Connect with us

খেলাধুলা

আজ লিওনেল মেসির জন্মদিন…

Avatar of author

Published

on

লিওনেল মেসি

লিওনেল মেসি আর্জেন্টাইন পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়। টানা চারবারসহ মোট সাতবার ব্যালন ডি’অর জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করেছেন, যা ফুটবলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। এর পাশাপাশি তিনি সর্বোচ্চ ছয়বার ইউরোপীয় সোনালী জুতো জয়েরও কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। তার পেশাদার ফুটবল জীবনের পুরোটাই কেটেছে বার্সেলোনায়। যেখানে তিনি ১০টি লা লিগা, ৪টি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং ৬টি কোপা দেল রেসহ মোট ৩৩টি শিরোপা জয় করেছেন, যা বার্সেলোনার ইতিহাসে কোন খেলোয়াড়ের পক্ষে সর্বোচ্চ।

এছাড়াও একজন অসাধারণ গোলদাতা হিসেবে মেসির দখলে রয়েছে লা লিগায় সর্বোচ্চ সংখ্যক গোল (৪৪০), লা লিগা ও ইউরোপের যেকোনো লিগে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল (৫০), ইউরোপে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল (৭৩), এক পঞ্জিকাবর্ষে সর্বোচ্চ গোল (৯১), এল ক্লাসিকোর ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোল (২৬) এবং লা লিগা (৩৪) ও চ্যাম্পিয়নস লিগে (৮) সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকের কৃতিত্ব। পাশাপাশি মেসি একজন সৃষ্টিশীল প্লেমেকার হিসেবেও পরিচিত। তিনি লা লিগা (১৮৩) এবং কোপা আমেরিকার (১২) ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলে সহায়তাকারীর কৃতিত্বেরও মালিক। জাতীয় দল এবং ক্লাবের হয়ে তিনি ৭০০ এর অধিক পেশাদার গোল করেছেন।

মেসির পুরো নাম লিওনেল আন্দ্রেস মেসি। মেসির জন্ম ১৯৮৭ সালের ২৪ জুন আর্জেন্টিনার রোজারিওতে। বেড়ে ওঠা সেখানেই। তবে মেসি ছোটবেলায় গ্রোথ হরমোন সংক্রান্ত জটিলতায় আক্রান্ত হন। সেই সময় আর্জেন্টিনার কোন ক্লাবের পক্ষে তার চিকিৎসার খরচ বহন করা সম্ভব হচ্ছিল না। কিন্তু ক্লাব বার্সেলোনা তার চিকিৎসার খরচ বহনের দায়িত্ব নেয়ায় ১৩ বছর বয়সে তিনি তাদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন এবং স্পেনে পাড়ি জমান। বার্সেলোনার যুব প্রকল্পে তিনি নিজের প্রতিভার প্রমাণ দেখাতে শুরু করেন এবং ২০০৪ সালের অক্টোবরে ১৭ বছর বয়সে বার্সেলোনার মূল দলে তার অভিষেক হয়।

তিনি আর্জেন্টিনার অনূর্ধ্ব-২০, আর্জেন্টিনা অনূর্ধ্ব-২৩, আর্জেন্টিনার জাতীয় দলসহ বার্সেলোনা সি, বার্সেলোনা বি, বার্সেলোনা, প্যারিস সেন্ট জার্মেই ক্লাবে খেলেছেন। মেসি বিশ্বকাপ খেলেছেন ৫ বার। ২০২৩ সালে আর্জেন্টিনা বিশবকাপ জিতে নেয়। সেই সঙ্গে গোল্ডেন বল পান মেসি।

Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

ফুটবল

নাক ভেঙেও যে কারণে হলুদ কার্ড দেখলেন এমবাপ্পে

Published

on

অস্ট্রিয়ার ডিফেন্ডার কেভিন ডানসোর সঙ্গে ধাক্কা লেগে নাক ভেঙ্গে যায় কিলিয়ান এমবাপ্পের।  নাক ভেঙ্গে গিয়ে ঝরঝর করে রক্ত পড়ছিল।  ঝুঁকি না নিয়ে এমবাপ্পেকে মাঠে থেকে তুলে নেন ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশম।

মাঠ থেকে ওঠার আগে আরেকটি কাণ্ড করেন এই গ্রীষ্মে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেয়া ফ্রান্স তারকা। এমবাপ্পেকে তুলে নেওয়ার আগে অলিভিয়ের জিরুদ এবং ইউসুফ ফোফানা মাঠে নামার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু খেলোয়াড় বদলির সময় না দিয়ে রেফারি খেলা চালিয়ে যাওয়ায় আবার মাঠের মধ্যে গিয়ে বসে পড়েন এমবাপ্পে। যাতে রেফারি খেলা বন্ধ করতে বাধ্য হন।

তবে এমন কান্ডের জন্য শান্তিও পেতে হয়েছে তাকে। দেখতে হয়েছে হলুদ কার্ড।

এমবাপ্পের নাকের ইনজুরি সম্পর্কে ইএসপিএন জানিয়েছে তার নাকে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন নেই।  মাস্ক পরে মাঠে ফিরবেন তিনি।  এমবাপ্পেকে যে মাস্ক পড়তে হবে তা নিশ্চিত হওয়া যায় ম্যাচের পর সামাজিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি পোস্টে।  পোস্ট দিয়ে মাস্কের ব্যাপারে পরামর্শ চেয়েছেন সাবেক পিএসজি তারকা।

এমবাপ্পের নাক ভাঙ্গার দিনে ইউরোতে অস্ট্রিয়ার ভুলে ১-০ গোলের জয় পেয়েছে ফ্রান্স।   ৩৮ মিনিটেই আত্মঘাতী গোল করে অস্ট্রিয়া।  এই গোলটিই গড়ে দেয় ম্যাচের ফলাফল।

Advertisement

ফ্রান্সের জয়ের দিনে ফিফা র‍্যাংকিংয়ে ৩ নম্বরে থাকা বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে হারিয়ে অঘটনের জন্ম দিয়েছে ৪৮ নম্বর র‍্যাংকিংয়ের দল স্লোভাকিয়া।   আর ইউক্রেনকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ২৪ বছর পর ইউরোতে জয়ের স্বাদ পেয়েছে রোমানিয়ার।

 

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ক্রিকেট

সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ যারা

Published

on

গ্রুপ সিডিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ডি-১ হয়ে আগেই নিশ্চিত করেছে সুপার এইট।  বাংলাদেশ নিশ্চিত করলো ডি-২ হিসেবে।  এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ খেলবে সুপার এইটের গ্রুপ ‘এ’ তে।  যেখানে টাইগাররা প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানকে।

সুপার এইটে সময়সূচিটাও নির্ধারিত আগে থেকেই।  সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ২১ জুন।  প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার । অ্যান্টিগাতে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ছয়টায়।

এমন এক আজব সূচি করেছে আইসিসি।  অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সুপার এইটে প্রথম ম্যাচ খেলে পরের দিনই মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশকে। অর্থাৎ ২২ জুন আবার খেলবে টাইগার। প্রতিপক্ষ ভারত। অনুষ্ঠিত হবে  অ্যান্টিগাতেই। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায়।

সুপার এইটে বাংলাদেশ সবশেষ ম্যাচ খেলবে ২৫ জুন। প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সেন্ট ভিনসেন্টে  সকাল সাড়ে ছয়টায়।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

ক্রিকেট

নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ

Published

on

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নেপালকে হারিয়ে সুপার এইট নিশ্চিত করলো বাংলাদেশ। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ১০৬ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। সেই রান তাড়া করতে নেমে ৮৫ রানে গুটিয়ে যায় নেপাল।

সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদের খুশিটা হয়তো বাড়িয়ে দিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আরও ।

তবে এই ঈদের দিনেও যারা ভোর বেলা উঠেই বাংলাদেশের খেলা দেখা শুরু করেছিলেন তারা হয়তো ঐ সময়টায় কোন ভাবেও খুশি হতে পারেননি।  ইনিংসের প্রথম বলেই গোল্ডেন ডাক তানজিদ তামিম। পরের ওভারেই বোল্ট নাজমুল হোসেন শান্ত।

প্রথম ওভারে রিভিউ নিয়ে বেঁচেছিলেন। চতুর্থ ওভারে ক্যাচ তুলেও ফিল্ডার নিকটে না থাকায় সে যাত্রায়ও বেঁচে যান। তবে লিটনের যেন উইকেটে থাকারই ইচ্ছে ছিলো না। পঞ্চম ওভারে সোমপালের শর্ট বলে তুলে মারতে গিয়ে খাড়া ওপরে।

ষষ্ঠ ওভারে তাওহিদ আউট হয়ে গেলে পাওয়ারপ্লেতেই ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর দুই অভিজ্ঞ সাকিব আল হাসান ও মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ যখন কিছুটা চাপ সামলানোর চেষ্টা করছিলেন তখনই রান আউট। সাকিব বসে পড়লেন। মাথা ঝাঁকাতে ঝাঁকাতে প্যাভিলিয়নের পথে মাহমুদউল্লাহ।

Advertisement

রিয়াদের বিদায়ের পর ১৭ রান করে ফেরেন সাকিবও। তার ইনিংসটি বাংলাদেশের  সর্বচ্চো । এরপর তাজিম হাসান ৩,  জাকের আলী ১২, রিশাদ হোসেন ১৩, তাসকিন আহমেদ ১২ এবং মোস্তাফিজ ৩ রানে রান আউট হলে ১০৬ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ।

এতো কম রান করে বাংলাদেশ এর আগে কোন ম্যাচ জিততে পারেনি। তবে বোলিংয়ে নেমে তানজিম হাসান সাকিবের তোপে ২৬ রানেই ৫ উইকেট হারায় নেপাল।  কিন্তু পাঁচ উইকেট হারানোর পর ৫২ রানের জুটি গড়েন কুশল মাল্লা ও দীপেন্দ্র সিং ঐরী।

কুশল মাল্লাকে ফিরিয়ে মোস্তাফিজ জুটি ভেঙ্গে দিলে ম্যাচ আর বেশিদূর নিতে পারেনি নেপাল। ৮৫ রানেই হারিয়ে ফেলে সব কয়টি উইকেট। তানিজমের ৪ ও মোস্তাফিজের ৩ উইকেটের সাথে সাকিব আল হাসান ২ টি ও তাসকিন ১ টি করে উইকে নেন।

গ্রুপ সিডিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ডি-১ হয়ে আগেই নিশ্চিত করেছে সুপার এইট।  বাংলাদেশ নিশ্চিত করলো ডি-২ হিসেবে।  এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ খেলবে সুপার এইটের গ্রুপ ‘এ’ তে।  যেখানে টাইগাররা প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানকে।

সুপার এইটে সময়সূচিটাও নির্ধারিত আগে থেকেই।  সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ২১ জুন।  প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার । অ্যান্টিগাতে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ছয়টায়।

Advertisement

এমন এক আজব সূচি করেছে আইসিসি।  অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সুপার এইটে প্রথম ম্যাচ খেলে পরের দিনই মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশকে। অর্থাৎ ২২ জুন আবার খেলবে টাইগার। প্রতিপক্ষ ভারত। অনুষ্ঠিত হবে  অ্যান্টিগাতেই। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায়।

সুপার এইটে বাংলাদেশ সবশেষ ম্যাচ খেলবে ২৫ জুন। প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সেন্ট ভিনসেন্টে  সকাল সাড়ে ছয়টায়।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত