Connect with us

চট্টগ্রাম

মৃত সাজিয়ে জমি নিয়েছে নাতি, আদালতে জীবিত দাদি

Published

on

শিলাবৃষ্টি

নিজের দাদি এবং বাবাকে মৃত সাজিয়ে প্রায় ৫১ শতক জমি আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে তারিফ হোসেন নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় চট্টগ্রাম চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দলিল জালিয়াতির একটি মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

গেলো ২৬ অক্টোবর দায়ের করা মামলা সূত্রে জানা যায়, ৭৫ বছর বয়সী শরীফা খাতুন মিরসরাই উপজেলার ৯ নম্বর সদর ইউনিয়নের ৫১ শতক জমির মালিক। শুরুতে তিনি মৃত বলে ওয়ারিশ সনদ বানানো হয়। সনদটিতে তার মেয়ের নাম বাদ দিয়ে একমাত্র ছেলে নিজাম উদ্দিনের নাম উল্লেখ করা হয়। এরপর ওই নিজাম উদ্দিনকেও মৃত ঘোষণা দিয়ে আরেকটি ওয়ারিশ সনদ বানানো হয়। ওই সনদে নিজাম উদ্দিনের দুই ছেলে এবং স্ত্রী উত্তরাধিকার বলে উল্লেখ করা হয়। যদিও নিজাম উদ্দিনের দুই মেয়ে রয়েছে। এরপর নিজাম উদ্দিনের স্ত্রী এবং এক ছেলের সম্পত্তি বড় ছেলে তারিফ হোসেনকে হেবা (দান) করে দিয়েছেন বলে রেজিস্ট্রেশন করা হয়। সাব-রেজিস্ট্রার অফিসে বানানো সেই দলিল দিয়ে বৃদ্ধা শরীফা খাতুনের সম্পত্তি সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয় থেকে নামজারি করে নেয়া হয়।

এ ঘটনা জানতে পেরে কোনো উপায় না দেখে মৃত সাজানো বৃদ্ধা শরীফা খাতুন দ্বারস্থ হন আদালতের। বিচারকের সামনে দাঁড়িয়ে নিজে জীবিত আছেন বলে জানান। মামলায় নাতি তারিফ হোসেন (২৪), শরীফুল ইসলাম (১৯) এবং পুত্রবধূ কামরুন নাহারকে (৪৫) বিবাদী করেন শরীফা খাতুন।

এদিকে মামলার আবেদন শুনে ও নথি পর্যালোচনা করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) এক মাসের সময় বেঁধে দেন আদালত। তবে চাঞ্চল্যকর এই মামলা দায়েরের দুই মাস অতিবাহিত হলেও এখনও দৃশ্যমান কোনো তৎপরতা দেখা যায়নি। উল্টো বাদীকে ঘনঘন পিবিআই অফিসে না আসার জন্য বলেন তদন্ত কর্মকর্তা।

তবে তদন্ত কর্মকর্তা অভিযোগ অস্বীকার করে কার্যক্রম চলমান আছে বলে দাবি করেন।

Advertisement

স্থানীয়দের কাছ থেকে খোঁজ নিয়ে ও ভুক্তভোগী বৃদ্ধার নথি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, শরীফা খাতুনের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের সদর ইউনিয়ন এলাকায়। ১৯৮৫ সালে তার স্বামী রেনু মিয়া নিজের পৈতৃক বাড়ি বিক্রির টাকার কিছু অংশ দিয়ে মোট ১৪৫ শতক জমি ক্রয় করেন। এসবের মধ্যে স্ত্রী শরীফা খাতুন ও ছেলে নিজামের নামে ৫১ শতক করে কেনেন। বাকী ৪৩ শতক রাখেন নিজের নামে। এরপর ২০২০ সালে নিজের অংশ মেয়ে নুরজাহান বেগমকে হেবা করে দেন তিনি। ৫১ শতক জমি নিজাম নিজে ভোগ করে আসছে। আর ৫১ শতাংশ মা শরীফা খাতুনের দখলে ছিল। এরপরই সেই জমিতে নজর পড়ে নিজাম উদ্দিনের ছেলে তারিফ হোসেন ও তার মা কামরুন নাহারের।

নথি পর্যালোচনা করে আরও দেখা যায়, ৫১ শতক জমি নিজের করতে শুরুতে শরীফা খাতুন মৃত বলে ওয়ারিশ সনদ বানান তারিফ। মিরসরাই সদর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চলতি বছরের ১৫ মে ইস্যু করা হয় ওই সনদ। ১০৪/২২ নম্বরের সনদটিতে শরীফা একমাত্র ছেলে নিজাম উদ্দিনকে উত্তরাধিকার রেখে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়। সে হিসেবে ৫১ শতক জমির মালিক হন নিজাম। যদিও শরীফা খাতুনের নুরজাহান নামে এক মেয়ে রয়েছেন।

দ্বিতীয় পর্যায়ে নিজাম উদ্দিনকে মৃত সাজিয়ে আরেকটি ওয়ারিশ সনদ বানানো হয়। ১৫ মে তারিখে সনদটিও মিরসরাই সদর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ইস্যু করা হয়। ১০৫/২২ নম্বরের সনদটিতে নিজাম উদ্দিন মৃত্যুকালে স্ত্রী কামরুন নাহার, ছেলে তারিফ হোসেন ও শরীফুল ইসলামকে উত্তরাধিকার রেখে গিয়েছেন বলে উল্লেখ করা হয়। যদিও নিজাম উদ্দিনের তাহমিনা আক্তার ও ফাহিমা আক্তার নামে দুই মেয়ে রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান।

ওয়ারিশ সনদ দুটির বিষয়ে জানতে চাইলে মিরসরাই সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামছুল আলম বলেন, সনদ দুটি কোনো দোকান থেকে স্ক্যান করে বানানো হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে এরকম কোনো সনদ দেয়া হয়নি। পরিষদ থেকে দেয়া ১০৪/২২ নম্বর ওয়ারিশ সনদটি মৃত উজ্জ্বল মিয়ার। এছাড়া ১০৫/২২ নম্বর সনদটি মৃত বিবি সলিমার উত্তরাধিকারদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দেয়া হয়েছে। এই দুটি সনদের ফটোকপি আমি শরীফা খাতুনকে দিয়েছি।

এদিকে, দুটি ওয়ারিশ সনদ বানিয়ে শরীফা খাতুনের সম্পত্তির মালিক বনে যান তারিফ হোসেন, তার ভাই শরীফ এবং মা কামরুন নাহার। এরপর ২২ মে স্থানীয় সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে গিয়ে কামরুন নাহার ও তার ছেলে শরীফের অংশ তারিফকে দান করে দেন। ২৯০৬ নম্বর দান ঘোষণাপত্র অনুযায়ী- ৫১ শতক জমির মালিক হয় তারিফ। একপর্যায়ে তারিফ এসব জমি নিজের নামে খতিয়ান সৃজন করতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ে আবেদন করেন। কোনোপ্রকার তদন্ত ছাড়া আবেদন মঞ্জুর হলে তারিফ হোসেনের নামে ৩০৯৭ নম্বর খতিয়ান সৃজন হয়।

Advertisement

জানতে চাইলে হেবা দলিল লেখক খোরশেদ আলম বলেন, আমি আট বছর ধরে দলিল লিখি। এ ধরনের ওয়ারিশ সনদ জাল করার ঘটনা এবারই প্রথম। আমার কাছে তারিফ এবং তার মা কামরুন নাহার এসে দলিলটি লিখিয়েছেন। আমি কাগজপত্র অনুযায়ী লিখে দিয়েছি। ওয়ারিশ সনদ জাল ছিল আমি জানতাম না। পরে শুনি নিজাম উদ্দিন এবং শরীফা খাতুন দুজনেই জীবিত আছেন।

তদন্ত ছাড়া তারিফের নামজারি আবেদন অনুমোদনের বিষয়টি জানতে মিরসরাইয়ের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মিজানুর রহমান ও একই কার্যালয়ের সার্ভেয়ার মো. তোফায়েল আহমেদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত তারিফের ব্যবহৃত দুটি মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে তাদের পারিবারিক নম্বরে ফোন করলে অভিযুক্তর ছোট ভাই শরীফুল ইসলাম রিসিভ করেন। তিনি শুরুতে ঘটনার বিষয়টি অবহিত নয় বলে দাবি করেন। এমনকি পিবিআইয়ের কাছে তদন্তে থাকা মামলার বিষয়টিও অবহিত নন বলেও দাবি করেন।

তবে কথাবার্তার একপর্যায়ে তিনি জানান, এরকম নামজারি হয়ে যাওয়ার বিষয়টি আমরা শুনেছি। এক প্রতিবেশী থেকে আমরা ১০ লাখ টাকা পাই। তিনি হয়তো আমাদের ফাঁসানোর জন্য জালিয়াতির কাজটা করতে পারেন। তাছাড়া বিষয়টি নিয়ে ভূমি অফিস থেকে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। আমরা তাদের বলেছি- জায়গাটি নিয়ে আমাদের কোনও দাবি নেই। এরপর শুনেছিলাম বিষয়টি সমাধান হয়ে গেছে।

Advertisement

কান্নাজড়িত কণ্ঠে শরীফা খাতুন বলেন, বৃদ্ধ স্বামীকে নিয়ে আমি মেয়ের বাড়িতে থাকি। ছেলের বউ ও নাতিরা মিলে জাল দলিল করে আমার সম্পত্তি লিখে নিয়েছে। এই বুড়ো বয়সে আমাকে আদালত ও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে দৌড়াদৌড়ি করতে হচ্ছে। পিবিআই অফিসেও আমরা দুইবার গেছি। কিন্তু তেমন সাড়া পাচ্ছি না।

পিবিআইয়ের তদন্তে ধীরগতির বিষয়ে ক্ষোভ জানিয়ে শরীফা খাতুনের আরেক নাতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আদালত পিবিআইকে একমাসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার আদেশ দিয়েছেন। আমরা দুইবার তাদের অফিসে গিয়েছিলাম। তবে দ্বিতীয়বার যাওয়ার পর তদন্ত কর্মকর্তা আমাদের ঘনঘন অফিসে যেতে বারণ করেন। কেন করেছেন জানি না। আমরা চাই পিবিআই দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবেন এবং আমরা ন্যায়বিচার পাব।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এস এম দিদার উদ্দিন বলেন, আমার মৃত সাজানো মক্কেল শরীফা খাতুন জীবিত। তিনি আদালতে দাঁড়িয়ে মামলাটি করেছেন। এই ধরনের চাঞ্চল্যকর মামলা তদন্ত করতে পিবিআইকে আরও দায়িত্বশীল হওয়া উচিত ছিল। আদালতের আদেশ মোতাবেক যথাসময়ের মধ্যে তদন্ত কর্মকর্তার প্রতিবেদন দাখিল করা উচিত ছিল। যাই হোক ন্যায়বিচারের স্বার্থে পিবিআই সুষ্ঠু প্রতিবেদন দ্রুত সময়ের মধ্যে দাখিল করবে বলে আশা করছি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পিবিআই চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটে কর্মরত পরিদর্শক মো. আকতার হোসেন বলেন, তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর আমি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দিয়েছি। বাদীপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। বাদী যেহেতু বৃদ্ধা, তাই ঘনঘন অফিসে আসতে মানা করেছি। সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে চিঠির উত্তর এলে বিবাদীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে। তাদের ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে যাবতীয় প্রমাণ সংগ্রহ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, মনে হচ্ছে এ ধরনের জালিয়াতিতে স্থানীয় একটি চক্র জড়িত। ওই চক্রটিকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। যেহেতু জালিয়াতি মামলাটি দালিলিকভাবে প্রমাণ করতে হবে, সেজন্য বাদীপক্ষকে একটু ধৈর্য ধরতে হবে।

Advertisement

জাতীয়

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
আবহাওয়া11 hours ago

ফেব্রুয়ারি মাসে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড় হতে পারে

চলতি মাসে দুটি মৃদু বা মাঝারি ধরনের শৈত‌্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। একইসঙ্গে শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড়ের শঙ্কা রয়েছে। তবে মাসের দ্বিতীয়ার্ধে শীত...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
জাতীয়11 hours ago

আইএমএফের ঋণের প্রথম কিস্তির ৪৭৬.১৭ মিলিয়ন ডলার পেলো বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ঋণের প্রথম কিস্তির ৪৭৬ দশমিক ২৭ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে বাংলাদেশ। এর ফলে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
অর্থনীতি13 hours ago

বাংলাদেশ সফর আসছেন বেল‌জিয়ামের রানি

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অ্যাডভোকেট হিসেবে বাংলাদেশ সফরে আসছেন বেলজিয়ামের রানি মাথিল্ডে। এটি বেলজিয়ামের কোনো রানির...

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
জাতীয়14 hours ago

ভারত সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী

জি-২০ সম্মেলনে অংশ নিতে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে ভারত সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের সম্মেলনে বাংলাদেশকে ‘অতিথি রাষ্ট্র’ হিসেবে...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
অপরাধ14 hours ago

জানুয়ারিতে সীমান্তে ১৩০ কোটি ৬৩ লাখ টাকার চোরাচালান পণ্য জব্দ

নতুন বছরের প্রথম মাসে দেশের সীমান্ত এলাকাসহ অন্যান্য স্থানে অভিযান চালিয়ে এ পণ্য জব্দ করা হয়েছে। ১৩০ কোটি ৬৩ লাখ...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
জাতীয়14 hours ago

হিরো আলমের অভিযোগ খতিয়ে দেখার নির্দেশ সিইসির

বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের উপনির্বাচনে একতারা প্রতীকের আলোচিত স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলমের ফল পাল্টানোর অভিযোগ খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্ট...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
জাতীয়15 hours ago

একলাফে দাম বাড়লো এলপিজি সিলিন্ডারের

ভোক্তা পর্যায়ে দাম বাড়ল তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি)। এক ধাক্কায় ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম বাড়ানো হয়েছে ২৬৬ টাকা। ফলে নতুন...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
অপরাধ15 hours ago

নোয়াখালীতে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার

নোয়াখালী সদরে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন এক নারী (৪২)। অভিযুক্ত ব্যক্তি হলেন তারই সাবেক...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
আইন-বিচার15 hours ago

একদিন করে বাবা ও মায়ের কাছে থাকবে ছোট মেয়ে লায়লা লিনা

পারিবারিক আপিল আদালতে আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জাপানি দুই শিশুর মধ্যে ছোট শিশু লায়লা লিনা বাবার কাছে একদিন ও...

শিলাবৃষ্টি শিলাবৃষ্টি
অর্থনীতি16 hours ago

যারা খাদ্যে ভেজাল দেয় তারা নীরব ঘাতক: খাদ্যমন্ত্রী

যারা খাদ্যে ভেজাল দেয় তারাই সাইলেন্ট কিলার। এই কাজ যারা করছে, তাদের কাছে আমাদের পৌঁছাতে হবে। সবাই মিলে তাদের বিরুদ্ধে...

Advertisement

আর্কাইভ

February 2023
MTWTFSS
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728 
শিলাবৃষ্টি
আন্তর্জাতিক10 hours ago

২০২৭ এশিয়ান কাপ ফুটবল অনুষ্ঠিত হবে সৌদি আরবে

শিলাবৃষ্টি
আবহাওয়া11 hours ago

ফেব্রুয়ারি মাসে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড় হতে পারে

শিলাবৃষ্টি
জাতীয়11 hours ago

আইএমএফের ঋণের প্রথম কিস্তির ৪৭৬.১৭ মিলিয়ন ডলার পেলো বাংলাদেশ

শিলাবৃষ্টি
ক্রিকেট11 hours ago

বাংলাদেশ সফরে ইংল্যান্ডের দল ঘোষণা, থাকছে এক চমক

শিলাবৃষ্টি
দেশজুড়ে11 hours ago

নির্বাচনে হেরেও মিষ্টিমুখ করান হিরো আলম

শিলাবৃষ্টি
দেশজুড়ে13 hours ago

নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পরিবর্তন হবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

শিলাবৃষ্টি
অর্থনীতি13 hours ago

বাংলাদেশ সফর আসছেন বেল‌জিয়ামের রানি

শিলাবৃষ্টি
ক্যাম্পাস13 hours ago

কুবি বাংলা বিভাগের নতুন প্রধান ড. মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকী

শিলাবৃষ্টি
রাজশাহী13 hours ago

বরই গাছে ঢিল ছুড়তে নিষেধ করায় যুবককে হত্যা

শিলাবৃষ্টি
অর্থনীতি14 hours ago

বাংলাদেশ চীনের প্রতি কৃতজ্ঞ : বাণিজ্যমন্ত্রী

শিলাবৃষ্টি
এশিয়া2 days ago

নেচে ভাইরাল ইরানি সেই জুটির ১০ বছর কারাদণ্ড

শিলাবৃষ্টি
আওয়ামী লীগ2 days ago

সাহস থাকলে দেশে আসুন, তারেককে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

শিলাবৃষ্টি
জাতীয়3 days ago

শূন্যরেখায় এখন কোনো রোহিঙ্গা নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শিলাবৃষ্টি
বিএনপি3 days ago

বিএনপির এ পদযাত্রা ‘গণতন্ত্রের’ জয়যাত্রা : মির্জা ফখরুল

বিএনপি
আওয়ামী লীগ4 days ago

আওয়ামী লীগ কখনো পালিয়ে যায়নি : কাদের

শিলাবৃষ্টি
জাতীয়4 days ago

গণতন্ত্র ছিল বলেই উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

শিলাবৃষ্টি
আফ্রিকা4 days ago

কোরআন থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে খেজুরের তেল তৈরি করলেন এক ব্যক্তি

শিলাবৃষ্টি
ফুটবল4 days ago

গার্ডিয়ানের তালিকায় বর্ষসেরা ফুটবলার মেসি, শীর্ষে ব্রাজিলিয়ানরা

শিলাবৃষ্টি
রাজশাহী5 days ago

বগুড়ায় হিরো আলমের প্রচারে নায়িকা মুনমুন

শিলাবৃষ্টি
ফুটবল5 days ago

মার্টিনেজের আচরণের পর আইন পরিবর্তন যাচ্ছে ফিফা

সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক : সৈয়দ আশিক রহমান

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বেঙ্গল টেলিভিশন লিমিটেড , ৪৩৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৫
ফোন : 01878-184154, ই-মেইল : contact.bayannotv@gmail.com
© 2022 bayanno.tv