Connect with us

ঢাকা

বায়ুদূষণে আজ পঞ্চম স্থানে ঢাকা

Avatar of author

Published

on

বায়ুদূষণে

বায়ুদূষণের কারণে বিশ্বে দূষিত শহরের তালিকায় আজ পঞ্চম স্থানে রয়েছে রাজধানী ঢাকা।

সোমবার (২৭ মার্চ) সকালে বায়ু মানের সূচক (একিউআই) অনুযায়ী ঢাকায় বাতাসের মান ছিল ১৬০। বায়ুর মান বিচারে এ মাত্রাকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়।

এদিন ২২০ স্কোর নিয়ে দূষিত বায়ুর শহরের তালিকার শীর্ষে রয়েছে থাইল্যান্ডের চিয়াং মাই। ১৮১ স্কোর নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারতের দিল্লি। ১৭৩ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর। ১৬৩ স্কোর নিয়ে তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে চীনের উহান।

এ ছাড়া একইসময়ে একিউআই স্কোর ১৫৩ নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে মায়ানমারের ইয়াঙ্গুন। ১৪১ স্কোর নিয়ে সপ্তম স্থানে রয়েছে চীনের শেনিয়াং। ১২৫ স্কোর নিয়ে অষ্টম স্থানে রয়েছে সৌদি আরবের রিয়াদ। ১১৯ স্কোর নিয়ে নবম স্থানে রয়েছে পাকিস্তানের করাচি। ১১৭ স্কোর নিয়ে দশম স্থানে রয়েছে নেপালের কাঠমান্ডু।

ঢাকায় বায়ু দূষণের জন্য ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলোকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। বায়ুদূষণের ফলে বাড়ছে শ্বাসকষ্ট, কাশি, নিম্ন শ্বাসনালির সংক্রমণ এবং বিষণ্ণতার ঝুঁকি।

Advertisement

বায়ু বিশেষজ্ঞরা বলেন, ১০১ থেকে ২০০-এর মধ্যে মাত্রা থাকলে তা সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে চিহ্নিত করা হয়। শূন্য থেকে ৫০ পর্যন্ত ‘ভালো’। ৫১ থেকে ১০০ ‘মোটামুটি’, ১০১ থেকে ১৫০ পর্যন্ত ‘সতর্কতামূলক’, ১৫১ থেকে ২০০ পর্যন্ত ‘অস্বাস্থ্যকর’, ২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই মাত্রাকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়। আর ৩০১-এর বেশি স্কোরকে ‘বিপজ্জনক’ বা দুর্যোগপূর্ণ বলা হয়।

Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

ঢাকা

মৃত রাসেলস ভাইপার নিয়ে হাসপাতালে কৃষক

Published

on

রাজবাড়ীর পাংশায় রাসেলস ভাইপারের ছোবলে আহত হয় এক কৃষক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন। এর আগে সাপটিকে মেরে মধু বিশ্বাস (৫০) নামে ঐ কৃষক হাসপাতালে নিয়ে আসেন। ওই কৃষক বর্তমানে সুস্থ আছেন।

শুক্রবার (২১ জুন) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার হাবাসপুর ইউনিয়নের চরআফড়া এলাকায় পদ্মা নদীর চরে এ ঘটনা ঘটে বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. এনামুল হক।

কৃষক মধু বিশ্বাস জানান, সকালে পদ্মা নদীর চরের চর আফড়া এলাকায় ক্ষেত থেকে বাদাম তোলার সময়  একটি সাপ তাকে ছোবল দেয়। এসময়  চিৎকার করলে আশপাশের অন্য কৃষকরা এগিয়ে এসে সাপটি মেরে ফেলে। পরে মৃত সাপসহ তিনি পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এলে চিকিৎসকরা এটিকে রাসেলস ভাইপার বলে শনাক্ত করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার জানান, ওই কৃষক বর্তমানে চিকিৎসাধীন। তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন।

আই/এ

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

বাসের ধাক্কায় ইজিবাইকের ২ যাত্রী নিহত

Published

on

সড়ক দুর্ঘটনা

ফরিদপুরের মধুখালীতে বাসের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকের দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ছয় জন। তাদেরকে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাত দেড়টার দিকে মধুখালী বাজারের বালিয়াকান্দি লিংক রোড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- বরিশালের বন্দর উপজেলার ইয়াসিন হাওলাদারের ছেলে মিরাজ হাওলাদার এবং ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার মো. মোবারকের ছেলে সুমন। আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মধুখালী থানার ওসি মো. মিরাজ হোসেন জানান, পূর্বাশা পরিবহনের একটি বাস চুয়াডাঙ্গা থেকে ঢাকায় যাচ্ছিল। বাসটি রাত সাড়ে ১২টার দিকে মধুখালী বাজার এলাকা পার হওয়ার সময় বালিয়াকান্দি লিংক রোড থেকে মহাসড়কে আসা একটি ইজিবাইককে ধাক্কা দেয়। এতে ইজিবাইকে থাকা দুই যাত্রী নিহত হন। আহত হন অন্তত ১০ জন।

জেএইচ

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢাকা

গরু-খাসি বিক্রি নিয়ে ডিগবাজি দিলেন ইমরান

Published

on

কোটি টাকা দামের গরু আর ১৫ লাখ টাকা দামের খাসি নিয়ে এবার নিজের বক্তব্য পাল্টালেন আলোচিত সাদিক এগ্রোর কর্ণধার ইমরান। ১৫ লাখের খাসি ক্রেতা না নিলেও। কোটি টাকা দামের সেই গরুর ক্রেতা আগামী বছর গরুটি নিবেন বলে দাবি করছেন ইমরান।

বুধবার (১৯ জুন) বিক্রির বিষয়টি  গণমাধ্যমের কাছে প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার ইমরান হোসেন নিজেই নিশ্চিত করেছেন।

গরু ও খাসি নিয়ে ইমরান বলেন, কোটি টাকায় গরুটি যিনি ক্রয় করেছেন তিনি এ বছর হজে গিয়েছেন। আগামী বছর ওই ক্রেতা গরু ডেলিভারি নেবেন। অপরদিকে খাসির ক্রেতা ১ লাখ টাকা বুকিং মানি দিয়েছিলেন কিন্তু পরে আর ছাগলটি নেননি।

যদিও ঈদের আগে তিনি বলেছিলেন, ১৫ লাখ হাকানো ছাগলটি ১২ লাখে বিক্রি হয়েছে।

এদিকে খাসির ক্রেতার পরিচয় নিয়ে চলমান আলোচনার বিষয়ে এ খামারি বলেন, যে ছেলেটি তাঁর কাছ থেকে খাসি কিনেছে,তার বাবা বিদেশে থাকেন। ইমরানের কাছ থেকে কোনও রাজস্ব কর্মকর্তার ছেলে খাসি কেনেনি, একটি তরুণ ছেলে কিনেছে। এখন ওর বাবা কে, সেটি তাঁর জানা নেই।

Advertisement

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, এমনকি গণমাধ্যমেও বিভিন্ন মহল থেকে বলা হচ্ছে যে ছাগলের এই অস্বাভাবিক দাম বাজারে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করছে।

এ বিষয়ে ইমরানের দাবি, এ আলোচনা একেবারেই অযৌক্তিক এবং ভিত্তিহীন। কোরবানি উপলক্ষে এবার ৩৩০০ পশু তিনি খামারে তুলেছিলেন। যার মধ্যে ১২০০ ছাগল ও ২১০০ গরু। এত ছাগলের মাঝে কেবল একটির দাম ছিল ১৫ লাখ টাকা। বাকী ছাগলগুলোর দাম ১৫-২০ হাজার টাকা, যা মূলত আমজনতার ছাগল।

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত