Connect with us

বাংলাদেশ

ফের বিয়ের পিঁড়িতে শাহরুখ খানের নায়িকা

Avatar of author

Published

on

বলা হয়ে থাকে যা রটে তা কিছু বটে। চিরন্তন এই সত্য বাক্যটা আবারও  প্রমাণিত হলো। সত্য কোনো কিছুই ঢেকে রাখা যায় না।  একসময় তা ফাঁস হয়ে যায়, ফাঁস হয়।  এমনই ঘটনা ঘটেছে  পাকিস্তানের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিরা খানের ক্ষেত্রে।

বেশ কয়েক মাস ধরেই গুঞ্জনটা ডালপালা মেলেছিল। দীর্ঘদিনের প্রেমিক  সেলিমকেই বিয়ে করতে চলেছেন শাহরুখ খানের নায়িকা মাহিরা।

তবে তিনি তা বার বার অস্বীকার করে আসছিলেন। অবশেষে  সেই গুঞ্জনই সত্যি হলো। মাহিরা ও সেলিমের চার হাত এক হয়ে গেলো।

একদিকে জওয়ান ছবির মাধ্যমে যখন বক্স অফিসে বুড়ে হাড়ের ভেলকি দেখাচ্ছেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান,  তখন তাঁর সুন্দরী নায়িকা দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে।  রোববার রাতে পাঞ্জাব প্রদেশের ছোট্ট শহর ভুর্বনে  ঘনিষ্ঠ পরিজনদের সাক্ষী রেখেই বিয়ে সারলেন মাহিরা। আর বিয়ের সেই সেই ছবি ও ভিডিও বর্তমানে নেটপাড়ায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।

বিয়ের দিন প্যাস্টেল শেডের লেহেঙ্গায়  সাজেন মাহিরা খান। কালো রঙের শেরওয়ানিতে সেলিম করিম।সাদা ফুলে সেজে উঠেছিল বিয়ের মণ্ডপ। ওড়নায় মুখ ঢেকে সেলিমের দিকে এগিয়ে যান অভিনেত্রী। দুজনেই তখন আবেগপ্রবণ। চোখে জল ছলছল। ওড়না সরিয়ে মাহিরার কপালে চুমু এঁকে দেন সেলিম। জড়িয়ে ধরেন।

Advertisement

বেশ কয়েক বছর ধরেই পাকিস্তানি এই ব্যবসায়ীর সঙ্গে প্রেম করছিলেন মাহিরা খান। বিষয়টি বারবার এড়িয়ে গেলেও ২০২০ সালে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সেকথা স্বীকার করেন অভিনেত্রী। এবার ২০২৩ সালের ১ অক্টোবর ঘনিষ্ঠদের সাক্ষী রেখে বিয়ে সারলেন।

এর আগে ২০০৭ সালে প্রথম বিয়ে করেন মাহিরা।  বিচ্ছেদ ঘটে ২০১৫-তে। ওই সংসারে ১৩ বছর বয়সী এক পুত্র সন্তান রয়েছে।

‘রইস’, ‘হামসফর’সহ বেশ কয়েকটি আলোচিত সিনেমায় অভিনয় করেন মাহিরা।

Advertisement

আইন-বিচার

বিএনপির ৭ আইনজীবীর আদালত অবমাননার আদেশে পেছালো

Published

on

ছবি সংগৃহীত

আদালত অবমাননার মামলায় বিএনপির সাত শীর্ষ আইনজীবীর বিষয়ে আদেশের দিন পিছিয়ে আগামী ১ আগস্ট ধার্য করেছেন আপিল বিভাগ। আপিল বিভাগের দুই বিচারপতির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন ও মিছিল সমাবেশ করার ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এই আদেশ দেন।

এর আগে ১৫ আগস্টের শোক দিবসের আলোচনা সভায় ‘বিচারপতিরা শপথবদ্ধ রাজনীতিবিদ’ উল্লেখ করে বক্তব্য দেয়ায় আপিল বিভাগের দুজন বিচারপতির বিরুদ্ধে একাধিকবার সংবাদ সম্মেলন করে আসছে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম। এছাড়া ওই দুজন বিচারপতিকে বিচারকাজ থেকে বিরত রাখতে কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।এছাড়া মিছিল সমাবেশও করা হয়।

পরে গেলো বছর ২৯ আগস্ট আপিল বিভাগের দুই বিচারপতির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন ও মিছিল সমাবেশ করায় বিএনপির সাত আইনজীবী নেতার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন দায়ের করা হয়। আইনজীবী নাজমুল হুদার পক্ষে অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা যুথি এ আবেদন দায়ের করেন।

গেলো ১৫ নভেম্বর আপিল বিভাগের দুই বিচারপতির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন ও মিছিল সমাবেশ করায় তার ব্যাখ্যা দিতে বিএনপির সাত শীর্ষ আইনজীবী নেতাকে তলব করেন আপিল বিভাগ। ১৫ জানুয়ারি তাদের আদালতে হাজির হতে বলা হয়। একইসঙ্গে তাদেরকে সুপ্রিম কোর্টসহ সব আদালত অঙ্গনে কোনো ধরনের মিছিল সমাবেশ না করার বিষয়ে হাইকোর্টের রায় কঠোরভাবে অনুসরণ করতে বলা হয়।

Advertisement

এর প্রেক্ষিতে গেলো ২৪ এপ্রিল এ ৭ আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদনের আদেশের জন্য আজকের  দিন ধার্য করা হয়। পরে আদালত অবমাননার আসামি সিনিয়র আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, ফাহিমা নাসরিন মুন্নী চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে থাকায় আপিল বিভাগ আদেশের দিন পিছিয়ে দেন।

উল্লেখ্য, বিএনপির এ ৭ শীর্ষ আইনজীবী নেতা হলেন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব ও বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট ফাহিমা নাসরিন মুন্নি, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সুপ্রিম কোর্ট শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল জব্বার ভূঁইয়া, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান খান ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সুপ্রিম কোর্ট শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট গাজী কামরুল ইসলাম সজল।

আই/এ

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

বাংলাদেশ

রেল চালুর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলো কর্তৃপক্ষ

Published

on

কারফিউ শিথিল অবস্থায় সীমিত পরিসরে রেল চালুর কথা থাকলেও। নিরাপত্তা বিবেচনায় সে সিদ্ধান্ত বদল করে রেল চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার আনোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আজ স্বল্প দূরত্বের কয়েকটি ট্রেন চলাচলের কথা ছিল।কিন্তু কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছে। সকাল থেকে কমলাপুর স্টেশন থেকে একটি ট্রেনও  ছেড়ে যায়নি।

এর আগে রেল সচিব জানিয়েছিলেন, শুরুতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা-টাঙ্গাইলসহ দেশের আরও বেশ কিছু রুটে ট্রেন চলবে।

আই/এ

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

জাতীয়

রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংসকারীদের বিচার হবে : প্রধানমন্ত্রী

Published

on

প্রধানমন্ত্রী,-মেট্রোরেল-১০-সেটশন

সরকারের উন্নয়ন যারা ধ্বংস করেছে তাদের বিরুদ্ধে দেশবাসীকেই রুখে দাঁড়াতে হবে। এ তাণ্ডব যারা করেছে, তাদের বিচার দেশবাসীকে করতে হবে।  একই সঙ্গে ধ্বংসযজ্ঞকারীদের রুখে দিতে জনসাধারণকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় মিরপুরে ১০ এ  কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় দুর্বৃত্তদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত মেট্রোরেল স্টেশন পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় প্রধানমন্ত্রী গণমাধ্যমকে বলেন, সাধারণ মানুষ যেন নির্বিঘ্নে কর্মক্ষেত্রে পৌঁছাতে পারে সেটা সুনিশ্চিত করা হবে। দেশটা যাতে আর্থিকভাবে সচ্ছল হতে পারে সেই চেষ্টাই করবো। এ দেশের মানুষ রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছে। সেই দেশটা ব্যর্থ হতে পারে না।

তিনি বলেন, যে স্থাপনাগুলো মানুষের জীবনকে সহজ করে সেগুলো ধ্বংস করা আসলে কোনো ধরনের মানসিকতা। ঢাকা শহর যানজটে নাকাল থাকলেও মেট্রো স্বস্তি দিয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তির এ পরিবহন এভাবে ধ্বংস করেছে, বিষয়টা মানতে পারছি না।

উল্লেখ্য, গেলো শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর মিরপুর-১০ ও কাজীপাড়া স্টেশনে হামলা হয়। ভাঙচুর করা হয় সিসি (ক্লোজড সার্কিট) ক্যামেরা, এলইডি মনিটর, টিকিট কাটার মেশিনসহ বিভিন্ন জায়গা। লুট করা হয় মূল্যবান অনেক জিনিস। পরে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা নির্ণয়ে কমিটি করেছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

Advertisement

ক্ষতিগ্রস্ত মিরপুর-১০ ও কাজীপাড়া স্টেশন চালু হতে কমপক্ষে এক বছর লাগতে পারে বলে জানায় মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

 

এসি//

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত