Connect with us

টলিউড

এবার ‘বার্বি’ রূপে উত্তম-সুচিত্রা, সৌমিত্র হলেন ‘ওপেনহাইমার’

Avatar of author

Published

on

উত্তম, সুচিত্রা, সৌমিত্র

গোলাপি আভায় ছেয়ে আছে গুগল থেকে টুইটার, ফেসবুক থেকে ইনস্টাগ্রাম। ‘বার্বি’র রূপ ধারণ করছেন সকলে। কেউ পরছেন গোলাপি পোশাক, কেউ আবার AI অর্থাৎ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাকে কাজে লাগিয়ে পালটে দিচ্ছেন চেনা মুখ। কিছুদিন আগেই ভারতীয় রাজনীতিবিদদের ‘বার্বি’ লুক ভাইরাল হয়েছিল। এবার গোলাপি দেশে দেখা গেল উত্তমকুমার, সুচিত্রা সেনকে। এদিকে আবার সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে করে দেয়া হল ‘ওপেনহাইমার’।

গ্রেটা গারউইগের পরিচালনায় আদতে ‘বার্বি’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন হলিউড তারকা রায়ান গসলিং ও মারগট রবি। নোলানের ‘ওপেনহাইমার’-এর সঙ্গে জোর টক্কর দিয়েছে রোম্যান্টিক এই কমেডি। দুই ছবিই বক্স অফিসে ভাল ফল করছে। আর সোশ্যাল মিডিয়া দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। ‘বার্বি’, ‘ওপেনহাইমার’-এর এই দাপট থেকে বাংলার স্বর্ণযুগের তারকারাও বাদ গেলেন না।

উত্তম, সৌমিত্র, সুচিত্রা

‘গ্রাফিকরাজ’ নামের একটি প্রোফাইল থেকে তিন তারকার এই ছবি পোস্ট করা হয়েছে। যেখানে ‘বার্বি’ সুচিত্রা সেনের মাথায় সোনালি চুল আর গায়ে গোলাপি পোশাক। অন্যদিকে ‘কেইন’ হিসেবে দিব্যি মানিয়ে গিয়েছে উত্তমকুমারকে। সবেচেয়ে বেশি বোধহয় মানিয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে। মাথায় টুপি, পরনে স্যুট, চিন্তাশীল মুখে কিংবদন্তি অভিনেতা যেন জে. রবার্ট ওপেনহাইমারের সঙ্গে একাত্ম হয়ে গিয়েছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায়, ‘বার্বি’ সিনেমার নায়ক-নায়িকা হিসেবে হৃতিক-কঙ্গনার একটি ভিডিও-ও ভাইরাল হয়েছে। ‘কৃষ ৩’, ‘কাইট’-এর মতো সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করেছিলেন দুই তারকা। এরপরই দু’জনের প্রেমের খবর প্রকাশ্যে আসে। তা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়। এখন দু’জন দু’জনের ছায়াও এড়িয়ে চলেন। সেই হৃতিক-কঙ্গনাকে কিন্তু ‘বার্বি’ এডিটেড ট্রেলারে দিব্যি মানিয়ে গিয়েছে, এমনটাই মত নেটিজেনদের।

Advertisement
Advertisement
মন্তব্য করতে ক্লিক রুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন লগিন

রিপ্লাই দিন

টলিউড

নীল বাতি বিতর্কে টালিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান

Published

on

সাংসদ পদ নেই, তবুও নীল বাতির গাড়ি ব্যবহার করছেন টালিউডের আলোচিত অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। শনিবার (১৩ জুলাই) কলকাতা শহরে এক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হন অভিনেত্রী। ঐ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে নীল বাতির গাড়ি এবং সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষী নিয়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তবে সেদিনের ঘটনার পর থেকেই বিতর্কে জড়াননি নুসরাত।

বিতর্ক তৈরি হয় গেল রোববার (১৪ জুলাই) আম্বানিদের বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার দিন। বিমানবন্দরে স্বামী যশ দাশগুপ্তের সঙ্গে নুসরাতকে দেখা যায় নীল বাতি গাড়িতে। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরই বিতর্কে জড়ান অভিনেত্রী। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল হতে শুরু করেন। যদিও এসব ট্রলকে কখনও পাত্তা দেননি নুসরাত।

২০১৯ থেকে ২০২৪ সাল পর্যন্ত ভোটে জিতে পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট কেন্দ্রের সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। সরকারি নিয়ম মেনে পাঁচ বছর ব্যবহার করেন নীল বাতির গাড়ি। কিন্তু ২০২৪ এর লোকসভা ভোটে টিকিট পাননি অভিনেত্রী। তারপরও আইনের বাইরে গিয়ে যাতায়াতে নীল বাতি গাড়ি ব্যবহার করছেন। যা নিন্দার ঝড় তুলেছে নেটিজেনদের মধ্যে।

তবে নুসরাত ভক্তরা বলছেন, নায়িকার গাড়িতে নীল বাতি জ্বলতে দেখা যায়নি। এদিকে নুসরাতেরও একই দাবি। যাতায়াতে নীল গাড়ি ব্যবহার প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমকে নুসরাত বলেন, গাড়িতে নীল বাতি থাকলেও তা জ্বালানো হয়নি। আবার এ বাতি খোলার চেষ্টাও করা হয়নি। কারণ জানিয়ে নুসরাত বলেন, যদি গাড়ির নীল বাতি খোলার চেষ্টা করা হয় তবে সে বাতির জায়গা দিয়ে পানি পড়ার সমস্যা দেখা দেয়। তাই গাড়ির নীল বাতি আর খোলা হয়নি। সার্ভিস সেন্টারে নিয়ে গেলে সমস্যার সমাধান হবে, তবে সময়ের অভাবে নেওয়া হয়নি।

এসআই/

Advertisement
পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

টলিউড

এক বর্ষায় প্রেমের শুরু, আরেক বর্ষায় সোহিনী-শোভনের বিয়ে

Published

on

অবশেষে বিয়ে করলেন টালিউডের জনপ্রিয় তারকা জুটি সোহিনী সরকার ও শোভন গঙ্গোপাধ্যায়। অনেকদিনের দেয়া কথা মতোই ১৫ জুলাই আইনি মতে বিয়ে সেরে অভিনেত্রীকে সিঁদুরে রাঙালেন শোভন। সোমবার রাতে বিয়ের মুহূর্তের একাধিক ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন সোহিনী।

দেখা হওয়ার এক বছরের মধ্যেই যে তারা গাঁটছড়া বাঁধলেন সেই কথাই পোস্টের মাধ্যমে সুস্পষ্ট করে দিলেন অভিনেত্রী। সোহিনী তার পোস্টে লেখেন, ‘দেখা হওয়ার এক বছরে/একই সাথে একই ঘরে।’

বিয়েতে সোহিনী পরেছিলেন পেয়াঁজ রঙের বেনারসি এবং সাদা ব্লাউজ। সঙ্গে গয়না হিসেবে গলায় ছিলো সোনার চোকার ও হার এবং কানে ঝুমকো। এছাড়া বাদ যায়নি তার পছন্দের নোলক ও টিকলি। এদিন অভিনেত্রী খোঁপা সাজিয়েছিলেন জুঁই ফুলের মালায়।

অন্যদিকে শোভন সাদা পাঞ্জাবিতে বর সেজেছিলেন। একটি ফার্ম হাউজে এদিন তাদের বিয়ের আসর বসেছিল। সেখানেই তাদের কখনও পুকুর পাড়ে কখনও সিঁদুরদানের পর নানা পোজে ছবি তুলতে দেখা গিয়েছে। একটি ছবিতে সোহিনীকে সিঁদুর পরিয়ে তার গালে চুমু খেতে দেখা যাচ্ছে শোভনকে।

গেল বছর থেকে রণজয় বিষ্ণুর সঙ্গে সোহিনী সরকারের বিচ্ছেদের খবর রটে যাওয়ার পর থেকেই কানাঘুষোয় শোনা যায়,  দুজনে সম্পর্কে আছেন। তাদের একাধিক ঘরোয়া পার্টিতেও একসঙ্গে দেখা যেতে থাকে। এমনকি একই সঙ্গে একই জায়গায় ঘুরতে গিয়ে আলাদা আলাদা ছবি পোস্ট করেন তারা, যা দেখে সহজেই দুইয়ে দুইয়ে চার করেন ভক্ত-অনুরাগীরা। চলতি বছরের শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছিল জুলাই মাসে সাতপাকে বাঁধা পড়বেন তারা। অবশেষে সেই গুঞ্জনই সত্যি হল।

Advertisement

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

টলিউড

রাফির বক্তব্য মিথ্যা দাবি করলেন টলিউড সুপারস্টার দেব

Published

on

ঢাকাই সিনেমার তরুণ নির্মাতা রায়হান রাফি কলকাতার দেব ও জিৎকে নিয়ে কাজ করতে যাচ্ছেন, প্রস্তাবটা নাকি টলিউডের দুই সুপারস্টারের কাছ থেকেই পেয়েছেন রাফি- এমন একটি সংবাদের অংশ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে দেব জানিয়েছেন, সত্য নয় অর্থাৎ মিথ্যা। মানে রাফির সেই বক্তব্য মিথ্যা।

ওই অংশে লেখা ছিল তুফান রিলিজের পর তার সাফল্য দেখে দেব ও জিৎ দুজনই আমাকে তার সাথে কাজের প্রস্তাব দিয়েছেন। আমি এখনো কাউকে কনফার্ম করিনি। এক সাক্ষাৎকারে এমনটা দাবি করেছেন রায়হান রাফি।

তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সম্প্রতি এক পডকাস্ট সাক্ষাৎকারে হুবহু রাফি এমনটা বলেননি- তবে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন । ঐ পডকাস্টে রাফি বলেন, দুই বাংলায় এখন এত বড় ব্যবসা কেউ দিতে পারছে না। স্বভাবতই ওপার বাংলার দেব এবং জিতের প্রসঙ্গ বারবার আসে।

সেখানে কলকাতার ছবি নির্মাণের প্রস্তাব আসে কি না, তানভীর তারেকের এমন প্রশ্নে রায়হান রাফি তার উত্তরে বলেন, আসলো তো অনেকগুলা। এবার আসতেছে অনেকগুলা, তুফানের পর। বড় দুইজন স্টারের কাছ থেকে অফার এসেছে এই তুফানের পরে। নাম না বলি। এখনও হ্যাঁ, না কিছুই বলা হয়নি। আমার গল্পের জন্য যাকে লাগবে তাকে নিব।

এই মুহূর্তে ওপার বাংলায় দুই বড় স্টার দেব ও জিৎ। আর স্পষ্টতই রাফি সেদিকেই ইঙ্গিত করেছেন বলে মনে করছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা। তবে দেব সরাসরি বলে দিলেন এমন কোনো ইচ্ছে তার নেই।

Advertisement

এসআই/

পুরো পরতিবেদনটি পড়ুন

সর্বাধিক পঠিত