Connect with us

এশিয়া

জীবনযাত্রার ব্যয় বৃদ্ধির প্রতিবাদে শ্রীলঙ্কায় ধর্মঘট

Avatar of author

Published

on

ক্রমবর্ধমান জীবনযাত্রার ব্যয় এবং কর বৃদ্ধির জন্য শ্রীলঙ্কায় চলছে ধর্মঘট। দেশের বন্দর, হাসপাতাল, স্কুল ও রেলওয়ের সরকারি কর্মচারীসহ ৪০টিরও বেশি শ্রমিক সংগঠনের হাজার হাজার কর্মী এই ধর্মঘটে অংশ নেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ধর্মঘটের কারণে গেলো বুধবার (১৫ মার্চ) বন্দরের হাসপাতাল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালতের কার্যক্রম বন্ধ ছিল। রেল যোগাযোগ মারাত্মকভাবে বিপর্যস্ত। ঋণ গ্রহণের সিদ্ধান্ত বাতিল না হলে ধর্মঘটসহ কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা।

অর্থনৈতিক অচলাবস্থায় থাকা শ্রীলঙ্কা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছ থেকে ঋণ পাওয়ার শর্ত পূরণের জন্য বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যার মধ্যে অতিরিক্ত কর আরোপ করা এবং সরকারি খরচ কমানো রয়েছে। এ নিয়ে শুরু থেকেই জনগণের তোপের মুখে ছিলেন প্রেসিডেন্ট রণিল বিক্রমাসিংহে।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা বন্ধ থাকায় অনেক রোগী বাড়ি ফিরেছেন। ট্রেন চালকরাও ধর্মঘটে অংশ নেন এবং রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। বিমানবন্দরে কিছু আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের সময়সূচীও ব্যাহত হয়েছে।

রয়টার্স জানায়, ধর্মঘটে সরকারের নিষেধাজ্ঞার কারণে বুধবার সকাল থেকে কলম্বোর রেলস্টেশন, বন্দর ও সরকারি অফিসসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে নিরাপত্তা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়। কোথাও কোথাও হরতালকারীদের মিছিলে পুলিশ বাধা দেয়। তবে কোনো সংঘর্ষের খবর পাওয়া যায়নি।

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

এশিয়া

গাজায় ইসরায়েলি হামলা, নিহত ১৮

Avatar of author

Published

on

ফিলিস্তিনের গাজায় হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েল। ভূখণ্ডটির একটি শরণার্থী শিবির ও আবাসিক বাড়িতে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় ১৮ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মধ্যগাজার মাগাজি শরণার্থী শিবিরে ১১ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া রাফাহতে আবাসিক বাড়িতে হামলায় নিহত হয়েছেন সাতজন।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরার দেয়া প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদন বলছে, মধ্য গাজার মাগাজি শরণার্থী শিবিরে ইসরায়েলি হামলায় ১১ জন নিহত হয়েছেন বলে ফিলিস্তিনের সরকারি বার্তাসংস্থা ওয়াফা জানিয়েছে। নিহতদের অধিকাংশই শিশু। এছাড়া এই হামলায় আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, মাগাজি শরণার্থী শিবিরটি ঘনবসতিপূর্ণ এবং ইসরায়েল গাজায় আক্রমণ শুরু করার পরে ভূখণ্ডটির উত্তরে হাজার হাজার পরিবার তাদের বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হওয়ার পরে এই শিবির আরও ঘনবসতিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

এছাড়া গাজার রাফাহ শহরের একটি বাড়িতে পৃথক ইসরায়েলি হামলায় আরও সাতজন নিহত হয়েছেন।

Advertisement

গেলো বছরের ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলের নজিরবিহীন হামলা চালায়। হামাসের যোদ্ধাদের আক্রমণে ১২০০ জন নিহত হয় ও তারা ২৫৩ জনকে ধরে গাজায় নিয়ে জিম্মি করে বলে ভাষ্য ইসরায়েলের।

অক্টোবরের ওই দিন থেকেই গাজায় ব্যাপক হামলা শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। তারা হামাসের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক যুদ্ধ ঘোষণা করে ফিলিস্তিনি গোষ্ঠীটিকে নির্মূল করার প্রত্যয় জানায়। সবদিক থেকে গাজা অবরোধ করে ভূখণ্ডটির বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয়।

তারপর থেকে গত ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে ইসরায়েলির বাহিনীর স্থল, আকাশ ও নৌ হামলায় ফিলিস্তিনি ছিটমহল গাজা ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। ঘরবাড়ি হারিয়ে গাজার ২৩ লাখ বাসিন্দার প্রায় সবাই উদ্বাস্তু হয়ে গেছে।

ইসরায়েলের টানা ৪৭ দিনের হামলার পর গত বছরের ২৪ নভেম্বর প্রথম দফায় চার দিনের যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়। এ যুদ্ধবিরতিতে মধ্যস্থতা করে কাতার, মিসর ও যুক্তরাষ্ট্র। এরপর দুই দফায় মোট তিন দিন বাড়ানো হয় যুদ্ধবিরতির মেয়াদ। সাত দিনের যুদ্ধবিরতি শেষ হতে না হতেই আবারও গাজায় আবার হামলা শুরু করে ইসরায়েল। এর পাশাপাশি স্থল অভিযানও চালানো হচ্ছে।

ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত ফিলিস্তিনিদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই ২৪ হাজারের বেশি। গাজায় ইসরায়েলি হামলার মুখোমুখি হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ৭৩ শতাংশই নারী ও শিশু। এছাড়া গাজায় ১৭ হাজার শিশু তাদের পিতামাতা বা উভয়ের যেকোনও একজন ছাড়াই বসবাস করছে।

Advertisement

কঠোর অবরোধ ও অবিরাম হামলার মধ্যে থাকা গাজাবাসীরা অনাহারে ভুগতে ভুগতে দুর্ভিক্ষের প্রান্তে চলে গেছে। ইতোমধ্যেই অপুষ্টি ও পানিশূন্যতায় শিশুসহ অনেকের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষুধায় বেপরোয়া হয়ে ওঠা লোকজন ত্রাণের জন্য হাহাকার করছে।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

এশিয়া

ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউয়ের নতুন নিষেধাজ্ঞার আভাস

Avatar of author

Published

on

ইসরায়েলের ওপর ইরান হামলার পর নতুন করে দেশটিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপের দিকে নজর দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ইসরায়েল অবশ্য আগেই ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপে মিত্রদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলেছে- সপ্তাহান্তে ইসরায়েলের ওপর ইরানের হামলার পর তারা এখন ইরানের বিরুদ্ধে আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপের দিকে নজর দিচ্ছে।

ইউএস ট্রেজারি সেক্রেটারি জ্যানেট ইয়েলেন বলেছেন, তিনি আগামী দিনগুলিতে পদক্ষেপ নেবেন বলে আশা করছেন। অন্যদিকে ইইউ পররাষ্ট্র নীতির প্রধান জোসেপ বোরেল বলেছেন, তারা এটি নিয়ে কাজ করছেন।

ইসরায়েল তার মিত্রদের প্রতি তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। এই কর্মসূচির ওপর জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ অক্টোবরে শেষ হয়েছে।

Advertisement

নিষেধাজ্ঞাগুলি ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি সীমিত করার জন্য একটি বিস্তৃত চুক্তির সঙ্গে যুক্ত ছিল।

তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইইউ এবং যুক্তরাজ্যসহ বেশ কয়েকটি দেশ নিষেধাজ্ঞা বজায় রেখেছে এবং নতুন যুক্ত করেছে।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল হারজি হালেভি বলেছেন, ইরানের হামলার জবাব দেয়া হবে না।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) ইসরায়েলে ইরানের প্রথম সরাসরি হামলায় ইরান, ইরাক, সিরিয়া এবং ইয়েমেন থেকে ৩০০টিরও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন নিক্ষেপ করা হয়। তবে এসবের বেশিরভাগই ইসরায়েল এবং তার মিত্ররা ধ্বংস করেছে বলে দাবি করেছে।

তেহরান বলেছে, হামলাটি ১ এপ্রিল সিরিয়াতে তার কনস্যুলেটে ইসরায়েলি বিমান হামলার প্রতিশোধ ছিল, যাতে ১৩ জন নিহত হয়েছিল।

Advertisement

ইসরায়েল এখন পর্যন্ত শুধুমাত্র কূটনৈতিক জবাব দিয়েছে বলে মনে হচ্ছে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ৩০টিরও বেশি দেশকে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন।

ইরানের প্রধান সামরিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক শক্তি ইসলামি বিপ্লবী গার্ড কর্পস (আইআরজিসি)-কে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে মনোনীত করার আহ্বানও জানিয়েছেন, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যেই করেছে কিন্তু যুক্তরাজ্য তা করেনি।

মঙ্গলবার বক্তৃতাকালে মার্কিন ট্রেজারি সেক্রেটারি ইয়েলেন বলেছেন, ‘নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে আমি পুরোপুরি আশা করি যে আমরা আগামী দিনে ইরানের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত নিষেধাজ্ঞার ব্যবস্থা নেব।’

‘আমরা আমাদের নিষেধাজ্ঞার প্রাক-প্রচার পরীক্ষা দেখি না। তবে আমার আলোচনায় ইরানের সন্ত্রাসী অর্থায়ন ব্যাহত করার সমস্ত বিকল্প টেবিলে রয়েছে।’ বলেন তিনি।

ইয়েলেন বলেন, ‘ইরানের তেল রপ্তানি ছিল একটি সম্ভাব্য ক্ষেত্র যা আমরা মোকাবেলা করতে পারি। স্পষ্টতই, ইরান কিছু তেল রপ্তানি চালিয়ে যাচ্ছে।’

Advertisement

ইয়েলেন বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যেই ইরানকে বিচ্ছিন্ন করার জন্য অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাগুলো ব্যবহার করছে এবং প্রক্সি গোষ্ঠীকে অর্থায়ন করার এবং ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধকে সমর্থন করার ক্ষমতাকে ব্যাহত করছে।’

পরে মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান পরে বলেন, নতুন নিষেধাজ্ঞাগুলো ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন প্রোগ্রামসহ এর পাশাপাশি বিপ্লবী গার্ড এবং ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে লক্ষ্যবস্তু করবে।

“আমরা আশা করি যে আমাদের মিত্র এবং অংশীদাররা শীঘ্রই তাদের নিজস্ব নিষেধাজ্ঞাগুলো অনুসরণ করবে,” তিনি যোগ করেন।

ইইউর শীর্ষ কূটনীতিক বোরেল বলেছেন, কিছু সদস্য দেশ ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরো বাড়ানোর জন্য বলেছে।

তিনি বলেন, নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কিত প্রয়োজনীয় কাজ শুরু করার জন্য ইইউ এর কূটনৈতিক পরিষেবার কাছে একটি অনুরোধ পাঠাবেন তিনি।

Advertisement

ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাটজ এক্স-এ একটি পোস্টে নিষেধাজ্ঞা গ্রহণের দিকে ইতিবাচক প্রবণতাকে স্বাগত জানিয়েছেন।

সর্বশেষ হামলার পর মধ্যপ্রাচ্যে বড় ধরনের উত্তেজনা এড়াতে বিশ্বনেতারা সংযমের আহ্বান জানিয়েছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, যিনি বারবার ইসরায়েলের প্রতি তার সমর্থনকে ‘লৌহবর্ম’ বলে ঘোষণা করেছেন, বলেছেন তিনি বিশ্বাস করেন যে এই পর্বে ইসরায়েলের বিজয় ঘোষণা করা উচিত এবং জয় নেওয়া উচিত।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একটি ফোন কলে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে এর প্রতিক্রিয়ায় আরও উত্তেজনার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছেন।

‘তিনি জোর দেন যে উল্লেখযোগ্য উত্তেজনা কারও স্বার্থে নয় এবং এটি মধ্যপ্রাচ্যে নিরাপত্তাহীনতাকে আরও গভীর করবে,’ ডাউনিং স্ট্রিটের একজন মুখপাত্র বলেছেন।

Advertisement

বিশ্বের সাতটি ধনী দেশের জি-৭ গ্রুপ এখন কূটনৈতিক প্রতিক্রিয়া সমন্বয় করছে।

ইরানের মিত্র রাশিয়াও সংযমের আহ্বান জানিয়েছে। মঙ্গলবার ভ্লাদিমির পুতিন এবং ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসির মধ্যে একটি ফোন কলের পরে ক্রেমলিন এ কথা বলেছে।

টিআর/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

মুক্তিপণ আদায়ের পর আট সোমালিয়ান জলদস্যু আটক

Avatar of author

Published

on

ফাইল ছবি

বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ থেকে মুক্তপণ আদায়ের পর আট জলদস্যুকে গ্রেপ্তার করেছে সোমালিয় পুলিশ। তবে এসময় তাদের থেকে মুক্তিপণ এর টাকা উদ্ধার করা গিয়েছে কিনা সেটি নিশ্চিত করতে পারেনি প্রশাসন।

রোববার (১৪ এপ্রিল) দেশটির পূর্ব উপকূল পান্টল্যান্ড থেকে এসব জলদস্যুদের আটক করা হয় বলে জানিয়েছে সোমালিয় সংবাদ মাধ্যম গারুই অনলাইন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জিম্মি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে ছেড়ে দেয়ার পরেই তাঁদের আটক করা হয়। বিগত তিনমাস ধরে সোমালিয় সরকার জলদস্যুদের নিয়ে বেশ বিপাকে রয়েছে। জলদস্যুরা আল-শাবাব জঙ্গি সংগঠনের সাথে যোগ দেয়ায় পর আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

পান্টল্যান্ড পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, তারা এমভি আবদুল্লাহ হাইজ্যাকের সাথে জড়িত ৮ জলদস্যুকে আটক করেছেন। তবে তাঁদের কাছ থেকে মুক্তিপণের টাকা উদ্ধার হয়েছে কি না সেটি তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আর এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, টাকার বিনিময়ে জিম্মি মুক্তি দেয়ার চর্চা চালু হলে এটি  জলদস্যুতাকে আরও উৎসাহিত করবে। পান্টল্যান্ড উপকূল বেশ কিছুদিন ধরেই জলদস্যুদের বিচরণ ক্ষেত্র হয়ে উঠছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, পান্টল্যান্ড মেরিন পুলিশ সোমালিয়ার বিদেশী মিত্রদের সহায়তায় সোমালিয় উপকূলে জলদস্যুতা নির্মূল করতে তাঁদের নজরদারি জোরদার করেছে। মূলত এ অঞ্চলে কতৃত্ব জোরদার করতেই মিত্রদের সঙ্গে নিয়ে নিরাপত্তা জোরদার করছে সোমালিয় সরকার।

Advertisement

প্রসঙ্গত, এর আগে সোমালিয়ার গণমাধ্যম ৫ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে জাহাজসহ ২৩ বাংলাদেশি নাবিককে মুক্তির কথা জানায়। যদিও মুক্তিপণের বিষয়ে চুক্তি অনুযায়ী কিছুই জানায় নি এমভি আব্দুল্লাহর  মালিক এসআর শিপিং।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

জাতীয়16 mins ago

তৃতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

তৃতীয় ধাপের ১১২টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এসব উপজেলা পরিষদে আগামী ২৯ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত...

জনদুর্ভোগ27 mins ago

জলাবদ্ধতা নিরসনে নতুন প্রকল্প ডিএসসিসির

আশা করি এবার আর জলাবদ্ধতা থাকবে না। নিউমার্কেট এলাকার জন্য নতুন প্রকল্প নিয়েছি। নিউমার্কেট এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে নতুন প্রকল্প গ্রহণ...

দুর্ঘটনা2 hours ago

ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ১২

ঝালকাঠিতে ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে ১২ নিহত হয়েছেন। সিমেন্টবাহী ওই ট্রাকের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কয়েকটি গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে চলে যায়।...

জাতীয়3 hours ago

তেজগাঁওয়ে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

জামালপুরের তারাকান্দি থেকে ছেড়ে আসা ঢাকা অভিমুখী যমুনা এক্সপ্রেসের একটি ট্রেন রাজধানীর তেজগাঁওয়ে লাইনচ্যুতের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উদ্ধার কার্যক্রম...

দুর্ঘটনা4 hours ago

ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ১১

ঝালকাঠিতে ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে ১১ নিহত হয়েছেন। সিমেন্টবাহী ওই ট্রাকের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কয়েকটি গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে চলে যায়।...

অপরাধ4 hours ago

মাদক মামলায় বদির দুই ভাইয়ের সম্পৃক্ততা আছে: সিআইডি

মাদক মামলার মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত বিষয়ে তদন্ত করতে গিয়ে টেকনাফের সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদির দুই ভাই আমিনুর রহমান ও আব্দুর...

জাতীয়4 hours ago

৮ হাজার ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল: মন্ত্রী

ইতিমধ্যে ৮ হাজার ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া কেউ যদি ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের সুনির্দিষ্ট তথ্য দিতে পারে তাহলে সেই...

মাদকবিরোধী মাদকবিরোধী
অপরাধ6 hours ago

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ১২  

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ। অভিযানে মাদক বিক্রি ও...

বিজিপি-সদস্য বিজিপি-সদস্য
জাতীয়7 hours ago

আরও ৪৬ বিজিপি সদস্য প্রবেশ করেছে বাংলাদেশে

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) আরও ৪৬ জন সদস্য। এ...

অর্থমন্ত্রী-আবুল-হাসান-মাহমুদ-আলী অর্থমন্ত্রী-আবুল-হাসান-মাহমুদ-আলী
জাতীয়8 hours ago

অর্থনৈতিক সংকট থেকে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ : অর্থমন্ত্রী

অর্থনৈতিক সংকট থেকে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। বলেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে ওয়ার্ল্ড...

Advertisement
আন্তর্জাতিক7 days ago

বিড়াল বাঁচাতে গিয়ে একই পরিবারের ৫ জন নিহত

বাংলাদেশ4 days ago

ইসরাইল থেকে সরাসরি ঢাকায় বিমানের অবতরণ- যা জানা গেলো

ডাকসুর-সাবেক-ভিপি-নুরুল-হক
আইন-বিচার2 days ago

নুরের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

সৌদি-পতাকা
আন্তর্জাতিক5 hours ago

ইরান-ইসরায়েল প্রসঙ্গে অবস্থান স্পষ্ট করলো সৌদি

ফায়ার-সার্ভিস
জাতীয়5 days ago

নিয়ন্ত্রণে এসেছে বাড্ডার আগুন

দেশজুড়ে4 days ago

যুবকের পায়ুপথ থেকে বের করা হলো ৬ ইঞ্চি ডাব

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: ভূমধ্যসাগরে ঢুকলো রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইরানে পাল্টা হামলার বিষয়ে যা জানালো বাইডেন

বাংলাদেশ7 days ago

যাত্রীদের মারধরে নয়, চালক-কন্ডাক্টরের মৃত্যু হয় যেভাবে

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: প্রতিক্রিয়া জানালো ভারত ও চীন

প্রধানমন্ত্রী-শেখ-হাসিনা
জাতীয়3 weeks ago

গায়ের চাদর না পুড়িয়ে বউদের ভারতীয় শাড়ি পোড়ান: প্রধানমন্ত্রী

ফুটবল3 weeks ago

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোচ জানালেন এটা মাত্র শুরু

টুকিটাকি4 weeks ago

জিলাপির প্যাঁচে লুকিয়ে আছে যে রহস্য!

অর্থনীতি1 month ago

বাজারে লেবুর সরবরাহ বেশি, তবুও দাম চড়া

রেশমা
বাংলাদেশ1 month ago

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর ঠিকানা খুঁজছে পুলিশ

হলিউড1 month ago

নীল দুনিয়ায় অভিনেত্রী সোফিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু

ফুটবল1 month ago

জামালকে ঠিকঠাক বেতন দেয়নি আর্জেন্টাইন ক্লাব

টুকিটাকি2 months ago

রণবীরের ‘অ্যানিম্যাল’ দেখে শখ, মাইনাস ২৫ ডিগ্রিতে বসলো বিয়ের আসর

অর্থনীতি2 months ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 months ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

সর্বাধিক পঠিত