Connect with us

হলিউড

রায়ান-ব্লেকের সংসারে চতুর্থ সন্তান আসছে

Published

on

খুব শীঘ্রই নতুন সদস্য আসতে চলেছে হলি তারকা দম্পতি রায়ান রেনল্ডস এবং ব্লেক লাইভলির পরিবারে। ৩৫ বছর বয়সে আবার মা হতে চলেছেন ব্লেক। ইতিমধ্যেই তিন সন্তানের মা ‘গসিপ গার্ল’ খ্যাত এই অভিনেত্রী। জেমস, ইমেজ এবং বেটি নামের তিন সন্তান রয়েছে দম্পতির। তবে নতুন সদস্যের শীঘ্রই বাড়িতে আসা নিয়ে খুশির অন্ত নেই রায়ান-ব্লেকের সংসারে।

বৃহস্পতিবার একটি বিদেশি পত্রিকার বার্ষিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন ব্লেক। সেখানেই নজরে আসে তার স্ফীতোদর। এই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পোজে ছবিও তুলতে দেখা যায় অভিনেত্রীকে।

ডিসেম্বরেই হলিউডের ‘ডেডপুল’ জানিয়েছিলেন তিনি কিছু সময়ের জন্য অভিনয় জগৎ থেকে দূরে থাকতে চান। কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান, তার কাছে তার সন্তানদের সঙ্গে সময় কাটানো গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। আর সেই কারণেই এই সাময়িক বিরতির সিদ্ধান্ত।

রেনল্ডস এ-ও জানিয়েছিলেন যে, তিনি একজন সাধারণ মানুষের মতো জীবনযাপন করতে চান।

একটি সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আমি চাই আমার বাচ্চাদের দেখভালের জন্য তার বাবা অথবা মা যে কোনও একজন সব সময় থাকুক। যখন আমার স্ত্রী কোনও সিনেমার শ্যুটিং করবেন, তখন আমি শ্যুটিং করব না। সেই সময় আমি বাচ্চাদের সঙ্গে সময় কাটাব। আবার আমি যখন অভিনয় নিয়ে ব্যস্ত থাকব, তখন আমার স্ত্রী বাচ্চাদের সঙ্গে থাকবে। এই কারণেই আমারা একই সময়ে কাজ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

Advertisement
Advertisement

বিনোদন

ইরানি র‍্যাপার সালেহির মৃত্যুদণ্ডের রায় বাতিল

Published

on

সরকার বিরোধী গান করায় জনপ্রিয় র‍্যাপার তোমাজ সালেহির মৃত্যুদণ্ডের সাজা দিয়েছিলেন ইরানের আদালত। এবার সেই মৃত্যুদণ্ডের রায় বাতিল করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

সালেহির আইনজীবী আমির রাইসিয়ানের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে। আইনজীবীরা আদালতের এ সিদ্ধান্তকে ইরানে মানবাধিকারের বিজয় বলে মনে করছেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে আইনজীবী আমির রাইসিয়ান লিখেছেন, সালেহির মৃত্যুদণ্ডের রায় বাতিল করেছেন ইরানের সুপ্রিম কোর্ট। এই সঙ্গে তাঁর বিরুদ্ধে নতুন করে শুনানির নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে ‘অপূরণীয় একটি বিচারিক ত্রুটি’ রুখে দিলেন সর্বোচ্চ আদালত।

গেল এপ্রিলে সালেহিকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়েছিল। তখন সালেহির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহে সহায়তা, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, দাঙ্গার উসকানিসহ নানা অভিযোগ আনা হয়েছে। এর আগে ২০২২ সালে পুলিশ হেফাজতে ২২ বছর বয়সী ইরানি কুর্দি তরুণী মাসা আমিনির মৃত্যু হয়। সেই ঘটনায় সোচ্চার হয় দেশটির অনেক মানুষ। ইরানজুড়ে সে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। হাজার হাজার মানুষ সে সময় রাজপথে নামেন।

আন্দোলনের সময় ৩৩ বছর বয়সী তোমাজ সালেহি ইরানের দুর্নীতি, শাসনব্যবস্থা, সরকারের নানা রকম সমালোচনা করে গান করেন। এমন ঘটনায় তিনি একাধিকবার গ্রেপ্তারও হন। বিভিন্ন সময় তাঁকে হুমকিও দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি গান দিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার ছিলেন।

Advertisement

পুলিশের হাতে ২০২২ সালের অক্টোবরে গ্রেপ্তার হোন সালেহি। প্রাথমিকভাবে তাঁকে ছয় বছর তিন মাসের জেল দেওয়া হয়। পরে ইরানের সুপ্রিম কোর্ট থেকে তিনি জামিনে বের হন। পরবর্তী সময়ে কিছুদিন পরেই তাঁকে আবার গ্রেপ্তার করা হয়।

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বিনোদন

৯৩ বছর বয়সে মিডিয়া মোগল রুপার্ট মারডকের ৫ম বিয়ে!

Published

on

পঞ্চমবারের মতো বিয়ে করেছেন ৯৩ বছর বয়সী মিডিয়া মোগল ও ধনকুবের রুপার্ট মারডক। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় মারডকের আঙুরবাগানে এই বিয়ের অনুষ্ঠান হয়।

শনিবার (১ জুন) ৬৭ বছর বয়সী এলেনা জুকোভার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন তিনি। এলেনা একজন অবসরপ্রাপ্ত রুশ জীববিজ্ঞানী। চলতি বছরের মার্চে মারডকের সঙ্গে এলেনার বাগ্‌দান হয়। তখনই নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, জুনে দুজনের বিয়ে।

২০২৩ সালের মার্চে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা চ্যাপলেইন পুলিশের বিশেষ পরামর্শক অ্যান লেসলি স্মিথের সঙ্গে মারডকের বাগ্‌দান হয়েছিল। তারা বিয়ের পরিকল্পপনাও করেছিলেন। কিন্তু বাগ্‌দানের পরের মাসেই বিয়ে ভেঙে যায়। তখন থেকেই এলেনার সঙ্গে মারডকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠার খবর ছড়িয়ে পড়ে।

অ্যানের সঙ্গে মারডকের প্রথম দেখা হয়েছিল ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে, ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি অনুষ্ঠানে। পরিচয় পরে গড়ায় প্রণয়ে। অ্যানের সঙ্গে প্রেম ও বাগ্‌দানের বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে মারডক বলেন, ‘প্রেমে পড়ার পর আমি ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। আমি জানতাম যে এটাই আমার শেষ প্রেম।’ তবে শেষ পর্যন্ত অ্যানের সঙ্গে মারডকের আর ঘর বাঁধা হয়নি।

মারডক নিউজ করপোরেশনের ইমেরিটাস চেয়ারম্যান। নিউজ করপোরেশনের মালিকানায় রয়েছে ফক্স নিউজ, ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল, সান ও টাইমসের মতো গণমাধ্যম। তবে গেল বছর ফক্স ও নিউজ করপোরেশনের চেয়ারম্যান পদ ছাড়েন মারডক।

Advertisement

মারডক প্রথম বিয়ে করেছিলেন ১৯৫৬ সালে, প্যাট্রিসিয়াকে। ১৯৬৭ সালে তাঁদের বিচ্ছেদ হয়। একই বছর আন্নাকে বিয়ে করেন মারডক। ১৯৯৯ সালে তাঁদের বিচ্ছেদ হয়। ২০১৬ সালে জেরিকে বিয়ে করেন মারডক। ২০২২ সালে বিচ্ছেদ হয়। অন্যদিকে মারডকের পঞ্চম স্ত্রী এলেনার আগে বিয়ে হয়েছিল। তাঁর সাবেক স্বামী রুশ তেল ব্যবসায়ী আলেকজান্ডার জুকোভা।

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বিনোদন

ফিলিস্তিনিদের ১ মিলিয়ন ডলার দিলেন মার্কিন মডেল বেলা ও জিজি হাদিদ

Published

on

চলমান ইসরায়েলি আগ্রাসনে বিধ্বস্ত ফিলিস্তিন নিয়ে আগে থেকেই সবর ছিলেন মার্কিন সুপার মডেল বেলা হাদিদ ও জিজি হাদিদ। ফিলিস্তিনে নিপীড়িত জনগণের সহায়তায় একাধিকবার মোটা অঙ্কের টাকা পাঠিয়েছেন এই দুই বোন।

এজন্য ক্যারিয়ারে নানান বিপত্তিতেও পড়তে হয়েছে তাদেরকে। এমন কি তাদের প্রাণনাশের হুমকিও দিয়েছে ইসরায়েল। তবুও মত বদলান নি তারা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ মানুষের জন্য ১ মিলিয়ন ডলারের অনুদান দিয়েছেন বেলা হাদিদ ও জিজি হাদিদ। যা চারটি দাতব্য সংস্থার মাধ্যমে পাঠানো হবে। ইতোমধ্যে এই অর্থ বিভিন্ন সংস্থায় সমানভাবে বরাদ্দ করে দিয়েছেন তারা।

দাতব্য সংস্থাগুলো হলো- হিল প্যালেস্টাইন, ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেন (ডব্লিউসিকে), প্যালেস্টাইন চিলড্রেনস রিলিফ ফান্ড (পিসিআরএফ) এবং ইউএন রিলিফ অ্যান্ড ওয়ার্কস এজেন্সি (ইউএনআরডব্লিওএ)। সামগ্রিকভাবে এই সংস্থাগুলো বাস্তুচ্যুত পরিবারের সহায়তায় খাদ্য, চিকিৎসা কার্যক্রমের মতো সেবামূলক কাজ করে।

সদ্য সমাপ্ত কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে বেলা হাদিদ ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রতীক লাল কেফিয়াহ পোশাক পরে কান সৈকত থেকে দ্যুতি ছড়ান।

সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করে বেলা হাদিদ লিখেছিলেন, ‘ফিলিস্তিনকে মুক্ত করা হোক। এটি সর্বদা আমার মনে, রক্তে এবং হৃদয়ে মিশে রয়েছে। যদিও আমাকে এখনও এই ভয়াবহতার মধ্যেই কাজ করে যেতে হবে, আমরা আমাদের সংস্কৃতিকে উপস্থাপন করছি।’

Advertisement

এই ‍সুপার মডেল আরো লেখেন, ‘আমরা যেখানেই যাই না কেন, সারা বিশ্ব ফিলিস্তিনকে দেখতে পাবে। পরনের এমন কেফিয়াহ পোশাক ফিলিস্তিনকে উপস্থাপন করছে। গাজায় এই মুহূর্তে গণহত্যার মত যা ঘটছে, সে সম্পর্কে বোঝার চেষ্টা করুন।’

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত