Connect with us

আন্তর্জাতিক

রুশ হেলিকপ্টার ‘ভূপাতিত’ করল ওয়াগনার গ্রুপ

Avatar of author

Published

on

হেলিকপ্টার

ওয়াগনার গ্রুপের প্রধান ইভজেনি প্রিগোজিন দাবি করেছেন, তার বাহিনী রাশিয়ার একটি হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপাতিত করেছে। রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহের ঘোষণার পর এমন দাবি করলেন তিনি।

শনিবার (২৪ জুন) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রিগোজিনের দাবি, হেলিকপ্টারটি একটি বেসামরিক বহরের ওপর গুলি চালায়। যদিও এই ঘটনাটি কোথায় ঘটেছে সে সম্পর্কে তিনি বিস্তারিত জানাননি।

এর আগে তিনি বলেছিলেন যে তার বাহিনী ইউক্রেনের পূর্বে রাশিয়ার রোস্তভ অঞ্চলে প্রবেশ করেছে।

প্রসঙ্গত, রুশ সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছে ভাড়াটে সেনাদল ওয়াগনার গ্রুপ। ইউক্রেনীয় বাহিনীর বিপক্ষে লড়াইয়ের পরিবর্তে এখন উল্টো রুশ বাহিনীর জন্যই বড় হুমকি হয়ে উঠেছে তারা।

Advertisement

ইউক্রেন সীমান্তবর্তী অনেক এলাকায় রুশ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে তারা। রাজধানী মস্কোসহ বিভিন্ন এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ভাড়াটে যোদ্ধাদের গ্রুপটির প্রধান ইভজেনি প্রিগোজিন হুমকি দিয়েছেন, রুশ নেতৃত্বকে তারা ক্ষমতাচ্যুত করে ছাড়বে।

শুক্রবার (২৩ জুন) এক অডিওবার্তায় তিনি বলেন, রুশ বাহিনী আমাদের বিভিন্ন সেনা শিবিরের ওপর ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। এসব হামলায় আমাদের অনেক সহযোদ্ধা সেনাসদস্যের মৃত্যুও হয়েছে। এ কারণে ওয়াগনারের সর্বোচ্চ নির্বাহী ফোরাম কমান্ডার্স কাউন্সিল এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, সামরিক নেতৃত্বের হাত থেকে রাশিয়াকে অবশ্যই রক্ষা করতে হবে।

তার এই হুমকির পর রোস্তভের সব বাসিন্দাকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন গভর্নর।

তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বাসিন্দাদের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছুই করছে। আমি সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। একইসঙ্গে সবাইকে ঘর থেকে বাইরে না আসার আহ্বান জানাচ্ছি।

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

আন্তর্জাতিক

গাজার রাফায় ইসরাইলের ভয়াবহ হামলা, নিহত ১৭

Published

on

ইসরাইলি বিমান হামলায় গাজার দুটি ঐতিহাসিক শরণার্থী ক্যাম্পের ১৭ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) এই হামলা চালানো হয় ।স্থানীয় বাসিন্দা এবং মেডিকেলকর্মীদের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে রয়টার্স

বাসিন্দারা বলছে, ট্যাংক থেকে রাফার বিভিন্ন এলাকায় বোমা হামলা চালানো হচ্ছে এবং একযোগে বিমান থেকেও হামলা চালানো হচ্ছে।

মে মাসে আগে থেকেই এখানে ১০ লাখের বেশি ফিলিস্তিনি শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছিল।

ইসরাইল বাহিনী নতুন করে এখানে হামলা চালানোর পর অনেক শরণার্থী উত্তরাঞ্চলে পালিয়ে গেছে।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে নিহত ১০, বাংলাদেশিসহ জীবিত উদ্ধার ৫১

Published

on

ভূমধ্যসাগরে-নৌকা-ডুবি

লিবিয়ার জোয়ারা উপকূল থেকে ৬১ জন অভিবাসী নিয়ে যাত্রা করা একটি কাঠের নৌকা থেকে ১০ অভিবাসীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নৌকাটিতে গ্যাসোলিনের ধোঁয়া থেকে সৃষ্ট বিষক্রিয়ায় তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যায়। জার্মান এনজিও রেসকিউশিপ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) কাতারভিত্তিক সংবাদ সংস্থা আল-জাজিরা ইতালিয়ান কোস্ট গার্ড, জাতিসংঘের সংস্থা ও জার্মান একটি দাতব্য সংস্থার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে।

জার্মান দাতব্য সংস্থা রিসকিউশিপ জানিয়েছে, গতকাল সোমবার (১৭ জুন) ল্যাম্পেডুসা দ্বীপের কাছে তারা একটি ডুবন্ত কাঠের নৌকা থেকে ৫১ জনকে উদ্ধার করেছেন। এ সময় নৌকার নীচের ডেকে ১০ জনের মরদেহ পাওয়া গেছে।

সংস্থাটি বলছে, বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিদের সোমবার (১৭ জুন) সকালে ইতালীয় কোস্টগার্ডের কাছে হস্তান্তরের পর তাদের তীরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে মৃতদের ল্যাম্পেডুসা দ্বীপে নেয়া হয়েছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর, ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) এবং জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ এক যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছে, নৌকাটি লিবিয়া থেকে যাত্রা করেছিল। এতে সিরিয়া, মিসর, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের অভিবাসীরা ছিলেন। তবে কোন দেশের কত যাত্রী ছিলেন, তা জানানো হয়নি।

Advertisement

একই দিনে পৃথক আরেক নৌকাডুবির ঘটনায় ৬০ জনের বেশি মানুষ নিখোঁজ হয়েছেন। তাদের মধ্যে ২৬ জনের মতো শিশু রয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। দক্ষিণ ইতালির ক্যালাব্রিয়ার উপকূল থেকে প্রায় ১২৫ মাইল দূরে এই ঘটনা ঘটে। মেডেসিনস সানস ফ্রন্টিয়েরস (এমএসএফ) নামে একটি সংগঠন এই তথ্য জানিয়েছে।

এই ঘটনায় ১২ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। তবে তাদের সবাইকে তীরে নেয়ার পর একজন মারা যান বলে জানিয়েছে ইতালীয় কোস্টগার্ড।

ভূমধ্যসাগর বিশ্বের সবচেয়ে প্রাণঘাতী মাইগ্রেশন রুট হিসেবে পরিচিত। জাতিসংঘের তথ্য অনুসারে, ২০১৪ সাল থেকে এই রুটে ২৩ হাজার ৫০০ জনের বেশি অভিবাসী মারা গেছে বা নিখোঁজ হয়েছে।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

ভেঙে গেলো নেতানিয়াহুর যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা

Published

on

ইসরাইলের-প্রধানমন্ত্রী-বেনিয়ামিন-নেতানিয়াহু
ফাইল ছবি

ছয় সদস্যকে নিয়ে গঠিত যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা ভেঙে দিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু। খবর- আলজাজিরা

গেলো রোববার সন্ধ্যায় ইসরাইলি এই নেতা রাজনৈতিক নিরাপত্তা মন্ত্রিসভার সঙ্গে বৈঠক করে সোমবার (১৭ জুন) তিনি এ ঘোষণা দেন।

নেতানিয়াহুর অতি ডানপন্থী জোটের অংশীদারগণ নতুন যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা গঠনের চাপ দিচ্ছেন। বেনি গ্যান্টজ যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাদের পর এ আবেদন আরও জোড়ালো হচ্ছে।

ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এখন গাজা যুদ্ধ নিয়ে মন্ত্রিদের একটি ছোট দলের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাবেন। যাদের মধ্যে রয়েছে প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট এবং কৌশলগত পররাষ্ট্রমন্ত্রী রন দারমার।

 

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত