Connect with us

রাজনীতি

‘ভারতকে ভালোবাসা ছাড়া দেয়ার কিছু নেই প্রধানমন্ত্রীর’

Avatar of author

Published

on

প্রধানমন্ত্রী

আমেরিকার বিরুদ্ধে আবোল-তাবোল বলছেন (প্রধানমন্ত্রী), সেন্টমার্টিন দিয়ে দিলে নাকি তারা ক্ষমতায় রাখবে। দেশটা দিয়ে দিলেও যদি তিনি ক্ষমতায় থাকতেন, সেই কাজটা করতেও দ্বিধাবোধ করতেন না। বললেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

রোববার (২৫ জুন) রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক প্রতিবাদ সভায় এসব কথা বলেন তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম সজনুসহ রাজবন্দিদের মুক্তির দাবিতে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে ফেনী জেলা জাতীয়তাবাদী পরিষদ।

গয়েশ্বর বলেন, আমেরিকার অ্যাম্বাসেডর বলেছেন, আমরা বাংলাদেশের কাছে কিছু চাইনি। আর প্রধানমন্ত্রী বলছেন, সেন্টমার্টিন দিয়ে দিলে তিনি ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। আবার কিছুদিন আগে বলেছিলেন, ভারতকে যা দিয়েছি সারাজীবন মনে রাখবে। এখন আর দেওয়ার মতো কিছু নেই। এখন প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভারতকে ভালোবাসা ছাড়া দেয়ার মতো কিছু নেই।

বর্ডারে ভারতের সীমান্ত রক্ষীবাহিনী পাখির মতো বাংলাদেশের মানুষকে মারছে দাবি করে তিনি বলেন, কিন্তু সরকার একটা প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। অথচ আমেরিকাকে চ্যালেঞ্জ করে, চিন্তা করেন। আমেরিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বছরে বিলিয়ন ডলার রপ্তানি করে কিন্তু আমদানি করে না। ভারত থেকে আমাদের টাকা আসে না কিন্তু যায়।

উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, আপনারা বলছেন, এই মুহূর্তে দরকার জনগণের সরকার। কিন্তু কিছু ঘুষখোর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা বলেন, আমার জীবনের জন্য দরকার শেখ হাসিনার সরকার। এখন তো আর কোনো পথ নেই। প্রধানমন্ত্রী যে পদত্যাগ করবে, ক্ষমতা কার কাছে দেবে? ওই লোককে খুঁজে পাচ্ছে না। ক্ষমতা ছেড়ে দেশে থাকতে না পারলে বিদেশে যে যাবে, সেটাই খুঁজে পাচ্ছে না।

Advertisement

সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম প্রমুখ।

Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

আওয়ামী লীগ

ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাকড

Published

on

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে। ওয়েবসাইটে ঢুকলেই কোটা আন্দোলন নিয়ে কয়েকটি মেসেজ দেখা যাচ্ছে। সেখানে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীকে গুলি করা একজন পুলিশের ছবিও আপলোড করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বিকেলে ওয়েবসাইট দখলে নেয় ‘দ্য রেজিজস্ট্যান্টস’ নামে একটি হ্যাকার গ্রুপ। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকেও বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছে।

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলেই দেখা যাচ্ছে লেখা, অপারেশন হান্টস ডাউন। স্টপ কিলিং স্টুডেন্টস। ইটস নট অ্যা প্রটেস্ট এনি মোর, ইটস অ্যা ওয়ার নাও।

প্রসঙ্গত, সেখানে একটি ছবিতে রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) শিক্ষার্থী আবু সাঈদকে লক্ষ্য করে গুলি করার ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের ছবি, দুটি কুকুরের ছবি এবং কয়েকজন তরুণের মুখের অংশ দেখা যাচ্ছে।

এএম/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয় পার্টি

কোটা সংস্কার আন্দোলনে সমর্থন জানিয়েছে জাতীয় পার্টি

Published

on

কোটা সংস্কারের দাবিতে চলমান আন্দোলনে  নিজেদের সমর্থন জানিয়েছে জাতীয় পার্টি। একই সঙ্গে কোটা সংস্কার আন্দোলন করতে গিয়ে যারা প্রাণ হারিয়েছেন তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা  এবং পরিবার পরিজনদের সমবেদনা জানায় দলটি।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) জাতীয় পার্টির নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশীদ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সমর্থন জানান।

ফিরোজ রশীদ বলেন, সরকারি চাকরির ৫৬ শতাংশ কোটার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে- এটা জাতীয় পার্টিও মানতে পারছে না। তাহলে মেধার মূল্যায়ন হয় না। ছাত্ররা চেয়েছে কোটা থাকবে। তবে তা বিশেষ ক্ষেত্রে এবং তার হার ৫ শতাংশের বেশি নয়। এসব বিষয় আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই মীমাংসা করা উচিৎ ছিল।

তিনি বলেন, কোটা যেখানে সরকারই বাতিল করেছিলেন সেটা হাইকোর্টের রায়ে বাতিল হলো। হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায়ে বলা হয়েছে- কোটা থাকবে। তবে কোটার হার কমানো বা বাড়ানোর এখতিয়ার সরকারের হাতে থাকবে। ফলে রায় অনুসারেই সরকারের পক্ষে ছাত্রদের দাবি মেনে নেওয়ার সুযোগ আছে।

তিনি আরও বলেন, সরকার হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। এই পর্যায়ে অ্যাটর্নি জেনারেল সুপ্রিম কোটের শুনানি এগিয়ে নিয়ে এসে সমস্যার সমাধান করতে পারেন। তাই জাতীয় পার্টি দাবি জানাচ্ছে কোনোভাবে কালক্ষেপণ না করে আগামী রোববারই সুপ্রিম কোর্টে মেনশন করে- সিভিল আপিলটি দ্রুত শুনানি করা হোক।

Advertisement

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বিএনপি

আন্দোলনকারীরা মুক্তির সন্তান : রিজভী

Published

on

ফাইল ছবি

এই কোটা সংস্কার আন্দোলনের জন্য যারা লড়াই করছেন, জীবন দিচ্ছেন তারা সবাই মুক্তির সন্তান। ঢাকা, রাজশাহী, জাহাঙ্গীরনগর, চট্টগ্রাম, বেগম রোকেয়াসহ দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাধারণ শিক্ষার্থীরা অধিকারের পতাকা নিয়ে স্বৈরাচারের মুখোমুখি দাঁড়িয়েছে-এটা  বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের জন্য সেই হীরণময় প্রেরণা বলে আখ্যায়িত করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে  এসব কথা বলেন রিজভী।

এ বিএনপি নেতা বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন। এই দাবি আদায়ের লড়াইয়ে ছাত্রলীগ ও পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর যৌথ আক্রমণ করে এ পর্যন্ত ৮ জন কিশোর তরুণকে হত্যা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, গেলো মঙ্গল ও বুধবার এ বিভৎস দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ডাকা শান্তিপূর্ণ কমপ্লিট শাটডাউন চলমান কর্মসূচিতে বিজিবি, র‍্যাব, পুলিশ, সোয়াট পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর মতো ন্যক্কারজনক হামলা চালাচ্ছে। এর সাথে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগ-যুবলীগ আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসীরাও আক্রমণ করছে।

তিনি আরও বলেন,  বৈষম্যবিরোধী সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন যেন স্বপ্নের বিপ্লব হয়ে উঠছে। তিনি যেমন সেদিন তরুণদের ফরাসি বিপ্লব দেখেছেন,  যেমন মার্কিন স্বাধীনতার বিপ্লব দেখেছেন এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ দেখেছেন। ফরাসি বিপ্লবের মূলমন্ত্র স্বাধীনতা, সমতা, ভ্রাতৃত্ব বা মৃত্যু তার প্রতিধ্বনি দেখা যাচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে।

Advertisement

প্রসঙ্গত, এসময়ে বিভিন্ন স্থান থেকে বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদও জানান রিজভী।

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত