Connect with us

বিনোদন

দ্বিতীয় বিয়ে ও বয়স নিয়ে যে বার্তা দিলেন আশিস বিদ্যার্থী

Avatar of author

Published

on

অভিনেতা আশিষ বিদ্যার্থী

প্রেম, সে তো ঈশ্বর প্রদত্ত! তাই সেখানে নাকি বয়সের হিসাব রাখতে নেই। আর সেই প্রেম যদি পরিণতি পায় বিয়েতে, তা হলে তো তার জেল্লাই আলাদা। শুনতে খুবই সিনেম্যাটিক হলেও বাস্তবে তার প্রমাণ রাখলেন বলিউড অভিনেতা আশিস বিদ্যার্থী। ষাট বছর বয়সে এসে আবারও বিয়ে করলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী অভিনেতা।

গত বৃহস্পতিবার জামাই ষষ্ঠীর দিনই বিয়ে করে দ্বিতীয় স্ত্রীকে ঘরে তুলেছেন আশিস। ৫৭ বছর বয়সে এসে রেজিস্ট্রি ম্যারেজ করলেন আসামের ফ্যাশন ডিজাইনার রুপালি বড়ুয়ার সঙ্গে। অভিনেতার বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই শুরু হয় চরম ট্রল। কেউ কেউ আবার শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। এবার অভিনেতা নিজেই সমস্ত কিছু নিয়ে মুখ খুললেন।

অভিনেতা আশিষ বিদ্যার্থী

আশিষ বিদ্যার্থী শুক্রবার রাতে ফেসবুকে লাইভ করেন। সেখানে তিনি যেমন তার প্রাক্তন স্ত্রী পিলু বিদ্যার্থীকে নিয়ে কথা বলেন তেমনই জানালেন কীভাবে তার আলাপ হয়েছিল রুপালি বড়ুয়ার সঙ্গে। তাদের সম্পর্কের নানা অজানা কথা প্রকাশ্যে আনলেন এদিন।

আশিষ তার ভিডিওতে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন তার বা পিলুর কারও একে অন্যের বিরুদ্ধে কোনো রাগ নেই। তারা তাদের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণভাবে দুজনের সম্মতিতে শেষ করেছেন। তাদের ২২ বছরের বিবাহ জীবন ভাঙার কারণও এদিন জানান আশিষ।

অভিনেতা তার লাইভে এসে বলেন, ‘দিনশেষে আমরা সবাই কিন্তু খুশি থাকতে চাই। আর এই খুশির জন্য আজ থেকে ২২ বছর আগে আমরা একে অন্যের হাত ধরেছিলাম। বিয়ে করেছিলাম। আমাদের জীবনে আমাদের সন্তান অর্থ আসে। তারও আজ বয়স ২২। কিন্তু এত সুন্দর একটা সময় কাটানোর পর আমি আর পিলু ক্রমশ বুঝতে পারছিলাম যে আমরা আর ভালো নেই।

Advertisement

অভিনেতা আশিষ বিদ্যার্থী

‘বরং আমরা আমাদের ভবিষ্যতটা অনেকটাই আলাদাভাবে দেখি। যদিও আমরা দুজনেই আপ্রাণ চেষ্টা করেছিলাম এই বিয়েটা টিকিয়ে রাখার জন্য। কিন্তু তারপর বুঝি এতে কেবল একে অন্যের ওপর বোঝা হয়ে থাকব আমরা। তাই সরে আসার সিদ্ধান্ত নিই।’

হিন্দুস্তান টাইমসের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার রাতে ফেসবুক লাইভে আশিষ তার দ্বিতীয় বিয়ে করার কারণ জানান। পাশাপাশি প্রকাশ্যে আনেন কীভাবে তার সঙ্গে রুপালির আলাপ হয়েছিল।

অভিনেতার কথায়, ‘আমি কারও সঙ্গে থাকতে চেয়েছিলাম। কারও হাত ধরতে চেয়েছিলাম। এই ভাবনাটা আজ নয়, ২ বছর আগেই এসেছিল। আমার যখন ৫৫ বছর বয়স তখন আমি সিদ্ধান্ত নিই যে আমি আবার বিয়ে করব। তখনই আমার আলাপ হয় রুপালির সঙ্গে। আমরা কথা বলা শুরু করি। তারপর গত বছর আমরা দেখা করি। তখনই আমরা একে অন্যের প্রতি আকর্ষিত হই এবং মনে হয় যে বাকি জীবন আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে কাটাতে পারি।’

আশিষ তার বক্তব্যে আরও বলেন, ‘আমার বয়স বয়স আসলে ৬০ নয় ৫৭, স্ত্রী রুপালি বড়ুয়ার ৫০। কিন্তু তাতে কী? বয়সে কী আসে যায় বন্ধু? জীবনে সবাই খুশি হতে পারে বয়স যাই হোক না কেন। তাই সম্মানের সঙ্গে জীবনে এগিয়ে যাওয়াই ভালো।’

Advertisement

Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

ঢালিউড

বিয়ের আগেই শ্রীলংকায় হবু বরের সঙ্গে অভিনেত্রী চমক!

Published

on

ছবি অভিনেত্রী রুকাইয়া জাহান চমকের ফেসবুক ওয়াল থেকে নেওয়া

বাগদানের পরই হবু বরের সঙ্গে শ্রীলংকায় উড়াল দিয়েছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রুকাইয়া জাহান চমক। এবারের ঈদও তারা উদযাপন করছেন সেখানে। নিজেদের মতো করে সময় কাটাচ্ছেন অভিনেত্রী ও তার হবু স্বামী।

শ্রীলংকা থেকেই এক ভিডিও বার্তায় চমক বলেন, জীবন খুব অপ্রত্যাশিত। আগামীকাল কী হবে তা আমরা কেউ জানি না। আমি একজন রাজাকে বিয়ে করছি, রাস্তার ছেলেকে বিয়ে করছি, ক্রিমিনালকে বিয়ে করছি কিংবা অসম্ভব ভালো মানুষকে বিয়ে করছি- এটা মনে হয় অন্য কারো চিন্তার বিষয় হতে পারে না। অনেক বছর একসঙ্গে থাকার পরেও কিন্তু অনেক সময় জানা যায় না মানুষটা ভালো না খারাপ। অল্প সময়ের মধ্যে আমি কী করে মানুষটাকে বিচার করব? তবে এই মুহূর্তে মানুষটার সঙ্গে আমি সুখী।

ছোট পর্তার জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘এটাও সত্যি, সামনের বছর এই মানুষটার সঙ্গে আমি ভালো থাকব কিনা, সে আমাকে এভাবে ভালোবাসবে কিনা বা আমিও বাসব কিনা, জানি না। তাই ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা না করে, মানুষ নিয়ে চিন্তা না করে আসুন এই মুহূর্তে ভালো থাকার চেষ্টা করি। জীবন খুব ছোট, প্রতি মুহূর্তে ভালো থাকা গুরুত্বপূর্ণ।’

এর আগে, সোমবার ফেসবুকে হবু স্বামীর সঙ্গে দুটি ছবি প্রকাশ করে বাগদানের খবর নিশ্চিত করেন অভিনেত্রী চমক। তবে কবে বাগদান হয়েছে তা জানাননি।

নিজের ফেসবুকে পোষ্ট করা ছবিতে দেখা গেছে, লাল শাড়ি ও লাল পাঞ্জাবিতে সেজেছেন চমক ও তার হবু স্বামী। শুধু তা–ই নয়, দুজনের হাতে পরা ছিল বিশেষ দিনের আংটিও।

Advertisement

ছবির ক্যাপশনে অভিনেত্রী চমক লিখেছিলেন, ‘বন্ধুরা, আমরা একে অপরের প্রেমে পড়েছি! আমাদের স্বর্গীয় ভালোবাসা আর তোমাদের প্রার্থনায় আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে আংটি বদল করেছি। শিগগিরই আমরা বিয়ে করতে যাচ্ছি। আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’’

অভিনেত্রী রুকাইয়া জাহান চমকের হবু বর আজমান নাসির। ব্যবসার পাশাপাশি অভিনয়ও করেছেন তিনি। চলতি বছর এপ্রিলে ‘দ্য লাস্ট হানিমুন’ নাটকে চমকের সঙ্গে হবু স্বামীকে দেখা গেছে। আজমান নাসিরের গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ায়।

প্রসঙ্গত, বরিশালে জন্মগ্রহণ করলেও রুকাইয়া জাহান চমকের বেড়ে ওঠা ও পড়াশোনা ঢাকায়। সাংস্কৃতিক পরিবারে ঢাকায় বেড়ে উঠেছেন তিনি। শৈশব থেকেই নাচের তালিম নিয়েছেন।

মানিকগঞ্জ সরকারি মেডিক্যাল কলেজ (বর্তমান নাম কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজ মানিকগঞ্জ) থেকে এমবিবিএস সম্পন্ন করেছেন।

২০১৭ সালে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছিলেন তিনি। এরপর তিন বছরের বিরতি নিয়ে ২০২০ সালে অভিনয়ে নাম লেখান চমক। কাজ করেন টেলিভিশন নাটকে।

Advertisement

এরপর বেশ অল্প দিনেই ছোট পর্দার পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছেন তিনি। ‘হায়দার’, ‘হাউস নম্বর-৯৬’, ‘মহানগর’, ‘সাদা প্রাইভেট’, ‘অসামপ্ত’, ‘ভাইরাল হ্যাজব্যান্ড’-এর মতো বেশকিছু একক নাটক, ধারাবাহিক ও ওয়েব সিরিজে কাজ করে অল্প সময়ে আলোচনায় এসেছেন চমক।

এমআর//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ঢালিউড

এবার সিংগাপুরে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন অভিনেত্রী অধরা খান

Published

on

ছবিগুলো অধরা খানের ফেসবুক পোস্ট থেকে নেওয়া

নিজের আবেদনময়ী ছবি তুলে সেগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে আলোচনায় থাকতে ভালবাসেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত অভিনেত্রী অধরা খান। পারিবারিক ব্যবসার কাজে বছরের বেশির ভাগ সময় বিদেশ ভ্রমণে দেখা যায় এই অভিনেত্রীকে।

গত ঈদেও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মরুর বুকে আবেদনময়ী ছবি পোস্ট করে উত্তাপ ছড়িয়ে ছিলেন। এবার সিংগাপুরে ঈদুল আজহার ছুটি কাটাচ্ছেন ঢাকাই সিনেমার এই আলোচিত নায়িকা।

ঈদের চতুর্থ দিন মঙ্গলবার (১৯ জুন) সেখান থেকে নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে শরীরী আবেদনময়ী কিছু ছবি শেয়ার করেছেন ভ্রমণপ্রিয় এই চিত্রনায়িকা।

সিঙ্গাপুরের লাভেন্ডার স্ট্রিট থেকে ছবিগুলো পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখেন- “ঈদের ছুটি…”। ছবিগুলো পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়েছে।ছবিতে ধেখা যায়, সিঙ্গাপুরে কোনো এক সুইমিং পুলের পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলছেন এ নায়িকা।

এর আগে, চলতি বছরের মে মাসে রোজার ঈদের পরপরই ছুটি কাটাতে উড়ে যান সংযুক্ত আরব আমিরাত। সেখানে গিয়ে শখের বশে কিছু ছবি তোলেন। পরে কিছু আকর্ষণীয় ছবি তার সোশ্যাল হ্যান্ডেলে শেয়ার করেন। যা নিয়ে দেশি-বিদেশে বেশ শোরগোল পড়ে যায়।

Advertisement

ছবিতে অধরাকে এলিগ্যান্ট লুজ কটন লিনেন লং ডিপ নেক ল্যান্টার্ন ফুল স্লিভ ড্রেসে দেখা গেছে।  অভিনেত্রী ওইসময় জানিয়েছিলেন, ম্যাট গোল্ডেন কালারের ড্রেসটি তিনি আমেরিকার লাসভেগাস থেকে কিনেছিলেন।

উরু থেকে গোড়ালি পর্যন্ত খোলা এই ড্রেসের সঙ্গে অধরা পরেছিলেন স্পোর্টস কেডস। একের পর এক পোজ দিয়ে ছবি তুলে গেছেন মরুর বুকেই।

অধরার এসব ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি করে। অনেক গণমাধ্যম তখন অধরা খান মরুভূমিতে উত্তাপ ছড়াচ্ছে বলে খবর প্রকাশ করে। নেটিজেনরাও তা নিয়ে মজা করা বন্ধ করেননি।

 

বর্তমান প্রজন্মের চিত্রনায়িকাদের মধ্যে গ্ল্যামারাস অধরা খান।  তার অভিনীত একাধিক সিনেমা রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়।  এবার ‘ঋতুকামিনী’ নামে নতুন একটি সিনেমার শুটিং শেষ করেছেন এ নায়িকা।  ‘ঋতুকামিনী’ ছবিটি পরিচালনা করছেন জাহিদ হোসেন। রাজধানীর অদূরে গাজীপুর পূবাইলের গ্রামীণ লোকেশনে দৃশ্য ধারণ হয়েছে।

সিনেমার গল্পও গ্রামীণ পটভূমিতে লেখা। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন অধরা খান। তার চরিত্র একজন সহজ-সরল গ্রামের মেয়ে। বিপরীতে রয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা আব্দুন নূর সজল।

Advertisement

এদিকে, অধরা কিছুদিন আগে সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মন্ডের পরিচালনায় ‘দখিন দুয়ার’ নামে একটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। এ ছাড়াও তার হাতে আরও একাধিক সিনেমার কাজ রয়েছে। যেগুলোর শুটিংও শিগগিরই শুরু হবে বলে জানিয়েছেন এ অভিনেত্রী।

এমআর//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বলিউড

মেয়েকে সাজাতেও অনুমতি নিতে হয় আলিয়ার

Published

on

রণবীর,-আলিয়া,-রাহা

রণলিয়ার মেয়ে রাহা, দেড় বছর বয়স হয়ে গিয়েছে তার। সংবাদমাধ্যমে প্রায়ই তাকে দেখা যায় বাবা-মায়ের সঙ্গে। কিন্তু রাহার এই প্রকাশ্য উপস্থিতি নিয়ে বিশেষ ভাবনাচিন্তা থাকে বাবা রণবীর কাপূরের। এমনই জানিয়েছেন রাহার মা আলিয়া ভট্ট।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে আলিয়া জানিয়েছেন, মেয়ে কবে কোন জামা পরবে, সেটা ঠিক করে দেন স্বয়ং রণবীর। তবে শুধু এটুকুই নয়। আলিয়া বলেছেন, “রোজই আমি গিয়ে জিজ্ঞেস করি, রাহা আজ কী পরবে? তারপর রণবীর আসে, তন্ন তন্ন করে খুঁজে বার করে কোথায় কী রয়েছে। আর এসব কাজ রণবীর খুব ভাল ভাবে করে। সকলে হয়তো ভাবেন, আমি রাহার পোশাক বেছে দিই, একেবারেই না। বরং আমি রণবীরের উপর দায়িত্ব দিয়ে খুব নিশ্চিন্ত।”

শুধু তা-ই নয়, এক সাক্ষাৎকারে আলিয়া জানিয়েছেন, রণবীর সব সময় রাহার মনোরঞ্জন করে চলেন। রাহাও বাবার সঙ্গ দারুণ উপভোগ করে। পরস্পরের মুখে হাসি ফোটাতে ওস্তাদ রাহা-রণবীর। নিজেরা নিজেদের মধ্যে কী সব মজার মজার কথা বলে আর হাসিতে ফেটে পড়ে।

তা হলে আলিয়া কি কিছুই করেন না? অভিনেত্রী বলেছেন, “আমি ওকে খাওয়াই, ঘুম পাড়িয়ে দিই, ওর যত্ন করি। এগুলি করতেই আমি পারি। এতেই আমি খুশি। রণবীরের মতো নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কার করে রাহার মনোরঞ্জন করতে পারি না।”

২০২২ সালের নভেম্বর মাসে জন্ম হয় রণবীর-আলিয়ার সন্তান রাহার। চার বছর সম্পর্কে থাকার পর ওই বছরই এপ্রিলে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় এ তারকা দম্পতি।

Advertisement

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত