Connect with us

লাইফস্টাইল

ডায়েটে যে ৫ খাবার রাখলে গরমেও শরীর থাকবে ফিট

Avatar of author

Published

on

গরমে

বাড়ছে রোদের তাপ তাই ঘামও হচ্ছে প্রচুর। সেই সঙ্গে কমছে কাজের ইচ্ছা। গরম, ঘাম আর ক্লান্তিতে যেন সব ধরনের কাজ করার শক্তিই কমতে থাকে। এ সময়ে খাওয়াদাওয়ায় জোর দেয়া জরুরি, যেন কর্মশক্তি পাওয়া যায় শরীরে। আবার তার মানে এমন নয় যে, অতিরিক্ত ভারী বা তেলমশলা যুক্ত খাবার খেয়ে নেবেন। তাতে গ্রীষ্মকালে উল্টো প্রভাবই পড়বে শরীরের উপর। এ সময়ে খেতে হবে এমন কিছু খাবার, যা প্রধানত শরীর ঠান্ডা রাখবে। এই সময় কী কী রাখবেন রোজকার ডায়েটে, চলুন জেনে নেয়া যাক।

দই: গ্রীষ্মে পাতে টক দই রাখার কথা বলেন পুষ্টিবিদেরা। প্রোটিনে ঠাসা দই গ্রীষ্মকালীন নানা সংক্রমণ থেকে রক্ষা করার পাশাপাশি প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। দইয়ের প্রোবায়োটিক উপাদান হজমের গোলমাল দূর করতেও অনেক সাহায্য করে।

বেল: গরমে তেষ্টা মেটাতে বেলের শরবত দারুণ বিকল্প হতে পারে। পেট ঠান্ডা রাখে ও শরীরে যত্ন নেয়। শুধু বেল খাওয়ার চেয়ে শরবত বানিয়ে খেতে পারেন। শরবতে এক চামচ গোলমরিচ মিশিয়ে দিলে স্বাদ এবং শরীর দুইয়ের যত্ন একসঙ্গে নেয়া হবে।

ডাবের পানি: ভিটামিন, খনিজ পদার্থ এবং ইলেকট্রোলাইট উপাদানে ভরপুর ডাবের পানি। তাই গরমে বেশি করে ডাবের পানি খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদেরা। গরমে ঘাম বেশি হয়। ফলে ঘামের সঙ্গে শরীরের প্রয়োজনীয় উপাদানগুলি বেরিয়ে যায় দেহের বাইরে। শারীরিক দুর্বলতা কাটাতে খেতেই হবে এই পানীয়।

তরমুজ: এই ফলে পানির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। গরমে তরমুজ শরীরের জন্য অনেক উপকারী। তরমুজ ক্যানসার, উচ্চ রক্তচাপ, হার্ট অ্যাটাকের মতো নানা শারীরিক সমস্যার ঝুঁকি কমায়। পেটের স্বাস্থ্য ভাল রাখতেও এর ভূমিকা কম নয়। গরমে সুস্থ থাকতে খেতে পারেন তরমুজ।

Advertisement

লেবু আর ছাতুর শরবত: ছাতু হল এমন একটি খাদ্য, যা নানা ধরনের পৌষ্টিক উপাদানে ভরপুর। পানি ছাতু গুলে, তাতে পাতিলেবুর রস দিয়ে খেলে শরীর যেমন ঠান্ডা থাকে, তেমনই পেট থাকে ভর্তি। আবার ছাতুর পুষ্টিগুণ কর্মশক্তিও জোগায়। অনেকে এই শরবতে অল্প জিরা, পুদিনাও যোগ করে দেন। তাতে স্বাদ বাড়ে। শরীরের সঙ্গে মনও সতেজ থাকে।

Advertisement

লাইফস্টাইল

৪০-এর পরেও ত্বক ঝলমলে থাকবে যেভাবে

Avatar of author

Published

on

ঝলমলে

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকে ভাঁজ পড়তে শুরু করে। এই জন্য আগে থেকে যত্ন নেয়া শুরু করতে হবে। ৪০-এর কোঠায় পা দিলে ত্বক মসৃণতা হারাতে শুরু করে। ত্বক নিষ্প্রাণ এবং শুষ্ক হতে শুরু করে। ত্বকে দেখা দেয় বলিরেখা। তবে ৪০-এর পরেও ত্বকের ঝলমলে ভাব কী ভাবে বজায় রাখা যায় চলুন জেনে নেয়া যাক।

  • সপ্তাহে এক দিন স্ক্রাব করতে হবে। এতে ত্বকের মৃতকোষ দূর হয়। তবে তা করতে হবে খুব আলতো করে। না হলে ত্বক রুক্ষ হয়ে যায়।
  • রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠে গোলাপজল দিয়ে মুখ ধুতে পারেন। গোলাপজল ত্বকের কোমলতা বজায় রাখে।
  • শীত হোক কিংবা গ্রীষ্ম বাইরে বেরোনোর আগে সানস্ক্রিন মাখতে ভুলবেন না। সূর্যের অতিবেগনি রশ্মি থেকে ত্বক সুরক্ষিত থাকে। এ ছাড়া ত্বকে ট্যান পড়ার ঝুঁকিও কমে।
  • বাইরে থেকে ফিরলেই ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিন। এতে মুখের ময়লা দূর হবে।
  • ত্বক ভাল রাখতে হলে প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে। পানি কম খেলে ত্বকের ঝলমলে ভাব নষ্ট হয়ে যায়। তাই সারা দিনে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খাওয়া জরুরি।
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

লাইফস্টাইল

হিট ওয়েভ সম্পর্কে জেনে নিন কিছু জরুরি তথ্য

Avatar of author

Published

on

হিট ওয়েভ

দেশে চলতি মৌসুমে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি ছুঁয়েছে। যা স্বাভাবিকের থেকে অনেকটাই বেশি। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে, চলমান তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। সেই সঙ্গে চলতি মাসেই তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি পর্যন্ত উঠতে পারে বলেও আগেই সতর্ক করা হয়েছে।

প্রতি বছরই বিশ্বে প্রচুর মানুষের মৃত্যু হয় হিট স্ট্রোকে। অনেকেই রোদের মধ্য থেকে বাড়িতে ফিরে প্রথমেই ঢকঢক করে ঠাণ্ডা পানি খেয়ে ফেলেন। যা একেবারেই ঠিক নয়। কারণ এতে যেমন ঠাণ্ডা বসে যায় তেমনই কিন্তু স্ট্রোকের (হিট ওয়েভ) সম্ভাবনাও বেড়ে যায় অনেকখানি।

হিট ওয়েভ বা হিট স্ট্রোক থেকে বাঁচতে তাই সতর্ক থাকতে হবে। এক্ষেত্রে যেসব বিষয় মেনে চলার ওপর বিশেষজ্ঞরা গুরুত্ব দিয়ে থাকেন, তার কয়েকটি সম্পর্কে নিচে উল্লেখ করা হলো-

১) ঠাণ্ডা পানি পান পরিহার করুন। বরফ/বরফ পানি পুরোপুরিই পরিহার করুন।

২) স্বভাবিক পানি পান করুন, তবে ধীরে ধীরে।

Advertisement

৩) যখন তাপমাত্রা ৪০° সেলসিয়াসে পৌঁছে তখন খুব ঠাণ্ডা পানি পান করতে নিষেধ করেন চিকিৎসকরা। কারণ এতে রক্তনালী হঠাৎই সংকুচিত হয়ে স্ট্রোক হতে পারে।

৪) যখন বাহিরের তাপমাত্রা ৩৮° সেলসিয়াস অতিক্রম করে তখন ঘরে চলে আসুন বা ছায়ায় অবস্থান করুন। ঠাণ্ডা পানি পান করবেন না। স্বভাবিক তাপের পানি পান করুন বা ঈষৎ গরম পানি এবং ধীরে ধীরে পান করুন।

৫) ঘরে এসেই হাত-পা-মুখ ধুবেন না। হাত-মুখ ধোয়ার আগে একটু অপেক্ষা করুন। দেহকে ঘরের তাপের সাথে খাপ খাইতে দিন। অন্তত আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করুন হাত-মুখ ধোয়ার আগে বা গোসলের আগে।

৬) অল্প অল্প করে বারে বারে স্বাভাবিক পানি পান করুন। জুস বা এ জাতীয় পানীয় পরিহার করুন। স্বাভাবিক শরবত, ডাব বা লবণ পানির শরবত পান করতে পারেন- যদি তা আপনার জন্য অন্য কারণে নিষিদ্ধ না হয়ে থাকে। তবে তাও স্বল্প পরিমাণে।

৭) প্রচণ্ড গরমে বা যদি আপনি খুবই ক্লান্ত থাকেন তবে ভুলেও বরফ মিশ্রিত পানি বা ফ্রিজের পানি পান করবেন না, যদিও ওই সময় ঠাণ্ডা পানি খুব ভালো লাগে। এটা শরীরে প্রশান্তি ভাব এনে দিলেও হঠাৎই ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

