Connect with us

লাইফস্টাইল

গোপনে অনলাইনে যে ১০টি জিনিস বেশি সার্চ করে মেয়েরা

Avatar of author

Published

on

মোবাইল-ফোনে-নারী

নারীরা গোপনে গোপনে গুগল কিংবা অনলাইনের বিভিন্ন সাইটে যে ১০টি জিনিস সবচেয়ে বেশি সার্চ করেন, জানলে ভাবনায় পড়ে যেতে পারেন যে কেউ। চলুন জেনে নেই সেই ১০টি সৌন্দর্য্য বিষয়ক প্রশ্নের উত্তর-

 বলিরেখামুক্ত ত্বক পাওয়া যাবে কীভাবে

প্রথম থেকেই ত্বকের যত্ন শুরু করুন। ৩০ বছর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ত্বকের বাড়তি যত্ন নিতে হবে। কিন্তু আপনি যদি বলিরেখা পড়ার জন্য অপেক্ষা করেন এবং এরপর তা থেকে মুক্ত হতে চান তাহলে ভুল করবেন। বলিরেখার প্রথম লক্ষণ হলো কপালে ভাজপড়া। ওয়েবে ত্বকের বলিরেখা দূর করার ঘরোয়া দাওয়াই সম্পর্কিত নানা লেখা আছে। সেসব পড়ে পড়ে ত্বকের যত্ন করুন ধৈর্য্য ধরে।

স্মোকি আই মেকআপ করা সম্ভব কীভাবে

স্মোকি আই মেকআপ করার পদ্ধতি বিষয়ে ইন্টারনেটে প্রচুর সংখ্যক লেখা রয়েছে। যে কোনো একটি পদ্ধতি বাছাই করে সে মতো কাজ করুন। তবে কখনোই দুটো পদ্ধতি সমন্বয় করতে যাবেন না তাহলে কিন্তু বিপদ আছে। এতে চোখের ক্ষতি হতে পারে। আর যেসব কসমেটিকস কেবল চক্ষুবিজ্ঞান এর পদ্ধতি পরিক্ষীত কেবল সেসবই ব্যবহার করুন।

চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করব কীভাবে

শসা ও আলুর ফালি এবং আইস বা ঘুমের রুটিন বদলে আপনি আইব্যাগ বা চোখের ফোলাভাব থেকে মুক্ত হতে পারেন। তবে কর্কশ কিছু ব্যবহার করবেন না। কারণ তা আপনার চোখের দৃষ্টির ক্ষতি করতে পারে। আর তাতেও যদি আইব্যাগ দূর না হয় তাহলে একজন ত্বক বিশেষজ্ঞর সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

চুলে কয়দিন পরপর শ্যাম্পু করবো

শ্যাম্পু তখনই করা উচিত যখন চুল ও মাথার ত্বকে ময়লা জমে। তবে একটা নির্দিষ্ট সময় পরপর শ্যাম্পু করালে চুল ভালো থাকে। আর চুলের যত্নে শ্যাম্পু করার পাশাপাশি তেল, কন্ডিশানার, ভলুমাইজার এবং অন্যান্য জিনিসও ব্যবহার করতে হবে। অনেকে প্রতিদিনই শ্যাম্পু করার কথা শুনে আঁতকে ওঠেন। কিন্তু আপনার চুলে যদি প্রতিদিনই কদাকার হয়ে ওঠে তাহলে প্রতিদিনই শ্যাম্পু করাতে হবে। এতে কোনো ক্ষতি হবে না।

Advertisement

দেহের অবাঞ্ছিত লোম অপসারণে নিরাপদ উপায় কোনটি

দেহের লোম অপসারণের আছে একাধিক উপায়। আপনি কোন উপায়টি ব্যবহার করবেন তা নির্ভর করছে আপনার ত্বকের ধরন এবং লোম গজানোর তীব্রতার ওপর। চোখের ভ্রুর জন্য থ্রেডিং এবং টোয়েকিং ভালো কাজ করে। হাত বা পায়ের জন্য ওয়াক্সিং সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি। আর আপনি যদি লেজার হেয়াল রিমুভাল পদ্ধতি ব্যবহার করতে চান তাহলে অভিজ্ঞ কোনো কসমেটিক সার্জনের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

 

মোবাইল,-নারী

কনসিলার প্রয়োগ করতে হয় কীভাবে

কোনো নারীই একদিনে কনসিলার প্রয়োগ করা শিখে যান না। এছাড়া কোন ধরনের কনসিলার ব্যবহার করছেন তাও একটি বিবেচ্য বিষয়। সব নারীই কনসিলার ব্যবহার করেন না। যাদের ত্বকে কোনো মার্ক বা দাগ আছে তাদেরকে অবশ্যই কনসিলার কিনতে হবে। কনসিলার কেনার আগে ক্রস চেক করে নিন সেটি আপনার ত্বকের টোনের সঙ্গে মানানসই কিনা এবং আপনার উদ্দেশ্য পুরণ করতে পারবে কিনা। কনসিলারের নানা ধরন আছে। ফলে কেনার আগে গবেষণা করে নিতে হবে।

ট্যাটু কি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর

সবার জন্য যে ট্যাটু ক্ষতিকর এমন নয়। তবে যারা স্থায়ী ট্যাটু এঁকেছেন তাদের অনেকেই অভিযোগ করেছেন, এর ফলে তাদের ত্বকের সমস্যা বেড়েছে। অর্থাৎ ট্যাটুতে ঝুঁকি আছে। সুতরাং আপনি যদি পুরোপুরি নিরাপদ থাকতে চান তাহলে ট্যাটু না করানোই ভালো। আর যদি ট্যাটু করাতেই হয় তাহলে ভালো কোনো পার্লার এবং ভালো কোনো শিল্পীকে দিয়ে তা করান।

চুল কীভাবে দ্রুত গজানো যায়

সারাদিন চুলের সঙ্গে নিষ্ঠুর সব আচরণ করে দিনশেষে এসে চুল কীভাবে দ্রুত গজানো সম্ভব তা নিয়ে গুগলে সার্চ করার কোনো মানে হয় না। চুল দ্রুত গজাতে চাইলে চুলকে ভালো যথেষ্ট পরিমাণে পুষ্টি সরবরাহ করতে হবে এবং প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে রক্ষা করতে হবে। আর চুল দ্রুত গজানোর কোনো পদ্ধতি ব্যবহার করার সময় আপনাকে ধৈর্য্য ধরে অপেক্ষা করতে হবে। একদিনেই এর কোনো সমাধান সম্ভব নয়। অনেকে আবার এসময় চুল ছাটা বন্ধ করে দেন। কিন্তু সময় মতো চুল ছাটা হলে তা চুলের বৃদ্ধিতে বরং আরো সহায়ক হয়।

ফর্সা ত্বক পাব কীভাবে

নারীরা প্রায়ই ত্বক ফর্সা করার জন্য প্রচুর পরিমাণে কসমেটিকস কেনেন। যেমন, পাউডার, ফাউন্ডেশন এবং আরো নানা ধরনের প্রসাধনী কেনেন। কিন্তু ত্বক ফর্সা হওয়ার জন্য স্বাস্থ্যকর জীবন যাপনই মূল চাবিকাঠি। এজন্য প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে, ফল ও জুস খেতে হবে, ভারসাম্যপূর্ণ খাদ্যাভ্যাস মেনে চলতে হবে এবং শরীর চর্চা করতে হবে। এর পাশাপাশি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ামুক্ত ঘরোয়া দাওয়াই ব্যবহার করা যেতে পারে

Advertisement

ত্বকের ধরন নির্ণয় করব কীভাবে

এর সবচেয়ে ভালো বিজ্ঞানসম্মত উপায় হলো একটি মেডিকেল স্কিন টেস্ট করানো। ঘরে বসেও প্রাথমিক পদ্ধতিতে ব্লটিং পেপার ব্যবহার করেও স্কিন টেস্ট করানো যায়। ব্লটিং পেপারটি আপনার ত্বকের বিভিন্ন এলাকায় লাগিয়ে দিন। এরপর তা তুলে আলোতে দেখুন। এতে যদি প্রচুর পরিমাণ তেল থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার ত্বকের ধরন হলো তৈলাক্ত। আর যদি কম তেল থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার ত্বক হলো শুষ্ক ত্বক। তবে আপনার গালের তুলনায় যদি নাক একটু বেশি তৈলাক্ত হয় তাহলে বিস্মিতি হওয়ার কিছু নেই।

স্কিন টেস্টের সর্বশেষ ঘরোয়া পদ্ধতিটি হলো মুখ পরিষ্কার করে একঘন্টা পর তা পর্যবেক্ষণ করুন। একঘন্টাও পরও যদি আপনার মুখে তেল এবং মেদ থেকে ক্ষরিত রস থাকে তাহলে আপনার ত্বক হলো তৈলাক্ত ত্বক। কিন্তু যদি কোনো পরিবর্তন না দেখা যায় তাহলে বুঝতে হবে আপনার ত্বক হলো শুষ্ক ত্বক। আর আপনার নাক এবং কপাল যদি কিছুটা চকচকে হয়ে ওঠে তাহলে আপনার ত্বক স্বাভাবিক ধরনের।

Advertisement

পরামর্শ

এসি না চালিয়েও যেভাবে ঠাণ্ডা থাকবে ঘর

Avatar of author

Published

on

প্রচণ্ড দাবদাহে পুড়ছে সারাদেশ। তাপমাত্রার পারদ মরুরাজ্যকেও ছাড়িয়েছে। দিনের বেলা তো বটেই, রাতেও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি রয়েছে। তাপপ্রবাহ থেকে বাঁচতে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে বেশির ভাগ সময় কাটাচ্ছেন মানুষ। পারতপক্ষে অফিস থেকে বাইরে পা রাখতে চাইছেন না কর্মীরা। পথচারীরা কিছু ক্ষণ হলেও শপিং মলে ঢুকে কিংবা বাতানুকূল দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে দহনজ্বালা জুড়িয়ে নিচ্ছেন। শহরে অনেক বাড়িতে ঘর ঠান্ডা করার এসি যন্ত্রটি থাকলেও এই সুখ সকলের সাধ্যের বাইরে। আবার, এসি থাকলেও সারা ক্ষণ সেই ঘরে বসে থাকাও তো শরীরের জন্য ভাল নয়। তা হলে এই তীব্র দহন সামাল দেবেন কী করে?

এক) গরমকালে ‘চিল্‌ড’ বিয়ার খাওয়ার একটা প্রবণতা তৈরি হয়। মনে রাখতে হবে, ঠান্ডা বিয়ার খেলে সাময়িক আরাম হয়, এই অভ্যাস কিন্তু শরীরকে ডিহাইড্রেটেড করে দেয়। পুষ্টিবিদেরা বলছেন, এই সময়ে বেশি চা, কফি না খাওয়াই ভাল।

দুই) দিনের যে সময়টা সবচেয়ে বেশি গরম, সম্ভব হলে সেই সময়টা ঘুমিয়ে কাটিয়ে দিতে পারেন। বাড়ির বাইরে ছায়া-ঘেরা জায়গায় থাকার চেষ্টা করতে হবে।

তিন) জলের কোনও বিকল্প নেই। তাই বারে বারে জল খেতে হবে। সঙ্গে ফল কিংবা ফলের রস, ডাবের জলও খাওয়া যেতে পারে।

চার) হালকা, সুতির পোশাক পরতে হবে। এই সময়ে খুব আঁটসাঁট পোশাক না পরাই ভাল। খুব গাঢ় রঙের পোশাক এড়িয়ে চলুন।

Advertisement

পাঁচ) সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ঘরের সমস্ত দরজা-জানলা বন্ধ রাখুন। যাতে রোদ ঘরে ঢুকতে না পারে। জানলা-দরজায় বড়, মোটা পর্দা টাঙিয়ে রাখতে পারেন। ঘর তুলনামূলক ভাবে ঠান্ডা থাকবে।

ছয়) বড় কোনও পাত্রে পানি ভরে ফ্রিজ়ে ঢুকিয়ে রাখুন। বরফ হয়ে গেলে বার করে ঘরে রেখে দিন। ফ্যান চালিয়ে রাখতে পারেন। ঘরের তাপ অনেকটা কম হবে।

সাত) দেহের তাপমাত্রা হঠাৎ খুব বেড়ে গেলে শারীরিক সমস্যা হতেই পারে। রোদ থেকে ফিরেই ফ্রিজের পানি খেলে হিতে বিপরীত হতে পারে। বরং বাড়ি ফিরে ফ্যানের তলায় কিছুক্ষণ বসে গোসল করে নেয়া যেতে পারে। প্রয়োজনে গোসলের পানিতে কয়েক ফোঁটা পেপারমিন্ট এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে নিতে পারেন। শরীর ঠান্ডা হবে।

এএম/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

লাইফস্টাইল

বরফ পানির ফেসিয়াল

Avatar of author

Published

on

বরফ-পানির-ফেসিয়াল

ইনস্টাগ্রাম খুললেই চোখে পড়ছে অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন এবং আলিয়া ভাটের রূপচর্চার ভিডিও। ঘুম থেকে উঠে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধোয়ার পর তারা মুখ ডোবাচ্ছেন বাটি ভর্তি বরফ পানিতে। কেন করছেন? যাতে ত্বক টানটান থাকে। মুখের ছোট ছোট ছিদ্র, ওপেন পোরস বন্ধ হয়। চট করে মুখ একেবারে ঝকেঝকে হয়ে ওঠে।

রূপচর্চা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই থেরাপির নাম ‘ক্রায়োথেরাপি’। অতিরিক্ত ঠান্ডা ত্বকের সেবাম নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করে, ফলে অ্যাকনের প্রকোপ কমে। চোখের নীচের ফোলা ভাব কমাতে, মুখের লালচে বা পোড়া ভাব দূর করতে এই থেরাপি এখন বিশেষ ভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তবে শুধু মুখের ত্বকেই নয়, সারা শরীরেই নেয়া যায় আইস বাথ। এতে পেশিগুলি আরাম পায়। চোট-আঘাত লেগে থাকলে তাতেও মলম পড়ে। ক্রিকেটার বিরাট কোহলি, অভিনেত্রী সমান্থা রুথ প্রভু মাঝেমধ্যেই বাথটবের বরফ পানিতে ডুব দিয়ে বসে থাকেন। গোটা শরীরে না হলেও কম খরচে বাড়িতে বসেই মুখে এই থেরাপি করা যেতে পারে।

যে ভাবে নিবেন এ থেরাপি-

প্রথমে একটি বড় পাত্র নিন। পাত্রটি এতটাই বড় হবে যাতে মুখ ডোবানো যায়। এবার তার মধ্যে ফ্রিজে রাখা পানি এবং বরফ কুচি দিয়ে দিন। এক-দু’টুকরো বরফ দিলে কিন্তু হবে না। বেশ অনেকটা পরিমাণ বরফ দিতে হবে। এবার ওই পাত্রে মুখ ডুবিয়ে রাখুন ৫ সেকেন্ড। এই ভাবে ৫ থেকে ৬ বার বরফ পানিতে মুখ ডোবাতে হবে। গোটা প্রক্রিয়া শেষ করতে অন্তত পক্ষে মিনিট দশেক সময় লাগবে। পরিষ্কার হয়ে গেলে, নরম তোয়ালে দিয়ে চেপে চেপে মুখ মুছে নিতে হবে। তোয়ালে দিয়ে ঘষে ঘষে মুখ মুছতে যাবেন না। আগে থেকে ফ্রিজে রেখে দেয়া ঠান্ডা জেড রোলার দিয়ে মুখে মাসাজ করতে হবে। এই সময়ে মুখে সিরাম মাখা যেতে পারে। তাতে মুখের উপর রোলার দিয়ে মাসাজ করতে সুবিধে হবে।

মনে রাখবেন, বেশিক্ষণ বরফ পানিতে মুখ ডুবিয়ে রাখা মোটেও ভাল নয়। আইসবার্ন হতে পারে। যদি তেমনটা হয়, সে ক্ষেত্রে গরম পানিতে তোয়ালে ডুবিয়ে, নিংড়ে নিয়ে মুখে ভাপ নিতে পারেন।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

লাইফস্টাইল

গরমে তেষ্টা মেটাতে যেসব ফল খাবেন

Avatar of author

Published

on

ফল

এপ্রিলের গরমে বাইরে বের হলেই শরীরে জ্বালা আর গলায় তেষ্টা থাকে। এমন সময় শরীর যত ঠান্ডা রাখতে পারবেন ততই ভালো। সেই বুঝেই খাবার খেতে হবে। আর খাবারের তালিকায় ফল অবশ্যই রাখুন। এমন ফল যা শরীরের অনেকটা পানির চাহিদা মিটিয়ে দিতে পারে। যেমন–

লেবু: লেবুতে ৮৭ শতাংশ পানি থাকে। শরীর হাইড্রেটেড রাখার পাশাপাশি লেবু এনার্জি বৃদ্ধি করে। বিশেষত যারা ব্যায়াম করেন, তাদের প্রতিদিন খাওয়া উচিত। এটি ভিটামিন সি-সমৃদ্ধ, তাই ত্বকের জন্যেও উপকারী।

তরমুজ: তরমুজে ৯২ % পানি আছে, যা সহজেই গরমকালে ডিহাইড্রেশনের সমস্যা মেটায়। শুধু তাই নয়, তরমুজে উপস্থিত আরও পুষ্টিগুণ হার্টের নানা সমস্যা দূর করার পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়।

আপেল: আপেলে ৯৬ শতাংশ পানি থাকে। প্রতিদিন একটি করে আপেল খেলে রোগব্যাধি দূরে থাকে। আপেল বিপাকক্রিয়ার উন্নতি করে, হার্টকে সুস্থ রাখে এবং রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণ করে। এতে উপস্থিত ভিটামিন এবং খনিজ, দাঁত ও হাড়কে শক্তিশালী করে এবং ত্বককে সুস্থ রাখে।

ডাবের পানি: অতিরিক্ত গরমের প্রয়োজনীয় পানি শরীর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ফলে ডিহাইড্রেশনের মতো সমস্যা হয়। ডাবের পানি শরীরে এই পানির ঘাটতি পূরণ করে। এতে আছে কার্বোহাইড্রেট যা এনার্জি বাড়ায়। এতে আছে ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম ও ভিটামিন সি যা ব্লাড প্রেশারকে নিয়ন্ত্রণ করে।

Advertisement

আম: সাধারণত আমে ৮৩ শতাংশ পানি থাকে। বেশিরভাগ মানুষই এই ফল খেতে পছন্দ করেন। এই ফলে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। আমে রয়েছে প্রচুর বিটা ক্যারোটিন যা চোখের জন্যেও অত্যন্ত ভালো।

আনারস: আনারস একটি সুস্বাদু ও সরস ফল। এতে ৮৬ শতাংশ পানি রয়েছে। এটি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ। আনারসে প্রচুর ম্যাঙ্গানিজ থাকে যা হাড়ের জন্য উপকারী। এতে ফাইবারের পরিমাণ বেশি এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ।

পেঁপে: পেঁপেতে পানি ছাড়াও ভিটামিন সি, ফাইবার এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভিটামিন সমৃদ্ধ পেঁপে খুব উপকারী।

ব্লুবেরি: ব্লুবেরিতে ৮৪ শতাংশ পানি আছে। ব্লুবেরি রক্তকে বিশুদ্ধ করে। এটিতে সমস্ত প্রয়োজনীয় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে যা মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখে। বহু মানুষ কাশি এবং সর্দি নিরাময়ের জন্যও ব্লুবেরি খান।

শশা: এতে প্রায় ৯৬ শতাংশ পানি থাকে, এছাড়া রয়েছে প্রচুর ডাইজেস্টিভ এনজাইম যা খাবার হজম করতে সাহায্য করে। এছাড়া শরীরে পানি ধরে রাখতেও এর জুড়ি নেই। রয়েছে প্রচুর ফাইবার। তাই কনস্টিপেশন প্রতিরোধেও সাহায্য করে।

Advertisement

তালশাঁস: তালের শাঁসে রয়েছে ভিটামিন সি ও বি কমপ্লেক্স, ভিটামিন এ, যা দৃষ্টিশক্তিকে প্রখর করতে সাহায্য করে। তালশাঁসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। কচি তালের শাঁস বমিভাব, লিভারের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়াও রক্তাল্পতা প্রতিরোধেও উপকারী এই সুস্বাদু ফল।

আখের রস: আখ বা আখের রস হল প্রাকৃতিক মিনারেল ওয়াটার। পেটের সমস্যা বা ডিহাইড্রেশনের জন্য এটি খুব উপকারী। দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, বাড়ন্ত শিশুরা যদি আখের রস চিবিয়ে পান করে তাহলে তার দাঁতের সমস্যা অনেকটাই লাঘব হয়। আখের রসে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, আয়রন ও এন্টিঅক্সিড্যান্ট যা ব্রেস্ট ক্যানসার এবং প্রস্টেট ক্যানসার নিরাময়ে কাজ করে।

আঙুর: আঙুরে প্রায় ৮১% জলীয় অংশ রয়েছে। এটি আমাদের পরিপাকতন্ত্র থেকে অ্যাসিডের মাত্রা কমিয়ে দেয় এবং কিডনির উপর চাপ কমায়। আঙুর মাইক্রো নিউট্রিয়েন্টস যেমন, কপার, আয়রন এবং ম্যাঙ্গানিজে ভরপুর একটি ফল যা হাড়ের গঠন এবং মজবুত হওয়ার জন্য অত্যন্ত জরুরি। কিডনির যে কোনও সমস্যা থেকে আমাদের মুক্ত রাখে।

লিচু: মৌসুমি ফল হিসাবে লিচু অসম্ভব উপকারি একটি ফল। প্রতিটি লিচুতে প্রায় ৮৪% জল থাকে যা ডি হাইড্রেশন উপশমে বিশেষ কার্যকরী। লিচু ক্যানসারের নোভিস কোষগুলিকে ধংস করে। ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট যা কোষের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি হ্রাস করে। প্রচুর ফাইবার ও পানি যা হজমে এবং ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

জামরুল: এতে প্রায় ৮৩% পানি রয়েছে। এছাড়াও ফ্ল্যাভনওয়েড ও ফাইটকেমিক্যাল সমৃদ্ধ জামরুল ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। এই ফলের গ্লাইসেমিক লোড খুব কম হওয়ায় ডায়াবেটিসের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। এই রসালো ফল মস্তিষ্ক ও লিভারের যত্নে টনিক হিসাবে কাজ করে।

Advertisement

অতিরিক্ত পানি পানও কিন্তু বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাই প্রয়োজনের বেশি পানি পান একেবারেই নয়। তার চেয়ে বরং গরমকালে পানির পাশাপাশি এই ফলগুলিও খাওয়া স্বাস্থ্যকর।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

দুর্ঘটনা7 mins ago

বাস-অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজনের মৃত্যু

চট্টগ্রামের পটিয়ায় যাত্রীবাহী বাস ও সিএসজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজন প্রাণ হারিয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন। নিহতরা হলেন—...

জাতীয়10 hours ago

তীব্র দাবদাহে ট্রাফিক সদস্যদের স্বস্তি দিতে অনন্য উদ্যোগ

প্রচণ্ড খরতাপে পুড়ছে সারা দেশ। এই তীব্র গরমের মাঝেও খোলা আকাশের নিচে ঢাকা মেট্রোপিলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা যানজট নিরসনে...

জাতীয়11 hours ago

তীব্র দাবদাহের মধ্যে ৭ দিন স্কুল বন্ধের দাবি

টানা ২৬ দিন ছুটি কাটিয়ে রোববার (২১ এপ্রিল) খুলছে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এমন একসময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে যখন দেশের ওপর দিয়ে তীব্র...

জাতীয়12 hours ago

১৫০ বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে ২৮৫ সেনাসহ ফিরবে মিয়ানমারের জাহাজ

বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ ও সেনাবাহিনীর ২৮৫ জন সদস্যকে মিয়ানমারের জাহাজে নৌপথে ফেরত যাওয়ার ক্লিয়ারেন্স দেয়া হয়েছে।...

বাংলাদেশ12 hours ago

ভয়াবহ রুপ ধারণ করবে তাপমাত্রা

সারাদেশে চলছে তাপপ্রবাহ। জনজীবন হয়ে উঠেছে অতিষ্ঠ। যশোর-চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তিন দিনের...

জনদুর্ভোগ13 hours ago

২ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে যেসব এলাকায়

গ্যাস পাইপলাইনের জরুরি কাজের জন্য শনিবার (২০ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের বেশ কিছু এলাকায় দুই ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। এছাড়াও ওই...

চট্টগ্রাম14 hours ago

ট্রেনের ধাক্কায় স্ত্রী-সন্তানদের সামনেই প্রাণ গেলো স্বামীর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নোয়াখালী মেইল ট্রেনের ধাক্কায় স্ত্রী-সন্তানদের সামনেই প্রাণ হারিয়েছেন রায়হান মিয়া (৩৫) নামের এক যুবক। ঈদের ছুটিতে স্ত্রী, দুই মেয়ে...

দুর্ঘটনা14 hours ago

হাসপাতালের আইসিইউ পুড়ে ছাই, রক্ষা পেল ৭ শিশু

রাজধানীর শ্যামলীতে অবস্থিত শিশু হাসপাতালের কার্ডিয়াক ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) এসি বিস্ফোরণে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। পুড়ে গেছে বেড,...

বাংলাদেশ15 hours ago

ধেয়ে আসছে তীব্র ঝড়

দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড়সহ শিলাবৃষ্টির আশঙ্কা করছে আবহওয়া অফিসে। এর মধ্যে সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে তীব্র ঝড় বয়ে যেতে পারে...

দুর্ঘটনা15 hours ago

ট্রাকচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

রাজশাহীতে ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩ জন। শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেল পৌনে ৫টার...

Advertisement
সৌদি-পতাকা
আন্তর্জাতিক3 days ago

ইরান-ইসরায়েল প্রসঙ্গে অবস্থান স্পষ্ট করলো সৌদি

ডাকসুর-সাবেক-ভিপি-নুরুল-হক
আইন-বিচার5 days ago

নুরের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইসরাইলে আবারও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ইসলাম4 days ago

ঈদুল আযহার সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা

টুকিটাকি5 days ago

অপ্রাপ্তবয়স্ক ছাত্রকে যৌন নির্যাতন করলেন শিক্ষিকা

বাংলাদেশ7 days ago

ইসরাইল থেকে সরাসরি ঢাকায় বিমানের অবতরণ- যা জানা গেলো

বাংলাদেশ2 days ago

নিজ বাহিনীতে ফিরে গেলেন খন্দকার আল মঈন

বাংলাদেশ5 days ago

সন্যাসী হতে ২০০ কোটি রুপির সম্পত্তি দান করলেন দম্পতি

সৌন্দর্য
লাইফস্টাইল3 days ago

চড়-থাপ্পড়েই বাড়বে নারীদের সৌন্দর্য!

আন্তর্জাতিক6 days ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: ভূমধ্যসাগরে ঢুকলো রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

প্রধানমন্ত্রী-শেখ-হাসিনা
জাতীয়3 weeks ago

গায়ের চাদর না পুড়িয়ে বউদের ভারতীয় শাড়ি পোড়ান: প্রধানমন্ত্রী

ফুটবল4 weeks ago

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোচ জানালেন এটা মাত্র শুরু

টুকিটাকি4 weeks ago

জিলাপির প্যাঁচে লুকিয়ে আছে যে রহস্য!

অর্থনীতি1 month ago

বাজারে লেবুর সরবরাহ বেশি, তবুও দাম চড়া

রেশমা
বাংলাদেশ1 month ago

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর ঠিকানা খুঁজছে পুলিশ

হলিউড1 month ago

নীল দুনিয়ায় অভিনেত্রী সোফিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু

ফুটবল2 months ago

জামালকে ঠিকঠাক বেতন দেয়নি আর্জেন্টাইন ক্লাব

টুকিটাকি2 months ago

রণবীরের ‘অ্যানিম্যাল’ দেখে শখ, মাইনাস ২৫ ডিগ্রিতে বসলো বিয়ের আসর

অর্থনীতি2 months ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 months ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

সর্বাধিক পঠিত