Connect with us

আন্তর্জাতিক

সৌদি আরবসহ যেসব দেশে পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা

Avatar of author

Published

on

বিশ্বের-বিভিন্ন-দেশে-ঈদ-উদযাপন

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে আজ রোববার (১৬ জুন) পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। এ দিন শয়তানকে পাথর নিক্ষেপের মধ্য দিয়ে হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়েছে। আর তারপরই বিশ্বজুড়ে মুসলিমরা পশু কুরবানির মধ্য দিয়ে ঈদুল আজহা পালন করা শুরু করে।

রোববার (১৬ জুন) সৌদি আরবের সংবাদ সংস্থা আরব নিউজ’র প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুধু সৌদি আরব নয় মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা ও আমেরিকার বিভিন্ন প্রান্তেও পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা। এদিন মক্কার মসজিদুল হারাম, মদিনার মসজিদে নববিসহ সৌদি আরবের বিভিন্ন প্রান্তে মসজিদে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে নামাজ আদায় করেন লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। পরে, আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে ঈদুল আজহার আনুষ্ঠানিকতা সারেন মুসল্লিরা।

তবে সৌদি আরবের সঙ্গে একইদিনে চাঁদ দেখতে না পাওয়ায় তাদের প্রতিবেশী দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে আগামীকাল সোমবার (১৭ জুন) ঈদ উদযাপিত হবে। এছাড়াও প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তান, পূর্ব এশিয়ার ব্রুনেই, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াতেও কাল উদযাপন হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। একইদিনে ঈদ উদযাপন করবে ইরান, মরক্কো ও ঘানা। তবে জিলহজের চাঁদ দেখতে দেরি হওয়ায় নিউজিল্যান্ডে ঈদ হবে আগামী মঙ্গলবার ১৮ জুন।

Advertisement

আন্তর্জাতিক

মাছ-মাংস না দেয়ায় কনেপক্ষকে বেধড়ক পিটুনি দিলো বরযাত্রী

Published

on

বিয়ের অনুষ্ঠানে বরযাত্রীদের খুশি করতে চেষ্টার কোনো কমতি রাখে না কনের পরিবার। বরের পরিবারের মানুষের মন জোগাতে আপ্যায়নের যেন কমতি থাকে না। বরযাত্রীদের সামনে দেয়া হরেক পদে খাবার। মাছ, মাংস, পোলাও থেকে শুরু করে আরও কতকি। তবে সব কিছু দিলেও এই বরযাত্রীদের মাছ ও মাংস দেয়নি কনেপক্ষ। এতে ক্ষোভে ফেটে পড়েন বরের আত্মীয়-স্বজনরা। তাদের রাগের মাত্রা এত বেশি ছিল যে কনের পরিবারের সদস্যদের লাথি ও ঘুষি মেরেই ক্ষান্ত হননি লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর পর্যন্ত করেন।

গেলো বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) ভারতের উত্তর প্রদেশে দেওরিয়া জেলার আনন্দ নগর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। পরে বিয়ে বন্ধ করে দিয়ে বর অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে চলে যান। এরপর বাধ্য হয়ে থানায় মারধার ও যৌতুকের অভিযোগে মামলা দায়ের করে কনের পরিবার।

এনডিটিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী, গেলো বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) ভারতের উত্তর প্রদেশে দীনেশ শর্মার মেয়ে সুষমাকে বিয়ে করার জন্য দেওরিয়া জেলার আনন্দ নগর গ্রামে বরযাত্রী নিয়ে যান অভিষেক শর্মা। সব কিছুই পরিকল্পনা মতো চলছিল। এমনকি বরমালা বিনিময় পর্যন্ত হয়ে যায়। তখনই বরপক্ষকে জানানো হয়, খাবারের আয়োজনে কোনো আমিষ রাখা হয়নি।

পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে কনের বাবা ওই প্রতিবেদনে বলেছেন, নিরামিষ খাবারের কথা বলা হলে বর, তার বাবা সুরেন্দ্র শর্মা ও অন্যরা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে শুরু করে। আমি আপত্তি জানালে অভিষেক শর্মা, সুরেন্দ্র শর্মা, রামপ্রবেশ শর্মা, রাজকুমার ও কিছু অজ্ঞাত লোক আমার পরিবারকে লাঠি দিয়ে মারতে শুরু করে এবং লাথি ও ঘুষি মারে।

অভিযোগে আরও বলা হয়, প্রায় ৫ লাখ রুপি (প্রায় সাড়ে সাত লাখ টাকা) যৌতুক হিসেবে দেয়া হয়েছে। মেয়ের বাবা জানান, যৌতুক হিসেবে গাড়ি কেনার জন্য তিনি অভিষেক শর্মাকে সাড়ে চার লাখ রুপি (পাঁচ লাখ ৬১ হাজার টাকা) দিয়েছেন। এ ছাড়া এক সেট তিলক ও দুটি সোনার আংটি (মূল্য ২৮ হাজার টাকা) দেয়া হয়েছে।

Advertisement

এএম/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

হামাসকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করলো আর্জেন্টিনা

Published

on

আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট জাভিয়ার মিলেই

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাসকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে আর্জেন্টিনা। পাশাপাশি সংগঠনটির সব আর্থিক সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ দিয়েছে দেশটির সরকার। খবর- জেরুজালেম পোস্ট

ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে হামাসকে সস্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট জাভিয়ার মিলেই।

প্রেসিডেন্টের দপ্তর থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গেলো বছরের ৭ অক্টোবর ইসরাইলের অভ্যন্তরে হামলা চালিয়েছে হামাস। এতে ১২০০ জনকে হত্যা এবং ২৫০ জনকে জিম্মি করে নিয়ে যায় সংগঠনটির যোদ্ধারা।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘আর্জেন্টিনাকে অবশ্যই আরেকবার পশ্চিমা সভ্যতার সঙ্গে যুক্ত হতে হবে।’

এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রথম ইসরাইল সফর করেন আর্জেন্টাইন প্রেসিডেন্ট জাভিয়ার মিলেই। ওই সময় পবিত্র নগরী জেরুজালেমে গিয়ে তিনি ইহুদিদের সঙ্গে প্রার্থনা করেন। একই সঙ্গে জেরুজালেমে আর্জেন্টিনার দূতাবাস স্থানান্তরিত করার ঘোষণা দেন।

Advertisement

এনএস/

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

মার্কিন ৬ প্রতিষ্ঠানের ওপর চীনের নিষেধাজ্ঞা

Published

on

তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রির অভিযোগে মার্কিন ৬ প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে চীন। শুক্রবার (১২ জুলাই) চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ওই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রির ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের কঠোর নিন্দা জানিয়েছে চীন। তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রি করাকে চীন তার দেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্বে চরম হস্তক্ষেপ হিসেবে মনে করে।

আরও বলা হয়েছে, মার্কিন অস্ত্র বিক্রির ঘটনাকে বেইজিং তার একচীন নীতির প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন হিসেবে মনে করে।

নিষেধাজ্ঞার ফলে, চীনে থাকা মার্কিন ওই অস্ত্র সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সম্পদ ও অর্থ বাজেয়াপ্ত করতে পারবে বেইজিং।

এই নিষেধাজ্ঞার ফলে মার্কিন ওই প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট কোনো ব্যক্তি এখন থেকে চীনের পাশাপাশি হংকং এবং মেকাওয়েরও ভিসা পাবে না।

Advertisement

প্রঙ্গগত, ১৮ জুন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে নতুন করে অস্ত্রবাণিজ্য চুক্তি করে তাইওয়ান। ২০২১ সালে জো বাইডেন প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসার পর থেকে এ নিয়ে ওয়াশিংটন ও তাইপের মধ্যে ১৬টি অস্ত্র বিক্রর চুক্তি হয়।

এনএস/

 

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত