Connect with us

আন্তর্জাতিক

পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনা সত্যিই বর্বর কাজ: পোপ ফ্রান্সিস

Avatar of author

Published

on

সম্প্রতি সুইডেন ও ডেনমার্কে পবিত্র কোরআনে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনাকে বর্বরতা বলে উল্লেখ করেছেন খ্রিস্টানদের ধর্মীয় গুরু পোপ ফ্রান্সিস। এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন তিনি।

আর্জেন্টিনার শিয়া আলেম আব্দুল কারিম পাজকে লেখা এক চিঠিতে এসব কথা বলেন পোপ ফ্রান্সিস।

বুধবার (২ আগস্ট) ইরানের বার্তা সংস্থা ইরনা এক খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, আব্দুল কারিম পাজ পবিত্র কোরআন পোড়ানোর বিষয়ে পোপ ফ্রান্সিসকে সম্প্রতি একটি চিঠি লিখেছিলেন।

মঙ্গলবার (১ আগস্ট) ওই চিঠির জবাব দেন পোপ।

Advertisement

পোপ ফ্রান্সিসকে লেখা চিঠিতে আব্দুল কারিম পাজ, যারা এই জঘন্য কাজ করেছে তারা মূলত আব্রাহামিক ধর্মের বিরুদ্ধে। জবাবে পোপ ফ্রান্সিস লিখেছেন, পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনা সত্যিই বর্বর কাজ। মানুষের মধ্যে সংলাপ অনুষ্ঠানের পথে এটি বাধা সৃষ্টি করে।

এর আগেও পোপ ফ্রান্সিস ধর্ম অবমাননার বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়েছেন এবং এসব কাজের জন্য তিনি রাগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনার পরও এই তীব্র নিন্দা জানিয়েছিলেন তিনি।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পোপ বলেছিলেন যে, পবিত্র কোরআনে আগুন দেওয়া বাকস্বাধীনতার অন্তর্ভুক্ত হতে পারে না।

পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় বিশ্বজুড়ে ফুঁসে উঠেছে মুসলিমরা। বিভিন্ন দেশ এ বিষয়ে তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেছে। এছাড়া সুইডেন ও ডেনমার্ককে সতর্ক করে দিয়েছে তারা।

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

আন্তর্জাতিক

প্লাস্টিকের দাঁত লাগিয়ে কুরবানির ছাগল বিক্রি!

Published

on

ছবি- টাইমস অফ ইন্ডিয়া

প্লাস্টিকের দাঁত লাগিয়ে কুরবানির ছাগল বিক্রির অভিযোগ উঠেছে এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। ছাগলের মুখ থেকে এই নকল দাঁত খোলার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক মাধ্যমে।

গেলো শনিবার (১৬ জুন) ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের করাচির গুলবার্গ চৌরঙ্গী এলাকায়। আর এই ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ। খবর- টাইমস অফ ইন্ডিয়া 

পাকিস্তানি পুলিশ বলছে, ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারেন। এরপরই তারা এই ঘটনায় হস্তক্ষেপ করেন।

পুলিশ আরো বলছে, অভিযুক্ত ব্যবসায়ী হায়দ্রাবাদের বাসিন্দা। পবিত্র ঈদুল আজহায় ছাগল বিক্রি করতে করাচিতে যান। এ ছাড়া এই বিষয়ে আরও তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আগামীকাল সোমবার ১৭ জুন পাকিস্তানে উদযাপিত হব ঈদুল আজহা।

Advertisement

এনএস/

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

সৌদি আরবসহ যেসব দেশে পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা

Published

on

বিশ্বের-বিভিন্ন-দেশে-ঈদ-উদযাপন

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে আজ রোববার (১৬ জুন) পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। এ দিন শয়তানকে পাথর নিক্ষেপের মধ্য দিয়ে হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়েছে। আর তারপরই বিশ্বজুড়ে মুসলিমরা পশু কুরবানির মধ্য দিয়ে ঈদুল আজহা পালন করা শুরু করে।

রোববার (১৬ জুন) সৌদি আরবের সংবাদ সংস্থা আরব নিউজ’র প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুধু সৌদি আরব নয় মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা ও আমেরিকার বিভিন্ন প্রান্তেও পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা। এদিন মক্কার মসজিদুল হারাম, মদিনার মসজিদে নববিসহ সৌদি আরবের বিভিন্ন প্রান্তে মসজিদে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে নামাজ আদায় করেন লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। পরে, আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে ঈদুল আজহার আনুষ্ঠানিকতা সারেন মুসল্লিরা।

তবে সৌদি আরবের সঙ্গে একইদিনে চাঁদ দেখতে না পাওয়ায় তাদের প্রতিবেশী দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে আগামীকাল সোমবার (১৭ জুন) ঈদ উদযাপিত হবে। এছাড়াও প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তান, পূর্ব এশিয়ার ব্রুনেই, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াতেও কাল উদযাপন হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। একইদিনে ঈদ উদযাপন করবে ইরান, মরক্কো ও ঘানা। তবে জিলহজের চাঁদ দেখতে দেরি হওয়ায় নিউজিল্যান্ডে ঈদ হবে আগামী মঙ্গলবার ১৮ জুন।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

গাজায় নেই ঈদ আনন্দ

Published

on

ফিলিস্তিন,-গাজা

মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের অধিকাংশ দেশে আজ রোববার (১৬ জুন) পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। ফিলিস্তিনেও আজ ঈদ। তবে এই ঈদের সময়ও গাজা উপত্যকায় অভিযানে কোনো বিরতি দিচ্ছে না ইসরায়েলি বাহিনী।

রোববার (১৬ জুন) আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এএফপি’র প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল শনিবার (১৫ জুন) গাজার প্রধান শহর গাজা সিটিসহ উপত্যকার বিভিন্ন এলাকায় বোমা ফেলেছে ইসরায়েলি বাহিনী। গাজার বেসামরিক প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা জানিয়েছেন, রোববার গাজা সিটির তিনটি পৃথক বাড়ি থেকে ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছেন তারা। এরা সবাই ইসরায়েলি বাহিনীর বোমায় নিহত হয়েছেন।

এছাড়া এই দিন গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফা এবং গাজার সিটির শরণার্থী শিবিরেও আর্টিলারি হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী আইডিএফ।

গেলো প্রায় দেড় মাস ধরে গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফায় অভিযান পরিচালনা করছে ইসরায়েলি বাহিনী। মে মাসের শুরুর দিকে যখন এই অভিযান শুরু হয়, সে সময় এতে প্রবল আপত্তি জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। সেই আপত্তি উপেক্ষা করেই অভিযান চলছে রাফায়। কারণ, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আইডিএফ) যুক্তি— রাফায় শক্তিশালী ঘাঁটি রয়েছে হামাসের এবং গাজা উপত্যকা নিয়ন্ত্রণকারী এই সশস্ত্র গোষ্ঠীকে পুরোপুরি নিষ্ক্রিয় করতে রাফায় অভিযান চালানো জরুরি।

Advertisement

এদিকে রাফায় অভিযান ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আপত্তির মূল কারণ ছিল সেখানে বিপুল সংখ্যক বেসামরিক ফিলিস্তিনির উপস্থিতি। গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযান শুরুর পর গাজার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে লোকজন এই সীমান্ত শহরটিতে আশ্রয় নেন।

গেলো ৭ অক্টোবর ইসরায়েলি ভূখণ্ডে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ১ হাজার ২০০ জন মানুষকে গুলি করে হত্যা করে হামাস যোদ্ধারা, সেই সঙ্গে জিম্মি হিসেবে ধরে নিয়ে যায় আরও ২৪২ জনকে।

জিম্মিদের উদ্ধারে ওই দিন থেকেই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী, যা এখনও চলছে। অভিযানের শুরু থেকে এ পর্যন্ত গাজায় নিহত হয়েছেন ৩৭ হাজার ২৬৬ জন মানুষ, যাদের অধিকাংশই বেসামরিক ফিলিস্তিনি।

 

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত