স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। এতে তমা কারো নাম উল্লেখ না করলেও স্পষ্ট তিনি মিষ্টি জান্নাতকে ইঙ্গিত করে স্ট্যাটাসটি দিয়েছিলেন। এরপর সবকিছু ছিল নীরব ভূমিকায়। হঠাৎ করে তমার আইনি নোটিশের খবরে ফের উত্তাল ঢালিউড।

Advertisement

মিষ্টি জান্নাত বলেন, ‘বিষয়টি ছিল জয় ভাই ও আমার মধ্যে। মাঝখানে তিনি এসে ঢুকে গেলেন। ইঙ্গিতপূর্ণ একটা স্ট্যাটাস দিয়ে শুরুটা কিন্তু তিনিই করেছেন। তারপরও আমি চুপচাপ ছিলাম। ঘটনা যখন শেষের দিকে তখন তিনি উড়ে এসে জুড়ে বসেছেন। আমি তো তাকে নিয়ে কিছু বলিনি। সে বিষয়টি নিয়ে আমার সাথে কথা বলতে পারত। তা না করে আদালতে গিয়েছে। এখন আমিও আইনি ভাবেই বিষয়টি দেখব।’

জেএইচ

Advertisement

ঢালিউড

সিনেমা নির্মাণের জন্য সরকারি অনুদান পেলেন যারা

Published

on

বুধবার (১২ জুন) প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সিনেমায় অনুদানের পরিমাণ ও অনুদান প্রাপ্তদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে তথ্য মন্ত্রনালয়। ১৯৭৬-৭৭ অর্থবছর থেকে দেশীয় চলচ্চিত্রে সরকারি এ অনুদান চালু করা হয়। এবার সেই তালিকায় ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ৬টি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় ২টি, শিশুতোষ শাখায় ২টি ও সাধারণ শাখায় ১৬টি সিনেমাকে অনুদান দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্বল্পদৈর্ঘ্য বিভাগে অনুদান দেয়া হয়েছে ৬টি চলচ্চিত্রকে।

এই ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে ১৬টি সিনেমার প্রতিটি অনুদান হিসেবে পাচ্ছে ৭৫ লাখ টাকা করে, আর বাকি ৪টি চলচ্চিত্রকে দেয়া হয়েছে ৫০ লাখ টাকা করে। এই চারটির মধ্যে দুটি শিশুতোষ এবং দুটি প্রামাণ্যচিত্র শাখায়।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘পাকিস্তানে বন্দিজীবন’ ও ‘ছোঁয়া। পাকিস্তানে বন্দিজীবন সিনেমার পরিচালক ও প্রযোজক সাজেদুল ইসলাম। ছোঁয়ার পরিচালক ও প্রযোজক রাকিবুল হাসান।

শিশুতোষ শাখায় ‘অদ–ভুত’ সিনেমার জন্য রাইদ মোরশেদ ও ‘চলনবিলের মানিক’ সিনেমার জন্য অনুদান পেয়েছেন নিয়ামুল মুক্তা। অদ-ভুত পরিচালনা করবেন তাওকীর ইসলাম। অন্যদিকে প্রযোজনার পাশাপাশি ‘চলনবিলের মানিক’ সিনেমাটি পরিচালনা করবেন নিয়ামুল মুক্তা। প্রামাণ্যচিত্র শাখায়  অনুদান পেয়েছে ‘নো ম্যাডস অব দ্য নর্থ’, পরিচালক ও প্রযোজক পিপলু আর খান। অন্যটি ‘কালের যাত্রা’,  প্রযোজক ও পরিচালক হিসেবে রয়েছেন রাসেল রানা দোজা।

Advertisement

সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘মিহিন গাথা’: প্রযোজক ও পরিচালক মির্জা শবনম ফেরদৌসী; ‘ঠিকানা’: প্রযোজক ও পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন বাবর; ‘সুরাইয়া’: প্রযোজক ফজলে হাসান শিশির, পরিচালক রবিউল আলম রবি; ‘জয়া’: প্রযোজক ও পরিচালক গোলাম মোস্তফা; ‘লোভ’: প্রযোজক পিংকি আক্তার, পরিচালক সঞ্জয় সমাদ্দার; ‘সখী রঙ্গমালা’: প্রযোজক ও পরিচালক এন রাশেদ চৌধুরী; ‘জাত’: প্রযোজক শেলী কাদের, পরিচালক নারগিস আক্তার; ‘ময়নার চার’: প্রযাজক সুমন পারভেজ, পরিচালক জেড এম মোস্তাফিজুর রহমান বাবু; ‘কালবেলা’: প্রযোজক ও পরিচালক ইব্রাহীম খলিল মিশুক (মিশুক মনি); ‘সেয়ানা’: প্রযোজক মনোজ প্রামাণিক, পরিচালক ইকবাল হাসান খান; ‘আজিরন’: প্রযোজক ও পরিচালক গীতালি হাসান; ‘পোস্টমর্টেম’: প্রযোজক মো. নিজাম উদ্দিন, পরিচালক, আরিফ সিদ্দিকী; ‘হা ঘরে’: প্রযোজক নূর মনির, পরিচালক নাসরুল্লাহ মানসুর; ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা’: প্রযোজক ও পরিচালক দেওয়ান নজরুল।

৬টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক শাখায় অনুদান পেয়েছে দুটি সিনেমা। এগুলো হলো ‘অপরাজিত ৭১’; প্রযোজক ও পরিচালক মঈন উদ্দিন পাঠান। অন্যটি ‘জলদাসী’। এটির প্রযোজক ও পরিচালক মো. আবদুল খালেক (খালেক সাদমান)। শিশুতোষ শাখায় অনুদান পাচ্ছে ‘ডালিমকুমার ও তালপুকুরের কিচ্ছা’। এটি প্রযোজক ও পরিচালক সামির আহমেদ। সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে তিনটি সিনেমা। এগুলো হলো জুয়েইরাযাহ মউয়ের ‘মৌতালি পিঠার ঘ্রাণ’, এস এম কামরুল আহসানের ‘ফিনিক্স পাখি’ ও মোহাম্মদ মামুন ছোবহানীর ‘আবু ইব্রাহিমের মৃত্যু’। প্রতিটি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমাই ২০ লাখ করে টাকা অনুদান পাচ্ছে।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, মানবীয় মূল্যবোধসম্পন্ন জীবনমুখী, রুচিশীল ও শিল্পমানসমৃদ্ধ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা ও সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র অনুদান কমিটি’র সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে অনুদান প্রাপ্তদের নামের তালিকা দেয়া হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

এইডস রোগের গুজবে বিব্রত ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ!

Published

on

ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম এইডসে আক্রান্ত হয়েছেন! সম্প্রতি এমনই একটি গুজব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে চরম বিব্রত তিনি।

নিজের সম্পর্কে এমন গুজবের বিষয়ে মমতাজ বেগম বলেন, ‘শুনলাম, আমার নাকি এইডস হয়েছে! বিষয়টি বিব্রতকর। আল্লাহর রহমতে আমি সুস্থ ও খুব ভালো আছি। আর সে কারণেই স্টেজ শো নিয়ে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াতে পারছি।’

মমতাজ আরও বলেন, ‘ঈদের পরও দেশের বাইরে যাচ্ছি। যারা এসব মিথ্যা কিংবা গুজব ছড়াচ্ছে তাদের সুবুদ্ধির উদয় হোক। যারা এসব বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে তাদের বলব, এগুলো ভালো না, ভালো পথে থাকেন। আর আমার ভক্তদের বলব, এসব গুজবে কান দেবেন না। সবার দোয়ায় আপনাদের মমতাজ অনেক অনেক ভালো আছে।’

কোরবানির ঈদের পর দিনই স্টেজ শোতে অংশ নিতে দুবাই যাচ্ছেন মমতাজ। গান গাওয়ার পাশাপাশি সেখানের একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানেও অংশ নেবেন। সবশেষ করে চলতি মাসের ২৩-২৪ তারিখে দেশে ফিরবেন তিনি। এছাড়া আসন্ন কোরবানির ঈদে একগুচ্ছ গান নিয়ে আসছেন ভক্ত-শ্রোতাদের সামনে।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

বিচ্ছেদের পর প্রথমবার পাশাপাশি তাহসান-মিথিলা

Published

on

এক সময় দেশীয় শোবিজ অঙ্গনের জনপ্রিয় তারকা জুটি ছিলেন তাহসান খান ও রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। ২০১৭ সালে আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ হয় তাদের। এরপর আর একসঙ্গে দেখা যায়নি তাদের। তবে মঙ্গলবার (১১ জুন) মুখোমুখি হলেন তাহসান ও মিথিলা।

সম্প্রতি আরিফুর রহমান পরিচালিত ওয়েব সিরিজ বাজিতে অভিনয় করেছেন তারা। সে উপলক্ষে গুলশানের একটি ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সময় বেশ হাস্যোজ্জ্বল ভাবেই দেখা গেছে তাহসান মিথিলাকে।

তবে তাদের মাঝে বসে ছিলেন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকির সিইও রেদওয়ান রনি। ‘বাজি’র মধ্যদিয়ে প্রথমবারের মতো ওটিটি প্লাটফর্মে অভিষেক ঘটছে তাহসানের। সিরিজটিতে তাকে একজন ক্রিকেটারের চরিত্রে দেখা যাবে।

যদিও তিনি বাস্তব কোনো ক্রিকেটারের চরিত্রে অভিনয় করছেন কিনা, তা নিশ্চিত করেননি। কিন্তু জানা গেছে, ক্রিকেটে বাজি ও বাজির প্রভাব ঘিরেই এগিয়ে গেছে সিরিজটির গল্প। তাহসান বললেন, ‘বাজির গল্প দারুণ। ওটিটিতে এমন একটি কাজের মাধ্যমেই যাত্রা হোক- এটাই চেয়েছিলাম। অবশেষে সেটা হচ্ছে। আশা করি কাজটি দর্শকদের আশাহত করবে না।’

পরিচালক আরিফুর রহমান বলেন, ‘যত্ন নিয়ে নিজেদের সবটুকু দিয়েই বানানো হয়েছে বাজি, অভিনয় শিল্পী থেকে কলাকুশলী সবারই চেষ্টা ছিল দর্শকদের ভিন্ন কিছু দেয়ার, আশা করছি সবার ভালো লাগবে এই সিরিজটি।’

Advertisement

সিরিজটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে রাফিয়াত রশিদ মিথিলা বলেন, ‘অন্যরকম একটা গল্পে আরিফুর রহমানের পরিচালনায় কাজের অভিজ্ঞতাটাও বেশ ইন্টারেস্টিং।’

সাসপেন্স ড্রামা ঘরানার এই সিরিজে তাহসান খান ও মিথিলা ছাড়াও অভিনয় করেছেন মিম মানতাসা, মনোজ প্রামাণিক, নাজিয়া হক অর্ষা, শাহাদাৎ হোসেন, পার্থ শেখ, তাসনুভা তিশা, আবরার আতহারসহ আরও অনেকে।

এসআই/

 

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত