Connect with us

বলিউড

সন্তান কেমন হবে জানালেন সানা খান

Avatar of author

Published

on

সানা খান

বলিউডে যখন ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা বাড়ছিল তার ঠিক সেই সময় ছেড়ে দিয়েছিলেন সিনে দুনিয়া। কারণ হিসেবে তিনি বলেছিলেন ইসলামে সমর্পণ করতে চান নিজেকে। বলিউডে টিকে থাকার জন্য যখন তারকারা নিজেকে উজাড় করে দিন-রাত পরিশ্রম করেন, সেখানে দীর্ঘ দিনের বলিউডের গোছানো ক্যারিয়ারকে বিদায় জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী সানা খান।

সানা খান

 

এরপর ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে সবাইকে চমকে দিয়ে বলিউডকে বিদায় জানিয়েছিলেন এ অভিনেত্রী। বলিউড ছেড়ে ইসলাম গ্রহণের পর গুজরাটের ব্যবসায়ী মুফতি আনাসকে বিয়ে করেন। সানার স্বামী মৌলবী এবং ইসলাম ধর্মের গবেষক। বিয়ের পরই ছেড়েছেন নায়িকাচিত হাবভাব। ধারণ করেন হিজাব। সেই নিয়ে কম হইচই হয়নি।

এবার দিন কয়েক আগেই সানা ঘোষণা করেন তিনি সন্তানসম্ভবা। ইকরা টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি যে সন্তানসম্ভবা জানিয়েছেন সানা। তবে এ বার সানা জানালেন হবু সন্তান কেমন হবে?

সানা খান

এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেন, ‘‘আমি চাই আমার সন্তান আলিম হোক।’’ ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী আলিম মানে যে বুদ্ধিমান ও জ্ঞানী। ওই সাক্ষাৎকারে সানা বলেছেন, ‘‘এটা একেবারেই আলাদা একটা অভিজ্ঞতা। খুবই আবেগপ্রবণ লাগছে। খুবই সুন্দর মুহূর্ত। দু’হাতে আমার সন্তানকে নেওয়ার জন্য মুখিয়ে আছি।’’

Advertisement

২০০৫ সালে কম বাজেটের ছবি ‘ইয়ে হ্যায় হাই সোসাইটি’ দিয়ে বলিউডে অভিনয়ে হাতেখড়ি হয় সানার। সেই সময় একাধিক বিজ্ঞাপনেও দেখা যায় সানাকে। হিন্দি ছাড়াও তামিল, তেলুগু-সহ মোট ৫টি ভাষার ছবিতে কাজ করেছেন সানা। সব মিলিয়ে তাঁর ঝুলিতে রয়েছে ১৪টি ছবি। ৫০টিরও বেশি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন সানা। তবে এই মুহূ্র্তে জীবনের অধ্যায় শুরু করতে চলেছেন অভিনেত্রী।

 

Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

বলিউড

মেয়েকে সাজাতেও অনুমতি নিতে হয় আলিয়ার

Published

on

রণবীর,-আলিয়া,-রাহা

রণলিয়ার মেয়ে রাহা, দেড় বছর বয়স হয়ে গিয়েছে তার। সংবাদমাধ্যমে প্রায়ই তাকে দেখা যায় বাবা-মায়ের সঙ্গে। কিন্তু রাহার এই প্রকাশ্য উপস্থিতি নিয়ে বিশেষ ভাবনাচিন্তা থাকে বাবা রণবীর কাপূরের। এমনই জানিয়েছেন রাহার মা আলিয়া ভট্ট।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে আলিয়া জানিয়েছেন, মেয়ে কবে কোন জামা পরবে, সেটা ঠিক করে দেন স্বয়ং রণবীর। তবে শুধু এটুকুই নয়। আলিয়া বলেছেন, “রোজই আমি গিয়ে জিজ্ঞেস করি, রাহা আজ কী পরবে? তারপর রণবীর আসে, তন্ন তন্ন করে খুঁজে বার করে কোথায় কী রয়েছে। আর এসব কাজ রণবীর খুব ভাল ভাবে করে। সকলে হয়তো ভাবেন, আমি রাহার পোশাক বেছে দিই, একেবারেই না। বরং আমি রণবীরের উপর দায়িত্ব দিয়ে খুব নিশ্চিন্ত।”

শুধু তা-ই নয়, এক সাক্ষাৎকারে আলিয়া জানিয়েছেন, রণবীর সব সময় রাহার মনোরঞ্জন করে চলেন। রাহাও বাবার সঙ্গ দারুণ উপভোগ করে। পরস্পরের মুখে হাসি ফোটাতে ওস্তাদ রাহা-রণবীর। নিজেরা নিজেদের মধ্যে কী সব মজার মজার কথা বলে আর হাসিতে ফেটে পড়ে।

তা হলে আলিয়া কি কিছুই করেন না? অভিনেত্রী বলেছেন, “আমি ওকে খাওয়াই, ঘুম পাড়িয়ে দিই, ওর যত্ন করি। এগুলি করতেই আমি পারি। এতেই আমি খুশি। রণবীরের মতো নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কার করে রাহার মনোরঞ্জন করতে পারি না।”

২০২২ সালের নভেম্বর মাসে জন্ম হয় রণবীর-আলিয়ার সন্তান রাহার। চার বছর সম্পর্কে থাকার পর ওই বছরই এপ্রিলে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় এ তারকা দম্পতি।

Advertisement

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

জাহিরকে বিয়ে করার মাসুল গুনছেন সোনাক্ষী!

Published

on

সোনাক্ষী-সিনহা

বর্তমানে বলিপাড়া সরগরম হয়ে আছে সোনাক্ষী সিন্‌হা ও জাহির ইকবালের বিয়ে নিয়ে। কিন্তু মেয়ের বিয়ে নিয়ে না কি চাপা মনোমালিন্য চলছে সিন্‌হা পরিবারে।

শোনা যাচ্ছিল, এই বিয়েতে মত ছিল না অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিন্‌হার। যদিও পরে অভিনেত্রীর মামা পহেলাজ নিহালনি জানান, সোনাক্ষীর যে কোনও সিদ্ধান্তে বাবা-মা তার সঙ্গে আছে। নিজের পছন্দের পাত্রকে বিয়ে করার পুরো অধিকার আছে তার।

মামা যাই বলুন না কেন, নিন্দুকদের অবশ্য অন্য কথা। তারা বলছেন, এ বার তো আরেক কাণ্ড! মা পুনম সিন্‌হা ও ভাই লভ সিন্‌হার সঙ্গে দূরত্ব বাড়ল সোনাক্ষীর! সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের পাতায় ধরা পড়ল সবটা।

সম্প্রতি সোনাক্ষীর ইনস্টাগ্রামে গোয়েন্দাগিরি চালায় নেটাগরিকদের একাংশ। তাতেই তারা দেখতে পান ইনস্টাগ্রামে মা পুনম ও ভাই লভকে অনুসরণ করেন না সোনাক্ষী। যদিও বাবা শত্রুঘ্ন ও ভাই কুশকে ‘ফলো’ করেন সোনাক্ষী।

একই ভাবে ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্ট থাকলেও মেয়েকে অনুসরণ করছেন না সোনাক্ষীর মা! এর পরই দুয়ে দুয়ে চার করছেন অনেকে। তবে কি মেয়ের উপর ক্ষুব্ধ পুনম? যদিও নেটাগরিকদের একদল এই তত্ত্বকে নস্যাৎ করে দিয়েছে। তাদের দাবি, হীরামন্ডির প্রিমিয়ারেও সোনাক্ষীর সঙ্গে এসেছিলেন অভিনেত্রীর মা। একজন লিখেছেন, ‘‘অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজের বাবা-মাকে অনুসরণ করে না। তিলকে তাল করাটা বন্ধ করুন।’’

Advertisement

এর মধ্যেই সোনাক্ষীর বিয়ের নিমন্ত্রণ পত্র পৌঁছে গিয়েছে অতিথিদের কাছে।

আসছে ২৩ জুন রাত ৮টা থেকে বসবে বিয়ের আসর। নিমন্ত্রণ পত্রে একটি ‘কিউ আর’ কোড রয়েছে, যেটি স্ক্যান করলেই নাকি শোনা যাচ্ছে হবু দম্পতির আমন্ত্রণবার্তা। সেই বার্তায় তারা বলেছেন, ‘‘গত সাত বছর ধরে আমরা একসঙ্গে আছি। এই সাত বছরে আমরা অনেক ভালবাসা, হাসি, আনন্দ, রোমাঞ্চ ভাগাভাগি করে নিয়েছি, তাই আজ আমরা এই সময়টাতে এসে পৌঁছেছি।’’

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

নিজের স্ফীতোদরের ছবি প্রকাশ্যে আনলেন দীপিকা

Published

on

লোকসভা নির্বাচনের সময় স্ফীতোদর নিয়ে কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছিল অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনকে। সহ্য করতে না পেরে স্ত্রীকে সমর্থন করে রণবীর সিং মুখ খুলেছিলেন সামাজিকমাধ্যমে। তবে চুপ ছিলেন দীপিকা। অবশেষে বুধবার সন্ধ্যায় জবাব দিলেন তিনি। নিজের স্ফীতোদরের ছবি প্রকাশ্যে আনলেন। নিমেষে ভাইরাল সেই ছবি। নায়িকার অনুরাগীদের উল্লাস দেখে কে! ছবি দেখে ভালোবাসা ও শুভেচ্ছায় ভরিয়ে দিয়েছেন তারা। মন্তব্যের ঘরে তাদের দাবি, নিন্দকদের মুখে নাকি এ ভাবেই ঝামা ঘষেছেন তিনি।

২০ মে-র ঘটনা। দীপিকা ওই দিন রণবীরের সঙ্গে মুম্বাই লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম পর্বে ভোট দিতে গিয়েছিলেন। সেই সময় ছবিতে তার স্ফীতোদর দেখে এক দল নেটাগরিক দীপিকার উদ্দেশে বিরূপ মন্তব্য করেছিলেন। কটাক্ষের বন্যায় ভেসেছিলেন প্রাক্তন ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় প্রকাশ পাড়ুকোনের বড় কন্যা। সেই সময় স্বামী রণবীর তার সমর্থনে এগিয়ে এসেছিলেন। সামাজিকমাধ্যমে দীপিকার একটি ছবি ভাগ করে লিখেছিলেন, ‘বুড়ি নজর ওয়ালে তেরা মু কালা।’ পাশে মজার ইমোজি। সে দিন একটা কথাও বলেননি অভিনেত্রী। নায়িকার নীরবতা সে দিন ভুল ব্যাখ্যা দিয়েছিল। বুধবার বোঝা গেলো, সঠিক সময়ের অপেক্ষায় ছিলেন দীপিকা।

Advertisement

এ দিন কালো পোশাকে সেজেছিলেন দীপিকা। তার পরেই যত্ন সহকারে স্ফীতোদর সামলাতে সামলাতে পোজ় দিয়েছেন। সেই ছবি ভাগ করে নিয়ে লিখেছেন, ‘অনেক হয়েছে। এবার আমি সত্যিই ক্ষুধার্ত!’ দীপিকার সাদা-কালো ছবিতে মাতৃত্বকালীন সৌন্দর্য যেন উপচে পড়েছে।

জেএইচ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত