Connect with us

রংপুর

কুড়িগ্রামে সামুদ্রিক শৈবাল উৎপাদনে সম্ভাবনা

Published

on

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে বাণিজ্যিকভাবে সামুদ্রিক শৈবাল চাষ শুরু করেছেন ৭ জন উদ্যোক্তা। এই ৭ তরুণ উদ্যোক্তা কৃত্রিমভাবে সামুদ্রিক শৈবাল (স্পিরুলিনা)  উৎপাদনের মাধ্যমে দেশ-বিদেশে রপ্তানি করাসহ কর্মসংস্থান সৃষ্টির স্বপ্ন দেখছেন। 

এই স্পিরুলিনা নামটি অধিকাংশ মানুষের কাছে অপরিচিত। স্পিরুলিনা হলো সাইনো ব্যাকটেরিয়া। বাংলাদেশে স্পিরুলিনাকে গ্রীন ডায়মন্ড বলা হয়ে থাকে। প্রোটিন, ভিটামিন ও মিনারেলস সমৃদ্ধ প্রকৃতির আশ্চর্য এই খাবারটি অনেকে সামুদ্রিক শৈবাল হিসেবেই চেনেন।পুষ্টিহীনতা ছাড়াও রক্তশূন্যতা, রাতকানা, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, আলসার, বাত, হেপাটাইটিস ও কান্তি দূর করতে বেশ উপকারী।

উপজেলার প্রাাণকৃষ্ণ গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে এরশাদ হোসেনের বাড়ীর উঠানে মাত্র ৩ শতক জমিতে তৈরী করেন স্বপ্নের গ্রীন হাউজ। ওই এলাকার সাত উদ্যোক্তা ‘ফুলবাড়ী এগ্রো’ নামে একটি সংগঠন খুলে নিজেদের সু-প্রতিষ্ঠিত করতে সমাজ-সেবাসহ উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

এই ৭ তরুণ উদ্যোক্তারা হলেন সেলিম রেজা, এরশাদ হোসেন, গোলাম ওয়াদুদ, জাকির সরকার, হাসান বাপ্পী, মাসুদ রানা, ফাতেমা আক্তার মিতু। সাত তরুণ উদ্যোক্তার মধ্যে সেলিম রেজা ওই সংগঠনটির প্রধান পরিচালক।

ফুলবাড়ী এগ্রো সংগঠনটির পরিচালক সেলিম রেজা ও উদ্যোক্তা মাসুদ রানা জানান,বাংলাদেশে স্বল্প পরিসরে স্পিরুলিনার চাষ শুরু হয়েছে। আমরা ২৪ হাজার লিটার পানিতে কৃত্রিমভাবে স্পিরুলিনার বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু করেছি। এটিই দেশে সর্ববৃহৎ স্পিরুলিনা চাষের উৎপাদন কেন্দ্র। দেশের বাজারে স্পিরুলিনার চাহিদা প্রতিনিয়ত বাড়ছে কিন্তু সে তুলনায় দেশে বাণিজ্যিকভাবে স্পিরুলিনার উৎপাদন নেই। দেশের নাম করা ঔষুধ কোম্পানিগুলো বাহিরের দেশ থেকে আমদানি করতে হয়। বাংলাদেশে স্পিরুলিনার চাষ হলে আমদানি নির্ভরতা কমে যাবে। বেকার যুবকদেরও কর্মসংস্থান সুযোগ সৃষ্টি হবে।

Advertisement

তিনি আরও জানান, স্পিরুলিনা উৎপাদন করে প্রতি মাসে দেড় থেকে দুই লাখ টাকা আয় করা সম্ভব।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবুর রশিদ জানান, এই ৭ তরুণ উদ্যোক্তা স্পিরুলিনার উৎপাদন শুরু করায় উপজেলা জুড়ে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। এই প্রথম স্পিরুলিনা চাষ করায় অনেকেই এক নজর দেখার জন্য ছুটছেন ওই সাত তরুন উদ্যোক্তার পাশে। উপজেলা কৃষিবিভাগ  সবসময় ৭ তরুণ উদ্যোক্তার পাশে থাকবে।

মুনিয়া

Advertisement

রংপুর

গাইবান্ধায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

Published

on

শিশু

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। নিহত সাদিয়া আকতার (৭) মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের জগদীশপুর গ্রামের স্বাধীন মিয়ার মেয়ে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থী

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) দুপুরে উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের আরজি শাহপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। কোচাশহর ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, আজ দুপুরে বাড়ির উঠানে খেলা করছিল সাদিয়া। খেলতে খেলতে হঠাৎ করে বাড়ির পাশে অসাবধানতায় পানি ভর্তি একটি ডোবায় পড়ে যায়। স্থানীয়রা খোঁজাখুঁজির পর ডোবায় শিশুকে ভাসতে দেখেন। সেখান থেকে তারা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

রংপুর

ওয়াইফাই লাইনের সংযোগ দিতে গিয়ে প্রাণ গেল মিস্ত্রির

Published

on

ওয়াইফাই

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ওয়াইফাই সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে রাজু মিয়া (২৩) নামের এক মিস্ত্রির মৃত্যু হয়েছে। নিহত রাজু মিয়া উপজেলার চন্দ্রখানা এলাকার হযরত আলীর ছেলে।

মঙ্গলবার (২১ মে) দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার বিলুপ্ত দাসিয়ারছড়া ছিটমহল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

স্থানীয়রা জানান, নিহত রাজু মিয়া উপজেলার বিলুপ্ত দাসিয়ারছড়া ছিটমহল এলাকায় ওয়াইফাই লাইনের সংস্কার করতে যায়। পরে ওয়াইফাই লাইনের সংযোগ দিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটি থেকে নামার সময় ভুলবসত বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিহত হন।

ওসি প্রাণকৃষ্ণ জানান, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

রংপুর

বজ্রপাতে রানওয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সৈয়দপুরে বিমান ওঠানামায় বিঘ্ন

Published

on

বজ্রপাতে

বিমান ওঠানামার জন্য সৈয়দপুর বিমান বন্দর প্রস্তুত না থাকায় উড়োজাহাজ ওঠানামায় বিঘ্ন ঘটছে। সোমবার (২০ মে) সকাল ৮ টা থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে সৈয়দপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করতে পারেনি।

তবে সৈয়দপুর বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলা ও নভো এয়ারের দু’টি বিমান সৈয়দপুরে অবতরণ করেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ব্যবস্থাপক সুপ্লব কুমার ঘোষ।

তিনি জানান, গতকাল রোববার রাতে বজ্রপাতে বিমান বন্দরের নিরাপত্তা বলয়ের ভেতরে কিছু জায়গা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কর্তৃপক্ষ সেসব রাতের মধ্যে মেরামতও করেছে। কিন্তু মেরামত করা স্থানগুলো এখনো ভালভাবে না শুকানোয় বিমান ওঠানামা বিঘ্নিত হচ্ছে। তিনি জানান বেলা ২ নাগাদ সব স্বাভাবিক হয়ে যায়।

 

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত