Connect with us

জাতীয় পার্টি

সরকার দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা তছনছ করেছে : জিএম কাদের

Avatar of author

Published

on

সংবিধান ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার বুঝি না, সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। আমরা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য নির্বাচন ব্যবস্থা সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরে নিতে চাই। যাতে নির্বাচনে সরকার কোনো প্রভাব বিস্তার করতে না পারে। আমরা ফর্মুলা দিতে পারি, সকল দল থেকে ফর্মুলা নিয়ে আলোচনা হতে পারে। নির্বাচন ব্যবস্থা অবশ্যই সরকারের প্রভাবমুক্ত করতে হবে। বর্তমান সরকারের অধীনে ইলেকশন নয় সিলেকশন হতে পারে। বলেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি।

রোববার (২৩ জুলাই) দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এর বনানীস্থ কার্যালয় মিলনায়তনে ইঞ্জিনিয়ার লিয়াকত আলীর নেতৃত্বে শতাধিক ব্যক্তি জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের হাতে ফুল দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন। তাদের স্বাগত জানিয়ে দেয়া বক্তৃতায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, বর্তমান সরকার দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা তছনছ করে রাজনৈতিক সংস্কৃতি ধ্বংস করেছে। বর্তমান সরকার একদলীয় সরকার ব্যবস্থা কায়েম করতে চাচ্ছে। পেশাদার ও ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোতে এখন আর নির্বাচন হয় না, সিলেকশন করে দেয়া হচ্ছে। গণতান্ত্রিক ধারা ধ্বংস করে কর্তৃত্ববাদী এক নায়কতন্ত্র চালু করেছে। আগামী নির্বাচনেও যদি এভাবে চলতে থাকে তাহলে আর রাজনীতি বা রাজনৈতিক দল থাকবে না। দেশ এক নেতার অধীনে চলে যাবে, একদলীয় শাসন ব্যবস্থা চিরস্থায়ী করা হবে।

তিনি বলেন, সরকার বলেছে সংবিধীধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। সরকার বলছে তাদের অনে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব। কিন্তু সরকার ছাড়া সকল রাজনৈতিক শক্তি ও সাধারণ মানুষ বলছে দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। ঢাকা-১৭ আসনের উপনির্বাচনে বিশ্ববাসী দেখেছে দলীয় সরকারের অধীনে কেমন নির্বাচন হয়। এই নির্বাচনে জনগণের কোনো সম্পৃক্ততা ছিল না। সরকার বলছে ১১ শতাংশ ভোট পড়েছে, সাধারণ মানুষের ধারণা শতকরা ৫ ভাগ ভোটও সাধারণ মানুষ দেয়নি। ভোট যা পড়েছে তার প্রায় সবই তারা নিজেরাই দিয়েছে। জনগণ এই ভোটের ওপর আস্থা রাখেনি তাই তারা ভোটেও অংশ নেয়নি। নির্লজ্জভাবে এক প্রার্থীকে মেরে, এজেন্টদের বের করে দিয়ে নির্বাচনকে কলুষিত করেছে। সারাবিশ্বের কাছে প্রমাণ হয়েছে বর্তমান সরকারের অধীনে সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন কেমন হবে। ঢাকা-১৭ আসনের নির্বাচনের পর নিরপেক্ষ নির্বাচনের কথা বলার মুখ সরকারের নেই।

তিনি আরও বলেন, আন্দোলনে রাস্তায় নামলে নির্যাতন করা হচ্ছে। সরকারবিরোধীদের দমন করতে সব কিছুই করছে। মানুষকে মানুষ মনে করে না, বিরোধীদের ওপর পাখির মতো গুলি করা হয়। বর্তমান সরকারের দমন নীতিতে স্বাভাবিক রাজনৈতিক শক্তির টিকে থাকা সম্ভব নয়। তাই অর্থ ও জনবল না থাকলে মাঠে টিকে থাকা দুরূহ হয়ে পড়েছে। জাতীয় পার্টিকে সব চেয়ে বেশি দুর্বল করেছে আওয়ামী লীগ। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় বসাতে সমর্থন দিয়েছিল জাতীয় পার্টি। তারপর থেকে আওয়ামী লীগ সব সময় জাতীয় পার্টিতে বিভক্তি সৃষ্টি করে রেখেছে। ২০১৪ সালের পর থেকে জাতীয় পার্টির মধ্যে একটি নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছে। জাতীয় পার্টির স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড বিঘ্নিত করেছে আওয়ামী লীগ। এ কারণে, জাতীয় পার্টি অনেকটা দুর্বল হয়েছে। আমরা এই অবস্থা থেকে বের হতে চাই।

