Connect with us

রংপুর

পঞ্চগড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩, আহত ৭৭

Avatar of author

Published

on

পঞ্চগড়

পঞ্চগড়ের বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত ৭৭ জন। আহতদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন, তেতুঁলিয়া উপজেলার বড়গাছ এলাকার তমিজ উদ্দীন (৬০),  পিঠা খাওয়া এলাকার হাসিবুল ইসলাম (৩২) ও একই উপজেলার স্বপন আলী (২৫)।

আজ শনিবার (৪ মার্চ) বিকেলে বোদা উপজেলার চন্দনবাড়ি ও দেবীগঞ্জ উপজেলার লক্ষিরহাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  জামাল হোসন ও  বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুজয় কুমার রায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, আজ দুপুরে দেবীগঞ্জ উপজেলা শহর থেকে সাদ পন্থীদের তিনদিন ব্যাপী ইজতেমার আখেরী মোনাজাত শেষে বাস যোগে মুসল্লীরা বাসা ফিরছিলেন। এ সময় তারা দেবীগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীরহাট এলাকায় এলে একই দিক থেকে আসা একটি ট্রাক যাত্রীবাহী বাসটিকে ধাক্কা দেয়। এ সময় মহাসড়কের ধারে উল্টে পড়ে বাসটি। এসময় এক মুসল্লী নিহত ও ২৬ জন আহত হন।

পরে তাদের উদ্ধার করে দেবীগঞ্জ উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ৫ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন।

Advertisement

এদিকে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার চন্দনবাড়ি এলাকায় ইজতেমা থেকে ফেরার পথে যাত্রীবাহী বাসের চাকা ব্লাস্ট হয়ে দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৫১ জন। আহতদের উদ্ধার করে বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ১০ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন।

নজরুল ইসলাম

পঞ্চগড় প্রতিনিধি

৪.৩.২০২৩

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

দেশজুড়ে

পরকীয়ার জেরে প্রেমিকের হাতে দুই সন্তানের জননী খুন

Avatar of author

Published

on

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে পরকীয়া প্রেমের জেরে প্রেমিকের হাতে শাহনাজ পারভীন (২৫) নামে দুই সন্তানের জননী খুন হয়েছেন। নিহত শাহনাজ পারভীন দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের আব্দুল মজিদের স্ত্রী। এ ঘটনায় অভিযুক্ত রাজু পলাতক রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) সকালে দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের মতিয়ারপাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে বলে বায়ান্ন টিভিকে নিশ্চিত করেছেন দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে নিহত শাহনাজের স্বামী মজিদ গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন স্থানে কাজ করার সুবাদে ঢাকায় থাকতো। দুই বছর আগে প্রতিবেশী আইনুলের ছেলে রাজুর (২৭) সাথে পরকীয় প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে শাহনাজ। এক সময় কোন এক কারণে তাদের পরকীয়া প্রেম ভেঙ্গে যায়।

এদিকে ঈদের দিন  সকালে স্বামীসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা ঈদের নামাজ পড়তে ঈদগাহে গেলে। আগে থেকে  উৎপেতে থাকা রাজু শাহনাজের বাড়িতে যায়। এর মাঝে শাহনাজের বড় মেয়ের সামনে শোবার ঘরে ধারালো দেশী অস্ত্র (ছুরি) দিয়ে এলোপাতারি আঘাত করে গলা কেটে পালিয়ে যায়।

নিহতের মেয়ে মাইশা আক্তার জানান,তাঁর মাকে ছুরি দিয়ে মারে। সে চিৎকার দিলে দৌড়ে পালিয়ে যান রাজু।

Advertisement

এসময়ে  কান্না ও চিৎকারে স্থানিয়রা এগিয়ে এলে শাহনাজের গলাকাটা মরদেহ দেখতে পেয়ে থানা পুলিশ ও ইউনিয়ন পরিষদে খবর দেয়।

পুলিশ জানায়, ৮/৯ মাস আগে কিছুদিন অভিযুক্ত রাজু ও নিহত শাহনাজ নিখোঁজও ছিলেন। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। কিছুদিন পর বাড়ি ফিরলে প্রথমে স্বামী তাকে গ্রহণ করতে রাজি হননি। একপর্যায়ে দুজনে সমঝোতায় আবারও সংসার শুরু হয়।

গৃহবধূর স্বামী আব্দুল মজিদ বলেন, রাজুর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী মোবাইলে কথা বলতো। চলেও গেছিল রাজুর সঙ্গে। সন্তানদের দিকে চেয়ে শাহনাজকে  নিয়ে ঢাকায় চলে যান। রাজু দীর্ঘদিন ধরেই তাকে হুমকি দিয়ে আসছিলো, যে তাকে ও শাহনাজের সঙ্গে সংসার করতে দিবে না।

দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম জানান, মরদেহের পাশ থেকে একটি রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য  মরদেহ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পলাকত রাজুকে আটকের চেষ্টা চলছে।

প্রসঙ্গত, ভুক্তভোগী দম্পত্তির ৬ বছরের একটি মেয়ে ও একটি ৪ মাস বয়সী ছেলে সন্তান রয়েছে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

রংপুর

দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত গোর-এ-শহীদ ময়দানে

Avatar of author

Published

on

সর্ববৃহৎ-ঈদ-জামাত-অনুষ্ঠিত-দিনাজপুরে

দিনাজপুরের ঐতিহাসিক গোর-এ-শহীদ ঈদগাহ ময়দানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ঈদের নামাজ পড়তে আসেন লাখ লাখ মানুষ। ঈদের জামাতকে ঘিরে এখানে সৌহার্দ্যের পরিবেশের সৃষ্টি হয়। পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেছেন ৬ লাখ মুসল্লি।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) সকাল ৯টায় লাখ লাখ মুসল্লির অংশগ্রহণে ঈদের এ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন মাওলানা শামসুল আলম কাশেমী। নামাজ শেষে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

এ দিকে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নামাজ আদায় করতে পেরে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা মুসল্লিরা।

জানা যায়, বৃহৎ এ জামাতকে ঘিরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ছিল কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা। সিসিটিভি ক্যামেরার পাশাপাশি ছিল কঠোর গোয়েন্দা নজরদারি। মাঠের আশপাশে র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরাও তৎপর ছিলেন।

নামাজে অংশ নেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হুইপ ইকবালুর রহিম ও প্রধান বিচারপতি (ভারপ্রাপ্ত) এনায়েতুর রহিম, জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ, পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমেদ, দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) তৌয়বুল আলম দুলাল, দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফুজ্জামান মিতাসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সর্বস্তরের জনগণ।

Advertisement

নামাজ শেষে ঈদগাহ মাঠের সমন্বয়ক, পৃষ্ঠপোষক ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, আয়তনের দিক দিয়ে এটি উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় ঈদগাহ মাঠ। এর আয়তন প্রায় ২২ একর। এবার দিনাজপুর জেলাসহ পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলার প্রায় ছয় লাখ মুসল্লি এখানে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্থায়নে এ মাঠের সুন্দর মিনারটি নির্মিত হয়েছে। ভবিষ্যতে এটিকে আরও সুন্দর করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ঈদের নামাজের আগে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) তৌয়বুল আলম দুলাল, পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমে, জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম।

বিভিন্ন স্থান থেকে বড় বড় ঈদগাহ মাঠের চিত্র নিয়ে এসে এ মাঠের নির্মাণ পরিকল্পনা করা হয়। সর্বপ্রথম মাঠের পশ্চিম প্রান্তে গত ২০১৫ সালে এ ঈদগাহ মাঠের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। প্রায় দেড় বছর পর এটি নামাজের জন্য পুরো প্রস্তুত করা হয়। এ ঈদগাহে রয়েছে ৫২টি গম্বুজের দুই ধারে ৬০ ফুট করে দু’টি মিনার, এর মধ্যের দুটি মিনার ৫০ ফুট করে এবং প্রধান মিনারের উচ্চতা ৫৫ ফুট। এসব মিনার আর গম্বুজের প্রস্থ হলো ৫১৬ ফুট। দেশের বড় ঐতিহাসিক গোর-এ শহীদ ময়দানের পশ্চিম দিকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এ ঈদগাহ মিনারটি। প্রত্যেকটি গম্বুজে দেওয়া হয়েছে বৈদ্যুতিক বাতি সংযোগ। ৫২টি গম্বুজ ২০ ফুট উচ্চতায় স্থাপন করা হয়েছে। গেট দুটির উচ্চতা ৩০ ফুট নির্মাণে নান্দনিক স্থাপনা দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।

উল্লেখ্য, আগে দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হতো কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায়। এখন দিনাজপুরেও ৫২ গম্বুজের ঈদগাহ মাঠে সবচেয়ে বড় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

Advertisement

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

দেশজুড়ে

কুড়িগ্রামের ৪ গ্রামে উদযাপিত হচ্ছে ঈদ

Avatar of author

Published

on

কুড়িগ্রামের রৌমারী, রাজীবপুর ও ভূরুঙ্গামারী উপজেলার ৪টি গ্রামে সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে পবিত্র ঈদুল ফিতরের ঈদের জামাত আদায় করেছেন মুসল্লীরা। আলাদা আলাদা ঈদ জামাতে প্রায় পাঁচ শতাধিক মুসল্লীর অংশগ্রহণ করেন।

বুধবার (১০ এপ্রিল) সকালে রৌমারী উপজেলার শৈলমারী ইউনিয়নের গয়টা পাড়া গ্রাম, রাজিবপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ব করাতি পাড়া গ্রাম ও ভুরুঙ্গামারী উপজেলার পাইকের ছড়া ইউনিয়ন পাইকডাঙ্গা ও পাইকের ছড়া গ্রামে এ ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। বিষয়টি বায়ান্ন টিভিকে নিশ্চিত করেছেন কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার আল আসাদ মোহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম।

ঈদের নামাজ আদায় করতে আসা গয়টা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ আব্দুল মোত্তালেব জানান,তাঁরা প্রায় ৫ বছর ধরে সৌদি আরব ও মধ্য প্রাচ্যের দেশগুলোর  সাথে মিল রেখে রমজানের রোজা রাখা, ঈদের নামাজ আদায় ও ঈদ উৎসব পালন করে আসছেন।

ভূরুঙ্গামারী উপজেলার পাইকের ছড়া পাইকডাঙ্গা গ্রামের মোঃ সবুর আলী বলেন, বেশ কয়েক বছর ধরে সৌদির সাথে মিল রেখে এ ইউনিয়নের দুটি গ্রামের মানুষ আমরা রমজান ও ঈদ পালন করে আসছেন। আনন্দ উদ্দীপনার সাথে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। সারা মাস রোজা রেখে ঈদের নামাজ আদায় করে খুবই ভালো লাগছে তাদের।

কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার আল আসাদ মোহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম বলেন, জেলা পুলিশের  নিরাপত্তায় পূর্ণ উৎসব মুখর পরিবেশে কুড়িগ্রামের ৪ টি গ্রামে ঈদের  জামাত অনুষ্ঠিত হয়।নাগরিক সেবায় জেলা পুলিশ সব সময় নিবেদিত আছে।জেলায় আইন শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বজায় ও শান্তিপূর্ণভাবে ঈদ উদযাপনে পুলিশ সব সময় কাজ করছে বলে জানান তিনি।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

ক্রিকেট1 hour ago

পা ভাঙ্গার ভয়ে ২-৩ বছর বুমরাহ’র বল খেলেননি সূর্যকুমার!

‘জাসপ্রিত বুমরাহকে নিজেদের দলে পাওয়া সবসময়ই দারুণ। আর গত দুই-তিন বছরে নেটে কখনই আমি তার বল মোকাবিলা করিনি। কারণ সে...

ফায়ার-সার্ভিস ফায়ার-সার্ভিস
জাতীয়2 hours ago

নিয়ন্ত্রণে এসেছে বাড্ডার আগুন

নিয়ন্ত্রণে এসেছে রাজধানীর বাড্ডার সাঁতারকুল ইয়াসিন নগরে গ্যারেজে লাগা আগুন। ফায়ার সার্ভিসের আধা ঘণ্টার চেষ্টায় শুক্রবার (১২ এপ্রিল) দুপুর পৌনে...

আগুন আগুন
দুর্ঘটনা3 hours ago

এবার বাড্ডায় আগুন

রাজধানীর বাড্ডায় একটি গ্যারেজে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এর...

আগুন আগুন
দুর্ঘটনা5 hours ago

হাজারীবাগে বস্তিতে আগুন

রাজধানীর হাজারীবাগ বেড়িবাঁধ এলাকায় একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিট। শুক্রবার (১২ এপ্রিল)...

বার্ণ ইউনিট বার্ণ ইউনিট
দুর্ঘটনা6 hours ago

গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নারী-শিশুসহ দগ্ধ ৬

রাজধানীর মিরপুরের ভাসানটেকে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নারী-শিশুসহ ৬ জন দগ্ধ হয়েছেন। দগ্ধরা হলেন, মেহরুন্নেছা (৬৫), সূর্য বানু (৩০), লিজা(১৮), লামিয়া...

আগুন আগুন
দুর্ঘটনা6 hours ago

এস আলমের অয়েল মিলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৪ ইউনিট

চট্টগ্রামে মইজ্জারটেক এলাকায় অবস্থিত এস আলম এডিবল অয়েল মিলে আগুন লেগেছে। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকাল ৮টা ২০ মিনিটের দিকে আগুনের...

জাতীয়19 hours ago

সম্প্রীতির বন্ধনকে যেন আরও দৃঢ় করতে পারি :পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা আমাদের দেশে যে সম্প্রীতি আছে, সেই সম্প্রীতির বন্ধনকে যেন আরও দৃঢ় করতে পারি। একই সঙ্গে আমাদের...

দুর্ঘটনা20 hours ago

ঈদের দিন মোটরসাইকেল কেড়ে নিলো ৮ প্রাণ

ঈদের আনন্দে মোটর সাইকেল নিয়ে ঘুরতে বেড়িয়ে সড়কে প্রাণ গেলো ৮ জনের। পঞ্চগড়, নেত্রকোনা, ও খাগড়াছড়ি জেলায়  মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার নিহতের...

দেশজুড়ে22 hours ago

ঈদে বিজিবি-বিএসএফ মিষ্টি বিনিময়

পবিত্র ঈদুল ফিতরের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে দিনাজপুরের হিলি সীমান্তে বিজিবি ও ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ) একে অপরকে মিষ্টি উপহার...

গণভবনে-প্রধানমন্ত্রী গণভবনে-প্রধানমন্ত্রী
জাতীয়1 day ago

আওয়ামী লীগ নিতে নয় জনগণকে দিতে এসেছে: প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ নিতে আসেনি মানুষকে দিতে এসেছে। তাদের জন্য অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থানের ব্যবস্থা করা আওয়ামী লীগের অঙ্গীকার। বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ...

Advertisement
সৌদি আরব
আন্তর্জাতিক5 days ago

সৌদি আরবে ঈদ কবে- যা জানা গেলো

জনদুর্ভোগ5 days ago

ঢাকাকে আলোকিত করতে গ্রামের বিদ্যুৎ ছিনিয়ে নেয়া হচ্ছে

সৌদি আরব
আন্তর্জাতিক4 days ago

সৌদিতে ঈদ বুধবার

আন্তর্জাতিক2 days ago

বিড়াল বাঁচাতে গিয়ে একই পরিবারের ৫ জন নিহত

সেনাবাহিনী প্রধান
বাংলাদেশ5 days ago

বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দমনে কম্বিং অপারেশন শুরু: সেনাপ্রধান

টুকিটাকি6 days ago

মহাকাশে তারার বিস্ফোরণ, জীবনে দেখা যাবে একবারই

আন্তর্জাতিক4 days ago

ঈদের তারিখ জানালো অস্ট্রেলিয়া

বিএনপি4 days ago

ব্যারিস্টার খোকনকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত পাঠানো হয়েছে লন্ডনে

টলিউড7 days ago

যৌন জীবন নিয়ে খোলামেলা যা বললেন শ্রীলেখা

আন্তর্জাতিক5 days ago

৬ মাসে হামাসকে কতটুকু ধ্বংস করতে পেরেছে ইসরায়েল

প্রধানমন্ত্রী-শেখ-হাসিনা
জাতীয়2 weeks ago

গায়ের চাদর না পুড়িয়ে বউদের ভারতীয় শাড়ি পোড়ান: প্রধানমন্ত্রী

ফুটবল3 weeks ago

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোচ জানালেন এটা মাত্র শুরু

টুকিটাকি3 weeks ago

জিলাপির প্যাঁচে লুকিয়ে আছে যে রহস্য!

অর্থনীতি4 weeks ago

বাজারে লেবুর সরবরাহ বেশি, তবুও দাম চড়া

রেশমা
বাংলাদেশ1 month ago

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর ঠিকানা খুঁজছে পুলিশ

হলিউড1 month ago

নীল দুনিয়ায় অভিনেত্রী সোফিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু

ফুটবল1 month ago

জামালকে ঠিকঠাক বেতন দেয়নি আর্জেন্টাইন ক্লাব

টুকিটাকি1 month ago

রণবীরের ‘অ্যানিম্যাল’ দেখে শখ, মাইনাস ২৫ ডিগ্রিতে বসলো বিয়ের আসর

অর্থনীতি1 month ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 months ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

সর্বাধিক পঠিত