পরামর্শ

কখন চা পান করলে শরীরের ক্ষতি হয়

Avatar of author

Published

on

দিনের শুরুতে এক কাপ চায়ে চুমুক না দিলে চলে না। বন্ধুদের আড্ডায় কিংবা প্রিয়জনের সঙ্গে নিভৃতে গল্পগুজব- চা না হলে ঠিক চলে না। হাঁসফাঁস করা গরমেও সারা দিনে কয়েক কাপ চা পান করেন অনেকেই। চা পান খারাপ নয়, কিন্তু কিছু অভ্যাসে শরীর বিগড়ে যেতে পারে।

১. খালি পেটে চা পানের অভ্যাস ঘরে ঘরে। ঘুম থেকে উঠে চা-এ চুমুক দেন বেশির ভাগই। এতে ঘুম আর আলসেমি কাটলেও অম্বল হওয়ার ঝুঁকি থাকে। খালি পেটে গরম চা পান একেবারেই স্বাস্থ্যকর নয়। এর ফলে পেপটিক আলসার, গ্যাস-অম্বল হওয়ার আশঙ্কা থাকে। চিকিৎসকেরা জানাচ্ছেন, ঘুম থেকে উঠে প্রথমেই চায়ের কাপে চুমুক না দিয়ে বরং একটা বিস্কুট খেয়ে তার পর চা পান ভালো।

২. ভারী খাবারের সঙ্গে চা পান বারণ করছেন চিকিৎসকেরা। এতে প্রথমত হজমের একটা গোলমাল দেখা দেয়। তবে সবচেয়ে যে সমস্যাটি হয়, তা হল শরীরে আয়রনের পরিমাণ কমে যায়। ঝুঁকি বাড়ে অ্যানিমিয়ার। লিভারেরও নানা সমস্যা হতে পারে এর ফলে। তাই ভাত, রুটি, বিরিয়ানি এবং অন্য কোনও ভারী খাবারের সঙ্গে চা না পানই শ্রেয়।

৩. অফিস থেকে ফিরে গুছিয়ে বসে এক কাপ চা না পান করলে ঠিক চাঙ্গা হয় না শরীর। ফিরতে যত রাতই হোক, চা খান অনেকেই। আবার রাত জাগার জন্যেও অনেকে বার বার চা পান করেন। রাত করে চা পানের অভ্যাস একেবারেই ভালো নয়। চায়ে থাকা থিয়োফাইলিনস মস্তিষ্ককে সক্রিয় রাখে দীর্ঘ ক্ষণ। সহজে ঘুম আসতে চায় না। রাতে চা খাওয়ার অভ্যাসে অনিদ্রা রোগ দেখা দিতে পারে। ঘুমোতে যাওয়ার অন্তত ৩ ঘণ্টার মধ্যে চা না পানই ভালো।

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

সমুদ্র সমুদ্র
জাতীয়3 mins ago

দায়িত্বশীল ও টেকসই সমুদ্র ব্যবস্থাপনার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

বিবিএনজে চুক্তি অনুমোদন এবং মহাসাগরের জীববৈচিত্র্য পুনরুদ্ধারে তহবিল বরাদ্দের জন্য বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর হাছান মাহমুদ। গ্রিসের...

জাতীয়6 mins ago

ইরান-ইসরায়েল হামলা : প্রভাব মোকাবিলায় প্রস্তুতির নির্দেশ

ইরান-ইসরায়েল হামলার সম্ভাব্য প্রভাব মোকাবিলায় প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে যুদ্ধ পরিস্থিতির ঘটনা প্রবাহের দিকে সংশ্লিষ্টদের...

জাতীয়27 mins ago

তৃতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

তৃতীয় ধাপের ১১২টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এসব উপজেলা পরিষদে আগামী ২৯ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত...

জনদুর্ভোগ37 mins ago

জলাবদ্ধতা নিরসনে নতুন প্রকল্প ডিএসসিসির

আশা করি এবার আর জলাবদ্ধতা থাকবে না। নিউমার্কেট এলাকার জন্য নতুন প্রকল্প নিয়েছি। নিউমার্কেট এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে নতুন প্রকল্প গ্রহণ...

দুর্ঘটনা2 hours ago

ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ১২

ঝালকাঠিতে ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে ১২ নিহত হয়েছেন। সিমেন্টবাহী ওই ট্রাকের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কয়েকটি গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে চলে যায়।...

জাতীয়4 hours ago

তেজগাঁওয়ে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

জামালপুরের তারাকান্দি থেকে ছেড়ে আসা ঢাকা অভিমুখী যমুনা এক্সপ্রেসের একটি ট্রেন রাজধানীর তেজগাঁওয়ে লাইনচ্যুতের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উদ্ধার কার্যক্রম...

দুর্ঘটনা4 hours ago

ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ১১

ঝালকাঠিতে ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে ১১ নিহত হয়েছেন। সিমেন্টবাহী ওই ট্রাকের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কয়েকটি গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে চলে যায়।...

অপরাধ4 hours ago

মাদক মামলায় বদির দুই ভাইয়ের সম্পৃক্ততা আছে: সিআইডি

মাদক মামলার মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত বিষয়ে তদন্ত করতে গিয়ে টেকনাফের সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদির দুই ভাই আমিনুর রহমান ও আব্দুর...

জাতীয়4 hours ago

৮ হাজার ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল: মন্ত্রী

ইতিমধ্যে ৮ হাজার ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া কেউ যদি ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের সুনির্দিষ্ট তথ্য দিতে পারে তাহলে সেই...

মাদকবিরোধী মাদকবিরোধী
অপরাধ6 hours ago

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ১২  

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ। অভিযানে মাদক বিক্রি ও...

Advertisement
সমুদ্র
জাতীয়3 mins ago

দায়িত্বশীল ও টেকসই সমুদ্র ব্যবস্থাপনার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

জাতীয়6 mins ago

ইরান-ইসরায়েল হামলা : প্রভাব মোকাবিলায় প্রস্তুতির নির্দেশ

ঝলমলে
লাইফস্টাইল9 mins ago

৪০-এর পরেও ত্বক ঝলমলে থাকবে যেভাবে

জাতীয়27 mins ago

তৃতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

খুলনা29 mins ago

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

জনদুর্ভোগ37 mins ago

জলাবদ্ধতা নিরসনে নতুন প্রকল্প ডিএসসিসির

ঢাকা48 mins ago

ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কে‌টে পালালেন স্ত্রী

দুর্ঘটনা2 hours ago

ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ১২

ভারী
আন্তর্জাতিক3 hours ago

সূর্যের চেয়ে ৩৩ গুণ ভারী কৃষ্ণগহ্বরের সন্ধান

পানিতে ডুবে মৃত্যু
খুলনা3 hours ago

নদীতে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক7 days ago

বিড়াল বাঁচাতে গিয়ে একই পরিবারের ৫ জন নিহত

বাংলাদেশ4 days ago

ইসরাইল থেকে সরাসরি ঢাকায় বিমানের অবতরণ- যা জানা গেলো

ডাকসুর-সাবেক-ভিপি-নুরুল-হক
আইন-বিচার2 days ago

নুরের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

সৌদি-পতাকা
আন্তর্জাতিক5 hours ago

ইরান-ইসরায়েল প্রসঙ্গে অবস্থান স্পষ্ট করলো সৌদি

ফায়ার-সার্ভিস
জাতীয়5 days ago

নিয়ন্ত্রণে এসেছে বাড্ডার আগুন

দেশজুড়ে4 days ago

যুবকের পায়ুপথ থেকে বের করা হলো ৬ ইঞ্চি ডাব

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: ভূমধ্যসাগরে ঢুকলো রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইরানে পাল্টা হামলার বিষয়ে যা জানালো বাইডেন

বাংলাদেশ7 days ago

যাত্রীদের মারধরে নয়, চালক-কন্ডাক্টরের মৃত্যু হয় যেভাবে

আন্তর্জাতিক3 days ago

ইসরাইলে ইরানের হামলা: প্রতিক্রিয়া জানালো ভারত ও চীন

প্রধানমন্ত্রী-শেখ-হাসিনা
জাতীয়3 weeks ago

গায়ের চাদর না পুড়িয়ে বউদের ভারতীয় শাড়ি পোড়ান: প্রধানমন্ত্রী

ফুটবল3 weeks ago

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোচ জানালেন এটা মাত্র শুরু

টুকিটাকি4 weeks ago

জিলাপির প্যাঁচে লুকিয়ে আছে যে রহস্য!

অর্থনীতি1 month ago

বাজারে লেবুর সরবরাহ বেশি, তবুও দাম চড়া

রেশমা
বাংলাদেশ1 month ago

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর ঠিকানা খুঁজছে পুলিশ

হলিউড1 month ago

নীল দুনিয়ায় অভিনেত্রী সোফিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু

ফুটবল1 month ago

জামালকে ঠিকঠাক বেতন দেয়নি আর্জেন্টাইন ক্লাব

টুকিটাকি2 months ago

রণবীরের ‘অ্যানিম্যাল’ দেখে শখ, মাইনাস ২৫ ডিগ্রিতে বসলো বিয়ের আসর

অর্থনীতি2 months ago

গরুর মাংসের দাম কেজি প্রতি পৌনে ৬ লাখ টাকা!

অপরাধ2 months ago

ডিবিতে যে অভিযোগ দিলেন তিশার বাবা

সর্বাধিক পঠিত