Advertisement

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের আরও বলেন, আমরা জনগণের ভোটে জনগণের সরকার চাই। একটি সুষ্ঠু নির্বাচন ব্যবস্থা চাই আমরা। জনগণের পাশে আমাদের থাকতে হবে। সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে আমরা সাধারণ মানুষের পক্ষে থাকবো।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান আরও বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের রাজনীতি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। দেশের সামনে অমানিশার অন্ধকার। কী হবে তা কেউ জানে না। সবার জিজ্ঞেসা কী হচ্ছে? কী হবে? আমেরিকাসহ প্রায় সকল বিদেশি বন্ধুরা জানতে চায় দেশে কী হতে যাচ্ছে?

 

এএম/

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

জাতীয় পার্টি

সড়ক ব্যবস্থাপনায় জবাবদিহিতা থাকতে হবে: জি এম কাদের

Avatar of author

Published

on

জি এম কাদের

সড়ক ব্যবস্থাপনায় জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের।

ফরিদপুর এবং ময়মনসিংহে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৫ জনসহ মোট ১৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে বিরোধীদলীয় এ উপনেতা বলেছেন, সড়কে প্রতিদিনের অপমৃত্যু যেন স্বাভাবিক ঘটনা। এর কোনো প্রতিকার নেই। প্রতিদিন এমন দুর্ঘটনার সংবাদ মেনে নেয়া যায় না।
মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের আত্মার শান্তি ও আহতদের সুস্থতা কামনা করে জি এম কাদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, তদন্ত করে এসব দুর্ঘটনার কারণ প্রকাশ করতে হবে এবং দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে। সড়ক ব্যবস্থাপনায় জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। নিহতদের প্রতি পরিবারকে যৌক্তিক ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। একই সঙ্গে আহতদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে সংশ্লিষ্টদের।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয় পার্টি

কেএনএফ নির্মূলে সরকারকে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জি এম কাদেরের

Avatar of author

Published

on

জিএম কাদের

জনগণের নিরাপত্তা রক্ষা অত্যন্ত জরুরি। ফলে পার্বত্য অঞ্চলে কেএনএফ সন্ত্রাসীদের নির্মূলে সরকারকে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন তিনি।

জি এম কাদের বলেন, মানুষের নিরাপত্তায় সরকারের ব্যর্থতায় হতাশা প্রকাশ করেন। এসময় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের সন্ত্রাসী হামলায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন। পাশাপাশি এ ঘটনার কারণ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

তিনি আরও বলেন, ‘কেএনএফ পার্বত্য অঞ্চলে আতঙ্ক তৈরি করেছে। তাদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। পর্যটনশিল্পেও এর প্রভাব পড়ছে।’

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাতে তারাবি নামাজের সময় বান্দরবানের রুমা শাখা সোনালী ব্যাংক ও আশপাশের এলাকা ঘিরে ফেলে শতাধিক সশস্ত্র দুর্বৃত্ত। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মসজিদ থেকে ব্যাংক ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনকে ধরে নিয়ে ব্যাংকের ভেতরে মারধর করে তারা। পরে তাঁকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ সময় ব্যাংকের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ১০ পুলিশ ও ৪ আনসার সদস্যকে নিরস্ত্র করে ৮টি চাইনিজ অটোমেটিক রাইফেল, ২টি এসএমজি, ৪টি শটগান ও ৪১৫ রাউন্ড গুলি ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এ সময় ২ পুলিশ সদস্য আহত হন। এ ঘটনার ১৬ ঘণ্টা পর থানচিতে আরও দুটি ব্যাংকে ডাকাতি হয়।

Advertisement

এএম/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয় পার্টি

‘স্বাধীনতার চেতনা নিয়ে ব্যবসা চলছে’

Avatar of author

Published

on

আজ ইতিহাস বিকৃত করা হচ্ছে। কিছু মানুষকে ওপরে ওঠানো হচ্ছে, আবার কিছু মানুষকে মুছে ফেলা হচ্ছে। এটা ঠিক নয়। এমনও দেখা যাচ্ছে বয়স ৫০ হয়নি, অথচ সেও মুক্তিযোদ্ধা। এগুলো কী মুক্তিযুদ্ধের চেতনা? স্বাধীনতার চেতনা নিয়ে ব্যবসা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে ‘স্বাধীনতা দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের ব্যর্থতার কথা তুলে ধরে জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, দেশকে ডুবিয়ে দিয়ে আপনারা বাঁচতে পারবেন না, মানুষের অভিশাপ লাগবে। দ্রব্যমূল্যে, আগুন কোনো কিছুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না সরকার। কারণ তাদের ক্ষমতা থেকে সরানো যাচ্ছে না, তাই কোনোকিছুর জবাবদিহিতা নেই।

তিনি বলেন, সারাদেশে লুটপাটের রাজনীতি হচ্ছে। এসব বৈষম্যের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছিলেন এরশাদ।

জাপা চেয়ারম্যান আরও বলেন, আমরা বৈষম্যমুক্ত দেশ ও সমাজ চাই। বৈষম্য করে দেশকে বিভক্ত করা হয়েছে। আর এসবের কারণে একটা সুবিধাবাদী গোষ্ঠী তৈরি হয়েছে।

Advertisement

জিএম কাদের অভিযোগ করে বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলতে গেলে মামলা হয়। আইন করে বৈধভাবে দাবিয়ে রাখা হয়েছে। যেভাবে আইনকানুন করে বাধা দেয়া হচ্ছে বাংলাদেশে কোনো রাজনৈতিক দল টিকবে না। সরকার ঠিক থাকলেও, দল হিসেবে আওয়ামী লীগের অস্তিত্ব থাকবে না।

এএম/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

জাতীয়7 hours ago

তীব্র দাবদাহে ট্রাফিক সদস্যদের স্বস্তি দিতে অনন্য উদ্যোগ

প্রচণ্ড খরতাপে পুড়ছে সারা দেশ। এই তীব্র গরমের মাঝেও খোলা আকাশের নিচে ঢাকা মেট্রোপিলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা যানজট নিরসনে...

জাতীয়7 hours ago

তীব্র দাবদাহের মধ্যে ৭ দিন স্কুল বন্ধের দাবি

টানা ২৬ দিন ছুটি কাটিয়ে রোববার (২১ এপ্রিল) খুলছে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এমন একসময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে যখন দেশের ওপর দিয়ে তীব্র...

জাতীয়8 hours ago

১৫০ বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে ২৮৫ সেনাসহ ফিরবে মিয়ানমারের জাহাজ

বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ ও সেনাবাহিনীর ২৮৫ জন সদস্যকে মিয়ানমারের জাহাজে নৌপথে ফেরত যাওয়ার ক্লিয়ারেন্স দেয়া হয়েছে।...

বাংলাদেশ9 hours ago

ভয়াবহ রুপ ধারণ করবে তাপমাত্রা

সারাদেশে চলছে তাপপ্রবাহ। জনজীবন হয়ে উঠেছে অতিষ্ঠ। যশোর-চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তিন দিনের...

জনদুর্ভোগ10 hours ago

২ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে যেসব এলাকায়

গ্যাস পাইপলাইনের জরুরি কাজের জন্য শনিবার (২০ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের বেশ কিছু এলাকায় দুই ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। এছাড়াও ওই...

চট্টগ্রাম11 hours ago

ট্রেনের ধাক্কায় স্ত্রী-সন্তানদের সামনেই প্রাণ গেলো স্বামীর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নোয়াখালী মেইল ট্রেনের ধাক্কায় স্ত্রী-সন্তানদের সামনেই প্রাণ হারিয়েছেন রায়হান মিয়া (৩৫) নামের এক যুবক। ঈদের ছুটিতে স্ত্রী, দুই মেয়ে...

দুর্ঘটনা11 hours ago

হাসপাতালের আইসিইউ পুড়ে ছাই, রক্ষা পেল ৭ শিশু

রাজধানীর শ্যামলীতে অবস্থিত শিশু হাসপাতালের কার্ডিয়াক ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) এসি বিস্ফোরণে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। পুড়ে গেছে বেড,...

বাংলাদেশ12 hours ago

ধেয়ে আসছে তীব্র ঝড়

দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড়সহ শিলাবৃষ্টির আশঙ্কা করছে আবহওয়া অফিসে। এর মধ্যে সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে তীব্র ঝড় বয়ে যেতে পারে...

দুর্ঘটনা12 hours ago

ট্রাকচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

রাজশাহীতে ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩ জন। শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেল পৌনে ৫টার...

জাতীয়12 hours ago

হিট অ্যালার্ট জারি, চুয়াডাঙ্গায় তাপমাত্রা ৪১ দশমিক ৩ ডিগ্রি

দেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া তাপপ্রবাহের তীব্রতা আরও বাড়ার শঙ্কায় তিন দিনের জন্য হিট অ্যালার্ট (তাপমাত্রা সর্তকতা) জারি করেছে আবহাওয়া...

Advertisement
জাতীয়7 hours ago

তীব্র দাবদাহে ট্রাফিক সদস্যদের স্বস্তি দিতে অনন্য উদ্যোগ

জাতীয়7 hours ago

তীব্র দাবদাহের মধ্যে ৭ দিন স্কুল বন্ধের দাবি

ঢাকা7 hours ago

হেলিকপ্টারে নববধূ নিয়ে এলেন ছাত্রলীগ নেতা

অন্যান্য8 hours ago

মারামারি করে মাঠ ছাড়ল মোহামেডান, আবাহনীকে জয়ী ঘোষণা

জাতীয়8 hours ago

১৫০ বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে ২৮৫ সেনাসহ ফিরবে মিয়ানমারের জাহাজ

বাংলাদেশ9 hours ago

ভয়াবহ রুপ ধারণ করবে তাপমাত্রা

ফুটবল9 hours ago

সমর্থকদের কারণে জরিমানার মুখে বার্সেলোনা

ফুটবল9 hours ago

দুটি হলুদ কার্ড দেখেও মাঠ ছাড়তে হলো না মার্টিনেজকে

ঢালিউড9 hours ago

কাবিলাকে পেয়েই ভোটকেন্দ্রে নাচলেন নাসরিন

আন্তর্জাতিক9 hours ago

ভোটের সময় ছত্তিশগড়ে বিস্ফোরণে নিহত ১, পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতা 

সৌদি-পতাকা
আন্তর্জাতিক3 days ago

ইরান-ইসরায়েল প্রসঙ্গে অবস্থান স্পষ্ট করলো সৌদি

ডাকসুর-সাবেক-ভিপি-নুরুল-হক
আইন-বিচার4 days ago

নুরের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইসরাইলে আবারও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ইসলাম3 days ago

ঈদুল আযহার সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা

টুকিটাকি5 days ago

অপ্রাপ্তবয়স্ক ছাত্রকে যৌন নির্যাতন করলেন শিক্ষিকা

বাংলাদেশ7 days ago

ইসরাইল থেকে সরাসরি ঢাকায় বিমানের অবতরণ- যা জানা গেলো

বাংলাদেশ1 day ago

নিজ বাহিনীতে ফিরে গেলেন খন্দকার আল মঈন

বাংলাদেশ4 days ago

সন্যাসী হতে ২০০ কোটি রুপির সম্পত্তি দান করলেন দম্পতি

সৌন্দর্য
লাইফস্টাইল2 days ago

চড়-থাপ্পড়েই বাড়বে নারীদের সৌন্দর্য!

আন্তর্জাতিক6 days ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: ভূমধ্যসাগরে ঢুকলো রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

প্রধানমন্ত্রী-শেখ-হাসিনা
জাতীয়3 weeks ago

গায়ের চাদর না পুড়িয়ে বউদের ভারতীয় শাড়ি পোড়ান: প্রধানমন্ত্রী

ফুটবল4 weeks ago

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোচ জানালেন এটা মাত্র শুরু

টুকিটাকি4 weeks ago

জিলাপির প্যাঁচে লুকিয়ে আছে যে রহস্য!

অর্থনীতি1 month ago

বাজারে লেবুর সরবরাহ বেশি, তবুও দাম চড়া

রেশমা
বাংলাদেশ1 month ago

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর ঠিকানা খুঁজছে পুলিশ

হলিউড1 month ago

নীল দুনিয়ায় অভিনেত্রী সোফিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু

ফুটবল2 months ago

জামালকে ঠিকঠাক বেতন দেয়নি আর্জেন্টাইন ক্লাব

টুকিটাকি2 months ago

রণবীরের ‘অ্যানিম্যাল’ দেখে শখ, মাইনাস ২৫ ডিগ্রিতে বসলো বিয়ের আসর

অর্থনীতি2 months ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 months ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

সর্বাধিক পঠিত