Connect with us

ক্রিকেট

শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ দক্ষিণ আফ্রিকার

Avatar of author

Published

on

তানজিম হাসান সাকিব ও তাসকিন আহমেদের বোলিং তোপে ২৩ রানেই ৪ উইকেট হারিয়েছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে হাইনরিখ ক্লাসেন ও ডেভিড মিলারের জুটিতে ঘুরে দাঁড়িয়ে ১১৩ রান সংগ্রহ করেছে প্রোটিয়ারা।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই তানজিমের উপর চড়াও কুইন্টন ডি-কক।  প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাকানোর পর তৃতীয় বলে বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। তবে ওভারের শেষ বলে রিজা হেনড্রিকসকে ফিরিয়ে দেন এলবিডব্লুতে।

তানজিম সফল হন নিজের দ্বিতীয় ওভারেও।  ডি-কককে ফিরিয়ে দেন বোল্ড করে।

স্ট্যাম্প ভাঙ্গেন তাসকিনও, এডেন মার্করামকে ফেরান ৮ রানে।  নিজের তৃতীয় ওভারে এসে আরেকদফায় নাসাউ কাউন্টিতে কম্পন তোলেন তানজিদ, ট্রিস্টান স্টাবসকে ফেরান সাকিবের হাতে।

২৩ রানেই ৪ উইকেট হারানো দক্ষিণ আফ্রিকার হাল ধরেন হাইনরিখ ক্লাসেন ও ডেভিড মিলার। দুজনে মিলে গড়েন ৭৯ বলে ৭৯ রানের জুটি।  তবে জুটিতে সহায়তা করেন লিটন, মাহমুদউল্লার বলে ক্যাচ ফেলে দিয়ে ১৫ বলে ১৩ রানে জীবন দেন মিলারকে।

Advertisement

সেই জুটি ভাঙ্গেন তাসকিন,  ৪৪ বলে ৪৬ রান করা ক্লাসেনকে করেন বোল্ড।  টিকতে পারেননি মিলারও ৩৮ বলে ৩৯ রান করে শিকার হন রিশাদের।

শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১১৩ রান সংগ্রহ করে প্রোটিয়ারা।

Advertisement

ক্রিকেট

জিততে জিততে হেরে গেলো নেপাল

Published

on

প্রথম ইনিংসে দারুণ বলিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১১৫ রানে আটকে দেয় নেপাল। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে দারুণ ব্যাটিং শুরু করে দলটি। কিন্তু ইতিহাস গড়তে শেষ বলে ব্যর্থ হয় নেপাল। শেষ বলে ১ রান নিতে পারলেই হয়ে যেত ড্র। কিন্তু সেই ১ রান নিতে গিয়ে রান আউট হন গুলশান। স্বপ্ন ভেঙে যায় নেপালের।

১৮ বলে ১৮ রানের সমীকরণ নেমে আসে ১২ বলে ১৬ রানে। নরকিয়ার করা ১৯তম ওভারে ফেরেন কুশাল মাল্লা। এরপরেই সোমপাল কামির ১০৫ মিটারের ছক্কা বদলে দেয় দৃশ্যপট। সেই ওভারে আসে ৮ রান। শেষ ওভারে নেপালের দরকার ছিল আরও ৮ রান। ওটনিয়েল বার্টম্যানের সেই ওভারের প্রথম দুই বল ছিল ডট। পরের বলেই গুলশান ঝায়ের চার।

শেষ বলে দরকার ছিল দুই রান। কিন্তু বার্টম্যানের শেষ বলে ব্যাটে বলে হয়নি। সেখানেই রানআউট হয়ে ১ রানে হারের হতাশায় ডুবতে হয় নেপালকে। সেইসঙ্গে এবারের বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয় তাদের।

এর আগে প্রথমে টস হেরে ব্যাট করতে নামা দক্ষিণ আফ্রিকাকে শুরু থেকেই চেপে ধরেন কুশাল ব্র‍ুটালরা। প্রথম ১০ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে আসে ৫৭ রান। এরপর ১১.২ ওভারে এসে দ্বিতীয় উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। কুশালের শিকার হয়ে ফেরেন প্রোটিয়া অধিনায়ক এইডেন মার্করাম। ২২ বলে ১৫ রানে ফেরেন তিনি। এর আগে ৩.৪ ওভারে উদ্বোধনী জুটি ভাঙে ডি কক ফিরলে, দীপেন্দ্রর প্রথম শিকার হয়ে ফেরেন ১০ রানে।

তবে এরপরই প্রোটিয়াদের আরও চেপে ধরেন নেপালের স্পিনাররা। হেনরিখ ক্লাসেন ৩ ও মার্কো জানসেন ফেরেন ১ রানে। একপাশ আগলে রাখা রেজা হেনড্রিকসও ফেরেন এর মাঝেই। ১৫.৩ ওভারে ৪৯ বলে ৪৩ রানে দীপেন্দ্রর বলে আউট হন তিনি।

Advertisement

ডেভিড মিলার বিতর্কিতভাবে জীবন পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেননি, ৭ রানেই শেষ হয় তার ইনিংস। তবে প্রোটিয়ারা তিন অংকের ঘরে পৌঁছে মূলত ট্রিস্টান স্টাবসের ব্যাটে। ১৮ বলে অপরাজিত ২৭ রান তুলে দলকে পৌঁছান ১১৫ রানে।

দীপেন্দ্র সিং ৩ ও কুশাল ব্রুটাল নেন ৪ উইকেট। উইকেট না পেলেও দারুণ বল করেন সন্দিপ লামিচানে।

টিআর/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ক্রিকেট

গ্রুপ পর্ব থেকে বাদ পড়ার ঝাঁঝ মেটালো নিউজিল্যান্ড

Published

on

এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিশ্চিত হয়েছে নিউজিল্যান্ডের। প্রথম দুই ম্যাচ হারায় শেষ আটে ওঠা হল না আগের আট আসরে গ্রুপ পর্বের বাঁধা উতরাতে পারা কিউইদের। আফগানিস্তান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হারের পর আজ নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে উগান্ডার বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল কেইন উইলিয়ামসনের দল। পুঁচকে উগান্ডাকে পেয়ে যেন গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়ার ঝাঁঝ মিটিয়েছেন কিউই ক্রিকেটাররা।

শনিবার (১৫ ‍জুন) ত্রিনিদাদের ব্রায়ান লারা স্টেডিয়ামে ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে মুখোমুখি হয় দুদল। যেখানে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করা উগান্ডাকে বোলিং দাপটে ১৮.৪ ওভারে ৪০ রানে থামায় নিউজিল্যান্ড। চলতি বিশ্বকাপেই এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩৯ রানে অলআউট হয়েছিল উগান্ডা।

এদিকে ৪১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে আজ একটি উইকেট হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। দলীয় ২৪ রানে ফিন অ্যালেন আউট হলেও ৩২ বলেই জয় তুলে নিতে পেরেছে কিউইরা।

১৫ বলে ২২ রান করে নিউজিল্যান্ডের জয় নিশ্চিত করেন ডেভন কনওয়ে। এদিকে ৩২ বলে ম্যাচটি জিতে নিয়ে একটি রেকর্ডও গড়েছে নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপে সবথেকে বেশি বল হাতে রেখে জয়ের তালিকায় কিউইদের এই জয় আছে তালিকার তিনে।

একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডের সবথেকে বেশি হাতে রেখে জয়ও এখন এটি। এর আগের রেকর্ডটি ছিল কেনিয়ার বিপক্ষে। ২০০৭ সালে সেই ম্যাচটি কিউইরা জিতে নিয়েছিল ৭৪ বল হাতে রেখে।

Advertisement

টিআর/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ক্রিকেট

সাকিবকে নিয়ে শিশিরের ‘বিশ্বাস’

Published

on

নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ৪৬ বলে ৬৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছেন সাকিব।  ডাচদের বিপক্ষে বাংলাদেশের ২৫ রানের জয়ের সেই ম্যাচে ম্যান অফ দা ম্যাচও নির্বাচিত হয়েছেন সাকিব।

সাকিবের এমন পারফম্যান্সে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছেন টাইগার অলরাউন্ডারের পত্নী উম্মে আল হাসান শিশির।

সাকিবের ম্যাচসেরার ফটোকার্ড শেয়ার করে ক্যাপশনে এক শব্দে লিখেছেন ‘ফেইথ’। যার বাংলা অর্থ বিশ্বাস। সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন লাভ ইমোজি।

 

 

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত