Connect with us

ইউরোপ

অবশেষে শক্তি ফিরে পেয়েছে ডলার

Avatar of author

Published

on

কিছুদিন ধরেই যুক্তরাষ্ট্রের ডলারের অবনমন ঘটছিল। অবশেষে শক্তি ফিরে পেয়েছে দেশটির মুদ্রা। আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে অন্যান্য মুদ্রার বিপরীতে মার্কিন কারেন্সির দর বেড়েছে। বিশ্বজুড়ে ব্যাংকিং খাতে অস্থিরতা বিরাজ করছে। সেটা দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এতে ডলারের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

গেলো শুক্রবার (২৪ মার্চ) ডলার সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে শূন্য দশমিক ৫৩৬ শতাংশ। বর্তমানে তা ১০৩ দশমিক ১৪০ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এ পরিস্থিতিতে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) প্রধান মুদ্রা ইউরোর দরপতন হয়েছে শূন্য দশমিক ৭১ শতাংশ। প্রতি ইউরোর মূল্য স্থির হয়েছে ১ ডলার ০৭৫৩ সেন্টে।

ব্রিটেনের মুদ্রা স্টার্লিংয়ের মান পড়েছে শূন্য দশমিক ৫৩ শতাংশ। স্টার্লিংপ্রতি দর নিষ্পত্তি হয়েছে ১ ডলার ২২২ সেন্টে।

সম্প্রতি আকস্মিক বন্ধ হয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালি ব্যাংক ও সিগনেচার ব্যাংক। এরই মধ্যে নাজুক হয়ে পড়ে ক্রেডিট সুইস। এ অবস্থায় সেটি কিনে নেয় ইউবিএস। এতে বিশ্বব্যাপী ব্যাংকের বাজে পরিস্থিতি সামনে আসে।

Advertisement

ধারণা করা হচ্ছে, সামনে আর্থিক খাত নিয়ে আরও খারাপ খবর আসবে। কারণ, এখন শত শত ব্যাংক ধুঁকছে।

এফএক্সস্ট্রিট ডটকমের জ্যেষ্ঠ বিশ্লেষক জোসেফ ত্রিবিশানি বলেন, যখন কোনো সমস্যা বড় আকার ধারণ করে; তখন মানুষ ডলারের পেছনে ছুটে। বহু বছর ধরে এ প্রথা চলে আসছে। আমি মনে করি, এখন সেটাই ঘটছে।

 

 

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

ইউরোপ

পার্লামেন্ট ভেঙে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর

Published

on

সদ্য সমাপ্ত ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের নির্বাচনে খারাপ ফলের জেরে হঠাৎ ফ্রান্সে পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। একইসঙ্গে দেশটিতে আগাম নির্বাচনের ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি।

সোমবার (১০ জুন) বার্তাসংস্থা এএফপির দেয়া প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইইউ নির্বাচনে নিজের মধ্যপন্থি জোটকে অতি-ডানপন্থিরা পরাজিত করার পরে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ রোববার (৯ জুন) পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার পাশাপাশি আগাম আইনসভা নির্বাচনের কথা ঘোষণা করেছেন।

হঠাৎ এই ধরনের সংসদীয় নির্বাচনকে স্ন্যাপ লেজিসলেটিভ ইলেকশন বলা হয়। জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ জানিয়েছেন, আগামী ৩০ জুন ফ্রান্সে প্রথম দফায় সংসদের নিম্নকক্ষের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আর দ্বিতীয় দফায় ভোট হবে আগামী ৭ জুলাই।

সংবাদমাধ্যম বলছে, সদ্য সমাপ্ত ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের নির্বাচনে খারাপ ফলের কারণেই হঠাৎ করে পার্লামেন্ট নির্বাচনের ঘোষণা করা হয়েছে। ইইউয়ের ওই নির্বাচনে ন্যাশনাল র‌্যালি থেকে শুরু করে কট্টর ডানপন্থি দলগুলো প্রায় ৪০ শতাংশ ভোট পেয়েছে।

Advertisement

এই কথা কার্যত স্বীকারও করে নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ।

তিনি বলেন, ‘যারা ইউরোপকে রক্ষায় কাজ করতে চায়, সেই সমস্ত দলের জন্য এটা মোটেও ভালো ফলাফল নয়। অতি ডানপন্থি দলগুলো… মহাদেশের সর্বত্রই ভালো করছে এবং ছড়িয়ে পড়ছে।’

তার ভাষায়, ‘এমন একটি পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে যেখানে আমি নিজেও পদত্যাগ করতে পারছি না। আমি আপনাদেরই (জনগণ) বেছে নেয়ার অধিকার দিতে চাই। তাই আজ রাতে পার্লামেন্ট ভেঙে দিচ্ছি।’

ফরাসি এই প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং কঠোর সিদ্ধান্ত। কিন্তু একইসঙ্গে এটা আত্মবিশ্বাসের পদক্ষেপও। আমার আপনাদের ওপরে আস্থা রয়েছে। ফ্রান্সের জনগণ নিজের ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সেরাটাই বেছে নেবেন।’

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ইউরোপ

প্রকাশ্যে ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রীর ওপর হামলা

Published

on

ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডিরিকসেনের ওপর প্রকাশ্যে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় দেশটির রাজধানী কোপেনহেগেনের একটি চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার (৮ জুন) সংবাদমাধ্যম বিবিসির দেয়া প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের উদ্ধৃতি দিয়ে প্রতিবেদনটি বলছে, হামলাকারী ফ্রেডিরিকসেনের দিকে হেঁটে এসে তার গায়ে আঘাত করেন। তবে তিনি কতটা আহত হয়েছেন সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি।

হামলার কারণ জানতে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। এমন ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী হতবাক হয়েছেন বলে তার কার্যালয় থেকে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

Advertisement

ডেনমার্কের স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, হামলার শিকার হওয়ার আগে ফ্রেডিরিকসেন ইইউ নির্বাচনে তার দল সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট প্রার্থী ক্রিস্টেল শ্যাল্ডেমোজের সঙ্গে এক নির্বাচনী কাজে অংশ নিয়েছিলেন।

দেশটিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাচনের মাত্র দুদিন আগে এই হামলার ঘটনা ঘটল। এ ঘটনাকে ঘৃণ্য কাজ বলে উল্লেখ করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রধান উরসুলা ভন ডার লেন।

ডেনমার্কের পরিবেশ মন্ত্রী ম্যাগনাস হিউনিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্স-এ (পূর্বের টুইটার) বলেছেন, ‘মেটে ফ্রেডিরিকসেন স্বাভাবিকভাবেই এই আক্রমণে হতবাক। আমি অবশ্যই বলতে চাই যে আমরা যারা তার কাছাকাছি থাকি, এই ঘটনা আমাদের সকলকেই নাড়া দিয়েছে।’

প্রসঙ্গত, গেলো ১৫ মে স্লোভাকিয়ার হ্যান্ডলোভা শহরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরার্ট ফিকোর ওপর প্রকাশ্যে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থা থেকে বেঁচে ফিরলেও তাকে কয়েকটি অস্ত্রোপচারের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে।

টিআর/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ইউরোপ

যুক্তরাজ্যে ঋষি সুনাকের আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

Published

on

নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি ‍সুনাক

বর্তমান সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই যুক্তরাজ্যে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। ২০২৫ সালের জানুয়ারিতে দেশটিতে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও চলতি বছরের ৪ জুলাই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী।

বুধবার (২২ মে) স্থানীয় সময় বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিট থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির দেয়া প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করার আগে এ ব্যাপারে মন্ত্রীদের অবহিত করেন যুক্তরাজ্য প্রধানমন্ত্রী। তারপর তাদের সঙ্গে আলোচনা করে আগামী সপ্তাহে বর্তমান সংসদ ভেঙে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

এর আগে রাজা তৃতীয় চার্লসের কাছে গিয়ে সংসদ ভেঙে দেয়া এবং নতুন নির্বাচন আয়োজনের জন্য রাজার কাছ থেকে অনুমতি নেন ঋষি সুনাক। রাজার কাছ থেকে অনুমতি পাওয়ার পর সেটি জনসম্মুখে ঘোষণা করেন তিনি।

Advertisement

ঋষি সুনাক নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা দিয়ে নিজ সরকারের বিভিন্ন সাফল্যের কথা উপস্থাপন করেন। একই সঙ্গে ভোটারদের কাছে ভোটের আহ্বান করেন। জানান―তাকে ভোট দিয়ে ফের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করা হলে ব্রিটেনের উন্নয়নে কাজ করে যাবেন তিনি।

গেলো ১৪ বছর ধরে যুক্তরাজ্য শাসন করছে ঋষি সুনাকের দল কনজারভেটিভ পার্টি। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণাার পর অনেকেই ধারণা করছেন, এ নির্বাচনে ব্রিটেনে আবারও লেবার পার্টি ক্ষমতায় আসবে।

টিআর/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত