Connect with us

বলিউড

তিক্ততা ভুলে কঙ্গনার পাশে হৃত্বিক

Avatar of author

Published

on

একটা সময় একসঙ্গে অভিনয় করতে যেয়ে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই প্রেম তাদের নিয়ে গিয়েছিল আদালত অবধি। তারপর থেকে কঙ্গনা রানাউত ও হৃতিক রোশান যেন দুই ভিন্ন মেরুর মানুষ। বর্তমানে কঙ্গনা শুধু একজন অভিনেত্রী নন, লোকসভার সাংসদ।

তবে সম্প্রতি চণ্ডীগড় বিমান বন্দরে ঘটা চড়কাণ্ডের পর অভিনেত্রী যেন দিশা হারিয়ে ফেলছেন। দেশের মানুষও দুই ভাগে ভাগ হয়েছে এ ঘটনায়। তবে এই সময়ে কঙ্গনার পাশে দাঁড়িয়েছেন পুরানো প্রেমিক ঋতিক রোশান ।

সাংবাদিক ফায়ে ডি’সুজা নিজের ব্যক্তিগত ইনস্টাগ্রামে একটা পোস্ট শেয়ার করে কঙ্গনাকে চড় মারার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। তিনি নিজের পোস্টে লেখেন, ‘বিমানবন্দরে সাংসদ কঙ্গনা রানাওয়াতকে চড় মারার পরিপ্রেক্ষিতে বলছি, হিংসা কখনোই উত্তর হতে পারে না।’

ফায়ের এই পোস্ট ‘লাইক’ দিয়ে সমর্থন জানালেন হৃতিক রোশান। তবে শুধু ঋতিকই নন, কঙ্গনা যাকে ‘বলিউড মাফিয়া’ বলেছিলেন, সেই কারাণ জোহরের শিবিরের সদস্য আলিয়া ভাট, তাঁর মা অভিনেত্রী সোনি রাজদান, জোয়া আখতার, সোনাক্ষী সিনহা, অর্জুন কাপুরের মতো সেলিব্রিটিরা পোস্টটি লাইক করেন।

এদিকে কঙ্গনাকে চড় মারার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে আগেই তার পাশে দাঁড়িয়েছেন শাবানা আজমি, অনুপম খের, শেখর সুমনরা। এবার তাঁর পাশে দাঁড়ালেন প্রাক্তন ঋতিক রোশান।

Advertisement

ব্লকবাস্টার ছবি ‘কৃষ-থ্রি’, ‘কাইট’-এর মতো ছবিতে ঋতিক রোশনের সঙ্গে কাজ করেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত। সে সময় তাদের প্রেমের গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল। যদিও সে প্রেমের কথা কোনো দিনই মানেননি ঋতিক। তবে কঙ্গনার দাবি ছিল, ঋতিক তার সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন। তারপর তাদের মধ্যে বিস্তর কাঁদা ছোড়াছুড়িও হয়। তবে সে সবই এখন অতীত।

এসআই/

Advertisement

বলিউড

আমিরপুত্রের সিনেমা ‘মহারাজ’র মুক্তি আটকে দিল আদালত

Published

on

মহারাজ-এ আমিরপুত্র জুনায়েদ খানের লুক। ছবি: সংগৃহীত

বলিউড সুপারস্টার আমির খানের  ছেলে জুনায়েদ খান অনেকদিন ধরেই খবরের শিরোনামে। জুনায়েদ অভিনীত ‘মহারাজ’ সিনেমাটি কবে মুক্তি পাচ্ছে তা নিয়েই মূলত সংবাদ মাধ্যমগুলোর শিরোনাম। অসংখ্যা ছবিতে আমির খানের অভিনয় দেখলেও এবার প্রথমবারের মতো আমিরপুত্র জুনায়েদের অভিনয় দেখার জন্য প্রতীক্ষায় রয়েছেন দর্শকরা।

‘মহারাজ’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হচ্ছে আমিরপুত্র জুনায়েদ খানের। প্রকাশ্যে এসেছে সিনেমাটির পোস্টার। সিদ্ধার্থ পি মালহোত্রা পরিচালিত ছবিটি শুক্রবার (১৪ জুন) মুক্তির জন্য ঠিকঠাক ছিল।  তবে মুক্তির আগেই রীতিমতো বিতর্কের মুখে পড়লেন ছবির নির্মাতা। একটি হিন্দু সংগঠনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গুজরাট হাইকোর্ট ছবিটির মুক্তিতে স্থগিতাদেশ দিয়েছে।

সৌরভ শাহের বই ‘মহারাজ’ অবলম্বনে তৈরি এ সিনেমা। এ দিন নির্মাতাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন লেখকও। মামলার আগামী শুনানি ১৮ জুন। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়,  হাইকোর্টের এই স্থগিতাদেশের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রযোজনা সংস্থা যশ রাজ ফিল্মস ও নেটফ্লিক্স।

কী নিয়ে বিতর্ক?

মহারাজা ছবির মুক্তিতে স্থগিতাদেশ চেয়ে আবেদন করে ভগবান কৃষ্ণের ভক্ত এবং পুষ্টিমার্গ সম্প্রদায় (বৈষ্ণবধর্মের একটি সম্প্রদায়) বল্লভাচার্যের অনুগামীরা। তাদের পক্ষ থেকে দায়ের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত স্থগিতাদেশ জারি করে। আবেদনে বলা হয়, ১৮৬২ সালের মহারাজ লিবেল কেসকে কেন্দ্র করে তৈরি এই ছবিটি জনগণের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পারে। শুধু তাই নয়, এই ছবিটি পুষ্টিমার্গ  সম্প্রদায়ের অনুগামীদের বিরুদ্ধে হিংসা উস্কে দিতে পারে।

Advertisement

আবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, ১৮৬২ সালের মহারাজ লিবেল মামলাটি একজন বিশিষ্ট ব্যক্তির অসদাচরণের অভিযোগের উপর ভিত্তি করে দায়ের করা হয়েছিলো। মামলার রায় ঘোষণা করেছিলেন বোম্বে(বর্তমানে মুম্বাই) সুপ্রিম কোর্টের ইংরেজ বিচারক। আবেদনে দাবি করা হয়,  সিনেমাটিতে  ‘ভগবান কৃষ্ণ ও তাঁকে নিয়ে  ভক্তিমূলক গানের বিরুদ্ধে নিন্দামূলক মন্তব্য’ রয়েছে।  আবেদনে আরও অভিযোগ, সিনেমাটির ট্রেলারসহ পর্যাপ্ত প্রচারমূলক কাজ বেশি না করেই মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে নির্মাতারা।

কী আছে ‘মহারাজ’ ছবির গল্পে

ছবির অফিসিয়াল লগলাইনে লেখা আছে, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এক বছর পূর্ণ করেছেন এবং ১৮৫৭ সালের সিপাহী বিদ্রোহ স্বাধীনতার সংগ্রামকে জ্বালিয়ে দিচ্ছে।  সমস্ত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে, একজন ব্যক্তি একটি ঐতিহাসিক আইনি লড়াইয়ে সাহসী অবস্থান নেন। একটি সত্য ঘটনা যেটি ১৬০ বছরেরও বেশি সময় পরে মহারাজ’র মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।’ ‘মহারাজ’ ছবিতে সাংবাদিক ও সমাজ সংস্কারক কারসানদাস মুলজির সাহসিকতা দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে।  কারসানদাস মুলজি সবসময়  নারী অধিকার ও সমাজ সংস্কারের পক্ষে ছিলেন।  কারসানদাস মুলজির চরিত্রে অভিনয় করেছেন জুনায়েদ খান।

চলচ্চিত্র নির্মাতা সিদ্ধার্থ পি মলহোত্রা পরিচালিত মহারাজ ছবিতে জুনায়েদ খান ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা যাবে জয়দীপ আহলাওয়াত, শর্বরী ওয়াঘ এবং শালিনী পান্ডেকে।ছবিটির কাহিনী লিখেছেন বিপুল মেহতা ও স্নেহা দেশাই। যশরাজ ফিল্মের এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে এটি প্রযোজনা করেছেন আদিত্য চোপড়া।

এমআর//

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

প্রযোজকের বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে আদালতে করণ জোহর

Published

on

দেখুন কাণ্ড! শেষমেশ করণের সঙ্গে এমন ঘটনা। তাও আবার করণকে না জানিয়ে। আর ঘটনাটি নিয়ে এতটাই বিরক্ত যে করণ সোজা পৌঁছে গেলেন আদালতে। সোজা ঠুকলেন মামলা!

ব্যাপারটা একটু খোলসা করে বলা যাক। সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে ‘শাদি কে ডিরেক্টর করণ অউর জোহর’ একটি ছবির ট্রেলার। যা মুক্তি পাওয়ার কথা ১৪ জুন। কিন্তু তার আগেই আদালতে গেলেন করণ জোহর। করণের অভিযোগ, তাকে না জানিয়ে ছবির নির্মাতারা তার নাম ব্যবহার করেছেন। করণের করা মামলার কারণে ছবির মুক্তি নিয়ে এর মধ্যেই স্থগিতাদেশ দিয়েছে আদালত।

করণ জোহরের করা মামলার পিটিশনে দাবি করা হয়েছে, ছবির সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক নেই। তবুও তার নাম ব্যবহৃত হয়েছে অযাচিত ভাবে। এই পিটিশনে আরও দাবি করা হয়েছে, ছবির শিরোনামে তার নাম ব্যবহার করা হয়েছে সুনাম নষ্ট করার অভিসন্ধি নিয়েই। যা কিনা আইনত অপরাধ। তবে এই নিয়ে ছবির নির্মাতাদের তরফ থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

সম্প্রতি শত্রুতা ভুলে কঙ্গনার চড় কাণ্ড নিয়ে মুখ খুলেছেন করণও। পরিচালক সাফ জানালেন, কাউকে মারধর করা এবং অপমানকে সমর্থন করেন না তিনি। নিরাপত্তারক্ষীর চড় মারাকে ‘উগ্রতা’ হিসাবেই দেখছেন। কোনও পরিস্থিতিতে নিরাপত্তারক্ষী কুলবিন্দরকে মোটেও সমর্থন করেন না বলেই জানান করণ।

জেএইচ

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

নাতাশার ইঙ্গিতপূর্ণ পোস্ট! হার্দিকের সঙ্গে বিচ্ছেদ কি তবে আসন্ন?

Published

on

এই মুহূর্তে টি ২০ বিশ্বকাপ খেলতে নিউ ইর্য়কে রয়েছেন হার্দিক পাণ্ড্য। যদিও বেশ কয়েকদিন ধরেই টালমাটাল তার ব্যক্তিগত জীবন। স্ত্রী নাতাশা স্তানকোভিচের সঙ্গে তার সম্পর্কের সমীকরণ নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে।

বিয়ের চার বছরের মধ্যে দাম্পত্যে ফাটল হার্দিক-নাতাশার। নিজের পদবি থেকে আচমকাই ‘পাণ্ড্য’ ফেলে দিতেই যেন আরও বেশি জোরালো হয় বিচ্ছেদের জল্পনার।

যদিও কারো কারো দাবি, হার্দিক নাকি স্ত্রীকে খাড়া করে আইপিএলে খারাপ ফলের ব্যর্থতা ঢাকার চেষ্টা করছেন। চলছে চাপানউতোর। সামাজিকমাধ্যমে একের পর এক ইঙ্গিতপূর্ণ পোস্ট করে সেই জল্পনায় ঘৃতাহুতি দিচ্ছেন নাতাশা। এবার ফের একটি পোস্ট, সেখানেই তিনি ‘অপেক্ষা করার’ কথা উল্লেখ করলেন। এখন প্রশ্ন, এই কথা বলে তিনি কী ইঙ্গিত দিতে চেয়েছেন?

নাতাশা একটি পোস্ট ইনস্টাগ্রামে ভাগ করে নিয়েছেন তার অনুরাগীদের সঙ্গে। সেখানে লেখা রয়েছে, ‘অনেক পুরানো স্টাইলই ফিরে আসছে ঠিকই, কিন্তু আমি অপেক্ষা করছি, কখন নৈতিকতা, সম্মান ও বুদ্ধিমত্তা আবার ফিরবে!’

হলিউডের খ্যাতনামা তারকা ডেনজল ওয়াশিংটনের অতি পরিচিত এই উদ্ধৃতি শেয়ার করে এবার কোন ইঙ্গিত দিতে চাইলেন নাতাশা! মাস কয়েক ধরেই হার্দিক-নাতাশাকে নিয়ে এই জল্পনা চলছে, তা থামার কোনও লক্ষণও আপাতত চোখে পড়ছে না।

Advertisement

এই মুহূর্তে ছেলে অগ্যস্তের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন নাতাশা। তার সামাজিকমাধ্যমের পাতায় চোখ রাখলেই দেখা যাবে সেই ছবি। অন্য দিকে, নিজের চুলের ‘কাট’ বদলে নতুন লুকে ধরা দিয়েছেন হার্দিকও।

দিন কয়েক ধরেই শোনা যাচ্ছে, হার্দিক-নাতাশার মাঝে নাকি এসেছেন তৃতীয় ব্যক্তি। তার কারণেই বুঝি ভাঙছে ক্রিকেট তারকার ঘর। তিনি হলেন শরীরচর্চা প্রশিক্ষক আলেকজ়ান্ডার অ্যালেক্স। বলিপাড়ায় যদিও গুঞ্জন, অ্যালেক্স নাকি অভিনেত্রী দিশা পটানির প্রেমিক।

তারকা-দম্পতির বিচ্ছেদের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ার পরই নেটাগরিকের একাংশ আক্রমণ করতে থাকেন আলেকজ়ান্ডারকে। তাদের দাবি, আলেকজ়ান্ডারই নাকি নাতাশা-হার্দিকের সম্পর্কে তৃতীয় ব্যক্তি হয়ে ঢুকে পড়েছেন, তাতেই ছন্দপতন। যদিও এই দাবি সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়েছেন আলেকজ়ান্ডার

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত